ইসলামাবাদে শেষ হলো বাংলাদেশী চিত্রকর্ম প্রদর্শনী

গত ৫ ডিসেম্বর থেকে ইসলামাবাদে শুরু হয় বাংলাদেশী চারুশিল্প প্রদর্শনী। বাংলাদেশের মোট ১৯ জন শিল্পীর প্রায় ১০০ টি চিত্রকর্ম উপস্থাপন করা হয় এতে; এদেশের দৃষ্টিনন্দন প্রকৃতি, নদী ও নারী, মুক্তিযুদ্ধ ইত্যাদি ফুটে উঠে এসব চিত্রকর্মে।
ইসলামাবাদস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন এবং Pakistan National council of Arts এর যৌথ উদ্যোগে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়, ইসলামাবাদের National Art galaryতে এর উদ্বোধন করেন পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় তথ্যমন্ত্রী শেরি রহমান। বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ইয়াসমিন মোরশেদের পরিচালনায় উদ্বোধনী এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সেদেশের বিভিন্ন পদস্থ সরকারী কর্মকর্তাগণ, রাষ্ট্রদূতগণ, বাংলাদেশী প্রবাসীগণ প্রমুখ। শিল্পীদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন রফিকুন্নবী (রনবী), ফারেহা জেবা, শাহনাজ কুহু প্রমুখ।
“Colours of Bangladesh” শীর্ষক এই আর্ট ওয়ার্কশপ পুরো ডিসেম্বর জুড়ে চলে। ব্যাপক দর্শক সমাগমের প্রেক্ষিতে এ প্রদর্শনীর মেয়াদ ১৫ জানুয়ারী পর্যন্ত বাড়ানো হয়। বাংলাদেশের সমৃদ্ধ চারুশিল্পের পরিচয়দান এ আয়োজনের মুখ্য উদ্দেশ্য ছিল, সে হিসেবে এটি একটি সফল উদ্যোগ।

নিচে দেখুন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের কিছু ছবিঃ
উপস্থিত দর্শক এবং অতিথিগণঃ
আর্ট গ্যালারীর বাইরে…

শেরি রহমান…
ছবিতে ডানে পাকিস্তানের তথ্যমন্ত্রী শেরি রহমান, বামে বাংলাদেশের হাই কমিশনার ইয়াসমিন মোরশেদ…



শিল্পীদের সাথে ছাত্ররাঃ
রনবী…

চিত্রকর্মঃ



মনের মত বউ…






ইসলামাবাদ, পৃথিবীর ৫ম ব্যয়বহুল শহরঃ

২,০১৫ বার দেখা হয়েছে

২৪ টি মন্তব্য : “ইসলামাবাদে শেষ হলো বাংলাদেশী চিত্রকর্ম প্রদর্শনী”

  1. রহমান (৯২-৯৮)

    ছবিগুলো দারুন :thumbup: । আর নাই?

    বাংলাদেশের মোট ১৯ জন শিল্পীর প্রায় ১০০ টি চিত্রকর্ম উপস্থাপন করা হয় এতে

    আরো দাও। ভাল লাগছে বিদেশের মাটিতে আমাদের চিত্র প্রদর্শনী হচ্ছে দেখে।

    জবাব দিন
  2. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    মহিলার ক্লোজ ছবি না দেয়াই ভাল...আশা ভংগ হতে পারে.. :-B
    তবে ভিডিও টা দেখে মজা লাগল... 😉
    হের লগে মিছিল করতে মন চাইতেছে... B-) :dreamy:


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  3. তানভীর (৯৪-০০)

    আলম, চমৎকার তথ্যবহুল একটা লেখা।
    পাকিস্তানে বাংলাদেশী শিল্পীদের যে এই ধরনের প্রদর্শনী হতে পারে, আমার ধারণার বাইরে ছিল।
    কত কিছু জানার বাকি! 🙁

    জবাব দিন
    • আলম (৯৭--০৩)

      এখানে প্রায়ই বাংলাদেশী সংস্কৃতি/ইতিহাস নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠান হয়। পাকিস্তানীরাও ঐতিহাসিক কারণে আমাদের ব্যাপারে জানতে চায়, আর আমরাও একই কারণে নিজেদের ইতিহাসকে তুলে ধরতে চাই। এক কথায়, এ দু'দেশের মাঝে "কূটনৈতিক সম্পর্কের" ক্ষেত্রে ঐতিহাসিক আগ্রহটা (positive from both side) একটা বড় ফ্যাক্টর।

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।