আমি কখনোই কিছু বলিতে পারি না -৩

[দেরীতে লেখা প্রকাশ করার অভিমানে “ব্লগের এডু এবং মডু-দের উপরে মাইন্ড খাইয়া” হাল না ছাড়ার পণ করিয়া লিখিতেই থাকিবই ভাবিতেছি ]

কেসঃ ১৪
আগেই বলেছিলাম, আমারে nobody ever counted (কেউই কখনো গুনতো না), এই যে…এডু এবং মডু-রাও আমার আগের লেখাটারে চাইর ঘন্টা ধইরা মারলো!!!!

কলেজে ছোটকালে একটা বড় দুঃখ ছিল প্রায়ই সিনিয়র ভাইয়ের মধ্যে থেকে কেউ বলে উঠতেন, “তুমি যেন কোন হাঁস???”
যতই বড় হলাম……,দুঃখটা কমলো ত না-ই…বরং বাড়তে লাগলো।
ক্লাস সেভেন-এ তো তাও শুধু খায়বার হাউসের সিনিয়র ভাইয়ের মধ্যেই (ইউসুফ ভাই, ইকবাল ভাই, সাজ্জাদ ভাই, মুসায়েদ ভাই, লুৎফুল ভাই, ইত্যাদি) সীমাবদ্ধ ছিল, ক্রমেই তা সারা কলেজে ছড়ালো।শেষমেশ ব্যাপারটা সিরিয়াস হয়ে গেলো!!!!!
ক্লাস ইলেভেন-এ বাসায় এসেছি…সু্যোগ পেলেই পছন্দের মেয়েটির বাসার আশেপাশে ঘুরঘুর করি, সেই বাসায় যাই…
একদিন সেই বাসার কাছে যেতে-ই শুনি, মেয়েটির বড়বোন তাকে ডাকছে…”ব*, দেখে যা, তোর হাঁস তোকে একটু দেখার আশায় এসেছে!!”
……………………………………………………………………………………………………………………………..
আমি কিছুই বলিতে পারিলামনা……,কিছুই বলিতে পারিলাম না…………

কেসঃ ১৫

আমাদের ব্যাচের মধ্যে আমি কখনওই অতি সেরা সারির ছিলামনা। আমারে কেন জানি কেউ-ই সেইরকম গ্রুপ-এ নিতনা। আমি না খাইতাম (এখনও পর্যন্ত) বিড়ি, না করিতাম পান, না দেখিতাম ৩……এমন নয় যে আমার ইচ্ছা নাই…, আসলে সাহস-ই বোধহয় কম ছিল। কিন্তু শেষমেশ যখন এসএসসি-র পরে খুলনা গেলাম, খা**-এর বাসায় দাবায়া সারাদিন দেখলাম (আমরা প্রায় ২২ জন)। এমনই কপাল, রুম থাইকা বাহির হইয়া প্রথম ধরা খাওয়া পাবলিক আমি-ই হইলাম!!! শুনতে হইলো “রোজা রমজানের দিনে তোমার মতন ছেলেপেলে *ই দেখে??*খায়??*করে???”
…………………………………………………………………………………………………………………………….
আমি তখনও কিছুই বলিতে পারিলামনা……,কিছুই বলিতে পারিলাম না…………

কেসঃ ১৬
আমারও মাঝে মাঝেই অন্যসব ক্যাডেটদের মতোই সিনিয়র আপুদের জন্যে জান ফাতাফাতা হইতো।
এমনই এক (মাত্র ৭ বছর) সিনিয়র আপুকে পটানোর পণ করে তার বাসায় গেছি।
এমনই কপাল, গিয়ে পড়েছি এমন এক সময়ে……, যখন তার “প্রেমে দিওয়ানা” প্রাইভেট টিচার তাকে পড়াতে এসেছে।
তারপরেও আপু-ও হাল ছাড়েননা, বলেন…”তুমি না হয় আমার ছোটবোনের সাথে একঘন্টা বাগানে ঘোরাঘুরি করো!”
আমি আমসি মুখে সেই সুন্দরী (এবং রিস্কি…কারণ আমার-ই জনৈক বন্ধু তাকে ভালবাসে! ) মেয়ের সাথে বাগানে একঘন্টা থাকলাম…………
অনেক দিন পরে আমার প্রেমিকার সাথে কি নিয়ে যেন কথা কাটাকাটি চলছে, সে হঠাৎ বেল্ট-এর নীচে আঘাত করে বলে উঠলো, “তোমার চরিত্র আমি ভালোই জানি…বলো তুমি শা***র সাথে ওদের বাগানে ঘন্টার পর ঘন্টা হাত ধরাধরি করে হাঁটোনি????? ও আমারই বান্ধবী, আমাকে বেশ রসিয়ে রসিয়েই তোমার হাত ধরে বাগানে ঘন্টার পর ঘন্টা হাঁটার গল্প করেছে!!!”
…………………………………………………………………………………………………………………………….
আমি শুধু বলিলাম, এইটুকুন, আর কিছু নয়? তারপর মৃদু প্রতিবাদ করিতে গিয়াও কেঁচো খুঁড়িতে অ্যানাকোন্ডা বাহির হইয়া আসিবার ভয়ে কিছুই বলিতে পারিলামনা……,কিছুই বলিতে পারিলাম না…………
[*আজকের মতন ইতি টানিলাম। এডু ভাই এবং মডু ভাই, আবার যেন এইডা পাবলিশ হইতে বেশি দেরী না হয়!! নাইলে কিন্তু “সেরাম হবেনে”]
………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………………….

১,১২৭ বার দেখা হয়েছে

২১ টি মন্তব্য : “আমি কখনোই কিছু বলিতে পারি না -৩”

  1. রাশেদ (৯৯-০৫)

    নাহ ভাই পুরান একটা লেখা পড়ে মন টা খারাপ হয়েছিল কিন্তু আপনার এই লেখাটা পড়ে মন আস্তে আস্তে ফর্মে আসছে । ধন্যবাদ ভাইয়া ।


    মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়

    জবাব দিন
  2. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)
    তুমি শা***র সাথে ওদের বাগানে ঘন্টার পর ঘন্টা হাত ধরাধরি করে হাঁটোনি?????

    আপুটারে আমি খুব ভালা পাইতাম...
    :hug: সরি, রঙ ইমো... 😡


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  3. রেজওয়ান (৯৯-০৫)

    ভাই একদিনেই পুরা কাপাইয়া দিয়া গ্যালেন...আইজকার মত মজা জীবনে বহুদিন পাই না... :khekz: এখনও থাম্বার চায় না :goragori: কি যে করি :khekz:
    এভাবেই লিখতে থাকেন...কষ্ট করে আমাদের জন্য সময় বাইর কইরা :hatsoff:
    আবার হাওয়া হইয়া যাবেন না যেন 😀

    জবাব দিন
  4. রহমান (৯২-৯৮)

    ঝিনাইদহ রে তো জুলহাস ভাই একাই অনেক টেনে নিয়ে যাবে বলে মনে হচ্ছে। এক দিনে ৩ টা লেখা 😮 ??? সাথে আবার ইউসুফ ভাইকেও বেশ সক্রিয় মনে হচ্ছে 😉

    লেখা ভাল হচ্ছে জুলহাস ভাই :thumbup: :thumbup:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।