সোশ্যাল মিডিয়া কতখানি সোশ্যাল

“পুরানা যদিও কেচ্ছা তবু বর্বকত / সমঝাইয়া দিবে নয়া হাল হকিকত”
— সৈয়দ মুজতবা আলী, “গুরবে কুশতন শব ই আওয়াল” (মার্জার নিধন কাব্য), পঞ্চতন্ত্র

[ডিসক্লেইমারঃ এটা কোন গবেষণালব্ধ লেখা নয়; ব্যাপক পড়াশুনা করে ডেভলাপ করা কোন ড্রাফটও নয়। নিজের দেখা এবং অনুভব করা কিছু অভিজ্ঞতাকেই এখানে সাজানোর চেষ্টা করেছি মাত্র। আসলে দুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় পারিবারিকভাবে বেশ ঘনিষ্ট এবং যথেষ্ট স্নেহভাজন একজনের ক্রমাগত “মন খারাপ করা” ফেসবুক স্ট্যাটাসের কমেণ্টের ঘরে কিছু কথা লিখতে গিয়ে তার সাথে ভার্চুয়াল কমিউনিকেশনেই কিছুটা বাদানুবাদ শুরু হয়ে যায়।

বিস্তারিত»

নতুন বই নিয়ে আলোচনাঃ বসন্তদিন

বই পরিচিতিঃ
বই এর নামঃ বসন্তদিন
বই এর ধরণঃ পত্রালাপে গল্প
লেখকের নামঃ বরুণা ও প্রতিফলন
প্রকাশকের নামঃ তারিকুল ইসলাম
এক্সেপশন পাবলিকেশন্স,
ডন প্লাজা, ১০ম তলা
৯, বঙ্গবন্ধু এভিন্যু, ঢাকা-১০০০
প্রচ্ছদঃ শায়মা হক
উৎসর্গঃ “বসন্তপ্রেমী মানুষগুলোকে”
প্রথম প্রকাশঃ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭
মূল্য: ১৭৫.০০ টাকা

অন্তর্জালের সুবাদে পৃথিবী আজ মানুষের শুধু হাতের মুঠোতেই নয়,

বিস্তারিত»

যৌনতা সম্পর্কিত নানা ভুল ধারনা – প্রথম পর্ব

এক
নানা বিষয় নিয়েই তো লেখালেখি করি, ভাবছি এই বিষয়টাই বা বাদ দেবো কেন?
অনেকেরই ধারণা, পশ্চিমা দেশে বা উন্নত বিশ্বে যৌনতার এত ছড়াছড়ি, ফ্রি-সেক্স, সেক্স এডুকেশন – সে সব দেশে লোকজন না জানি কতই না উত্তাল যৌনানন্দে বসবাস করে!!!
বিরাট ভুল ধারণা…
খোদ আমেরিকায় সবচেয়ে সেক্সুয়ালি একটিভ এইজ, মানে ২০-৬০ এ যারা, তাঁদের ৬০% এর জন্য সপ্তাহে ১ বারের বেশী সেক্স করা সম্ভব হয় না।

বিস্তারিত»

চিনে নিন আপনার প্রকৃত বন্ধুটিকে…

এক
বন্ধুত্ব দুই ধরনের হয়ে থাকে।
– সুবিধাজনক
– অসুবিধায় পরিপূর্ণ
বিস্তারিত জানতে এখানে দেখুন:

যেটা করা উচিত, তা হলো – অসুবিধায় পরিপূর্ণ বন্ধুত্বগুলো থেকে নিজেকে যথাসম্ভব মুক্ত করে সুবিধাজনক বন্ধুত্বগুলো চালিয়ে যেতে যেতে এক বা একাধিক প্রকৃত বন্ধু খুজে নেয়া……
কিভাবে করবেন?
বলছি, সাথে থাকুন…..

দুই
“পোকরিত” কথাটা ওভার ইউজড হয়ে হয়ে এখন একটা ক্লিশেতে পরিনত হয়েছে।

বিস্তারিত»

সূর্য উঠিবে কবে ?

লালনের কথাগুলো একটু সময় নিয়ে বুঝবে কে ??

ফেসবুকে কেউ শিখতে আসে কি ? বিনোদনের জায়গা এটা ।
কেমন বিনোদন? দুনিয়ার মত ।

“আসবার কালে কি জাত ছিলে
এসে তুমি কি জাত নিলে,
কি জাত হবা যাবার কালে
সে কথা ভেবে বল না।।

ব্রাহ্মণ চন্ডাল চামার মুচি
এক জলেই সব হয় গো শুচি,

বিস্তারিত»

প্রসঙ্গ : চাইল্ডহুড ওবেসিটি

এক
শিশুদের শৈশবকালিন স্থুলতা তাঁদের বর্তমান ও ভবিষ্যতের জন্য হয়ে উঠতে পারে বিশাল সমস্যা। বয়ে আনতে পারে প্রিভেন্টেবল অনেক অনেক দুর্ভোগ।
এই ব্যাপারে আপনি কতটা সচেতন?

আগে জেনে নিন, আপনার সন্তানটি চাইল্ডহুড ওবেসিটিতে আক্রান্ত কিনা।
প্রথমে, এই লিংকটিতে থাকা চাইল্ডহুড ওবেসিটি ক্যালকুলেটর-এ ঢুকুন।
এরপর পরিমাপের ইউনিট (ব্রিটিশ অথবা মেট্রিক) নির্বাচন করুন।
এরপর একে একে পাচটি চাহিদাকৃত তথ্য সরবরাহ করুন।

বিস্তারিত»

না ভারত; না পাকিস্তান

আমরা বাঙালিরা ক্রিকেটের জন্য পাগল। আর আমাদের সেই পাগলামির মাত্রা আরও বেড়ে যায় যখন আমাদের ছেলেরা অন্য কোন দেশের বিরুদ্ধে খেলতে নামে। আমাদের আবেগ তখন সব ধরনের যৌক্তিকতার সীমানা পেরিয়ে যায়। আমরা চাই প্রতিটি খেলাতেই যেন আমাদের ছেলে-মেয়েরা জিতে যায়। মাঝে-মাঝে মনে হয়, বোধহয় খেলা নয়, আমরা আমাদের দেশ বাংলাদেশের জন্য আবেগ প্রকাশ করি; খেলার সঙ্গে দেশাত্মবোধকে এক করে দিই। আমার দেশ জিতবেই; বাঙালি সবসময়ই জিতবে।

বিস্তারিত»

প্রসঙ্গ : পরকীয়া – চতুর্থ পর্ব

প্রসঙ্গ : পরকীয়া – প্রথম পর্ব
প্রসঙ্গ : পরকীয়া – দ্বিতীয় পর্ব
প্রসঙ্গ : পরকীয়া – তৃতীয় পর্ব

নয়
আজ লিখবো পরকীয়ায় থাকা পুরুষদের বাড়তি স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পর্কে।
পরকীয়ার কারনে মানসিক অস্থিরতা জনিত রোগ বা যৌনরোগের ঝুঁকি যে বাড়ে, সেটাতো সবারই জানা। কিন্তু হৃদরোগের ঝুকিও যে বাড়ে, সেটা কতজন জানি?
পুরনো রেকর্ড ঘাটতে গিয়ে গবেষকরা দেখতে পেলেন,

বিস্তারিত»

আমিও কি একজন ধর্ষক?

ধর্ষণ চলছেই। বিকৃত যৌনতা নিয়ে এ দেশের মেয়েদের অত্যাচার করেই চলেছে ছেলেরা। অনেকে আবার মানসিক বিকলাঙ্গতার প্রমাণ রেখে যাচ্ছে। এই বিকলাঙ্গতা পুরুষ হিসেবে মনের ভেতর প্রদাহের জন্ম দেয়, আক্রোশের জন্ম দেয়।
পত্রিকায় বেরিয়েছে যে একজন রাজনৈতিক কর্মী একজন ছাত্রীকে বাড়ি থেকে ক্যাডার দিয়ে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেছেন। শুধু ধর্ষণই করেননি, ব্যাপারটি ধামাচাপা দিতে মেয়েটিকে ও তার মাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করে দু’জনেরই মাথা ন্যাড়া করে দেন।

বিস্তারিত»

ওবেসিটির প্রতিকার – দ্বিতীয় পর্ব

ওবেসিটির প্রতিকার – প্রথম পর্ব

চার
একসময় বলা হতো, স্বাভাবিক সুস্থ্যতা ও দেহ সৌষ্টব বজায় রাখার জন্য সারাদিনে ১০ হাজার স্টেপস হাটা উচিৎ।
এখনকার গবেষকরা বলছেন, দশ না, ছয় হাজার স্টেপই যথেষ্ট।
আরও খুশির খবর এই যে, এই ছ’হাজার স্টেপসের চারহাজারই আমরা হেটে ফেলি ২৪ ঘন্টার অন্যান্য দৈনন্দিন কর্মকান্ড করার ছলে।
বাকি যে ২০০০ পদক্ষেপ, সেটা শুধু কোনো একফাকে হেটে নিলেই হলো।

বিস্তারিত»

প্রসঙ্গ : পরকীয়া – তৃতীয় পর্ব

প্রসঙ্গ : পরকীয়া – প্রথম পর্ব
প্রসঙ্গ : পরকীয়া – দ্বিতীয় পর্ব

ছয়
এত সহজ কারণ (পরকীয়ার)? পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ প্রেমগুলো যে পরকীয়াই। মানসিক সঙ্গের জন্য কি (পরকীয়ায়) জড়ানো সম্ভব নয়?
প্রশ্নটা একজন গুনি লেখক ও কবির।
তাঁর নিজেরও চমৎকার লেখালেখি আছে “সাহিত্যে পরকীয়া” নিয়ে।
আমার উত্তর:
সঠিক সময়ে দুজন সঠিক মানুষের মধ্যে যা ঘটে,

বিস্তারিত»

প্রসঙ্গ : পরকীয়া – দ্বিতীয় পর্ব

প্রসঙ্গ : পরকীয়া – প্রথম পর্ব

চার
যেসকল পুরুষ পরকীয়াই শুধু না, একটিভ পরকীয়ায় জড়ান, তাঁরা প্রধানতঃই হলেন: সফল, দায়িত্ববান, সুখি দাম্পত্য ও পারিবারিক জীবন যাপনকারী।
এদের কেন পরকীয়ার দরকার পড়ে?
প্রচলিত ধারণাগুলো হলো: ১) আসলে লুইচ্চা ছিল, এখন সুযোগ পেয়ে সেটা প্রকাশিত হয়েছে, ২) পুরুষ মাত্রই এরকম, বহু নারীতে আগ্রহী ৩) বউ পুরান হয়ে গেছে, নতুন কিছু চায়।

বিস্তারিত»

রোম্যান্টিক মুভি বিড়ম্বনা

ভারতবর্ষের অধিকাংশ মুভিগুলোই রোম্যান্টিক ভালোবাসাকে সম্বল করে এর পটভূমি তৈরি করে। এখানকার গানের কথাগুলোর ক্ষেত্রে একই বিষয় প্রযোজ্য। হলিউড বা পাশ্চাত্য কিন্তু এই ব্যাপারে বাতিক্রম। তারা আমাদের পরিচালক অথবা গীতিকারদের মত ভালোবাসা নিয়ে এতটা আচ্ছন্ন নয়। জানিনা আমাদের এরকম প্রবণতা কেন।
মুভিকে যদি একটি দৃষ্টিকোণ থেকে কল্পনা বিলাস বলা যায়,যেখানে অপূর্ণ ইচ্ছাগুলোর বহিঃপ্রকাশ ঘটে তাহলে বলা যেতে পারে এখানকার মানুষগুলো বড়ই ভালোবাসা বঞ্চিত।
মুভি নামক কল্পনার জগতে নিজের অপ্রাপ্তিগুলোকে পূরণ হতে দেখে চাপা পড়া ব্যাথাগুলো কিছুটা উপশম হয় আরকি।

বিস্তারিত»

প্রসঙ্গ : পরকীয়া – প্রথম পর্ব

এক
একজন নারী বা একজন পুরুষ কেন পরকীয়ায় জড়ান, সেটা জানা গেলে এর কোনো প্রতিকার আছে, নাকি নাই তা বোঝা যেতে পারে।
এই সিরিজটা শুরু করলাম নারী পুরুষ উভয়েরই পরকীয়ার স্বরূপ আবিষ্কার করার জন্য।

অনেক পুরাতন ও এখনো প্রচলিত কিছু হাইপোথিসিস আছে নারী বা পুরুষের পরকীয়ার কারন নিয়ে।
এ সম্পর্কিত যে তত্ত্বটা বিবর্তনবাদ কেন্দ্রিক, সেটায় যাবো না কারন এখন আর সেটা প্রমান বা অপ্রমান –

বিস্তারিত»

ওবেসিটির প্রতিকার – প্রথম পর্ব

এক
যারা যারা জীবনে কখনো ওজন কমানোর চেষ্টা করেছেন, তাঁরা খুব ভাল করেই জানেন যে, কাজটা মোটামুটিভাবে পৃথিবীর কঠিনতম কাজগুলার একটা।
কঠিন কেন? কারন:
১) মাসে দেহের ওজনের ১%-এর বেশী কমানোর চেষ্টা করলে সেটা স্ট্যাবল হয় না। অর্থাৎ দেখা যায়, ওজন কমেছে কিন্তু স্বাভাবিক খাদ্যে ফিরে গেলে দ্রুত আবার তার একটা বড় অংশই ফিরে আসছে।
২) শুরুর পর তিন থেকে চার সপ্তাহ ওজন কমেতো না ই,

বিস্তারিত»