কুমিল্লার তারকারা

(কলেজে অবস্থানকালে আমার দেখা কুমিল্লার স্বনামধন্য শিল্পী, সাহিত্যিক, চিত্রকরদের নিয়ে লিখবো এখানে। আর এটা উৎসর্গ হলো আমাদের সবার প্রিয় তানভীর ভাইকে।)

প্রথমেই সিনিয়রদের কথা বলি। এক নম্বরেই রাজিব ভাই, ৯৪-০০ ব্যাচের, একজন শ্রেষ্ঠ বিতার্কিক আমার দেখা। কলেজ লাইফে তার সর্বশেষ বিতর্কের দিন; দর্শক সারিতে বসে ছিলাম আমি, আর তার উপস্থাপনা দেখে কেঁপে কেঁপে উঠছিলাম, তার মুখে যেন কথার ফুলঝুড়ি ফুটেছিল সেদিন।
৯৩-৯৯ ব্যাচের মাসুম ভাইয়ের কথা প্রায়ই মনে পড়ে, গোমতী হাউস কালচারাল প্রিফেক্ট। তার মুখেই আমি প্রথম শুনি ‘অলিরও কথা শুনে ভ্রমর হাসে’ গানটা। ঐ ব্যাচের বিখ্যাত (!) ডাইনিং হল প্রিফেক্ট হাসিব ভাইও একবার গান গেয়েছিলেন স্টেজে, “হৃদয় জুড়ে যত ভালবাসা শুধু তোমাকে দেব বলে”, আমার অবশ্য ভাল্লাগেনি অত। তাদের অপর ‘বিখ্যাত’ কলেজ প্রিফেক্ট মহসিন ভাই কবিতা আবৃত্তি করেছিলেন, সাথে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক বাজছিলো, “মনে পড়ে রুবি রায়, কবিতায় তোমাকে একদিন কতো করে ডেকেছি”।
৯৪-০০ ব্যাচের শিল্পীদের কথা প্রায়ই মনে পড়ে। তিতাসের মোর্শেদ ভাইয়ের ব্যান্ডসংগীত, সিসিপি সাকিব ভাইয়ের সুরেলা কন্ঠ মনে পড়ে, ঐসময় অডিটোরিয়ামটা মিষ্টি কলরবে ভরিয়ে রাখতেন ওরা। গোমতীর তারেক ভাই, ওনার গল্পগুলো পড়ে পড়ে আমি বিমূঢ় হয়ে রইতাম, ওনার ৯৯’এর বন্যা নিয়ে
লেখা “আদম সন্তান” গল্পটা পড়ে আমি ভাবতাম এই ব্যাটা নিশ্চয়ই অনেক বড় লেখক হবে! তাঁর লেখা আপনারা এখন পড়েন, সচল-সিসিবি মাতিয়ে রেখেছেন যিনি। 😉
এরপর নাম আসে আমার ইমিডিয়েট সিনিয়র তিতাসের জামিল ভাই আর ফরহাদ ভাইয়ের। কুমিল্লার ইতিহাসে শ্রেষ্ঠ শিল্পী ছিলেন ওরা। ফরহাদ ভাইয়ের পল্লীগীতি “আমি কেমন করে পত্র লিখি রে?” শুনে মুগ্ধ হয়নি এমন কেউ ছিলনা। তা নয়তো ওরা কীকরে ইন্টার ক্যাডেট কলেজ মাতিয়ে দিয়ে আসেন! ওঁদের বদৌলতে কুমিল্লা প্রায় ২ বার চ্যাম্পিয়ন আর ৩ বার রানার আপ হয় আইসিসি মিউজিকে। গার্লস ক্যাডেট কলেজকে হারিয়ে মিউজিকে চ্যাম্পিয়ন হয় কুমিল্লা, একী চাট্টিখানি কথা?
ওই ব্যাচে মেঘনার শাহরিয়ার ভাইও গান গাইতো, তবে আমার ভাল্লাগতো না। আঁকিয়ে হিসেবে গোমতীর জাহিদ ভাইয়ের সুনাম ছিল।

আমাদের ব্যাচের শ্রেষ্ঠ শিল্পী ছিলো হাসিব, পরবর্তীতে মেঘনার হাউস প্রিফেক্ট। সে ব্যান্ডে কখনো ২য় হয়েছে কিনা মনে পড়েনা। এমনকি 2002 ICCLMM-এ সে সব জায্‌দের অবাক করা প্রশংসা সহ ১ম হয়। ঐ মঞ্চে কুমিল্লার অপর ১ম পুরস্কারপ্রাপ্ত ছিলো আমাদের রেজা, ইংরেজি কবিতায়।
এবার আমার নিজের কথা বলি। বিতর্কের খেয়াল ভালই ছিলো, কখনো ১ম ছাড়া ২য় হই নাই। তবে সবসময়ই পার হতাম স্ক্রিপ্টের জোরে, আমার উচ্চারণ কিন্তু মোটেও ভাল না, জড়ানো কন্ঠ, আঞ্চলিকতার দোষে দুষ্ট। দু’বার উপস্থাপনার প্রয়াস পেয়েছিলাম, আশানুরুপ মনে হয়নি। লেখালেখির হাতের প্রমাণ দিয়েছিলাম রচনা প্রতিযোগিতায়, ১৫ই আগস্টের, বরাবরই ১ম। সর্বশেষ ICC রচনায়ও গিয়েছিলাম, এবার হলাম ২য়। এ-কারণে অবশ্য বাংলার ডঃ জয়নুদ্দীন-হাসিনা দম্পতির বেশ আদরের পাত্র হয়েছিলাম আমি।
আমাদের ক্লাসে বাংলা কবিতা আবৃত্তিতে বিখ্যাত ছিল মোশাররফ, নজরুলের “বিদ্রোহী” কবিতাটা ওর গলায় কীযে দারুণ লাগতো। ৭ই মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণ নিয়ে নির্মলেন্দু গুণের “একটি কবিতা পড়া হবে” কবিতাটাও অপূর্বভাবে পড়তো ছেলেটা। এছাড়া আমাদের ফাহিম, সুন্দর নর্তক ছিলো সে, ছবিও আঁকতো অসাধারণ। রুশদীও গান গাইতো ভালই।

জুনিয়রদের মাঝে আমার প্রায়ই মনে পড়ে গোমতীর অনিন্দ্যের কথা, ৯৯-০৫ ব্যাচ; প্রায়ই মনের চোখে দেখি, ও স্টেজে বসে মিষ্টি সুরে গাইছে, রবীন্দ্রসংগীত, “এ পথ গেছে কোন্‌খানে তা কে জানে তা কে জানে”। গোমতীতে আরো ছিল সেই ব্যাচের হাসান, কলেজবিখ্যাত মূকাভিনেতা। মেঘনায় ছিলো মইনুল, পরবর্তীতে ওদের কলেজ প্রিফেক্ট, ক্লাস টেনে থাকতে বিটিভি’র জাতীয় বিতর্কে ‘শ্রেষ্ঠ বক্তা’ হয়ে এসেছিল সে। সব মিলিয়ে সেই ৬টা বছর ছিলো, আমার মতে, কুমিল্লার সাংস্কৃতিক রেনেসাঁর অর্ধযুগ।

মাঝে মাঝে ইচ্ছে করে আবার চলে যাই সেই অডিটরিয়ামে; হয় ডায়েসে দাঁড়িয়ে আবার বলি “চোখের নজর কম হলে আর কাজল দিয়ে কী হবে?” অথবা দর্শক সারিতে বসে শুনি হৃদয়-নিংড়ানো পল্লীগীতির সুর।

৩,৬৫০ বার দেখা হয়েছে

৫৩ টি মন্তব্য : “কুমিল্লার তারকারা”

  1. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    ইস! কুমিল্লার পোলাপানগুলার আদব-সহবত আছে...
    আমার জুনিয়রগুলা যদি একটু টাঙ্গাইলের তারকাদের নিয়ে লিখতো... 😡
    এই কে আছিস? :grr:


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  2. তাইফুর (৯২-৯৮)
    তার মুখেই আমি প্রথম শুনি ‘কলিরও কথা শুনে ভ্রমর হাসে’ গানটা

    কলির কথা শুইনা ভ্রমর আবার হাসল কবে ?? আমি তো জানতাম 'অলি'র কথা শুনে 'বকুল' হাসছিল ... 😉

    লেখা ভাল লাগছে ...


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  3. তাইফুর (৯২-৯৮)

    আমার জানামতে 'অলি' সাহেব এল্ডিপি নামক নতুন পার্টি খোলার পর গানটির লিরিক এডিট করা হয়েছে ... এখন শুধু একা বকুল না ......
    'অলি'রও কথা শুনে 'পাবলিক' হাসে


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  4. তারেক (৯৪ - ০০)

    পোস্টে মজা পাইলাম।
    রাজীব আসলেই মারাত্মক ছিলো। প্রতিপক্ষরে রীতিমতন ছিল্লা কাইট্টা লবন লাগিয়ে দিতো!
    আলম, গানটা হবে, অলির কথা শুনে বকুল হাসে।
    আর আমার গল্পটার নাম ছিলো "আদম সন্তান"। দুইজনই মানুষ- ছিলো গল্পের শেষ দুইটা শব্দ। 😛


    www.tareqnurulhasan.com
    www.boidweep.com

    জবাব দিন
  5. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    জামিল, ফরহাদ, শাহরিয়ার এর গান শুনেছি। ওরা আসলেই সিরম ছিল। জামিলের গলায় কফি হাউসের আড্ডা শুনে চোখে পানি এসে যেত। তখন সবে মাত্র ক্যাডেট কলেজ থেকে বেরিয়েছিলাম।

    জবাব দিন
  6. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    আমাদের ৮৭ এর ব্যাচেও কুমিল্লাতে কিছু বস পাবলিক ছিল। ৯৩ এর bTV ডিবেটে প্রথমে রাউন্ডে আমাদের হারালো (আমি ছিলাম আমাগো ক্যাপ্টেন :(( )। এর পর সেমি-ফাইনাল পর্যন্ত গিয়েছিল ওই টিমটা।

    ১২ এর পোলাপাইন মেডিকেল-ইউনির পোলাপাইন কে বিট কইরা সেমি-ফাইনাল, বিরাট ব্যাপার। :hatsoff:


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  7. তানভীর (৯৪-০০)

    আরে, এই লেখা দেখি আমাকে উৎসর্গ করা। 😀 😀

    রাজীবের বিতর্কের কথা কখনও ভুলে যাওয়া সম্ভব না! চমৎকার আক্রমণাত্ত্বক বিতর্ক করত।
    আমার দেখা অন্যতম সেরা বিতর্কের দল ছিল শাহেদ ভাইদের (৯০-৯৬) দলটা। ফাহাম ভাইয়ের বিতর্ক শুনতে খুব ভালো লাগত।
    মোর্শেদের গান আমাদের সবারই খুব পছন্দের। সাকিব তো ছোটবেলা থেকেই নজরুল সঙ্গীতের চর্চা করত।
    তারেকের লেখালেখি নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই। সেই ছোটবেলা থেকে ভালোলাগার মেয়েটাকে নিয়ে লিখা কবিতা কিংবা নানার মৃত্যু নিয়ে কবিতা লেখা ছেলেটা যে এতদূর এসেছে তাতে বিস্ময়ের কিছু নাই। ব্লগিং জগতের সবাই তারেককে চিনে বলেই ধারণা। যদি ব্লগিং করা কারো সাথে আমার পরিচয় হয় তাহলে আমি প্রথমেই জিজ্ঞেস করি তারেককে চিনে কিনা। তারপর খুব ভাব নিয়ে জানিয়ে দেই যে তারেক আমার ছোটবেলার বন্ধু। B-) B-)

    ফরহাদের পল্লীগীতির কথা মনে আছে এখনও। তোমার বিতর্ক নিয়ে অবশ্য কিছু মনে নাই। জয়নুদ্দিন স্যারকে খুব পছন্দ করতাম। অনেক কিছু মনে করিয়ে দিলা।

    আলম, অনেক অনেক ধন্যবাদ সুন্দর একটা লেখা দেয়ার জন্য। সাথে অতিরিক্ত ধন্যবাদ লেখাটা আমাকে উৎসর্গ করার জন্য।

    জবাব দিন
  8. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)
    সেই ছোটবেলা থেকে ভালোলাগার মেয়েটাকে নিয়ে লিখা কবিতা

    কে আছিস? তারেকের বউরে ডাক দে... :grr:
    আমি যদ্দূর জানি,তাহাদের পরিচয় তো মোটামুটি বড়বেলায়...


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  9. ফাহাদ (২০০২-২০০৮)

    একমাত্র রাজিব ভাইয়ের debate এর সময় ঘু্ম আসতো না...... 😉 ।।আর হাসিব ভাইয়ের ব্যান্ড এর কথা আর কি বলবো ? ভাইয়ারা যখন ১ম হয় তখন আমরা ক্লাস ৮ এ ... তাদের গান দেখেই মাথায় ব্যান্ডের ভূত চাপলো... :tuski: :tuski: :guitar: তখন কুমিল্লা ৩য় হয়েছিলো তারপর ২০০৮ এ আমরা ব্যান্ডে আবার ১ম হই :awesome: আর overall ২য়... :party: :party: ব্যান্ডের দিন stage এ উঠার আগে শুধু হাসিব ভাইদের কথা মনে পরছিলো...আসলেই তাদের স্মৃতিটাই তখন আমাদের inspiration ছিলো... :salute:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।