হ্যাটস অফ সিসিবি……………………

প্রথমেই আমার পক্ষ থেকে স্বপ্নময় ও স্বপ্ন কিশোর কিশোরী গুলোর প্রতি শ্রদ্ধা রইল।
ওরা যা করেছে এক কথায় অসাধারণ।
ব্লগিং নামক জিনিসটা আমার কাছে প্রথম এসেছিল অলস জীবনের বিলাস হয়ে।
প্রথম চাকরিতে ঢোকার পর অফুরন্ত অবসরে কী করব বুঝতে পারছিলাম না।তখনই বুয়েটের আমার রুমমেট কাম কলিগ এক বন্ধু আমাকে সামু ব্লগের সাথে পরিচয় ঘটিয়ে দেয়। পড়তে থাকি সেখানে ।মজা ও পেতে থাকি খুব দ্রুত। অবাক হয়ে লক্ষ্য করি সেখানকার মানসম্পন্ন ব্লগারদের অনেকেই ক্যাডেট। আমার ক্যাডেট কলেজের কোন এক ঘটনা নিয়ে প্রথম লিখি সামুতে।ছদ্মনামের কারণে আমার পরিচয়টা সেখানে প্রকাশিত ছিল না। এমনি সময় সেই লেখার কমেন্টে জিহাদ আমাকে সিসিবির হদিস দেয়।
দুকে পড়ি সাথে সাথেই। সেটা মে বা জুন মাস ২০০৮ হবে। কিন্তু কিছুতেই রেজিস্টার করতে পারছিলাম না। আমার বন্ধু শামস তখন লেখে সিসিবিতে সে তপুকে জানায়।
তপু আমাকে মেইল দেয় একটা। কিন্তু এই অলস আমাকে দিয়ে তখন ঢোকা সম্ভব হচ্ছিল না কোনমতেই।
গত মে তে আমাদের হারিয়ে যাওয়া বন্ধু আলমের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী ছিল। মন বিক্ষিপ্ত ছিল। তাই ভাবলাম ওকে উৎসর্গ করে লিখি কিছু। সামুতে লিখতে থাকি ক্যাডেট নম্বর ১৮৬২। কিন্তু সেখানে ক্যাডেট কলেজের বিভিন্ন ট্রেডিশনের বিরুদ্ধতায় আমি ক্ষেপে গিয়ে লেখা থামিয়ে দেব এমন ইঙ্গিত দিলে, আমাকে মনের দিক থেকে সাহস যোগান তিনজন। একজন ক্যাডেট নম্বর ৯৯৯ আমাদের অতি প্রিয় সানা ভাই, বন্ধুবর আন্দালিব ও ব্লগের এক বড় আপু-যতদূর জানি উনি এক্স ক্যাডেট যদিও সরাসরি তিনি কিছু বলেননি তখন।
তখন মনে হয় সাধারণ লোকগুলো আমার ইমোশন যতটা টাচ করবে ক্যাডেটরা নিশ্চয় তার চেয়ে বেশি। সেই ভাবনা থেকেই সামুর প্রথম তিন চার পর্ব নিয়ে ছেড়ে দিলাম এখানে। এখানে পরিচিত মুখ হিসাবে আশিককে পাই পাই তপু শামস সহ আরো অনেককে।
প্রথম লেখার প্রতিক্রিয়ায় আমার চোখে জল এসে গেল। লেখা দিতে থাকলাম এখানে।
একদিন বন্ধু তৌফিক কানাডা থেকে ফোন করল,তখনও আমি ক্যাডেট নম্বর ১৮৬২ এর একটা পর্ব লিখায় ব্যস্ত। বলে ফেললাম ওকে সিসিবির কথা।ও নেমে গেল কোমর বেঁধে।তখনও সিসিবি এখনকার মত অবস্থায় যায়নি।
এমন সময় আমি চাকরি বদল করলাম। এই সময় আমার জীবন হঠাৎ করে বাঁক নিল নতুন দিকে। হঠাৎ করে একটু বেসামাল হয়ে যাই ব্যক্তিগত কিছু ব্যাপারে। সেই সময় আমার ক্যাডেট নম্বর ১৮৬২ এর শেষ পর্ব আর আমার ইউজার নেমে পাসওয়ার্ড তৌফিককে দিয়ে দেই।
মাঝখানে অনেক দিন যায়। আমি আবার যখন সিসিবিতে এলাম তখন দেখি সেই সিসিবি আরো অনেক বড় ভাই আর প্রেজেন্ট ক্যাডেটে সয়লাব।আবার নতুন করে এখানে এৃলাম আবার লিখতে শুরু করলাম।
কিন্তুয় লেখালেখি নয়সিনিয়র জুনিয়র পারস্পরিক সৌহার্দ্য পূর্ণ সম্পর্ক আমাকে টেনেছে সদাই। এত চমৎকার সহনশীলতা পূর্ণ মত বিনিময় দেখিনি আমি সামুতে।
তাই ক্যাডেট কলেজ ব্লগ আমার বড়ই আপন । যার কথাই শু নি যার গল্পই শুনি আমাকে ফিরে নিয়ে যায় সেই সোনাঝরা দিন বয়ে বেড়ানো প্রিয় এমসিসিতে।
ক্যাডেট কলেজ থেকে বের হবার পর সেই দিনগুলোর জন্য যে হা পিত্যেশ করতাম তা এখন লাগে এই সিসিবির পরিবারে এসে।

হ্যাটস অফ জিহাদ এণ্ড কোং কে…
**** জিহাদ আমাকে প্রথম বলেছিল বলে ওর নাম বললাম আলাদা করে।
নয়তো এখানে যারা আছেন যাদের লেখা আমি পড়ি যাদের সাথে আলোচনা সমালোচনায় মেতে উঠি যারা আমার ভাবনা গুলোকে শেয়ার করেন সেই সকল সিসিবি মেম্বারের প্রতি রইল লাল সেলাম……

২,৯৪৫ বার দেখা হয়েছে

৪৪ টি মন্তব্য : “হ্যাটস অফ সিসিবি……………………”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    আমিন, ভাইয়া খুব টাচি একটা লেখা দিলে,ক্যাডেট নম্বর ১৮৬২-অসময়ে হারিয়ে যাওয়া অতি প্রিয়জন তোমার এই লেখাটি পড়ে আমাদের কখনো না দেখা ছোট ভাইটির জন্য চোখের পানি ফেলিনি এরকম কেউ নেই, আলম আমাদের এফসিসির আমার এক ফ্রেন্ডেরও খুব ক্লোজ ছিলো। ওর জন্য আবারো দোয়া করছি।
    সিসিবি নিয়ে আমাদের সবার আবেগের জায়গাটা খুব শক্ত। এই অনুভূতি আমাদের চিরদিন থাকুক। :boss: :boss:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
    • আমিন (১৯৯৬-২০০২)

      ক্যাডেট নম্বর ১৮৬২ শুধু আমাদের এমসিসি নয় বরং আমাদের দশ ক্যাডেট কলেজের সবারই খুব প্রিয় নাম।
      তার জন্য তার স্মৃতির জন্য কিছু করতে চেয়েছি ,বরাবরি থেমে গেছি, তার বিদেহী আত্মা তাড়া করে বেড়াতো আমাকে অনেকদিন। গত ৯ই নভেম্বর ওর জন্মদিনে সব কাজের ভিড়েও ওকে স্মরণ করি কিছু মূহুর্তে।
      তার লেখার আবেগটা যখন এখানে দিই আমি নিজেও বুঝি, এখানকার সিনিয়র জুনিয়র সবাই আমার কষ্ট টাকে ভাগ করে নিয়েছে।
      কিছুটা স্বস্তি পাই যেন। তার বিদেহী আত্মাকে বলতে পারি আমারা তোমাকে ভুলিনি, একদিন আমরা হয়তো থাকব না, কিন্তু তোমার কথা আমাদের কথা আমাদের প্রিয় এমসিসির গল্প থাকবে সিসিবির মাঝে যুজ যুগান্তর।
      আর কিছু লিখতে পারছি না.............. ধন্যবাদ । ভালো থাকবেন।

      জবাব দিন
  2. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    আমিন ওয়ালাইকুম নীল সালাম... :-B (ক্ষারক দিয়ে কালার চেঞ্জ কইরা নিছি... 😉 )
    তোমার লেখাটা মন ছুঁয়ে গেল... :thumbup:

    সিসিবি নিয়ে আমাদের সবার আবেগের জায়গাটা খুব শক্ত। এই অনুভূতি আমাদের চিরদিন থাকুক।

    আমিন।
    ইয়ে...এটা 'আমিন' এর আমিন না...সহমত এর আমিন... :-B


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  3. আলম (৯৭--০৩)
    ব্লগিং নামক জিনিসটা আমার কাছে প্রথম এসেছিল অলস জীবনের বিলাস হয়ে।

    আর আমার কাছে এসেছিল সরস জীবনের ব্যস্ততা হয়ে। ক্যারিয়ারের বিভিন্ন টার্নিং মুহুর্তগুলোয় ব্যস্ত ক্ষণেও ব্লগিং ছেড়ে যাওয়া যায়নি, কারণ এটা অন্য কোনো ব্লগ না... সিসিবে যে আমাদেরই বাড়ী, কাজ শেষে ঘরে আমাদের ফিরতেই হয়। No other way out.
    আমাদের বাসাটা শক্ত-সবল থাকুক চিরন্তন। :boss:

    জবাব দিন
  4. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    সিসিবিতে ঢোকার পর সাবু(আলম)কে নিয়ে লেখা পোস্টটাতেই প্রথম কমেন্ট করসিলাম...আর কোন ব্লগ আমাদের এইরকম অনুভূতির জায়গাগুলা ছুঁতে পারবেনা...

    অফটপিকঃ তুমি কি এফ-এইচ এর? প্রোফাইলে একটা ফটো দিও...


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  5. ফয়েজ (৮৭-৯৩)
    প্রথমেই আমার পক্ষ থেকে স্বপ্নময় ও স্বপ্ন কিশোর কিশোরী গুলোর প্রতি শ্রদ্ধা রইল।

    এক পিচ্চি আরেক পিচ্চিরে কয় পিচ্চি। কই যে যাই।

    একদিন বন্ধু তৌফিক কানাডা থেকে ফোন করল,তখনও আমি ক্যাডেট নম্বর ১৮৬২ এর একটা পর্ব লিখায় ব্যস্ত।

    এইটা কি আমাগো লম্বু তৌফিক নাকি। ও তুমিই তাহলে সেই পোলা যে ওর প্রেম কাহিনী লিখছ? নাকি ভুল করলাম? যদি সত্য হয় তাহলে পোষ্ট কপি-পেষ্ট কইরা ফেল। ছ্যাকার গান শুনতে শুনতে কান পচে গেছে। কিছু সফল গান শুনি।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  6. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    এক কাম করলে হয়, এডুরে ২৪ ঘণ্টার লাইগ্যা অপহরণ কইরা (হিন্দি সিরিয়ালগুলার মতো) কামরুলের (!!) বাসায় আটকাইয়া রাখলাম সবাই মিল্লা। :guitar: :guitar: তারপর যে যা খুশি ব্লগাইতে চায় কইরা নিল। :gulli2: :gulli2: :gulli2: এডুর ভয়ে তো পোলাপাইন সাহস কইরা সব কথা কইতে পারে না!! 😡 😡 😡


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।