চন্দ্রনাথ পাহাড় এবং গুলিয়াখালি সি বীচ ভ্রমণ

মাঝে মাঝে নিজের মন কে ছুটি দিতে হয় এই শহুরে কোলাহল থেকে। ক্লান্ত-শ্রান্ত মন কে নিয়ে যেতে হয়  প্রকৃতির কাছে, সবুজের মাঝে। এজন্যই গত সপ্তাহে ঘুরতে গিয়েছিলাম সীতাকুণ্ড এর চন্দ্রনাথ পাহাড়ে।

শহর থেকেমাত্র ২৫ কিমি দূরেই সীতাকুণ্ড। সেখানে সিএনজি অটো বা মাইক্রো ভারা করে আপনি সহজেই যেতে পারেন। আমরা ১৩ জন মিলে লেগুনা ভাড়া করেছিলাম। সকাল ৮ টায় চিটাগাং এ কে খান বাস স্টপ থেকে যাত্রা শুর করে দেড় ঘন্টার মধ্যেই পৌঁছে যাই।

বিস্তারিত»

এই বেশ আছি

এই বেশ আছি।
থাকা না থাকায় আছি; দেখা না দেখায় আছি।

জীবন অচল ভেবেছো যাকে ছাড়া, সে দিব্যি চষে বেড়াচ্ছে পৃথিবী।

ফিরবে আবার ক্লান্ত এ’মুখো হয়ে রোজকার মতো।
পথ তাঁর ঠিকই ফুরোবে শুধু ক্ষয়ে যাবে সময়,
বদলে যাবে আশপাশটা।
ধ্রুপদী অস্পষ্টতায়ে মলিন হবে ভাবনারা
বটের পাতার মতো নুয়ে রোদপোড়া মুখটা হয়তো ঢেকে দেবো না আর।
কালো-কষ্টের রং নদীর মৌনতায় ধুয়ে যাবে;

বিস্তারিত»

বোবার কান্না

‘রাজা, তোমার বাবা এখন কোথায়’?

ছোট ফুপির এ কথাটা শোনার সাথে সাথে রাজার দু’চোখ বেয়ে প্রথমে নীরবে ফোঁটা ফোঁটায়, পরে ঝর ঝর করে অশ্রু গড়িয়ে পড়তে লাগলো। ও কী বুঝলো, কী ভাবলো, কে জানে! ফুপি যখন এ প্রশ্নটা করেছিলো, তখন কেবলমাত্র ও ছাড়া ওদের বাড়ীর এবং আশে পাশের সব বাড়ীর পুরুষ লোকেরা গিয়েছে স্থানীয় মাসজিদে, জুম্মার নামাযে। তবে অন্যান্য দিনে জুম্মার নামাযের সময় এরকমভাবে সবার বাড়ী পুরুষ শূন্য থাকেনা বা হয়না।

বিস্তারিত»

ইডি কথন

শরীরটা ভালো না। আমার একটা পার্মানেন্ট অসুখ আছে। এটা আমার ব্যক্তিগত সম্পত্তিতে পরিণত হয়েছে। কিছুদিন পর পর ই এটা আসে এবং আমি এর আগমনের সিম্পটম গুলোর ক্রমধারা অবলীলায় বলে দিতে পারি। এই অসুখের অনেকগুলো উপসর্গের একটি উপসর্গ হচ্ছে মাথা ব্যাথা। মাথা ব্যাথা হলেই আমার কলেজের কিছু স্মৃতি মনে পড়ে যায়। অবশ্য স্মৃতি না বলে দু:সহ স্মৃতিও বলা যেতে পারে। এই মাথা ব্যাথা-ই আমার কলেজ জীবনের একটি স্মরণীয় ঘটনার কারণ হয়ে যায় পরবর্তীতে।

বিস্তারিত»

রোমাঞ্চের তীব্রতা

খুব সম্ভবত ঘটনাটা ১৯৯০-এর। আমরা তখন সবেমাত্র ক্লাস নাইনে উঠেছি। ক্যাডেট কলেজের জুনিয়র গ্রুপের মধ্যে সিনিয়র ক্লাস। একদিকে হালকা মাত্রার সিনিয়রিটির ভাব, অন্যদিকে আবার জুনিয়রের সামনেই মাঝে-মধ্যে প্রিফেক্ট, স্টাফ বা টিচারদের দ্বারা পানিশমেন্ট। এক আজব সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি আমরা তখন। প্রথম বয়োসন্ধির নাকের নিচে হালকা গোঁফের রেখা। এরই মধ্যে আবার দুয়েকজন এই হালকা গোঁফে লুকিয়ে রেজার চালিয়ে ফেলেছে। তাই নিয়ে আবার একেকদিন একেকজনকে নিয়ে চলে হাসাহাসি।

বিস্তারিত»

দাগ

১।
লোকটা মুচী না হয়ে, কোনো মাসাজ পার্লারেও কাজ করতে পারতেন! এমন সুনিপুণ হাতে জুতার উপর ব্রাশ ঘষছেন যে, আরামে জুতা যখন তখনই ঘুমিয়ে যেতে পারে। মুচী জনার্দন হলের কাছের ক্যাম্পাসের এ পাশটায় বেশ পরিচিত মুখ। তার হাতে পালিশ করা জুতা পরে, কত পদযুগলের মালিক আজ সমাজে উঁচু পদে অসিন হয়েছেন!
আজও যেমন একজনের ইন্টার্ভিউ। তার কাছেই জুতা পালিশ করাচ্ছে।
জনার্দনের বুট পালিশের সুগন্ধে একটা মাছি সেই তখন থেকেই পেরেক ঠোকার হাতুড়িটার উপর বসার চেষ্টা করছে।

বিস্তারিত»

‘আপনার সন্তানকে ক্যাডেটে দেবেননা’ শীর্ষক ব্লগের প্রতিক্রিয়া

১।

এবার বিশ্বকাপে জার্মানি প্রথম রাউন্ডেই বাদ পড়ায় আমরা বেশিরভাগই উল্লসিত হয়েছি। আর্জেন্টিনা (’৯০ ও ২০১৪ ফাইনালে পরাজয়) বা ব্রাজিলের (২০১৪ সালের কুখ্যাত ১-৭ পরাজয়) সমর্থকের তাও কিছুটা কারণ আছে, অন্যান্য দেশের সমর্থকদের উল্লসিত হবার কারণ কী? পরবর্তী রাউন্ডে সহজ প্রতিপক্ষ পাবে এই ভেবে? হ্যাঁ, এটি একটি যুক্তি। কিন্তু যুক্তিটি তেমন জোরালো নয়।

মূল কারণ হচ্ছে Schadenfreude, পরিহাসের মত শোনালেও শব্দটি জার্মান।

বিস্তারিত»

পৃথিবীর সেরা শার্ট!

বাবা যখন বাক্স থেকে বের করলেন সেই মুহূর্তেই আমি আর আমার ছোট ভাই ঠিক করেছিলাম-একবার পড়তে পারলে হয়, এই জিনিস আর গা থেকে খুলছি না!

বাবা যখন বাক্স থেকে বের করলেন সেই মুহূর্তেই আমি আর আমার ভাই ঠিক করেছিলাম-একবার পড়তে পারলে হয়, এই জিনিস আর গা থেকে খুলছি না!

অবশ্য, বাক্সটা যেদিন আমাদের সুইজারল্যান্ডের বাড়ির ঠিকানায় পৌঁছল সেদিন কিছু বুঝতে পারি নি।

বিস্তারিত»

সহমর্মিতা, শিষ্টাচার এবং ভব্যতার নান্দনিক দৃষ্টান্তঃ

গতরাতে ইংল্যান্ড আর কলাম্বিয়ার খেলাটা টান টান উত্তেজনা নিয়ে ১-১ গোলে শেষ হলো। ঘরোয়া আলোচনায় কেউ কেউ রেফারীর বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের পক্ষে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ আনছিলেন। বিশেষ করে ইংল্যান্ডের পক্ষে দেয়া ঐ পেনাল্টি কিকের বৈধতা নিয়ে। আবার কেউ কেউ কলাম্বিয়ার খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে অত্যধিক ফাউল করে খেলার অভিযোগ আনছিলেন। এসব আলোচনা সমালোচনার মাঝেই পেনাল্টি শুট আউট শুরু হলো। প্রথম মিসটা অবশ্য একজন ইংলিশ খেলোয়াড়ই করলেন। তারপরে একই অকাজ করলেন কলাম্বিয়ার দু’জন খেলোয়াড়।

বিস্তারিত»

আত্মকথনঃ শখের তোলা আশি টাকা

লেখাটা গত রাতে লিখেছি; রাত বারটার পরে এখানে পোস্ট করা হলো।

১. শুরুতেই সঙ্গীত শিল্পী/বোদ্ধা এবং শচিন-ভক্তদের কাছে অত্যন্ত বিনয়ের সাথে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।

২. বেশ খানিকটা ধৃষ্টতা হয়ে গেল। একালে শচিন দেব বর্মনের যে কয়জন ভক্ত বর্তমান, আমার জানামতে তাদের মধ্যে আমার বাবা (বাপিমনি) এক নম্বরে, আর দ্বিতীয়টা মনে হয় আমি। ভাগ্যিস বাপিমনি ফেসবুকে নেই; থাকলে আমার “গর্দান চলে যেত”

বিস্তারিত»

ব্রাজিল প্রি-ম্যাচ প্রিভিউঃ ব্রাজিল বনাম মেক্সিকোঃ রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮:

ব্রাজিল প্রি-ম্যাচ প্রিভিউঃ ব্রাজিল বনাম মেক্সিকোঃ রাশিয়া বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮:
==================================================================

রাউন্ড অফ সিক্সটিন (নক-আউট) পর্বে আজ বাংলাদেশ সময় ০২ জুলাই ২০১৮ (সোমবার), রাত ৮টায় মাঠে নামবে ব্রাজিল বনাম মেক্সিকো।

ব্রাজিলের যেরকম আক্রমণ ভাগ তাতে খুব সম্ভবত ৪-১-২-৩ এই খেলা শুরু করবে। তার মানে দাড়াচ্ছে বাম দিক থেকে শুরু করলে

৪-
(মার্সেলো- থিয়েগো সিলভা- মার্কুইনহোস- দানিলো)-
১ –

বিস্তারিত»

ভালবাসার উহ্য ভাষাঃ

“আজ সকালে Delights & Shadows কবিতার জন্য ২০০৪ সালে পুলিৎজার পুরস্কারপ্রাপ্ত ৭৯ বছর বয়স্ক আমেরিকান কবি Ted Kooser এর Porch Swing in September কবিতাটি পড়ছিলাম। কবিতাটি পড়ে কবি সম্বন্ধে জানতে তার ‘সংক্ষিপ্ত পরিচিতি’ তে গেলাম। সেখানে এক জায়গায় তার পরিবার সম্বন্ধে লেখা আছেঃ

He lives near the town of Garland, Nebraska, with his wife, Kathleen Rutledge, and their dogs, Alice and Howard. He also has a son,

বিস্তারিত»

নেইমার এর ফলস ডাইভ বা অতি ডাইভ আর ম্যানেজার তিতের মেনে নেয়া – ব্রাজিল প্রিভিউ বিফোর রাউন্ড অফ সিক্সটিন (রাশিয়া বিশ্বকাপ ২০১৮)

এই বিশ্বকাপে ব্রাজিল এর নম্বর টেন নেইমার এর ফলস ডাইভ বা অতি ডাইভের এর অতি প্রবণতা আজকাল অনেকেরই বিরক্তির কারণ হচ্ছে (এমনকি বেশির ভাগ সময় সামান্য ট্যাকেলও তিনি নিজের ভারসাম্যও রক্ষা করতে পারছেন না)। দলের ম্যানেজমেন্ট থেকেও এ ব্যাপারে তেমন কোন নেগেটিভ প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছেনা। এবং নেইমার ধীরে ধীরে ছন্দে ফেরার ইংগিত দিলেও অতি ডাইভ দেয়াটা মাঝেই মাঝেই প্রয়োগ করছেন। অনেক সমালোচনাও হচ্ছে (আমি নিজেও বিরক্ত,

বিস্তারিত»

শিথিল ভাবনা

মুঠোভরা সর্ষেদানা মুঠোয় ধরে রাখা যায় না।
সুরসুর করে একসময় সব পড়ে যায়,
মুঠো খালি হয়ে যায়।
কবির ভাবনাগুলোও যেন ঠিক তেমনি—
কবি যতই মাথায় ভরে রাখেন না কেন,
সুরসুর করে একসময় ওরা সবাই
কোথায় যেন হারিয়ে যায়! আবার-
শূন্য মাথায় নতুন ভাবনা এসে অকাতরে জড়ো হয়।

ঘাস বিচালি যা কিছুই মুঠোয় আঁকড়ানো হোক না কেন,

বিস্তারিত»

প্রথম প্রেম

প্রথম প্রেম

আমার প্রেমিকার সাথে আমার কথা হত ঠিক রাত বারোটায়,

শুরুতেই বলতাম, ইশ! কি কষ্ট সারাদিন দেখিনি।

কিভাবে পারে লোকে, এতো দূরে থাকতে!

একই পৃথিবীর নিচে তবু চলে অবলীলায় মিথ্যে শব্দচয়ন,

শুরু হত প্রেমালাপ, লোকের ভাষায় ছাইপাশ রসালাপ,

বিন্দু থেকে সিন্ধু, চলে যেত সময়। ভালোবাসা সস্তা খেলা

সেখান থেকেই হল জানা।

বিস্তারিত»