প্রতিকৃতি ও কান্না বারণ

কান্না বারণ

 

কান্নার শব্দে সাড়া মেলে না
চকিতে চোখ মুছে নেয় সে
গায়ের ধুলো ঝেড়ে ফেলে
দু’হাত পকেটে ঢুকিয়ে
মাথা একটু নিচু করে
শিস্ দিতে দিতে আগায়
একটু থামে চারিদিকে তাকায়
যাবতীয় দুঃখ গ্লানি হতাশা
পেরুবার সীমিত দরোজা
ক্রোধ কিংবা সফলতা
পুরুষ হবার পথে যাত্রা শুরু।

০৫   এপ্রিল  ২০২৪

 

প্রতিকৃতি

 

সে নাকি পণ্ডিত, সৃষ্টি করে ধূম্রজাল
শব্দের মারপ্যাঁচে না বলেই দেখায়
বুননের পরতে পরতে আঁকে ছবি
তীরন্দাজ মন তার পদ্যের হল্কায়
উগরে দিতে পারে যাবতীয় ক্ষোভ
পেয়ে গেছে কবি নামে স্বীকৃতি!

অথচ কি অবাক কাণ্ড দেখ –
ঝুল ঝুল চুল নাই টাক মাথা
ক্যাপ দিয়ে প্রাণান্ত মাথা ঢাকা
পরে না সে পাঞ্জাবি ঢোলা হাতা
গরমে আদুর গায়ে লাজ নাই
শোনে গান ব্যাণ্ডের নিত্যই
বেশুমার গিলে খায় সিরিয়াল সাই-ফাই
কবিতায় প্রাণ নাই, প্রেম নাই, কাম নাই।

ভুলোমন, উদাসীন সংসারে মন নাই
ডাকলেও দশবার সাড়া কিংবা শব্দ নাই
এইবার হবে তার জব্বর শাস্তি
জেনে রাখো নইলে যাত্রা নাস্তি
কেড়ে নাও ফোন তার গান শোনা বন্ধ
বই-খাতা? দূরে থাক; কবিতার গন্ধ !

২১ মে ২০২৪

© টিটো মোস্তাফিজ

অনলাইন ম্যাগাজিন পরিক্রমায় প্রকাশিত 

৭ বার দেখা হয়েছে

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।