চারটি লিমেরিক ও অন্যান্য

তানকা লিমেরিক

ফেসবুকের ময়দান
অন্তর্জালের বন্দীগণ
কপি পেস্ট করে
অবিরত প্রয়াসে
ছায়াবাজিতে মহান

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২১

 

লিমেরিক

 

গমের শীষে শিশির কণা
ফাগুন প্রাতের মুক্তোদানা
রোঁয়া ফুলায়
রোদ পোহায়
গ্রিলে বসা চড়ুইছানা

 

ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২২

 

লিমেরিক

এক যে ছিল সেনাপতি সঙ্গলিপ্সা দুষ্ট
প্রথম পৃষ্ঠায় না ছাপালে হত মহা রুষ্ট
রেখেছ যে বাঙালি করে
কবিতা বিতান সাধনারে
হায় গুরুদেব,

বিস্তারিত»

আকবরনামা

নামটি শুনে কাঁপত সবাই
বিশ্বে যত দেশ
এখন আমি শুয়ে আছি
চোখটি বুজে বেশ!!

হীরা দিয়ে তৈরী হল
আমার ঘুমের ঘর
সেই ঘরেতে ঘুণ ধরেছে
হীরার তলে চর!!

দ্বীন এলাহির মালিক আমি
মানতো সবাই ডরে
উথাল-পাথাল লাগিয়ে দিতাম
সব প্রজাদের তরে!!

মুখের উপর চলত শাসন
অমান্যতে মরণ
তবু আমায় সব লোকেতে
করত নেচে বরণ!!

বিস্তারিত»

মস্করা (মশক রা)

চারপাখা নিয়ে মোরা তিনজোড়া ঠ্যাং
মানুষের কানে কানে করি প্যান প্যান।
রক্ত তোমার খাসা, খেতে ভারি মিষ্টি
অযথাই হুড়ো দিয়ে ক্যান করো অনাসৃষ্টি।

খাবো আমি অল্প, দেহে যতটুকু সয়
তোমাদের মত নাকো করে অপচয়।
পেটে খেলে পিঠে সয় এইখানি মন্ত্রে,
দীক্ষিত মোরা বসি মানবযন্ত্রে।

তোমাদের ঢাকাতে আমাদের থাকাতে
দেখো কত হুল্লোড়, কত সাজ-রব,
কামানের আঘাতে আমাদের মারতে
দ্যাখ আজ কত লোক!

বিস্তারিত»

ক্যাডেট রম্যের দ্বিতীয় সংস্করণ ও ই-বুক প্রকাশ

‘ক্যাডেট রম্য’ নামে আমার একটা বই আছে। ২০১৬ সালের বইমেলায় বইপত্র প্রকাশন থেকে বইটি প্রকাশ পেয়েছিলো। মাত্র আটদিন বইটি মার্কেটে ছিলো। চাহিদা থাকা সত্ত্বেও মেলার পর বিভিন্ন কারণে বইটার হার্ড কপি আর প্রকাশ করা হয় নি। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মানুষ বইটির খোঁজ করেছেন। ‘ক্যাডেট রম্য’ নামে প্রথম আলোর অধুনালুপ্ত ফান সাপ্লিমেন্ট রস+আলো এবং দৈনিক ইত্তেফাকের ফান সাপ্লিমেন্ট ঠাট্টায় ২০১১-২০১৪ সময়কালে লিখেছি। ফলে, ‘ক্যাডেট রম্য’-এর এক ধরণের পাঠক শ্রেণী গড়ে উঠেছিলো।

বিস্তারিত»

হিবিজিবি-২

২০২০

বিশে বিশে বিষক্ষয়,
মনে বড় যমভয়,
কখন এসে দরোজাতে
জানান দেয় করাঘাতে।।

মরে যত পশুশ্রেণী
শেষ হোক ইতরপ্রাণী।
তবু কি সব শেষ?
করে মনে জিজ্ঞেস।।

মন বলে শেষের শুরু
আসলেই কি তাই?

আকাট হটাৎ প্রশ্ন করি
কুঁচকিয়ে নিজ দুই ভুরু।।

বিস্তারিত»

চামারের গদ্য

চামারের বড় সুখ,
চামড়ার অভাব
নেইকো আর
গরু আর মানুষে
মিলেমিশে একাকার।
হলেও বা ক্ষতি কী?
সবকটা জানোয়ার।

বিস্তারিত»

অনলাইন ডায়েরীর পাতা থেকে

এক

একান্ত অনুগত ভালোবাসা
প্রত্যেক অভিব্যক্তি স্বতঃস্ফূর্ত
চিনির পরিমাণ সঙ্গত
১১.০৮.২০১৮

দুই

truth  isn’t beautiful
it never was
even the gods play tricks

31.07.2017

তিন

Geometry of life
third quadrant
occupied largely

30.07.2017

চার

কালপুরুষ অন্যপাশে
সেকেন্ডের প্রতি পদক্ষেপে
বাড়ে অশ্লীল নিরবতা
২৭.০৭.২০১৮

পাঁচ

সিমেন্টের জঙ্গল
ছপেয়ে পাখির দল
পনপনিয়ে রাত জাগায়।

বিস্তারিত»

ত্যাল

ইঞ্জিনে ঢালে, খাবারে মেশায়,
কুন্তলে মাখে বালিকা;
তরল সে এক পদার্থ ভাই,
তেল- জগতের চালিকা।

কিন্তু ভ্রাতারা, জান কি তোমরা, সকল তেলের মাসী-
আছে সে ‘ত্যাল’ এক, অসীম শক্তি, সিংহকে করে খাসী?
মাখামাখি ওই তরলে আবাল-বৃদ্ধ-বণিতা-জনগণ,
সেই ত্যালেরই গুণ গাহি আজ, শুনিও ভ্রাতারা দিয়া মন।

ত্যালের প্রকৃতি অদ্ভুত বড়, মধুর মতই মিষ্ট;
কষ্ট ছাড়াই আনিবে ঠিক সে,

বিস্তারিত»

ডিজেলবাবা

খেজুর-গুড় হাসির
মিষ্টি রসে,
গাল ভরাইয়া,
পড়ে তরতরাইয়া-
জীবন উথালপাথাল আনন্দে ভাসে!
সে আনন্দ, তাহাকে বিনা কি আর আসে?

তাহার
ঘাড়ের মাঝখানে, দেখি হায় একী…
ভীষন সর্বনাশা, জোয়ান মশকী!
বিষভরা দংশন,
নিকষ কালো-
মুহূর্তে গিলিবে সে পৃথিবীর আলো!
কাঁদো কাঁদো কন্ঠে, প্রভুপানে কহি-
“সব মশা না মারিয়া ঘুমাইব নাহি!”

স্কন্ধ কুঞ্চিত,

বিস্তারিত»

লেখালেখি

যাতনাকে সরিয়ে পাশে
যাই লিখে যাই কবিতা
ঝড়ো হাওয়ায় পড়ে বক
হয় নিদারুণ ছবি তা।

বন্ধু জোটে ভক্ত জোটে
জোটে আঁতেল সমালোচক
জোরসে হবে লেখালেখি
যা খুশি তা বলুক লোক।

লোকের বলায় কি আসে যায়,
যা খুশী তা বলুক লোক,
আম জনতার মনের কথাই
কবির পদ্য, কবির শ্লোক!

বিস্তারিত»

ভণিতা

আসলে পরে সহজেতে
পালায় কিছু যাতনা
জবরদস্তি করলে ভায়া
বাড়ে শুধু আবর্জনা

পুরাদস্তুর বাঙ্গাল  বলে
শুনো হে মানুষ ভাই
যা ভাবছো তা নয়
ভনিতা কি বুঝ নাই?

[ সম্ভাব্য রেসপন্সসহ  উত্তর শীঘ্রই যোগ করা হবে ]

 

বিস্তারিত»

দখিন দিকে সূর্য নাকি?

কেমন আজব সকাল দেখি
দখিন দিকে সূর্য নাকি?
বিড়াল বসা গাছের ডালে,
ফিশ বোলে কি চড়ুই নাকি?

কচলে দুচোখ কিচেন রুমে
গিয়ে দেখি বিশাল ঘুমে
শুয়ে আছে সাপের ছানা!
নেউল তাকে জড়িয়ে ধরে
শুয়ে আছে কেমন করে?

কি হল আজ ভাবছি যখন,
ঠিক তখনি ‘ক্রিং’ টেলিফোন
ধরে শুনি আমার নাকি
বউ ভেগেছে দিয়ে ফাকি!

বিস্তারিত»

প্রতিকার

হাত বাড়ালেই যদি মেলে
গণিকা বা গঞ্জিকা
এমন হলে খবর খারাপ
তোলা তোলে রাজ পেয়াদা।
মানি লোকের মান থাকে না
সত্য বলে বোকা হয়
ধান্দাবাজে ফন্দী খোঁজে
সাদা মগজ ধোলাই হয়।
অল্প বিদ্যা চরম ভাবে
সত্য মিথ্যা জড়িয়ে ভবে
বর্ষে শুধুই বিপর্যয়।
নইকো মোরা আলাদা কেউ
বিশ্বমানব দল থেকে
বাঁচতে এবং বাঁচাতে হবে
বিপদ থেকে বিশ্বকে।

বিস্তারিত»

অাট বাহানা

[ মাদকাসক্তের বাহানা ]

এক

যে ভাবে দিন যায় চলে যাক
তোমরা দেখ পঞ্জিকা
লালন শাহের ভক্ত আমি
সাধন করি গঞ্জিকা।

দুই

দুই এক ছিলিম
টানলে ভায়া
হবে না কেউ রোগী
তার মহিমায়
শিব ঠাকুরে হলেন
মহা যোগী।

তিন

বারাক হুসেন ওবামা
কৈশরতে ছিলিম টেনে
সাথে নিয়ে ভাই ব্রাদার
তিনি বটেন ইয়াঙ্কিদের
হাল জমানার সরদার।

বিস্তারিত»

সবই ভালো, সবাই ভালো

এই দেশেতে সবাই ভালো, সবই ভালো
ফরমায়েশী কবি ভালো
সূর্য কিবা রবি ভালো
রাতের বেলা চাঁদের বুকে
সাঈদী সাবের ছবি ভালো।

হাবুল ভালো, আবুল ভালো
ইসলামাবাদ, কাবুল ভালো
টিএসসিতে নারীর গায়ে
হাতবুলানো বাবুল ভালো।

বিস্তারিত»