ভিডিও পোস্টঃ কফি হাউসের সেই আড্ডাটা…

প্রায় একবছর আগে সিসিবি’র যাত্রা হয়েছিল শুরু। পুরাটাই নিজস্ব স্বার্থে। আমাদের লেখার কোন জায়গা ছিল না। থাকলেও আমাদের বিষয়বস্তু একটু অন্যরকম হবার কারণে কমিউনিটি ব্লগে দেবার আগে দুই একবার ভাবতে হতো। পাহাড় সমান জমিয়ে রাখা স্মৃতিকথাগুলো আমরা তাই নিজেদের জায়গায় লেখা শুরু করলাম…

হতে পারে স্মৃতিকথা বেশীদিন লাগাতার হজম করা যায়না। লেখক, পাঠক সবারই একঘেয়ে লাগে। তাই আজ-অবদি আমরা অনেককেই পেয়েছি যারা হঠাৎ করে এসেছেন, কয়েকদিন পোস্ট, মন্তব্য করে হারিয়ে গিয়েছেন।

তাদের দোষ দেইনা। নিজেদের জায়গা পাবার পর হাত খুলে কিছুদিন লেখার পর আমি ক্যাডেট কলেজ সম্পর্কিত পোস্ট দেয়া কমিয়ে দিলাম…এখন পর্যন্ত তেমনটাই চলছে…

একঘেয়ে লাগলেও সেই জীবনটা মাঝে মাঝে মনে পড়ে যায় ধুম করে। তখন বুকে সামান্য ব্যাথা হয়, উদাস উদাস লাগে। জেমস এর গান শুনতে ইচ্ছা করে। তারজন্য অবশ্য একটু খোঁচা খাওয়া লাগে।

গতকালকে একটা ভিডিও দেখে তেমন একটাই খোঁচা খেলাম…ইদানিং লেখার অভ্যাস মনে হয় আমাকে ছেড়ে চলে যাচ্ছে। অনেক কথা মনে পড়ে গেলো সেই ভিডিওটা দেখে। কিন্তু লিখতে পারলাম না…যাই হোক!!

পৃথিবীর সবচে জঘন্য নেট স্পিড মনে হয় আমার। ব্লগে কেউ একটা ছবির লিংক দিলেও পারতপক্ষে ক্লিক করি না। কারণ বহুত গিয়ানজাম। সেই স্পিড দিয়ে আজকে ভিডিওটা আপলোড করে দিলাম…

রংপুর ক্যাডেট কলেজের সাতাশ তম ইনটেকের করা। প্রেজেন্ট ক্যাডেট থাকার সময় চিত্রায়িত। একটা মিউজিক ভিডিও ভালো লাগার জন্য এইটূকুই যথেষ্ট হবার কথা। কিন্তু তারচেয়েও বড় কথা মিউজিক ভিডিওটা দেখলে পেশাদার কাজ বলে মনে হয়। চিত্রগ্রহণ, সম্পাদনা সবকিছু। :salute:

পেয়েছি কিভাবে কিভাবে যেন, যারা করেছে তাদের সাথে যোগাযোগ নেই। ভিডিও ব্লগে দেবার আগে অনুমতির প্রয়োজন ছিল। সেটা নিতে পারলাম না। আশা করি ছোট ভাইরা আমার নামে কপিরাইট ভংগের মামলা করে বসবেনা।

মেগাশেয়ারের ডাউনলোড লিঙ্ক এইটা…টিপি দিলে একটা স্ক্রীণ আসবে। সেখান থেকে ডাউনলোড অপশন হিসেবে বাছাই করুন, ফ্রি। তারপর পরবর্তী লিংক চলে আসবে। ফাইলটির সাইজ ১৩ মেগাবাইট।

সবাই দেখবেন আশাকরি।

১,৭৪৬ বার দেখা হয়েছে

১৪ টি মন্তব্য : “ভিডিও পোস্টঃ কফি হাউসের সেই আড্ডাটা…”

  1. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    ভিডিও টা দেখতে দেখতে চোখটা কখন যে ভিজে গেল টেরই পেলাম না...কোন মানে আছে??
    যতসব আজাইরা ইমোশন...!!!

    মিউজিক ভিডিওটা দেখলে পেশাদার কাজ বলে মনে হয়। চিত্রগ্রহণ, সম্পাদনা সবকিছু।

    সহমত!


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  2. আহ্সান (৮৮-৯৪)
    ভিডিও টা দেখতে দেখতে চোখটা কখন যে ভিজে গেল টেরই পেলাম না…কোন মানে আছে??
    যতসব আজাইরা ইমোশন…!!!

    চোখ আমারটাও শুকনা থাকেনি...।
    তবে ইমোশনটাকে আজাইরা মনে হয়নি...। আমি জানি, কবীর তার কান্না টা লুকানোর জন্য বলেছে কথাটা...।
    ভাই কবীর, তুমি, আমি...আমরা সবাই এই ক্যাডেটসুলভ ইমোশনের জন্য গর্বিত...। আমাদের এই ইমোশনটুকু যেন বিধাতা আমাদের কাছ থেকে কেড়ে না নেন...। এই ইমোশনটুকু গেলে কিই বা থাকবে আর আমাদের????

    জবাব দিন
  3. পোলপাইনের কাজ কাম দেইখা গর্বে বুকটা ভইরা গ্যালো। আমার তো পাও আর মাটিত পড়তেই চাইতেছেনা।

    গাছ গুলা তো দেখি অনেক বড় হয়ে গ্যাছে। বিল্ডিং রং করায় না মনে হয় অনেকদিন। ক্লাস রুমের পিছনে সবুজ সবুজ বাক্সগুলো কিসের? ডাইনিং এ বেঞ্চ ছিল, এখন কি চেয়ার? কেউ কি বলতে পারবে?

    কত দিন হয়ে গ্যালো।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।