ফরেন থেকে ফাইভ ফিচারস

বিদেশী ছবিতে চুমু-তো অহরহ দেখি, তবু জানালা ভেঙ্গে ঢুকে শার্লক যেভাবে মলিকে চুমু খেলো সে কথা মনে থাকবে বহুদিন।
ছবিতে ছবিতে মনে এলো সুচিত্রা সেনের কথা, আমাদের প্রায় সবার বাপ চাচাদের বাংলা নায়িকা ফেটিশ ছিলেন হয়তবা সুচিত্রা সেন, সেবার পিরোজপুরে মামা বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছি, কথায় কথায় উঠে এলেন সুচিত্রা সেন, মেজো মামা বললেন এক চমকপ্রদ কাহিনী।

টিফিনের পয়সা বাঁচিয়ে সিনেমা দেখার টিকেট যোগাড় হত,

বিস্তারিত»

ট্রেন কেক

নির্বাহী প্রকৌশলী সাহেব সমীপেষু
ক্যাডেট কলেজ ব্লগ
ডট কম।

বিষয়ঃ অন্তর্জালের ডায়েরীতে রন্ধন বিভাগ অন্তর্ভুক্তিকরণ ।

মহাশয়,
যথাবিহিত সম্মানপূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, পত্র লেখক অধম লক্ষ্য করিয়াছে আপনার ডায়েরী পাঠকের সংখ্যা কদাচিৎ ত্রিংশপরি হইয়া থাকে। ইহার ফলশ্রুতিতে  নিরতিশয় লজ্জা বোধ হইতেছে। অধুনা ব্যাপক সংখ্যক প্রমীলা অন্তর্জালে বিচরণ করিয়া থাকেন। সহলেখিকা ভগীনিসকল কলম পিষিতে বিশেষ আগ্রহ বোধ করিতেছেন এই রুপ বোধ হইতেছে না।

বিস্তারিত»

ক্যাডেটের সংকল্প

থাকব না’ক বদ্ধ ঘরে
দেখব এবার কলেজটাকে
কেমন করে ঘুরছে ক্যাডেট
ফ্রন্ট রোলেরই ঘূর্ণিপাকে।
গ্রাউন্ড হতে গ্রাউন্ড-অন্তরে
ছুটছে তারা টাচ অ্যান্ড ব্যাকে,
কিসের নেশায় কেমন করে
খাচ্ছে ইডি লাখে লাখে।
কিসের আশায় করছে তারা
পাগল তাদের স্টাফদেরকে
কেমন করে বীর সুইমার
পুল সেঁচে মেডেল আনে,
কেমন করে দুঃসাহসী
চলছে হেঁটে শহরপানে।
গাছে চড়ে চায় যেতে কে
প্রিন্সিপালের অফিসপাণে,

বিস্তারিত»

ক্যাডেট

গাহি কলেজের গান-

পিটির চেয়ে বাজে কিছু নাই,নহে কিছু কুমহান,

নাহি দেশ,কাল,কলেজের ভেদ,অভেদ তাহার খ্যাতি,

সব কলেজে,মুলত শীতকালে কলেজে কলেজে তারা ঘুম-ঘাতি।

জেপি,দুয়ার খোলো,

এডজুটেন্ট গ্রাউন্ডে রয়েছে দাঁড়ায়ে,পিটির সময় হলো!

স্বপন দেখিয়া আকুল জেপি খুলিল দরজা হায়

প্রিন্সিপালের বরে আজ সিপি টিপি হয়ে যাবে নিশ্চয়!

পূর্ণবস্ত্র,বলিস্থ গাত্র,কণ্ঠ জোকসহীন,

বলিল স্টাফ,জেপি,তুমি লেট করেছ আজ নিয়ে ৭ দিন!

বিস্তারিত»

(ক্যাডেট) কমলাকান্তের জবানবন্দী

সেই ইডিখোর কমলাকান্তের অনেকদিন কোনো সংবাদ পাই নাই।কলেজ থেকে বের হওয়ার পর অনেক সন্ধান করিয়াছিলাম,অকস্মাৎ সার্টিফিকেট নিতে এসে তাকে ভিপি অফিসের সামনে দেখিলাম।দেখি যে,এইচ পি ভিপি অফিসের সামনে দাঁড়াইয়া,দেয়ালে ঠেসান দিয়া চক্ষু বুজিয়া কি জানি ভাবিতেছে।মনে করিলাম তেমন কিছু না,এইচ পি লোভে পড়িয়া গাছ হইতে ফল-ফলাদী চুরি করিয়াছে।অন্য সামগ্রী কমলাকান্ত চুরি করিবে না নিশ্চিত জানি।একজন বেয়ারাও দেখিলাম।আমি বড় দাঁড়াইলাম না।কি জানি,চুরি বিদ্যা শিখাবার জামিন আবার আমাকেই বলে কিনা।তফাতে থাকিয়া দেখিতে লাগিলাম যে কান্ডটা কী হয়।

বিস্তারিত»

২০১৩ এর পাওয়া – ল্যাঞ্জা

পহেলা/একলা জানুয়ারি ২০১৩ থেকে ৩১ শে ডিসেম্বর ২০১৩ এর ৩৬৫ দিনে কি কি পেলাম আর কি কি  হারালাম তার দিন ভিত্তিক হিসাব দিবো না। সময় ও নেই।

জয় বাংলা শ্লোগান আজ আপামর জনতার শ্লোগান।

দুষ্ট কাদের মোল্লার ফাঁসি অনেক কিছুই অর্জিত হয়েছে এই বছরে।

মানুষ পুড়িয়ে মারার মতো নৃশংস কাজ ও শুরু হয়েছে এই বছরে। এর আগে আমরা পিটিয়ে মানুষ মারা দেখতাম।

বিস্তারিত»

ক্যাডেট জীবনে সাফল্যের মূলমন্ত্র (বর্তমান ক্যাডেটদের জন্য অবশ্যপাঠ্য)

কলেজে ছয় বছর পার করার পরও অনেক ক্যাডেটের অর্জনের খাতাটা থাকে শূন্য। কলেজ থেকে পাসআউটের সময় বুকে থাকে অনেক কিছু না পাওয়ার বেদনা। কলেজের অনার বোর্ডে নিজের নামটি  চিরস্মরণীয় না করতে পারার ক্ষোভ নিয়ে পার করতে হয় বাকি জীবন। এ থেকে পরিত্রান পেতে হলে ক্যাডেট জীবনের শুরু থেকেই সুচিন্তিত পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করতে হবে। তাই নিজের ছয় বছরের অভিজ্ঞতা ও উপলব্ধি থেকেই বর্তমান ক্যাডেটদের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু পরামর্শ দিচ্ছি।

বিস্তারিত»

এইচ পি ই (হরতাল এন্ড পিকেটিং ইঞ্জিনিয়ারিং)

ওই হারামজাদা , কী করস ?

হঠাৎ এহেন সম্বোধনে খানিকটা বিচলিত হয়ে পিছনে ফিরে তাকাল জাকির । দেখল তার রুমমেট সাজু তাকে ডাকছে ।

কী হইছে ?

অ্যাসাইনম্যান্ট করছোস ?

না।

করবিনা ? কাইলকাই তো দেয়া লাগব ।

কাইলকা ? পরশু না?

না চান্দু । কাইলকা ।

কস কী ?

বিস্তারিত»

AIM IN LIFE

উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত ইংরেজি দ্বিতীয় পত্রে প্যারাগ্রাফ নামের একটা জিনিস ছিল । তো সেই প্যারাগ্রাফের নানা রঙ ,নানা ঢং। একবারের বিষয় আমার মেনি বিড়াল তো আরেকবারের বিষয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি । তবে সুবিধাও ছিল । ক্যাডেট কলেজের বদৌলতে আর পাঁচটা ক্যাডেটের মত এই বস্তু পড়ার হ্যাপা কখনও পোহাতাম না । -ধুর মামা, প্যারাগ্রাফ পড়া লাগে নাকি? ওইটা তো এমনি লেখা যায় । সিভিল বন্ধুদের সামনে পার্টটা ছিল দেখার মত।

বিস্তারিত»

পরগতিশিল

ইদানিং আমার চারপাশে এক জাতের মানুষ খুব বেড়েছে। খুবই উচ্চ ফলনশীল জাতের জীব এরা। মশা-মাছি-তেলাপকার চেয়েও এদের বিস্তার (মাশাল্লা) অনেক দ্রুত। পথে ঘাটে, হাটে মাঠে, চায়ের দোকানে, নর্দমায় বিশ্ববিদ্যালয়ে কিলবিলিয়ে বাড়ছেই এরা প্রতিদিন। বাস্তবে বা ভার্চুয়াল জগতে, ঘরোয়া আড্ডা কিংবা সিরিয়াস ” টক শো ” সর্বত্রই এঁদের দৃপ্ত পদচারণায় বাংলাদেশ আজ মুখরিত ; রীতিমতো ধন্য। জে, আপ্নে ঠিকই ধরেছেন- এরাই আগামী দিনের কান্ডারী, দেশের ভবিষ্যৎ উত্তরাধিকার,

বিস্তারিত»

ইডি সমাচার

ইডি খাওয়া ক্যাডেটদের প্রাত্যহিক জীবনের একটি অংশ। তবে কারো কারো জন্য তা হয়ে ওঠে অতি-প্রাত্যহিক। ক্যাডেটদেরকে নিয়মিত ইডি লাগানোর মত কষ্টসাধ্য কাজটি সাধারণত স্টাফরাই করে থাকেন (ক্ষেত্রবিশেষে অতি-কর্তব্যপরায়ণ শিক্ষক ও ক্বচিৎ অ্যাডজুটেন্ট-প্রিন্সিপ্যাল)। ইডি লাগানোও যে একটি শিল্প হতে পারে মাঝে মাঝে আমাদের শুভাকাঙ্ক্ষী স্টাফ ও স্যারেরা তা দেখিয়ে দেন। এবারে থাকছে চমকপ্রদ কিছু ইডির বৃত্তান্ত। (* চিহ্ন সংবলিত ইডিগুলো বিশেষভাবে দৃষ্টি আকর্ষণের যোগ্যতা রাখে।)

এক্ষেত্রে হাউস মাস্টার অফিস থেকে ইডির নোটিস সময়মত হাওয়া করা এবং আমাকে তা ব্যবহারের অনুমতি দেয়ায় তাশরীফ মাহমুদ (ফকক,

বিস্তারিত»

এপ্রিল ফুল

আজ যে ঘটনাটি বলব তার ঘটনকাল ২০০৯ এর ফার্স্ট টার্মে, এপ্রিলের ১ তারিখ। আমরা ক্লাস নাইনে। তখন কলেজে চলছে “১০,০০০ যুগ”। ১০,০০০ যুগ বলার কারন, তখন ১০,০০০ টাকা জরিমানা খাওয়া ইডি খাওয়ার চেয়েও সহজ। ঠিক এমনই দিনে লাঞ্চের পর মাত্র হাউসে এসেছি। ঠিক তখন তৎকালীন জুনিয়র প্রিফেক্ট মাকসুদ ভাই (ছদ্মনাম) রুমে এলেন। ভাবলাম হয়ত রুম চেকিংয়ে এসেছেন। তড়িঘড়ি করে প্লেস গোছাতে শুরু করলাম। কিন্তু উনি চেকিং না করে বললেন,

বিস্তারিত»

শাকুর ভাই এবং আমি

২০০৮ সালে আমি যখন ক্লাস এইটে, তখন আমাদের কলেজের সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করা হয়। কলেজের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ২৮ এপ্রিল হলেও কোন এক কারনে সুবর্ণ জয়ন্তী পরে পালন করা হয়। দুর্ভাগ্যবশত সে সময় আমিও কলেজ হাসপাতালে ভর্তি ছিলাম। পায়ে সমস্যা থাকায় আমাকে অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের অনুমতি দেয়া হয়নি। তবুও রাতে কনসার্টে যেতে পেরেছিলাম।

যদিও তারিখটা মনে নেই, দিনটি ছিল শুক্রবার। যেহেতু অনেক এক্স-ক্যাডেট আসবেন, আগের দিন প্রিন্সিপাল ইন্সপেকশন ছিল।

বিস্তারিত»

ভ্রমণ বিড়ম্বনা……

(প্রত্যেকবার যখন ট্রেনে বা বাসে বড় কোন জার্নিতে যাই তখন ভাবি অনেক কিছু। কিন্তু বাস্তবে হয় তার পুরো উল্টো। অনেকবার নানা রকমের অভিজ্ঞতা হয়েছে। সেই গুলোই এখানে বলার চেষ্টা করলাম। )

কল্পনায়-
যাবো ট্রেনে বসবে পাশে, অচেনা এক মেয়ে;
সুন্দরী হবে খুব-দেখবো চেয়ে চেয়ে।
কথা হবে, হাসি হবে,হবে পরিচয়।
বিদায়ের আগে হবে নাম্বার বিনিময়।
অতঃপর দেখা হবে, প্রেম হবে এবার।

বিস্তারিত»