বিজিস-এর “ট্র্যাজেডি” শোনার পর…

ট্র্যাজেডির আনন্দ
===============
সারাদিন যত ব্যস্ততায়
যত আনন্দময়তায়
যত বন্ধু-বাৎসল্যতায়
কাটুক না কেন
তোমার সময়,
আমি জানি –
রাত এলে, কী এক শূন্যতা
ঘিরে ধরে তোমায়।
বিশিষ্ট এক শূন্যতা-উদ্ভুত একাকিত্ব,
কুরে কুরে খায় তোমায়।
সকাল অবদি কুরে কুরে খায় –
আর ক্লান্ত করে,
ক্লান্ত, ক্লান্ত করে তোমায়।

ক্লান্ত চোখে ঘুম ভেঙ্গে যখন
তুমি ওঠো,
চোখ কি ভিজে ওঠে কখনো?
তুমি কি জানো,
প্রতিটা সকালে কেন এইভাবে
চোখ ভিজে যায় তোমার?

যদিও কখনো কখনো
একাকি গেয়ে ওঠো
“…বিচ্ছেদের অনলে, অঙ্গ যায় জ্বলিয়া…”
– তবুও তুমি হয়তো তোমার এই
স্বনির্বাচিত একাকিত্বকে ভালই বাসো,
আর ঐ চোখ ভিজে যাওয়াটা
হয়তোবা তোমার – “সুখের কান্না”!

যদি তাই না হবে,
কেন তবে বয়ে বেড়ানো এই
সৌখিন একাকিত্বটাকে?
যখন নিজ গুনে
কত কত সুযোগ
পায়ে এসে লুটিয়ে
মাথা কুটেছিল, তোমার –
হোক তা একচুয়াল অথবা ভার্চুয়াল!!!

আজ থেকে, একে কি তবে আমরা
“ট্র্যাজেডির আনন্দ” এই নামে ডাকতে পারি???

“When the feeling’s gone and you can’t go on
It’s tragedy
When the morning cries and you don’t know why
It’s hard to bear
With no-one to love you
you’re goin’ nowhere
Tragedy”

সম্পুর্ন লিরিকস দেখা যাবে এখানে

১,৫৫৮ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “বিজিস-এর “ট্র্যাজেডি” শোনার পর…”

    • পারভেজ (৭৮-৮৪)

      আইডিয়াটা নিয়ে আমিও আসলে অনেকদিন থেকে ভাবছিলাম, জানো?
      কিন্তু ক্যামনে নৈর্ব্যক্তিকভাবে সাজাই, সেটা কোনভাবেই মাথায় আসছিল না।
      গতকাল ট্রাজেডি গানটা শুনতে শুনতে এবং লিরিকস দেখে গাইতে গাইতে উদ্ধৃত লাইনগুলো দেখে আইডিয়াটা হঠাৎ করেই মাথায় খেলে গেল...

      আমার বন্ধুদের দিয়েছিলাম পড়তে।
      ওরা বললো, পড়ে শুনাতে।
      শুনালাম।
      শুনে একজন বললো, "Loneliness is an addictive disease"
      যারা একবার নিজের একাকিত্বের মোহে পড়ে, কিছু না কিছু অজুহাত তৈরী করতেই থাকে সেটাকে ধরে রাখার জন্য।
      বন্ধুর ভাষায় "It's an addiction of someone who prefers to be in self-exile..Like the character portrayed in Pervez's poetry."
      ও আরও বললো "In this type of situation the actor, finds so many excuses to throw him/her to dungeons ....it's a kind of sadistic pleasure!"

      বন্ধুকে বললাম, কথাগুলা এখানে দিতে।
      রাজি হয় না। বলে "I understand but can't write melodically ..."

      আচ্ছা বলো দেখি, এই যে এত কিছু বললো আমার বন্ধু, এইগুলা কি যথেষ্ট আর্টিকুলেটেড না???


      Do not argue with an idiot they drag you down to their level and beat you with experience.

      জবাব দিন
    • পারভেজ (৭৮-৮৪)

      সেটা তো হতেই পারে।
      যাঁদের ঘটনা সেটা, অর্থাৎ "আজন্ম আসক্তি" - তাদের কথা ভেবে কিন্তু এটা লিখি নাই।
      কিছু কিছু মানুষকে কাছ থেকে দেখে আমার মনে হয়েছে, তাদের আসক্তিটা অর্জিতও হতে পারে।
      অবশ্য গুন-দারটা যে কোনটাই হতে পারে: আজন্ম অথবা অর্জিত।
      আসলে যেটাই হোক, লংরানে এটার যে কিছু কুফলও আছে সেটা জানানো ছিল একটা উদ্দেশ্য।
      আরেকটা উদ্দেশ্য হলো অন্যদের এওয়ার করা যে, সৌখিন একাকিত্বে ভোগাদের নিয়ে উৎকণ্ঠা বোধ না করার কিছু নাই।


      Do not argue with an idiot they drag you down to their level and beat you with experience.

      জবাব দিন
  1. খায়রুল আহসান (৬৭-৭৩)

    "কেন তবে বয়ে বেড়ানো এই
    সৌখিন একাকিত্বটাকে?" - এর উত্তর তাদের জানা নেই, যারা মানসিকভাবে চির একাকী। আকাশের কোন তারা কিংবা নিঃসঙ্গ কোন ফুল
    "প্রতীক হয়ে ওঠে তাদের, একা যারা,
    ভীড় ভাট্টার মাঝেও একা, বাক্যহারা।" - (আমারই কোন একটা কবিতা থেকে উদ্ধৃত)।

    জবাব দিন
    • পারভেজ (৭৮-৮৪)

      "ভীড় ভাট্টার মাঝেও একা, বাক্যহারা" - বাহ্‌! দারুন বলেছেন তো?

      আমি সম্প্রতি অনুসন্ধান করে ফিরছি, লং-রানে এঁরা কতটা সুখি হয় এই একাকিত্ব-বিলাসে?
      শর্টরানে যে এঁরা এটা উপভোগ করে, সেটায় কোন সন্দেহ নাই আমার।
      তবে, আমার কিন্তু মনে হয়েছে এই একাকি মানুষ গুলো একটা সময় অনেক যত্নে লালিত ও অর্জিত এই একাকিত্বের ফাঁদে নিজেরাই আটকে যায়।
      ছিড়তে চাইলেও তখন তারা যে তারা আর এটা যে ছিড়তে পারে না, সেটা হয়তো তাদের ভোগায়।

      এরকমটা কি হতে পারে, খায়রুল ভাই?


      Do not argue with an idiot they drag you down to their level and beat you with experience.

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।