কিছু ঘটনা – ২

অনেকদিন আগে এমজিসিসি নিয়া কিছু ঘটনা লিখেছিলাম।কালকে হঠাত আরেকটা মনে পড়ে গেলো।
(যারা পড়েন নাই, তাদের জন্য আগের লিঙ্ক)
হঠাত কালকে আমাদের যুবায়েদ ফোন করে বল্লো “ওই ২৬ তারিখে ফ্রি থাকিস”
আমিঃ কেন?
যুবায়েদঃ “আমার বিয়ের রিসেপশন। সেনা কুঞ্জে।“
আমিঃ “ঠিক আছে। চলে আসবো। নো প্রব্লেম।“

কথা বলতে বলতে হঠাত আমাদের পুরানো একটা কথা মনে পড়ে গেলো।

সেটা মনে হয় আমাদের ক্লাস নাইন এর কোনো এক ছুটির কথা। ছুটিতে আমরা ময়মনসিংহ বাসীরা একসাথে কোচিং বা প্রাইভেট পড়তাম।আমরা বিভিন্ন কলেজের ১০/১২ জন আর গার্লসের ৯/১০ জন। তো আমাদের যুবায়েদের আবার একজনকে খুব মনে ধরেছে। অনেকদিন ধরে। কিন্তু কথা শুরু করতে পারতেছেনা। তো অনেক কায়দা করে জানা গেলো সেই মেয়ের জন্মদিন ২ দিন পর। তো আমরা পুরাপুরি সমাবেশ আহবান করলাম কি করা যায় এটা নিয়ে। অনেক আলোচনার পর ঠিক হলো, যুবায়েদ ওইদিন ক্লাস শেষে তাকে একটি রোমান্টিক কবিতার বই গিফট করবে।
আমরা অনেক বাছাই এর পর ২ টি কবিতার বই কিনে সুন্দর করে প্যাকেট করে ক্লাসে নিয়ে গেলাম। অন্য মেয়েদের কিছুটা ইশারা দিয়ে রাখলাম যেনো ওরা আগে আগে বের হয়। তাহলে আসল জনকে একা পাওয়া যায়।

ক্লাস শেষ হলো। প্ল্যান মাফিক বেশিরভাগ বের হয়ে গেলো। ক্লাস রুমে তখন যুবায়েদ, সেই মেয়ে আর উপদেষ্টা মন্ডলী আমরা আমি আর সামিমূল (এমসিসি)। শুরু হল নাটক। যুবায়েদ গিফট দিবে আর সে নিবে না। নিবে না তো নিবেই না।অনেক ভাবে চেষ্টা করলো। কিন্তু না। যুবায়েদ আর সফল হয় না। শেষে যখন দেখে মান ইজ্জত সব যায় যায়, তখন শেষ একটা ভাব দেখিয়ে যুবায়েদ বললোঃ “শেষ বারের মতো জিগাসা করতেছি তুমি নিবা কি না? নাহলে কিন্তু আমি এই বই জানালা দিয়ে ছুড়ে ফেলে দিবো।”
মেয়েও নিরবিকার। “দাও, আমি গেলাম”।
যুবায়েদঃ “ফেলে দিবো কিন্তু”।
“দাও”।
যুবায়েদ খুব মুড নিয়ে সুন্দর করে বইটা জানালা দিয়ে বাইরে ছুড়ে দিলো। মেয়েও সুন্দর হেটে চলে গেলো।

আমরা দুই জন দর্শক অনেকখন চুপ থাকার পর যুবায়েদ কে বলল্লামঃ “মন খারাপ করিস না, নেস্কট টাইম”।
যুবায়েদ একটু চুপ থেকে বললোঃ “তোরা একটু বস আমি আসতেছি।”
আমরা তো চিন্তায়। শক খেয়ে আবার কই যায়।
জিজ্ঞাসা করতেই যুবায়েদ হেসে বললোঃ “শালা এতো টাকা দিয়ে বই কিনেছি, কি মনে করছিস এমনি ফেলে দিবো? তোরা থাক, আমি দেখি ড্রেনে না পড়লে নিয়া আসতেছি”।

অফটপিকঃ দুই জনই এখন আর্মি তে আছে।

৩,৫১৭ বার দেখা হয়েছে

৩৯ টি মন্তব্য : “কিছু ঘটনা – ২”

  1. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    হি হি হি 😀 বহুত মজা পাইলাম :clap: :clap: :clap:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  2. শালা এতো টাকা দিয়ে বই কিনেছি, কি মনে করছিস এমনি ফেলে দিবো? তোরা থাক, আমি দেখি ড্রেনে না পড়লে নিয়া আসতেছি

    দ্যাটস্ দ্য স্পিরিট, কি আছে দুইন্নায় :grr:

    জবাব দিন
  3. তাইফুর (৯২-৯৮)

    সবার সাথে সবার হয় না রে রবিন সবার সাথে সবার হয় না।
    (বণ্য দেখলেই তো আবার লুই* কইব)


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  4. মান্নান (১৯৯৩-১৯৯৯)

    আহারে পাষানী !!!!!

    এখন কি গিফট দেয়? ছড়ায় ছড়ায় মেশিনের ব্যবহার?

    জটিলস..... আরো সম্ভাব্য গিফট লিস্ট :

    1) সারাবেলা মেশিনগানের খেলা :gulli2:
    2) বন্ধু তোমাকে 'সামনে সালাম' :salute:
    3) একটা বুলেট তোমার হৃদয়ে :gulli:
    4) হাঁটুতে হাঁটুতে রোমান্স :goragori:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।