ক্যাডেট কলেজ জীবন: বাধাকপি, চিকেন পক্স আর নীল ছবির গল্প

১.
সেবার আমাদের ক্যাডেট কলেজের খোলা জায়গায় বাধাকপি লাগানো হলো। হয়েছিল বাম্পার ফলন। যেদিকে তাকাই খালি বাধাকপি আর বাধা কপি। দেখলে চক্ষু জুড়ায় না, আতঙ্কে বুক কাপে। কে খাইবো এতো বাধাকপি।
আতঙ্ক যে সঠিক দ্রুতই তার প্রমান পাওয়া গেলো। সকালে আমাদের দেওয়া হতো তিনদিন পাউরুটি আর তিনদিন পরোটা। আমরা দেখলাম পরোটার সাথে বাধাকপি ভাজি। আর যেদিন পাউরুটি সেদিন বাধাকপি সেদ্ধ উপরে গোলমরিচ দেওয়া। ১০টায় ছিল টিফিন ব্রেক। মানে হলো এক কাপ দুধ আর সাথে সিঙ্গারা, গজা বা এই জাতীয় কিছু। নতুন যুক্ত হলো বাধাকপি সিদ্ধ। দুপুরে ভাতের সঙ্গে বাধাকপি ভাজি, মাংস থাকলে সেটাও বাধাকপি দিয়ে রান্না করা। এমনকি একদিন অবাক বিষ্ময়ে দেখলাম ডালের মধ্যেও বাধাকপি। রাতের খাবারেও একই মেনু। এই যন্ত্রনা সহ্য করতে হয়েছে ক্ষেতে যতদিন বাধাকপি ছিল ততদিন।
সেই যে আমি বাধাকপি খাওয়া ছেড়েছি আজ অব্দি আমি খাইনি। এখনও বাধাকপি দেখলে আমার অসহ্য লাগে। আমি খাই না।

২.
আমি ছিলাম শরিয়তউল্লাহ হাইসের। আর আদিল শেরে বাংলা হাউসে। পরেরদিন টেস্ট পরীক্ষা, সম্ভবত ইংরেজি। কী কারণে যেন হাউসেই প্রেপ। (আমাদের পড়তে যেতে হতো যার যার কাশ রুমে। হাউসে কোনো পড়ালেখার নিয়ম ছিল না।) কী একটা কাজে আমি গেলাম আদিলের রুমে। পাশের রুম থেকে আসলো মুজিবর আর জাহিদ। সোহরাওয়ার্দী হাউস থেকে আসলো জাকির। আরো আসলো আমার হাউসের মঈন ও বুলবুল। এভাবে দেখা গেল ১৫ জনের মতো একই রুমে, কোনো কারণ ছাড়াই।
রেহাই পাওয়া গেলো না। প্রিন্সিপাল স্যার হাউন ভিজিট করছেন আমাদের জানা ছিল না। এক রুমে সবাইকে পেলেন তিনি। সবাই এক রুমে মানেই আমরা কোনো এক ষড়যন্ত্র করছি। হয় পালাবো না হয় ক্যাডেট কলেজ বিরুদ্ধ কিছু একটা। কিছুতেই বিশ্বাস করানো গেলো না যে আমাদের কোনো উদ্দেশ্যই ছিল না।
আমাদের নেওয়া হলো প্রশাসনিক বিল্ডিং-এ। একজন একজন করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হল। তারপর নেওয়া হলো মাঠে। সেই রাতে এক্সট্রা ডিল। যারা ক্যাডেট কলেজে পড়েননি তারা জানবেন না এটা কি। একটু বলি-যাও এক দৌড়ে দেওয়াল ছুয়ে আসে। আসা মাত্র ফ্রন্ট রোল, তারপর আবার ফ্রগ জাম্প। এই রকম চলতেই থাকে। সেই আদিল আমেরিকায়। মঈন লে. কর্ণেল। বুলবুল আইন মন্ত্রণালয়ে। জাকির জাজ। রেজা গ্রামীণ ফোনে।

৩.
আমাদের সপ্তাহের একদিন সিনেমা দেখানো হতো। বৃহস্পতিবার। অডিটরিয়ামে চলতো সিনেমা দেখা। কখনো বাংলা, কখনো ইংরেজি ছবি। সাগরিকা দেখানো হয়েছিল। আমরা তখন টুয়েলভ কসে (ইন্টারমিডিয়েট সেকেন্ড ইয়ার)। সেভেন বসতো সবার আগে। আর সব শেষে আমরা। আমাদের পেছনে স্যারদের ছেলে মেয়েরা। তারও পিছনে স্যাররা।
সেবার দেখানো হবো ইংরেজি ছবি। আমরা চুপচাপ শৃঙ্খলা রেখে বসে আছি। ছবি শুরু হল। মারামারির ছবি। ছবি চলতে চলতে হঠাৎ দেখি ছবির সঙ্গে একদমই সম্পর্ক নাই এমন দৃশ্য। নীল ছবি। কাট-পিস। একদম পুরো নীল। আমরা তো চোখ বড় বড় করে দেখছি। স্যাররা হতভম্ব। আমার চোখ আবার চলে যায় ঠিক আমাদের পিছনে। যে প্রজেক্টর চালাচ্ছিল সে বুঝতে পারছে না কী করবে। প্রথমে এক হাত রাখলো প্রজেক্টরের সামনে। তাও তেখা যাচ্ছে আঙ্গুলের ফাঁক দিয়ে। তারপর দেখি দুই হাত। তাও দেখা যাচ্ছে। এই বার সে বুঝলো বন্ধ করে দেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ।
তারপর অনেকদিন আমাদের সিনেমা দেখা বন্ধ ছিল। তদন্ত কমিটি হেন তেন অনেক কিছু হয়েছিল। সেই আমার প্রথম নীল ছবি দেখা।
৪.
তখনও ছুটি হতে ১৫ দিন বাকি। কী একটা কাজে প্রিন্সিপাল স্যার ও অ্যাডজুটেন্ট ঢাকায়। দায়িত্বে ভাইস প্রিন্সিপাল ও ডাক্তার (ক্যাপ্টেন)। আমাদের একটা হাসপাতাল ছিল, ১৭ বেডের। সেবার হঠাৎ চিকেন পক্স দেখা দিল। ১৭টা বেডই ভরে গেল রুগীতে। ১৮তম রুগীকে আর রাখার জায়গা নেই। তাকে দেওয়া হল ছুটি।
ব্যস তারপরই দেখা গেল মহামারি। প্রতি মিনিটে একজন করে আক্রান্ত হচ্ছে আর ছুটি নিয়ে লাফাতে লাফাতে বাসায় চলে যাচ্ছে। একটু পরেই বুঝে গেলাম আসল কাহিনী। মোমবাতি জ্বালিয়ে শরীরের যে কোনো জায়গায় একটা ফোসকা ফেলতে পারলেই হলো। আর্মির ডাক্তার সেইটারেই চিকেন পক্স মনে করে রুগি বানিয়ে দিচ্ছে। আমিও ভাবলাম চিকেন পক্সই হোক। রেজা আমার পিঠে ফোসকা ফেললো। তারউপর খাকি ড্রেস পড়ে গেলাম প্রশাসনিক ভাবনে। সব স্যাররা বসে আছেন চিকেন পক্স দেখার জন্য। আমি রুমে ঢুকে বললাম, বললাম আমার পিঠে চিহ্ন আছে। মাশুক স্যার বললেন জামা খুলতে।
আমি তখন কলেজ কালচারাল প্রিফেক্ট। ফলে ক্রস বেল্ট পড়তে হয়। ফলে খুলতে একটু সময় লাগে। খোলার চেষ্টা করতেই মাহফুজ স্যার বললেন থাক খুলতে হবে না। শওকত ভাল ছেলে, ও মিথ্যা বলবে না। কিন্তু রুমে এসে দেখি খাকি ড্রেসের ঘসায় ফোসকা উধাও। জামা খুললেই ধরা খেতাম। ভাল ছেলের সুনাম বাঁচিয়ে দিল। তারপরেই বাসায়।
সেবার এটা নিয়ে অনেক ঝামেলা হয়েছিল। কলেজ বুঝে ফেলেছিল আমরা তাদের বোকা বানিয়েছি। তাগো বুদ্ধি হাটুতে থাকলে আমাদের কী করার আছে। ফলে আমরা ডাক্তারের সার্টিফিকেট নিয়ে কলেজ খুলতেই হাজির হই। তবে প্রিন্সিপাল স্যার আমাদের সবাইকে লাইনে দাঁড় করিয়ে অনেক ঝাড়ি দিয়েছিলেন।
৫.
আমার সেই ক্যাডেট কলেজে আবার যাই গত বছর। সিটিব্যাংক এনএ কলেজকে কম্পিউটার দেবে। ব্যাংকের সিইও মামুন ভাই ফৌজদারহাট ক্যাডেটের। আমাকে বলতেই রাজী হয়ে গেলাম। অডিটরিয়ামটা ছিল আমার জায়গা। আমি ছিলাম কালচারাল প্রিফেক্ট। সেখানেই অনুষ্ঠান। আমিই একমাত্র প্রাক্তন ক্যাডেট। সবাই উপস্থিত, আমারা যেতাম সেভাবেই। অনুষ্ঠান শুরু, প্রিন্সিপাল স্যার বক্তৃতা দিলেন। মামুন ভাই কথা বললেন। আমাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হলো বিশেষ অতিথি হিসেবে। সেই মঞ্চে আবার আমি উঠলাম। সেই অনুভূতি একদমই অন্যরকম। আমার কলেজ বরিশাল ক্যাডেট কলেজ।

১০,৫৪৯ বার দেখা হয়েছে

১১৫ টি মন্তব্য : “ক্যাডেট কলেজ জীবন: বাধাকপি, চিকেন পক্স আর নীল ছবির গল্প”

  1. তাইফুর (৯২-৯৮)

    শওকত ভাই আইসা গ্যাছে ...
    সিসিবি বাধাকপিতে ভাইসা গ্যাছে ...

    লেখা পিরা হাস্তে আছি, হাস্তেই আছি, হাসি আর থামে না।


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  2. রেজওয়ান (৯৯-০৫)

    কি যে ভাল লাগছে আপনাকে দেখে...আর আরো মজা পেলাম লেখা টা পড়ে.. :boss: :boss: :boss:
    ব্যপক ব্যপক... :khekz: :khekz: :khekz: :khekz:
    আই হাই...আপনি দেখি আমার জন্মের আগেই কলেজ ছারসেন... 😛 😛 😛
    এবার আমরাও দেখাব...বি সি সি কত বসসসসসস... :awesome: :awesome: :awesome: :awesome:

    জবাব দিন
  3. ১.
    বাধাকপির মতো আমারো কলেজের সেমাই খেয়ে সেমাই এলার্জি হয়ে গেছে। আমি কলেজ থেকে বের হয়ে আর কোনদিন সেমাই খাই নি। 🙁
    ২.
    অন্য রুমে গিয়ে আড্ডা দিতে গিয়ে কতোযে পানিশম্যান্ট খেয়েছি বলে হিসেব দেয়া যাবে না। :((
    ৩.
    আমাদের সময় খালি হিন্দি ছবি দেখাতো। তাতে দু একটা যা রগরগে সিন থাকতো তাই আমরা পরের কয়েকদিন জাবর কাটতাম। 😀
    ৪.
    প্রথম লেখাতেই ফাটাইয়া ফালাইছেন ভাইয়া।
    স্বাগতম। আরো অনেক অনেক লেখা পাবো সেই আশাতে রইলাম। :clap: :clap: :clap:

    জবাব দিন
  4. আহ্সান (৮৮-৯৪)

    মাসুম ভাই,
    অনেক সুন্দর লিখেছেন। আমি ছিলাম শেরে বাংলা হাউসে।
    আপনারা ভুগেছেন বাধা কপি অত্যাচারে, আর আমরা মূলা অত্যাচারে ভূগেছি। এমনকি মুলার গুনাগুন সংক্রান্ত একটা প্রবন্ধও ডাইনিং হলে কলেজ প্রিফেক্ট মাইকে পড়ে শুনিয়েছেন।
    অডিটরিয়ামে মনে হয় সেই কারণেই আমরা কোন সিনেমা দেখতে পারিনি। রহস্য এখন ক্লিয়ার।
    কলেজের চিকেন পক্সের ব্যাপারটা আমাদের না হলেও চোখ ওঠা ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়েছিলাম (কেউ কেউ চোখে টুথপেষ্ট লাগিয়ে)।তবে আমরা ছুটি পাইনি। কে জানে হয়তো কর্তৃপক্ষের পুর্ব অভিজ্ঞতা আমাদের সময় কাজে লাগিয়েছেন।
    কলেজ অডিতটরিয়ামটা আমারো অনেক আপন ছিলো। আমি অবশ্য আপনার মত কলেজ কালচারাল প্রিফেক্ট ছিলামনা। কিন্তু তারপরেও মনে হত মঞ্চটা কেবলই আমার।
    অনেক ভালো লেগেছে মাসুম ভাই। আশা করি নিয়মিত আপনার লেখা পাবো। আপনার নিয়মিত উপস্থিতি আমাদের দাবী হয়ে থাকলো আপনার কাছে।
    ভালো থাকবেন।

    জবাব দিন
  5. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    শওকত ভাই, স্বাগতম।

    সিসিবি তে আরেকজন বিসিসি এবং শেরে বাংলা হাউজের ক্যাডটের আগমন। :party: :party: :party:
    :thumbup: :thumbup: :thumbup:


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  6. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    শওকত ভাইকে :salute: সহ স্বাগতম।
    বস্, প্রথম লেখাটাই সেরকম জমজমাট হইছে।
    এমনিতেই আমাদের সিসিবিতে বিসিসি সেঞ্চুরি করে আরো দুর্দান্ত গতিতে আগাচ্ছে। আপনি এসে সেইটাকে ডাবলের দিকে নিয়ে যাবেন বস্।

    আমরা তখন টুয়েলভ ক্লাসে (ইন্টারমিডিয়েট সেকেন্ড ইয়ার)।
    সেই আমার প্রথম নীল ছবি দেখা

    তবে মানে ইয়ে বস্ বলতে চাচ্ছিলাম আর কি.... না থাক আপাততঃ :frontroll: শুরু করি 😉


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  7. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)

    মাসুম ভাই, আপনাকে স্বাগতম।
    :clap: :clap: :clap:
    এইরকম সিনিয়র কাউকে পেয়ে ভালো লাগছে।
    ভালো লাগাটা অনেকগুণ বেড়ে গেছে অনেক আপন, বহু পরিচিত সেই কলেজ, হাউস, অডিটোরিয়াম, ক্লাসরুম, ডাইনিং হল, হাসপাতাল, খেলার মাঠ ইত্যাদি মনের চোখে ভাসতে দেখে।


    Life is Mad.

    জবাব দিন
  8. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    শওকত ভাই, সালাম এবং স্বাগতম... :salute:
    আপনার লেখা পড়ে ব্যাপক মজা পেলাম... :khekz:
    তবে, কয়েকটা জায়গা ভাল মত বুঝি নাই...যেমন কাট-পিস, নীল ছবি... O:-)
    ব্যাপার নাহ্‌...বড় হয়ে বুঝতে পারব... :-B


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  9. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    শুরুতেই নীলছবির কাহিনী!! এরপর কি এসএমএস সার্ভিসও চালু করবা?? তুমি তো দেখি বাচ্চা-বাচ্চা পোলাপাইনরে ডুবাইবা x-( ।

    অফটপিক : শুরুতেই তোমারে কিছু টিপস দিই। যে কোনো নবাগত ব্লগারের জন্য খুবই উপকারী বিনা পয়সার টিপস। সিসিবিতে মাস্ফ্যু ~x( , জুনা :no: , রায়হান :khekz: , রবিন :dreamy: , ফৌজি :-B , রেজওয়ান ;;) টাইপ কিছু "......দ পাকা" পোলাপাইন আছে। এরা তোমারে পাঙ্খা বানাইয়া হাতে হারিকেন ধরাইয়া দিতে পারে!! আমরা অল্প কিছু সিনিয়র সিসিবির সংখ্যালঘু বিশেষ এদের হাতে রীতিমতো জিম্মি!! বিশ্বাস না হইলে আহসানরে জিগাও। তাই আমি বলি কি, নিজেদের জোটটা শক্ত করতে হবে। আন্ডা-বাচ্চাগুলা যদি আমাদের বেশি খোঁচায় তাহলে আমরা "সিনিয়র সিসিবি" একটা আলাদা নতুন ব্লগ বানামু। ওইখানে তোমার নীলছবি মার্কা পোস্টগুলা দিবা। ঠিকাছে?? :gulli2: :gulli2: :gulli2:


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  10. 'একটি বিশেষ মহল' নবাগত শওকত ভাইয়ের কাছে ব্লগ ও ব্লগের কতিপয় অত্যন্ত নম্র-ভদ্র , শান্ত-শিষ্ট সদস্য সম্পর্কে অসত্য এবং ভ্রান্ত ধারণা দিয়ে আমাদের ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে ফাঁটল ধরাতে তৎপর... 😮 সবার পক্ষ থেকে আমি এর তীব্র প্রতিবাদ এবং নিন্দা জানাই... 😡

    আমার নিজের কথা বলতে পারি-আমি আমার আত্মীয় ও বন্ধু মহলে 'দেব যুবক' নামে পরিচিত...আমার চরিত্র নিষ্পাপ শিশুর মত পবিত্র, তবে বয়স কিছুটা বেশি হবার কারনে 'দেব শিশু' না হয়ে হয়েছি 'দেব যুবক'...!!! O:-)
    বাকি যাদের নামে মিথ্যাচার করা হয়েছে, তারাও উন্নত চরিত্রের অধিকারী এবং সূক্ষ্ম ষড়যন্ত্রের শিকার...(Hunt of accute conspiracy!!!) :bash:

    সুতরাং, ব্লগের এডু, মডূ, ছোডূ'র কাছে আমার আকুল নিবেদন তারা যেন সকল প্রকার অশুভ শক্তিকে দমন করে অতি দ্রুত ব্লগে শান্তি-শৃংখলা ফিরিয়ে আনতে সচেষ্ট হয়... :-B

    বিনীত-
    ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে
    জুনায়েদ ওরফে জুনা। B-)

    জবাব দিন
  11. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    মহামান্য সিসিবিদালত,
    প্রথমেই বিবাদী পক্ষের অভিযোগকারী লাবলু ভাইয়ের উক্তিটি কোট করি,

    সিসিবিতে মাস্ফ্যু ~x( , জুনা :no: , রায়হান :khekz: , রবিন :dreamy: , ফৌজি :-B , রেজওয়ান ;;) টাইপ কিছু “……দ পাকা” পোলাপাইন আছে।

    এখানে উনি নিখাদ পাকা (মানে যারা পেকে গেছে নিশ্চিত, অর্থাৎ মরতুজা ভাইয়ের কচিকাচা সিরিজটা যাদেরকে উদ্দেশ্য করেই লিখা :-B ) বলে যে সিসিবির অতি ভদ্র এবং চরম সিনিয়র স্যালুটিকর (সিনিয়র ভাইয়েরা ব্লগে ঢুকলেই যারা অটো :salute: দেয়া শুরু করে ) গ্রুপটিকে নির্দেশিত করেছেন, সেই দলটির সবচেয়ে সিনিয়র সদস্য ( :bash: ) হিসাবে আজকের সিসিবিদালতে নিজের বক্তব্য পেশ করছি। এর আগেই আমাদের নিভস্ (নিখাদ পাকা-ভদ্র-সিনিয়র স্যালুটিকর) দলের সম্মানিত সদস্য জুনা এবং রায়হান তাদের যৌক্তিক দাবিদাওয়া সিসিবিদালতে পেশ করে করে গেছেন, যেখানে আমাদের প্রত্যেকটি সদস্যের সুন্দর ফুল কিংবা নিষ্পাপ শিশুর চেয়েও পাক পবিত্র চরিত্রের পুরোটাই আজ সিসিবির সকল সদস্যের সামনে পরিপূর্ণ মহিমায় বিকশিত হয়ে আছে। আমাদের এদলে যেমন প্রখ্যাত কথাশিল্পী রয়েছেন, ঠিক তেমনি কমেন্ট জগতের মুকুটহীন সম্রাট এবং সংগে সংগে বিশ্বের ইতিহাসে অতীব সমাদৃত 'পিরা ভাষার' জনকও রয়েছেন।
    তাই এইসব প্রমাণিত দেব যুবক এবং বালকদের বিরুদ্ধে বিষেদাগার কোনোমতেই মেনে নেয়া যায়না।

    সুতরাং, ব্লগের এডু, মডূ, ছোডূ’র কাছে আমার আকুল নিবেদন তারা যেন সকল প্রকার অশুভ শক্তিকে দমন করে অতি দ্রুত ব্লগে শান্তি-শৃংখলা ফিরিয়ে আনতে সচেষ্ট হয়… :-B

    বিনীত-
    ভুক্তভোগীদের পক্ষ থেকে
    ফৌজিয়ান ওরফে কাইয়ূম B-)


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
    • ফৌজিয়ান ভাই, আপনার লেখা পড়ে কাঁদতে কাঁদতে হাত ব্যাথা হয়ে গেল... :((
      নিজেদেরকে আমার খুব প্রতারিত, বঞ্চিত, অবহেলিত, ফলিত, চলিত...মনে হচ্ছে...আমাদের নিষ্পাপ মনটাকে সিনিয়র ভাইরা এভাবে আঘাত দিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে দেবেন- ভাবতেও পারি নি... :bash:
      আর লিখতে পারছি না...চোখের পানিতে ল্যাপটপের কি-বোর্ড উপচায়া গেছে...কোনটা কোন কী টের পাইতেছি না... :(( :((

      জবাব দিন
  12. রেজওয়ান (৯৯-০৫)
    মাস্ফ্যু ~x( , জুনা :no: , রায়হান :khekz: , রবিন :dreamy: , ফৌজি :-B , রেজওয়ান ;;) টাইপ কিছু “……দ পাকা” পোলাপাইন আছে।

    এই ছিল তাহাদের মনে...???
    শেষমেষ তাইলে আমরা গুটিকয়েক অতিব ভদ্র, শান্ত, সুশীল, নিখাদ, নিপাট, নিস্পাপ চরিত্রের অধিকারি পোলাপাইন হইয়া দাড়াইলাম ব্লগের পুংটা তালিকায় শীর্ষস্থান অধিকারী দুস্কৃতিকারি...???
    যারা কিনা ব্লগের পরিবেশটাকে সর্বদা পরিচ্ছন্ন,পরিস্কার রাখার জন্য বদ্ধ পরিকর(সেই সব লোকের হাত থেকে যারা কিনা বলে...থাক তাদের কথা কোট কইরা আমিও পরিবেশবি্রোধী দলে পরবার চাই না) তাদের এই বেহাল দশা/ আযথা হয়রানি মুলক মিথ্যা অপবাদে অপবাদিত করার প্রচেস্টার আমি তীব্র প্রতিবাদ জ্ঞাপন করছি... 😡
    আশা করছি বিজ্ঞ সিসিবিদালত এইটাকে গুরুত্বের সহিত বিবেচনা করিয়া সঠিক রায় প্রদানে প্রীত হইবেন... :boss: :boss: :boss: :boss: :boss:

    জবাব দিন
  13. কিন্তু যার লেখা নিয়া এতো কাহিনী হইয়া যাইতেছে সেই মাসুম ভাই কই? উনি না আসলে তো ব্যপারটার রফাদফা হইতেছে না। 😀

    অফটপিকঃ
    আমিও আছি কিন্তু কচি কাচাদের মহাজোটে। 😉 😉

    জবাব দিন
  14. ইয়ে মানে আমার বয়েস কম হইলেও যাস্ট ফ্রেন্ডদের বদৌলতে মাশা আল্লাহ "এক্সপেরিএন্সড" হইবার সুযোগ আছে।সেই সাথে আছে কমপিউটার শিক্ষা পার্টি হইয়াও বায়োলজির প্রজননতন্ত্র চ্যাপ্টার মুখস্ত করা গিয়ান।মানে কৈতাছিলাম কি,সিনিয়র সিসিবি খুললে সুযোগটা নিয়াই ফালামু-বয়েস তো কম হইলোনা-আগামীকাল ২৪ হইব।ইঞ্জিন্টা চালু করার সময়ও আগাইয়া আইছে...

    বি দ্রঃ ব্যারিস্টার শার্লিকে আমাদের জুনিয়র কল্যান সমিতির পক্ষ থেকে মামলা পরিচালনা করার অনুরোধ করা যাচ্ছে 😛

    জবাব দিন
  15. হায় আহসান ভাই,এই ছিল আপনার মনে???সিও হইয়া নিজের ইউনিটের জুনিয়রদের এম্নে পরিত্যাগ কইরা জেনারেলগ দলে ভিড়লেন?????খাড়ান-আপনের ছবি শুদ্দা সিভি আমি আম্মার জিমের সাম্নে না টাঙ্গানো পর্যন্ত আমার বেশি খাওয়া বন......আর্মি পার্টি,আহসান ভাইয়ের সিভি বানামু ইনফরমেশন দে x-(

    জবাব দিন
  16. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    বিট লবনের লগে মরিচ পোড়া মিশাইয়া পোড়া আলু খাওনের মজাই আলাদা। আহসান আর মাসুমরে নিয়া কালকা রাইত থেইক্যা হেইডাই খাইতাছি :khekz: । পোড়া আলু খাওয়ার লাইগ্যা আমাগোর পিছনে লাইন পিরা গেছে :guitar: :guitar: :guitar: !! লাইনের শেষ মাথায় কারে কারে দেহা যায়?? :hug: :hug: :hug:


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  17. তাইফুর (৯২-৯৮)

    সিনিয়র সিসিবি'র সুযোগ্য আহবায়ক 'সানাউল্লাহ ভাই'য়ের ডাকে সাড়া দিয়ে দলে যোগ দিলাম এবং "মাস্ফ্যু, জুনা, রায়হান, রবিন, ফৌজি,রেজয়ান কল্যান সমিতি"র বিরুদ্ধে কমেন্ট'জিহাদ' ঘোষনা করলাম। :grr:


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  18. শওকত (৭৯-৮৫)

    বৃহস্পতিবার পোস্টটা দিয়ে ভেগে গেছিলাম। ‍কামরু‍লরে ফোন পেয়ে জানলাম এখা‍নে না‍কি যুদ্ধ শুরু হয়ে গেছে। কমেন্ট পড়ে তো মহামুগ্ধ। এখা‍নে নিয়মিত থাকতে হবে বুঝতে পারছি। আমি আছি ,তবে কোন দলে থাকবো বুঝতে পারছিনা। সিনিয়র হলেও আমার আরকেটা নাম মাসুম। :shy: =)) :goragori: :khekz:

    জবাব দিন
  19. রেজওয়ান (৯৯-০৫)

    মাসুম ভাই,
    আপনার অবগতির জন্য জানাইতেছি যে ব্লগের কতিপয় দুস্কৃতিকারি সিনিয়র মিলে আমাদের মত নিস্পাপ ছুড ভাই গুলার অপর অপবাদ দেবার চেস্টা চালাইতচছে। আপনি দয়া করে তাদের কথায় কান মাথা কিছুই দিয়েন না। আপনিই বলেন যারা আপ্নের এই বাধাকপির করুন কাহিনী শোনার পর যারা আপনাকে আলু মুলা শালগম কদু ইত্যাদি খাওয়ানোর লোভ দেখাইয়া আমাদের বিরুদ্ধে আপনাকে টান্তে চায় তারা কোন ধান্দায় চলতাসে???? :-/ :-/ :-/
    আর এইদিকে আমরা যারা মুরুব্বিদের কথার আগে একবার :salute: আর কথা শেষ হইলে একবার :salute: দেই আর সিনিয়র দেখলে আধুনিক সব সুস্বাদু খাবার দিয়া আপ্যায়ন করি তারা কেমনে আপনিই কন খারাপ হইতে পারি??? O:-) O:-) O:-)
    আশা করি আপনি "সি সি সি বি"র মত কুন বিদ্রহী সংগঠন কে বিন্দু মাত্র ছাড় দিবেন না :hug: :hug:

    জবাব দিন
  20. তানভীর (৯৪-০০)

    শওকত ভাই,
    প্রথমেই আপনাকে লাল সালাম :salute: (আমরা সিসিবি-জুনিরা সবসময়ই বড় ভাইদের এভাবে স্যালুট দেই)।
    আপনার লেখা চমৎকার হয়েছে। প্রথম লেখাতেই সিসিবি জমিয়ে ফেলেছেন।
    এখন থেকে নিয়মিত আপনার লেখা পাব এই আশায় রইলাম।
    কমেন্ট শেষে আরেকবার আপনাকে :salute:

    জবাব দিন
  21. সেই অনুভূতি একদমই অন্যরকম। আমার কলেজ বরিশাল ক্যাডেট কলেজ।

    সহমত।
    কলেজ ছেড়ে এসেছি অনেকদিন হল...তবুও কলেজের ছবিটা দেখলে দীর্ঘশ্বাস ছাড়া কিছুই পড়েনা।
    মনে হয়,কিছু একটা মিস করছি প্রতিনিয়ত।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।