আমার ফুটবলপ্রীতি

ফুটবল খেলাটার সাথে আমার কেন জানি খুব একটা প্রেম নেই =(( । ছোটবেলা থেকেই স্বাস্থ্য অন্যদের তুলনায় কিছুটা ভাল হবার কারণে মা-খালারা আমাকে গাব্দু-গুব্দু (মতান্তরে ৩০ ব্যাচের শাহীন ভাইয়ের ভাষায়হোঁদল কুৎকুৎ) বলে ডাকতেন। সেই আমি আমার এই দেহ নিয়ে তড়িৎগতিতে মাঠ দাপিয়ে বেড়াব এমনটি ভাবার কোন কারণ নেই। তবে চট্টগ্রামের ষোল শহরে বন গবেষণা কেন্দ্রে আব্বুর যখন পোস্টিং ছিল তখন পাহাড়ের উপরে পাড়ার অন্যান্য বাচ্চাকাচ্চাদের সাথে ফুটবল খেলার সময় গোলকীপারের পোস্টটা আমার জন্য বাধা ছিল। সমবয়েসি বাচ্চারা কেন জানি আমার দেহ গলিয়ে গোলপোস্টে বল ঢুকাতে খুব একটা সুবিধা করতে পারতনা।

ক্যাডেট কলেজে যাবার পর সবাইকেই যেহেতু খেলাধুলা কিছুটা করতে হয়-আমাকে গড়ে পিটে “সাইজে” আনার দায়িত্ব নিলেন ৩১ তম ব্যাচের সাকিব ভাই। সাঁতার থেকে শুরু করে সব কয়টা খেলায় দুর্দান্ত রকমের ভাল ছোটখাট গড়নের এই মানুষটি ঠিক করলেন যে করেই হোক আমাকে দিয়ে হুনাইন হাউসের জন্য বাস্কেট,ভলিবল তো বটেই সেই সাথে ফুটবল ট্রফিটাকেও বগলদাবা করতে হবে। যেই ভাবা সেই কাজ-যথারীতি অনুশীলন শুরু হল। সাকিব ভাই প্রতিদিন আমাকে “সাইজ” করতে লাগলেন :(( :(( :(( । উনার “সাইজের” ফলেই হোঁদল কুৎকুৎ ভাবটা দূর হল, ঝুলে পড়া গাল “শোয়ার্জেনেগারের” মত চুপসে আসল, জীবনে প্রথম বাস্কেটবল হাতে নিয়ে ড্রিবল না করে সরাসরি হেঁটে গিয়ে গোটা বাস্কেটবল ফিল্ডের হাসির খোরাক হওয়া আপনাদের এই মাস্ফ্যুও লে আপ করে পয়েন্ট করা শিখল :shy: :shy: (আসলে লে আপ করা লাগতনা,আমার দোস্তরা আকারে আমার চাইতে ঠিক এক ফুট ছোট হওয়ায় বল হাতে নিয়েই সোজা বাস্কেট…হুঁহুঁহুঁ হাঁটুতে বুদ্ধি নিয়ে সারাজীবন টিজ খেলেও এই এক জায়গায় বাছাধনেরা কাবু ছিল :grr: :grr: )। ক্রিকেটেও উচ্চতার সুবিধা নিয়ে জোরেশোরে বাউন্সার থেকে দু একটা উইকেট ঝুলিতে পুরতে লাগলাম :shy: :shy: (৬ ফুটিয়া আমার এক ওভারে তখনকার ৫ ফুটিয়া সোহরাবের ২৩ রানের কাহিনী এখানে উহ্য থাকবে 😡 )

কিন্তু ফুটবল? হা হতোস্মি! তরী যে তীরে ছিল সে তীরেই রয়ে গেল। ম্যারাডোনা বাম পায়ে খেলে এটা শুনে স্বভাবজাত ডানপেয়ে আমি বাম পায়ে শট নিতে চেষ্টা করতে লাগলাম…অবশেষে সাকিব ভাইয়ের মত ধৈর্যশীল মানুষেরও ধৈর্যের বাঁধ ভেঙ্গে গেল। ২ নম্বর ফুটবল ফিল্ডে আমাকে “আরামে দাঁড়া” পজিশনে দাঁড় করিয়ে সাকিব ভাই আর রহিম ভাই পেটের নীচে কিন্তু হাঁটুর উপরে নরম একটা অংশ লক্ষ্য করে একের পর এক পেনাল্টি শট নেওয়া শুরু করলেন :(( :(( :(( লক্ষ্যভেদ হয়েছিল কিনা তা না হয় না-ই বা বললাম :no: :no: কিন্তু আমার ক্যাডেট লাইফে ফুটবল খেলার সেখানেই ইতি।

ফুটবল অনেকেই খেলেন না কিন্তু তা বলে সাপোর্ট করতে তো আর বাধা নেই। বিশ্বকাপে,উয়েফা বা ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে সব সময় আমার প্রিয় দল হল্যান্ড। নাহ,প্রিয় পাঠক,প্লিজ এই সাপোর্টকে টোটাল ফুটবলের আবেদন ,রুড গুলিতের চুল, ডাভিডসের কাজল-কালো চোখের পিসিসিময় আহবান,স্ট্যামের মিডফিল্ডে বল ট্যাকলিং, ভ্যান ডার সারের গোলকিপিং কিংবা প্যাট্রিক ক্লুইভার্টের শট নেবার দক্ষতার রৈখিক ফলাফল ভেবে নেবেন না। আপনাদের মাস্ফ্যু :just: মাস্ফ্যুই আছে,মানুষ হয়নাই B-)। হল্যান্ডকে অন্ধ সাপোর্ট দেবার কারণ আর কিছুই না, আমার জীবনের প্রথম প্রেম মেহেদী চুলের এক ডাচ কিশোরী। ৭/৮ বছর বয়েসে নানুর বাসার তিন তলায় ভাড়া থাকতে আসা এক ডাচ পরিবারের কনিষ্ঠতম সদস্যা অপূর্ব সুন্দরী এই বালিকাকে দেখলে আমার হৃদয়ে “সুখের মত ব্যথা” বেজে উঠত। মনে আছে,ওরা যখন বাংলাদেশ ছেড়ে চলে গেল তখন খুব কান্নাকাটি করেছিলাম :(( :(( ।”কিরে,কাঁদছিস কেন?”আম্মুর এই প্রশ্নের উত্তর ছিল “আম্মু ভীষণ পেট কামড়াচ্ছে”। =(( =(( =((

আমি ক্লাস ইলেভেনে থাকতে সেই মেয়ে বাংলাদেশে এসেছিল।নিয়তির কি নির্মম পরিহাস,আমি তখন আইসিসিএলএমএমে অংশ নিচ্ছি এবং খাকী পোশাকের ক্যাডেট ললনাদের সামনে “ভাব” নেবার ব্যর্থ প্রয়াস চালাচ্ছি(সামিয়াপ্পু সহ অন্য সব গার্লস ক্যাডেটদের কাছে করজোড়ে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি 🙁 🙁 🙁 )। ছুটিতে যখন এলাম তখন আমার ইঁচড়ে পাকা ছোটবোন আমাকে রসিয়ে রসিয়ে বলল-“ভাইয়া জানিস ****মারী আগের চাইতেও অনেক সুন্দর হয়েছে-সাদা রঙের সালোয়ার কামিজ পড়ে এসেছিল আমাদের বাসায়… 😡 😡 😡 ”

মেহেদী রঙের চুল,হলদে পেলব ত্বক আর হরিণের মত ভিরু চোখের “ওগো বিদেশিনী,চিনি তোমারে চিনি” সেই ডাচ তরুনীকে জীবনে পাকাপক্তভাবে স্থান দেবার আগেই বুক ভরা আশা ধুক করে নিভে গেল যখন শুনলাম ওর বাবা ইংবার্ট আঙ্কেল বলছেন-“হেয় ম্যাশি, মাই ডটার্স বয়ফ্রেন্ড ইজ এট লিস্ট সিক্স ইঞ্চেস টলার দ্যান ইউ আর” x-( x-( x-( । শুনেছি ও হোটেল ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়েছে-বর্তমানে কাজ করে আমস্টারডামের হোটেল শেরাটনে। আপনারা কেউ যদি সেখানে যান এবং ওখানে মেহেদী চুলের ছিপছিপে গড়নের কোন তরুনীকে দেখেন যার বিদেশী অবয়বের আড়ালে কোথায় যেন একটা বাঙ্গালিয়ানা ছাপ লুকিয়ে রয়েছে(ওর মা বাঙ্গালি বলে)-বুঝে নেবেন এ-ই সে। কাছে গিয়ে কষ্ট করে একটু বলবেন-“এই ****মারী,মাসফি ফ্রম বাংলাদেশ সেইড-“ইক হাউ ভান যাউ”,আমি তোমাকে ভালবাসি।

হল্যান্ড যখনই কোন খেলায় জেতে,অফ সাইড আর সেম সাইডের পার্থক্য না জানা আকাট মূর্খ এই আমিও দারুণ উচ্ছ্বাসে মেতে উঠি। কেন জানেন? কারণ আমার কল্পনায় তখন ভাসে হল্যান্ড গোল করলেই আধা সোনালী আধা মেহেদী চুলে বিনুনি করা পুতুলের মত এক ডাচ কিশোরীর খিলিখিলি হাসি…কমলা রঙের জার্সি পড়া খেলোয়াড়দের উৎসবের মাঝে আমি কল্পনা করি এমন একজনকে- পৃথিবীর না জানা কোন এক প্রান্তে যে হয়ত ঠিক একই সময়ে টিভিসেটের সামনে বসে আমারই মত উচ্ছ্বাসিতথচ্ছে,আমি যেভাবে হাত নাড়ছি সে হয়ত তা-ই করছে!

ধুর!!! লিখতে গেলাম ফুটবল নিয়ে আর লিখে ফেললাম চাইল্ডহুড সুইটহার্টের কথা। রকিব,মাহমুদ সহ পাজির পা ঝাড়া যারা যেসব পোলাপাইন এই লেখা নিয়ে আমাকে ব্ল্যাকমেইল করার ধান্দায় আছে তাদের জন্য দুঃসংবাদ। আমার পার্বতী আমার এই প্রথম প্রেমের গল্প জানে এবং ও আমাকে বলেছে যে হল্যান্ডে গেলে অবশ্যই ও তাকে খুঁজে বের করবে।

এবার আসি ক্লাব ফুটবল নিয়ে। ক্লাব ফুটবল নিয়ে আমার কোন মাতামাতি নেই শুধু একটা ক্লাব ছাড়া-রেড ডেভিলস বা ম্যান ইউ। কিন্তু এক্ষেত্রে ঘটনা সম্পূর্ণ ভিন্ন-ম্যান ইউয়ের সাথে যদি পামোশাক্রান্ত ক্যাডেট সমিতিরও খেলা হয় তাহলেও আমি বাজি ধরব দ্বিতীয়টির পক্ষে । কারণ আর কিছুই না-আমার বদমায়েশ ছোট বোনের ক্রিসচিয়ানো রোনালদোকে নিয়ে বাড়াবাড়ি মাত্রায় উচ্ছ্বাস 😡 😡 😡 ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে সে ডাকে “মাই সুইট ক্রিস” বলে আর পর্তুগালে বিপাশা বসুকে চুম্মাচাট্টি করতে গিয়ে যখন সে ধরা পড়ল তখন ওই পিচ্চি মেয়ের অন্ধ বিশ্বাস-“এগুলো সব পাপারাজ্জিদের ষড়যন্ত্র, ক্রিস এরকম হতেই পারেনা!”

আগে যেখানে মোস্তাকিমের চাপ খাইয়ে এই মেয়ের বাইরে খাওয়ার নেশা দমন করতাম সেখানে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো পর্তুগালের বলে পর্তুগীজ ফুড শপ ধানমন্ডির “নানদো’জ” ছাড়া এখন সে আর কোথাও খায়না।আর একমাত্র ছোটবোনের আবদার ফেলা যায়না বলে আমার হালকা মানিব্যাগ প্রতিদিন হালকা থেকে হালকাতর হচ্ছে… 😕 😕 🙁 🙁 :(( :((

পরীক্ষা খারাপ হলে আমার এই পিচ্চি বোনটা যখন মন খারাপ করে তখন তাকে আমি সান্তনা দেই এটা বলে যে লন্ডনে পড়তে গেলে ওকে আমি ওই রোনালদো ব্যাটার ম্যাচ দেখতে নিয়ে যাব x-( x-( । “তুই পারবি ভাইয়া??” বলে সে যখন বড় বড় চোখ করে তাকায় তখন আমি মনে মনে বলি-আমি না পারলেও লন্ডনে সিসিবি পরিবারের এমন একজন আছেন যিনি পারবেন। খেলা পাগল এই মানুষটাকে এখনো যে কেন আনুষ্ঠানিকভাবে সিসিবি গেমস প্রিফেক্ট করা হয়নি এটা নিয়ে আমার ভীষণ ক্ষোভ x-( x-( x-( আর সেই সাথে কোলকাতার আকাশদাকে করা হবে এসিস্ট্যান্ট গেমস প্রিফেক্ট।

পাঠক তো এতক্ষণে বুঝে গিয়েছেন লোকটা আর কেউ না,আমাদের এহসান ভাই। আর এই ২০ তারিখ উনার জন্মদিন।

আচ্ছা,স্বীকার করছি এটাও জন্মদিনের পোস্ট, সমস্যা আছে কোন? 😡 😡

সবাই কষে ফুটবলে একটা লাথি দিয়ে বলুন-হ্যাপি বাড্ডে এহসান ভাই!!! :party: :party: :party:

৮,৪২৭ বার দেখা হয়েছে

১০২ টি মন্তব্য : “আমার ফুটবলপ্রীতি”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    কি হে জামাই, তারিখ নিয়া আবার ধরা খাস নাই তো! 😉 খিয়াল করিয়া জামাই বাবাজি, খুউউব খিয়াল কইরা :grr: :grr:

    এহসান ভাই শুভ জন্মদিন, ফয়েজ ভাইয়ের মতন বুড়া হয়ে গেলেনতো 😀


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    নাহ! পোলাডা মানুষ হইলো না।
    ১২ তারিখের পোস্ট দেয় ১০ তারিখ, আবার ২০ তারিখের টা দেয় ২১ তারিখ।
    আরে গাঁধা, তুই কবে মানুষ হবি ? :grr:

    দেরিতে হলেও শুভ জন্মদিন এহসান ভাই।
    দেশে আসলে আপনার সাথে আমি তিন প্রহরের বিল দেখতে যাবো। 😀


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  3. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    শুভ জন্মদিন এহসান ভাই :party: :party: :party:

    আমিও হল্যান্ডের সাপোর্টার... তবে সেটা গুলিত-বাস্তেন-রাইকার্ডকে দেখে... এহসান ভাইও মনে হয় হল্যান্ডকে ভালা পায়...

    অফট. কিরে হোদল কুতকুত... খবর ভালো?


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  4. শার্লী (১৯৯৯-২০০৫)

    মাস্ফ্যু ওরফে জামাই ভাই, ঈংল্যান্ডে ২০ তারিখ হলেও বাং;লাদেশে কিন্তু ২১ তারিখ আজকে। এবার কিন্তু দেরি হইয়া গেছে। আগের বার করছিলেন বেশি তাড়াতাড়ি 😀 😀

    জবাব দিন
  5. রকিব (০১-০৭)

    শুভ জন্মদিন এহসান ভাইয়াআআআআআআআআআআআআ :party: :hug:
    মাস্ফ্যু ভাই, আমি কিছু কমু না ডাচ-সুন্দরীরে নিয়া, মিউচুয়াল আন্ডারস্ট্যান্ডিং বইলা একটা ব্যাপার আছে না; তয় আমারগুলাও আবার আপনি কাউরে কইয়েন না।
    আরেকটা পয়েন্ট, আপনার বোনরে মনে হয় এহসান ভাই রুনাল্ধুর খেলা নাও দেখাতে পারেন; শুনলাম ওনাকি মাদ্রিদে ঘাটি গাড়তেছে :grr: :grr:


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  6. শার্লী (১৯৯৯-২০০৫)

    ভুলেই গেছিলাম জামাই ভাইয়ের ভুল ধরতে গিয়ে।

    জন্মদিনের অনেক অনেক শুভেচ্ছা এহসান ভাই। আপনি ফয়েজ ভাইয়ের মত বুড়া না হন সেই প্রত্যাশা রইল। 😀

    জবাব দিন
  7. সামি হক (৯০-৯৬)

    শুভ জন্মদিন এহসান ভাই :boss: ...

    জামাই, লেখা বরাবরের মতো অসাধারণ হয়েছে... এহসান ভাইরে অতিসত্ত্বর গেমস প্রিফেক্ট বানানো হোক, উনি গেমস প্রিফেক্ট হলে লিভারপুল ব্লগে আলাদা ট্রিট পাবে B-)

    জবাব দিন
  8. এহসান (৮৯-৯৫)

    কালকে এই মৌসুমে প্রথমবারের মত ক্রিকেট খেললাম। আসলে পুরা তিন মৌসুম পর ক্রিকেট খেলা। যাই হোক আজকে সকাল থেকেই পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে... সর্বাঙ্গে ব্যাথা। 🙁 তৌফিকের মত ৩৭ ঘন্টার না হলেও আমার ২৯ ঘন্টার জন্মদিন হচ্ছে গত কয়েক বছর। যাই হোক সকাল বেলা ঘুম থেকে বেশ কিছু গতানুগতিক sms পেলাম(মানে প্রতিবছরই যারা কষ্ট করে মনে রাখে আরকি... বাবা, মা,বোন আর বিশাল যৌথ পরিবারের কাজিন গুষ্টি)। সবাইরে এক এক করে ফোন করে কিংবা মেইলে ধন্যবাদ জানাইলাম।

    এরপর প্রথম আলো, বিবিসি ঘুরে সিসিবি তে আসলাম। হঠাৎ করেই আমার নিজেরে এতিম এতিম লাগা শুরু হইলো। 😕 কতজন সিসিবিতে জন্মদিনের পোষ্ট পায়... আর আমি... যাই হোক নিজেরে বুঝ দিলাম...ব্যস্ততায় ইদানীং আমি মোটামুটি অসামাজিক জীব। বিয়ে করে ফেলার পর ফেসবুকেও ঢুঁ মারা হয় কম। আর সিসিবির জন্মদিনের প্রিফেক্ট কিংবা অন্য কেউ আমার ফ্রেন্ড লিস্টে নাই... তাই আমি কোনো পোস্ট প্রাপ্য না। 🙁

    যাইহোক মজার একটা ব্যাপার ঘটলো হঠাৎ... ইউনিভার্সিটিতে পড়ার সময় এক সিলটি কইন্যার সাথে টুকটাক টাইম-পাস লুইচ্চামি করতাম। ওই ফুরিও আমারে বালা পাইতো মনে হয়। ২০০৭ এ যখন দেশ এ গেলাম তখন আমারে বিয়ে দেবার খুব তোড়জোড় চলছে... এর ওই ফুরি তখন আমেরিকা প্রবাসী। বহুদিন পর কথা হইলো। আমারে কয় সে নাকি বিলেত আসতে চায়... আমিও সিরিয়াসলি বললাম... অনেকদিন তো ভাইয়া ভাইয়া হইলো চলো এইবার তোমার সাঁইয়া হয়ে যাই। বাংলাদেশী টিপিক্যাল মাইয়াগুলার মত ও আমারে কাভি হ্যা কাভি না মার্কা উত্তর দিলো। আসলে আরেকটু তেল খাইতে চেয়েছিলো মনে হয়। কিন্তু আমি ভাবলাম হুদাই আর ঢং করার কাম নাই... আমার চোখের সামনে আম্মা যেই মেয়ে রাখসে ওরেই বিয়ে করে ফেলি। বিয়ের দুইদিন পর আবার মেসেঞ্জারে দেখা... আলাপ শুরুর আগেই কইলাম... আমি বিয়ে করে ফেলসি... মনে করে আমি ঢং করি... আমি কই আররে না......যাই হক এরপর অই ফুরির লগে আর তেমন একটা কোনো যোগাযোগ নাই। ওই ফুরি আইজকা সকালে কয় ফেসবুক খুব বিরক্তিকর। কত কইয়েকদিন ধর।।ওরে নাকি রিমাইন্ডার দিতেই আছে... আজকে আমার জন্মদিন। তাই জন্মদিন উইশ করতে নক করসে মেসেঞ্জারে। বেশ মজা পাইলাম 😛

    তখন আমি আবার ফয়েজ ভাই এর সাথে চ্যাট করছিলাম। তাই মনের আনন্দে ফয়েজ ভাইরে কইলাম... ফজু ভাই আজকে আমার জন্মদিন আমারে উইশ করেন। কয় আমিতো আজকে পোস্ট দিয়া ফালাইছি... আমি আর পোস্ট দিতে পারুম না। আমি কইলাম সিসিবিতে আমারো একটা হক আছে... আর আপনি কিছু করবেন না... কয় তুমি আমার পোস্টে কমেন্ট কর... আমি কইলাম আপনার লেখা পড়ছি কিন্তু কমেন্টামু না আরো কইলাম আপনি হয়তো আমার চেয়ে ভালো লিখেন কিন্তু আপনার চেয়েও ভালো লেখক সিসিবিতে আছে। বেচারা এম্নিতেই বুড়া হইয়া গেছে...তাই একটু গোস্যা করছে মনে হয়। শেষে আমারে কয় যাও তোমার পোস্টের ব্যাবস্থা করছি। আমিও সারাদিন ধইরা বইয়া আছি কোনো পোষ্ট নাই... বিকেলে যখন বেরুবো তখন সিসিবির সুন্দর চাঁদ (অমাবস্যার) মেসেঞ্জারে কয় ভাইজান সিসিবিতে যান... আপনারে সবাই উইশ করতেছে... :shy:

    যাই হোক ধন্যবাদ তাহসিন মাসরুফ। চমৎকার একটা পোষ্ট দেবার জন্য। তোমার জন্মদি্নের পোস্টগুলা মাঝে মাঝে ভুয়া হয় :grr: (যেমন ফজু ভাইএর জন্মদিনেরটা).... কিন্তু আজকেরটা খুব ভালো হইছে... দাওয়াতের খানা মজা হওয়া না হওয়া নাকি নির্ভর করে নিয়তের উপর। তোমার নিয়ত ভালো ছিলো তাই লেখা খুব ভালো হইছে। পাঁচ তারা। নিজের জন্মদিনের পোস্ট বলে কথা... প্রিয়তেও যোগ করলাম।

    কাইয়ুম, কামরুল, আকাশ, জিহাদ, স্বপ্নচারী, রকিব, দিহান, রবিন, শার্লী, সাজিদ, সাব্বির আর লিভারপুলের সামীসহ যারা দেশে এবং দেশের বাইরে থেকে আমাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন... সবাইকে ধন্যবাদ।

    আকাশ, কেক বেশ ভালো ছিলো কিন্তু একটু বেশী ক্রিমি হয়ে গেছে। কোলোস্টেরল বেশী তো তাই আজকাল ফুল ক্রিম ফুড কম খাই।

    কাইয়ুম, বুড়া হয়ে যাচ্ছি সত্য কিন্তু এখনই মল্লিকভাইদের দলে ফেলে দিও না। আর আজকে আমি আমার মাদারস ডে আর ফাদারসডে পালন করি। বূড়া হবার ব্যাপারটা মাথায় রাখি না।

    সামি, আমিতো ব্লগে সব সময়ই লিভারপুলরে নিয়ে ভালোই লাফালাফি করি... সিনিয়র বইলাই তো আমিন,রিবিন কিংবা স্বপ্নচারীরা আমারে সরাসরি কিচ্ছ্যু কয় না। আর এদিকে আমিতো অঘোষিত গেমস প্রিফেক্ট অনেক আগেই হইসি... সেই কমেন্টখোর জ়ুনা আমারে ওইটা করে দিয়ে গেছে। যদিও ব্যাপারটা এডজুট্যান্ট ইউসুফ ভাই কিংবা প্রিন্সিপাল লাবলু ভাই এর মত অফিসিয়াল স্বীকৃতি পায় নাই। 🙂

    এই পোস্টের পরিচালক মাসরুফ হলেও প্রযোজক ফয়েজ ভাই। তাই ফয়েজ আপনার জন্যও রইলো আমার কৃতজ্ঞতা।

    শেষ করি, এই ব্লগে আমার একজন মিতা আছে। যদিও আলসেমী কিংবা অসামাজিক জীব হিসাবে কখনোই তাকে এই ব্যাপারটা বলা হয় নাই। ব্লগে সবাই ওরে বলে হাঁসের বাচ্চা। বেচারা এখন হাসপাতালে। আমার নামে এতদিন আমি কোনো হিরোর দেখা পাই নাই। অবশেষে 'তুহিন দ্য গ্রেট' এর খোঁজ পেলাম। সবাইকে অনুরোধ করবো তুহিনের জন্য আরেকটু বেশী করে দোয়া করতে... আর ৯৯ গ্রুপ, কেউকি তুহিনের একটু আপডেট দিবে প্লিজ।

    জবাব দিন
  9. তানভীর (৯৪-০০)

    এহসান ভাই, শুভ জন্মদিন। স্যরি ভাইয়া, দেরী করে ফেললাম। 🙁 🙁
    কনফেডারেশনস কাপ নিয়ে কেউ কোন লেখা দিল না, এখানকার বেশীর ভাগ ক্যাডেট মনে হয় আর্জেনটিনার সাপোর্টার- এজন্য। 🙁

    মাস্ফ্যু, একদম শেষে আসার আগ পর্যন্ত বুঝতেই পারিনি এটা জন্মদিনের পোস্ট! তুই খুব ভাল লিখছিস রে! :boss: :boss:

    জবাব দিন
  10. কালকে সারাদিন ডিস্কানেক্ট থাকার জন্য বিশাল দেরি করে ফেলছি :bash: :bash:

    :party: :party: :party: হ্যাপি বাড্ডে এহসান ভাই :party: :party: :party:

    ভাই, আপনের ফুটবল খেলা দেখতে মঞ্চায়, আর আপনারে গেমস প্রিফেক্ট বানানো হোক 😀

    জবাব দিন
  11. কাছে গিয়ে কষ্ট করে একটু বলবেন-”এই ****মারী,মাসফি ফ্রম বাংলাদেশ সেইড-”ইক হাউ ভান যাউ”,আমি তোমাকে ভালবাসি।

    এই জাতীয় কথা নিশ্চয় আমাদের হৈলেও হৈতে পারে ভাবী জানে না !! 😡 😡 😡 😡 😡 😡 😡 😡
    জানলে আপনারে সহজে ছাইড়া দিবো না। মেয়েরা ভালোবাসার ভাগ পছন্দ করে না (মুরুব্বিরা কইছে আর কি 😀 😀 )

    রকিব,মাহমুদ সহ পাজির পা ঝাড়া যারা যেসব পোলাপাইন এই লেখা নিয়ে আমাকে ব্ল্যাকমেইল করার ধান্দায় আছে
    হোদল কুত-কুত ভাই, আমরা এইজাতীয় অপমান মেনে নেবো না ;;; ;;;
    ধান্দায় না, এইবার করে দেখাবো B-)

    অপেক্ষা করেন, আমি ঢাকায় আইসা লই 😀

    জবাব দিন
    • মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

      B-) শুন, মনটাকে বিশাল করতে শিখ।অতীতে একজনকে ভালবেসেছিলাম বলে বর্তমানে কাউকে ভালবাসা যাবেনা এইগুলান হৈল সংকীর্ণ চিন্তাধারা...আমাদের তরুণ সমাজের উচিৎ এ থেকে বেরিয়ে আসা... :-B :-B :-B

      অফ টপিক-ঢাকায় আইসা সিধা আমার বাসায় লাঞ্চ,বিকালে মোস্তাকিমের চাপ আর রাত্রে স্টারের ল্যাম্ব লেগ রোস্ট-তোর পিলিজ লাগে বেফাঁস কিছু কৈয়া আমার সাধের পেরেমটার ১২ টা বাজাইস না :(( :((

      অফ টপিক ২- 😡 😡 আরেকবার ঐ নামে ডাকলে তরে আমি রুমভর্তি পিসিসির মইধ্যে লুঙ্গি পিরায়া লং আপ করায়া রাইখা বাইরে থিকা দর্জা বন্ধ কৈরা দিমু 😡 😡 😡

      জবাব দিন
  12. হাসান (১৯৯৬-২০০২)

    * নামঃ তাহসিন মাসরুফ হোসেন মাসফি
    * ক্যাডেট নামঃ মাসরুফ
    * ক্যাডেট নম্বরঃ হ-১৮৭৪
    * ব্যাচঃ ৩৪তম
    * কলেজঃ ঝিনাইদহ
    * অবস্থানকালঃ ৯৭-০৩
    * সর্বমোট ব্লগ লিখেছেনঃ টি

    ঠিক বুঝলাম না 😕

    জবাব দিন
  13. হাসান (১৯৯৬-২০০২)

    * নামঃ তাহসিন মাসরুফ হোসেন মাসফি
    * ক্যাডেট নামঃ মাসরুফ
    * ক্যাডেট নম্বরঃ হ-১৮৭৪
    * ব্যাচঃ ৩৪তম
    * কলেজঃ ঝিনাইদহ
    * অবস্থানকালঃ ৯৭-০৩
    * সর্বমোট ব্লগ লিখেছেনঃ টি

    ঠিক বুঝলাম না

    জবাব দিন
  14. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    এইটা যে বাড্ডে পোস্ট শেষ প্যারার আগে পর্যন্ত বুঝতে পারিনাই । পোলাটা দিনে দিনে মহীরুহ হয়ে উঠছে ।

    এহসান ভাই দেরীতে হলেও জন্মদিনের অনেক শুভেচ্ছা ।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।