আশীর্বাদ

গতকাল ছিল গায়ে হলুদ
আজ তোমার বিয়ে।
ভেবনা আমি মেনে নিয়েছি!
প্রেম করবে একজনের সাথে
আর বিয়ের সময় আরেকজন??

আমি একটা পিস্তল ভাড়া করেছি
তোমার বরকে গুলি করব
অবশ্য মেরে ফেলব না।
ওর ডান হাতে গুলি করব।
আজীবন লুলা বরের সাথে ঘর
ভাবতে ভালই ঠেকছে আমার।

পুলিশের লাঠি দেখেছ?
ইয়া বড়, লাল রঙ করা?
চুরি করেছি একটা সেদিন।
ঠ্যাং ভেঙ্গে দেব ওর তোমার সামনে।
সারাজীবন বয়ে বেড়াবে তাকে,
দৃশ্যটা ভাসছে আমার চোখে।

ভাবছ, তোমার কোন উপহার নেই!
আছে তো, মজার সব জিনিস।
গ্যাস লাইটার দিয়েছিলে মনে আছে?
তোমার আচলে আগুন লাগিয়ে দেব।
তুমি চিতকার করবে আর আমি হাসব।
তারপর হাত কেটে রক্ত দিয়ে
তোমার কপালে দেব লাল সিদুর।

গায়ে হলুদ মাখিয়েছ, না?
খুব আনন্দে আছ !
ইচ্ছে করছে মরিচের গুড়া মাখিয়ে দেই
তুমি জ্বলে পুরে অস্থির হয়ে যাও
আর আমি তোমার দিকে তাকিয়ে হাসি।

তোমার বাসর ঘরে কি লাল গোলাপের সমাহার?
দাড়াও আমি খেজুর কাটা আনি
তারপর বাসর ঘরে যেও।
দেখবে সুখের পরশ কত মধুর!

সুখে থাকতে দিতে চাইনা,
তবুও সুখে থেক,তবে সাবধানে!

১,৯২৫ বার দেখা হয়েছে

২৩ টি মন্তব্য : “আশীর্বাদ”

  1. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    কবিতাটা সিক লাগলো।তবে এধরনের পরিস্থিতিতে যে পুতুপুতু কথাবার্তা মাথায় আসেনা সেইটাও মানি।এই কারণে কবি প্রশংসা পাবেন,মানব মনের কর্কশ-অন্ধকার দিক চিত্রায়নের জন্য। 🙂

    জবাব দিন
    • আমীন (০১-০৭)

      ভাইয়া, আপনার কবিতা আমার খুবই পছন্দ।আমি এটাও জানি যে আপনার কবিতা সবাই পছন্দ করে।আমার ধারণা আপনি রেগুলার কবিতা চর্চা করেন।তাই ভাইয়া আমার ছোট একটা প্রশ্ন আপনার কাছে, "ভায়োলেন্স" কেন কবিতার বিষয়বস্তু হতে পারে না? :frontroll: :frontroll:

      জবাব দিন
      • নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

        আমিন,
        খুব খোলাখুলি কথা বলা যাক কি বলো।
        প্রথমে একটা কথা পরিষ্কার করে নেয়া ভালো। আমার কবিতা সবাই পছন্দ করে বা করেনা এটা কিন্তু এখানে অবান্তর। একথাটা কেন বললে সেটা বোঝা গেলোনা। আমার মতামত কিন্তু একজন সাধারণ পাঠক হিসেবেই।তাছাড়া কবিতায় নিজেকে একজন অথরিটি হিসেবেও আমি দাবি করছিনা। কবিতা বহুরকমের, বহুভেদের হবে; নানান ফরম্যাটের হবে.... পুরোনো স্টাইল ভেঙেচুরে আনকোরা ভঙ্গি বেরিয়ে আসবে কোন দৃশ্য বা অনুভূতিকে ব্যক্ত করার --- এটাই স্বাভাবিক।
        ভায়োলেন্স কবিতার বিষয়বস্তু হতে পারবেনা কেন? আমি তো তা বলিনি। আমি বলেছি অর্থহীন ভায়োলেন্স। এখানে ব্যর্থ প্রেমিকটির হতাশার অনুপাতে যে সমস্ত ভায়োলেন্সের ভাষা এসেছে, উচ্চারণে তা অতি উচ্চকিত ও যুক্তিহীন। এই চরিত্রটিকে ভিলেনও মনে হচ্ছেনা। মর্মান্তিকভাবে হাস্যষ্পদ একটি অসুস্থ চরিত্র কিছু প্রলাপ বকে যাচ্ছে। সেসব প্রলাপকে পরপর সাজিয়ে, বাক্য ভেঙেচুরে লিখলেই সেটা কবিতা হয়ে যায়না, তা তুমি যাই ট্যাগ লাগাও না কেন।
        যদি বলা হয়, কিসে একটি লেখা কবিতা হয়ে ওঠে আমি কোন জবাব দিতে পারবোনা। তবে কিসে একটি কবিতা হয়ে উঠতে পারলোনা, তা বলা আমার পক্ষে সহজ। জানিনা কেন।
        সিসিবিতে আমাদের সবার লেখা (কবিতা ট্যাগ্‌ড), সবার কল্পনা ভিন্ন ভিন্ন ধাঁচের, মাপের। সব লেখা আমাকে একইভাবে উদ্বেলিত করেনা, সব লেখা ভালোও লাগেনা। কিছু বাক্য ( বা শুধু কিছু শব্দ বা কল্পনার একটি ছোট্ট টুকরো ) আমাকে ছুঁয়ে গেলেও আমি মনে করি লেখাটি সার্থক। তাই আমি ক্রমাগত বলে চলি কি ভালো লাগলো আর কি লাগলোনা। আরো কি থাকতে পারলে ( আমার মতেই অবশ্যি, চাপিয়ে দেয়া নয়) লেখাটি বা পরের লেখাগুলো আরো অন্যরকম হতে পারতো তা নিয়ে বলে যাই। সামগ্রিকভাবে, ভায়োলেন্স কবিতার বিষয়বস্তু হতে পারে কি না সেই প্রশ্নের উত্তর তো আগেই দিয়েছি।
        কবিতা মানে কিন্তু পুতুপুতু (মাস্ফ্যুর শব্দ ধার করে) কোমলতাও নয়। পুতুপুতু শব্দ আর বাক্যের একটা ম্যাদামারা স্তুপ কবিতা নয়। এই লেখাটি কবিতা হয়ে ওঠার জন্যে, আমি মনে করি, আবেগের শ্লীল প্রকাশ থাকা উচিত ছিলো নিদেনপক্ষে, বাকী উপাদানগুলো সহ।

        জবাব দিন
      • নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

        আমীন,
        সরি প্রথম মন্তব্যে তোমার নামের বানান ভুল লেখার জন্যে।
        এত কথা বলা আসলে কবিতা বিষয়ে তোমার আগ্রহের জন্যে, আমি নিজে এধরণের মতবিনিময়ের খুব পক্ষপাতী। তাই ছাঁচাছোলা মন্তব্য আলোচনা করে ফেলি। এখানে আমরা সবাই লেখা নিয়ে অত সিরিয়াস নই, তাই সবসময় এমনটা করা হয়না সিসিবিতে। ক্রিটিকাল কমেন্ট করিনা। তোমাকে যদি আমার আলোচনা কষ্ট দ্যায় তাহলে থাক বরং। আগেই দুঃখ প্রকাশ করে রাখলাম। ভালো থেকো। শুভ লেখালেখি।

        জবাব দিন
  2. সামিয়া (৯৯-০৫)

    মজা পাইলাম খুবি।
    @নূপুরদা, ও সম্ভবত এটা সিরিয়াস লেখা এবং কবিতা হিসাবে লিখে নাই।

    আজীবন লুলা বরের সাথে ঘর
    ভাবতে ভালই ঠেকছে আমার।-এই লাইনগুলা পড়ে হাহাপিগে।

    জবাব দিন
  3. মুহিব (৯৬-০২)

    কবিতা নিয়া মন্তব্য করুম না। তয় প্রেমিক সাহেব যে ছ্যাকা খাইয়া ভিষণভাবে ব্যাকা হইয়া গেছেন এইখানে তাই প্রকাশ করতে চাইছে মনে হয়। অসুবিধা নাই। এই রকম প্রেমিক ভয়ঙ্কর কিছু করে না। ঠিক হয়ে যাবে কয়দিন পর।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।