দ্য মুখ অফ আলটিমেট “ক” ভাই…

নামকরণ রহস্যঃ

এককালে টাংগাঈলের বেবীস্ট্যান্ড নামক জায়গাটি ভাইয়ের পদচারণায় মুখর থাকতো। সেই পল্লীর ললনাদের কাছে ভাই এতটাই বিখ্যাত হয়ে গিয়েছিলেন যে তিনি পল্লীতে পা দেওয়া মাত্রই রব উঠতো, ভাই আসছে… ভাই আসছে। সেই থেকে তিনি ভাই। জুনিয়র, সিনিয়র সবার কাছে…

ক্লাস সেভেনে মান-যাচাই পরীক্ষার ফলাফলের পর আমাদের ফলিন করা হয়েছে হাউস অফিসে। টাল বাবা মুস্তাফিজুর রহমান আমদের উপর ঝাল মেটাচ্ছেন পরীক্ষায় ফেল করার জন্য। ফলিনের একদম শেষ দিকে ভাই দাঁড়িয়েছিলেন…সবার চৌদ্দ গুষ্টি করার পর ভাইয়ের পালা আসলো। স্যার জিজ্ঞেস করলেনঃ-

‘ক’, কি অবস্থা? তুই কয়টায় ফেল মারছিস।
স্যার চারটা।
চারটা বিষয়ের মধ্যে চারটাতেই ফেল?? বলি- বাংলার মতো বিষয়ে একজন কিভাবে ফেল করে?
অনেক্ষণ ভেবে ভাই উত্তর দিলেনঃ- স্যার আলটিমেটলি হয়ে গেলো। B-)

গুমোট বাতাস হঠাৎ করেই পালালো হাউস অফিস ছেড়ে। দ্য আলটিমেট ভাইয়ের কাহিনির সূচনাও সেদিন থেকে…

গণিতে বিএসসিঃ

কলেজে থাকাকালে আমাদের গণিত শিক্ষকদের আয়ু কমে গিয়েছিল অনেক বছর। ভাইকে নিয়ে চিন্তায়। কিভাবে তাকে গণিতে পাশ করানো যায়। সেই ভাই বিএমএ তে গণিতে বিএসসি করে ফেললেন। সেকথা আমাদের জানানোর জন্য তার মন আনচান করে। সরাসরি তো আর বলা যায়না- পাছে আমরা টিজ করি। সেদিন ১০ নম্বর বসে বসে আড্ডাচ্ছি ভাইয়ের সাথে। হঠাৎ তিনি বললেনঃ-

আচ্ছা রায়হান। তুই যে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তেছিস- পড়ালেখা করিস??
আমি বলি- দোস্ত, পড়তে তো হয়। নাইলে পাশ করুম ক্যামনে?
ভাই মাথা নাড়েন। তারপর খুব ধীরে ধীরে বলা শুরু করেন- হুম!! পড়তে তো হবেই। আমি যখন বিএমএ তে ম্যাথে বিএসসি করলাম তখন আমাকেও তো অনেক পড়তে হয়েছিল। :-B

খেলোয়াড় ভাইঃ

ক্লাস টুয়েলভ এ ভলিবল খেলছি আমরা। কোর্টের পেছনের সারীর ডানদিকে ভাই। ওপাশ থেকে সার্ভিস করা হলো। বল ছুটে আসছে ভাইয়ের দিকে। ভাইও প্রস্তুত!! বল আসলো- ভাই দুই হাত এক করে মারলেনও। কিন্তু বল চলে গেলো তার মাথার উপর দিয়ে পেছন দিকে। আমরা তখন জিজ্ঞেস করিঃ-

কিরে বল পেছনে পাঠাইলি ক্যামনে?? এতোদিনেও খেলা শিখতে পারলি না।
এই কথা শোনার সাথে সাথে ভাইয়ের সপ্রতিভ উত্তর…
আরে বলটা আসতেছিল ঠিক মতো. কিন্তু মারতে যাবো এমন সময় বলটা হঠাৎ উপরে উঠে গেলো। এইজন্য টাইমিং হয় নাই। ;;)


বন্ধু ভাইঃ-

কলেজে অনেক পোলাপাইন ঝামেলায় পড়তো। ক্লাসমেটরাও অনেক সময় দূরে সরিয়ে রাখতো অনেক কে। তো আমাদের উপরের হাউসের একজন একবার বাটে পড়লো। হাউসের পোলাপাইন কেউ তার সাথে কথা বলেনা। ভাই নীচের হাউসে থেকে তাকে সাপোর্ট দিতে থাকলেন। ফলশ্রুতিতে তিনিও তোপের মুখে।
সময়ের আবর্তে কয়েকদিন পরই গিয়ানজাম মিটে গেলো। উপরের হাউসের ছেলেটা তখন ভাইকে ভুলে গেলো। রাতেরবেলা একরুমে বসে আমরা আড্ডা দিচ্ছি। এমন সময় উপরের হাউসের সেই ছেলেটির কথা উঠলো। নামটা শুনেই ভাই হঠাৎ গম্ভীর স্বরে আবৃত্তি করে উঠলেনঃ-

যখন তোমার কেউ ছিলনা
আমি ছিলাম সব
এখন তোমার সব হয়েছে
আমি হয়েছি পর… 🙁

নিস্তব্ধ সেই রাতে মুখ বেঁচে খাওয়া ভাইয়ের অন্তরের অন্তস্থল থেকে উঠে আসা আবেগটা ধরতে আমাদের কোন অসুবিধা হয় নি…

হাইকোর্ট দর্শনঃ

সেদিন ভাই তার ইউনিটের সৈনিকদের জন্য ঈদ কার্ড কিনতে বের হয়েছিলেন। কেনাকাটার পর তার সাথে মিরপুর ফিরছি। হাইকোর্টের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় হঠাৎ ভাই হাইকোর্টের দিকে আঙ্গুল তুলে বললেনঃ-

রায়হান, ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিটিউট টা অনেক সুন্দর, তাই না!!!

সমাপ্ত (The End)

২,৮১৯ বার দেখা হয়েছে

৭০ টি মন্তব্য : “দ্য মুখ অফ আলটিমেট “ক” ভাই…”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    কিরে পুরা টাইম ভাই ভাই লেইখাওতো নামটা ফাঁস কইরা দিলি শেষ-মেশ :grr: :grr:

    যাই হোক টাংগাইলের আলটিমেট ভাইকে সিসিবি ধারাবাহিকতায় :salute:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. হাসনাইন (৯৯-০৫)
    ভাই মাথা নাড়েন। তারপর খুব ধীরে ধীরে বলা শুরু করেন- হুম!! পড়তে তো হবেই। আমি যখন বিএমএ তে ম্যাথে বিএসসি করলাম তখন আমাকেও তো অনেক পড়তে হয়েছিল।
    আরে বলটা আসতেছিল ঠিক মতো. কিন্তু মারতে যাবো এমন সময় বলটা হঠাৎ উপরে উঠে গেলো। এইজন্য টাইমিং হয় নাই।
    রায়হান ইঞ্জিনিয়ারিং ইন্সটিউটটা অনেক সুন্দর, তাই না!!!

    :)) :)) =)) =))
    আমার ভাই তোমার ভাই
    ভাইরে ভাই, ভাইরে ভাই।
    ভাইয়ের জয় হোক। 😛
    হো হো ...... ভাই ভাল থাকুক। 😉
    বুদ্ধি আগে থেইক্কাই হাটুর কাছাকাছি ছিল। :-B

    জবাব দিন
  3. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    রায়হান, "ভাই" কে তো খুব চেনা চেনা লাগছে...

    হাসতে হাসতে জান শেষ।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  4. রেজওয়ান (৯৯-০৫)

    আমার সিভিল দোস্ত টাংগাইল বেরাইতে গিয়া ভাই এর সাথে বেবি স্ট্যান্ড গেসিল...
    বেচারা এমনিতেই ছোট মানুষ (আমরা তাকে ডাকি 'বাটি') তারে পাইয়া সব ঝাপাইয়া পরার পর যখন সে মিন মিন করে ভাই কে ডাকল তখন নাকি মুহুর্তে তার চারপাশ থেকে রব উঠেছিল " ওই কি করস তোরা...ছার ছার,এ আমাগো ভাই এর গেস্ট "

    জবাব দিন
  5. তাইফুর (৯২-৯৮)

    এডিট হওয়ার আগে ভাইয়ের নামটা পড়তে পারলে শান্তি পাইতাম।
    লেখা যথারীতি চ্রম হইসে।
    (অফটপিকঃ রায়হান মিয়া, বাড়ী কুথথায় ?? টাংগাইল নিকি ??)


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  6. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    ভাইয়ের কথা মনে করাইয়া দিলেন। 😀 😀 😀
    ভাইরে :salute: :salute: :salute:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।