বনজোভির “ইটস্‌ মাই লাইফ” – শোনার পর

কারো অন্তিম যাত্রায় যতবার গোরস্তানে গিয়েছি
সব কাজ ফেলে রেখে
কেবলই শবভোজী পোকাগুলোর সাথে গল্প করতে,
আড্ডা জমাতে ইচ্ছা হয়েছে প্রবল।

ওদের কাছে যে অনেক প্রশ্ন আমার –

ওদের কাছ থেকে জানতে ইচ্ছা হয়েছে বার বার:
এই টাটকা লাশটির চর্ম-মাংশ-অস্থি-মজ্জার
ঠিক কোন কোন অংশ
কতটা প্রিয়, তাদের কার?

ওদেরও হয়তো পরিভাষা আছে,
মানব শবের
রান-থান-সীনা-নলী-গিলা-কলিজা
বর্ননার।

আরও যা যা প্রশ্ন ছিল ওদের কাছে-

তারা কি প্রভেদ করতে পারে
নারী আর পুরুষের শবে?
স্তন-উরু-ওষ্ঠের কোমলতা আর
পেশীর আধিক্য বহুল শব কি স্বাদে
ভিন্ন ভিন্ন মাত্রা নিয়ে আসে
ওদের কাছে?

নারী পোকাদের কাছে কি প্রিয় পুরুষের শব,
আর পুরুষ পোকাদের কাছে নারীর?

ওরা কি প্রভেদ করতে পারে
ধনী অথবা দরিদ্রে?
অসূর্য্যস্পর্শা অথবা বারাঙ্গনায়?
লুইচ্চা আর ব্রহ্মচারীতে?
কুমারী আর বহুভোগ্যায়?

যত সফল, যত কৃতি যত ভালোবাসায় সিক্ত
হোক না কেউ,
মৃত্যুর পর কি ভীষন দ্রুততায়ই না তাঁকে
প্রস্তুত করে পাঠানো হয়
এইসব আপাতঃ তুচ্ছ পোকাগুলোর ভুরি ভোজনের জন্য –

আজকাল তাই আতর কর্পুরে সাজানো
শব দেখলে
আমার সাজানো টেবিলের কথা মনে পড়ে যায় –
পার্থক্যটা দেখি কেবলই খাদকে।

শেষ গন্তব্য যদি হয়,
ঐসব তুচ্ছ পোকাদের জন্য পেতে দেয়া পাতে –
আমাকে কেন রুখছো নিজের মত
জীবন যাপনে?
অন্ততঃ যতক্ষন তোমাদের কারো
ক্ষতির কারন হই নাই আমি।

 

ডিসক্লেইমার: দিন কয়েক ধরে পদ্যাক্রান্ত হয়ে আছি। তাই অত্যাচার যাচ্ছে সিসিবির নিয়মিত পাঠকদের। আশা করছি, অচিরেই এই রোগ থেকে মুক্তি লাভ করে পাঠকগনের হাড় জ্বালানো থেকে মুক্তি দিতে পারবো। ততদিন এই কবিতা-লেখককে (কবি নয়) সহ্য করার জন্য ধৈর্য্য পরীক্ষায় সবাই নোবেল পাবার যোগ্য হয়ে উঠবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছি। 😀 😀 😀

৫০১ বার দেখা হয়েছে

১৪ টি মন্তব্য : “বনজোভির “ইটস্‌ মাই লাইফ” – শোনার পর”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    কবিতা পড়ে এই জায়গার কথা মনে পড়ে গেল। একটা টিভি রিপোর্ট দেখেছিলাম এর উপর, অনেকদিন ভাবিয়ে ছিল।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  2. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    এই প্রথম কারও অসুখ না সারার দোয়া করছি। B-)
    পারভেজ ভাই, আপনি সারাজীবন 'পদ্যাক্রান্ত' (Poetisis? ;;; ) রোগে ভুগতে থাকুন। 😀


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  3. মুজিব (১৯৮৬-৯২)

    সবাই কি দারুণ পদ্য চর্চা করছে অথচ আমি পেটে বোমা মেরেও দু'-ছত্র কবিতা বের করতে পারছি না!
    :(( :(( :(( ~x( ~x( :bash:


    গৌড় দেশে জন্ম মোর – নিখাঁদ বাঙ্গাল, তত্ত্ব আর অর্থশাস্ত্রের আজন্ম কাঙ্গাল। জাত-বংশ নাহি মানি – অন্তরে-প্রকাশে, সদাই নিজেতে খুঁজি, না খুঁজি আকাশে।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।