রগরগে মার্চ

কলেজ থেকে বের হয়েছি মাত্র কয়েকদিন। এর মধ্যেই স্মৃতি ঘোলাটে হতে শুরু করেছে। কত মজার মজার ঘটনা ডায়ালগে মাসের মাসের পর মাস মেতে ছিলাম হাসির উৎসবে, এখন লিখতে গেলে তার কিছুই মনে পড়েনা। আজকে আমাদের ছোট্ট একটা একদিনের রি-ইউনিয়ন ছিল। অনেকের সাথে দেখা হল। পুরান দিনের কথা হল। মনে পড়ে গেল অনেক মজার মজার ডায়ালগ।

মোল্লা স্যারের প্রথম ক্লাসে পরিচয় পর্বের সময়,
মোল্লা স্যারঃ আমার নাম নুরুজ্জামান মোল্লা
আহ্‌সান কবির ভাইঃ (পেছন থেকে) আমি একটা ছড়া বলব।

সোহরাওয়ার্দী হাউসের জনৈক হাউজ অধিনায়ক,
“sit down, বাংলা কথা বোঝনা”

অল্টারনেট ডাইনিং হল প্রিফেক্ট ডাইনিং হলে ডিউটি ক্যাডেটের উদ্দেশ্য চিৎকার করে,
“ডাইনিং হল প্রিফেক্ট, কাম হেয়ার”

হাসপাতালের হাসেম ভাই,
“তোমার নাম কি নাম?”

রিউনিয়নে ৭ম ব্যাচের মুনির ভাইকে দেখে বাহার ভাইয়ের ছেলে,
“বাবা উনি ডাব চোর আংকেল না?

আমাদের একজন অপ্রাসংগিক স্টাফ ছিলেন। নাম তার সুলতান স্টাফ। তার অপ্রাসঙ্গিক এর নমুনা শুনুন,
মেট্রিক পরীক্ষার হলে যাবার আগে না আমাদের এক ফ্রেন্ড তার কাছে,
“:স্টাফ দোয়া কইরেন।
: আরে ভয়ের কি আছে? গতকাল যে চিটাগাং থেকে বরিশাল আসলাম; আমি কি ভয় পাইছি?”

ইসলামিয়াত শিক্ষক (নাম বলছিনা…) স্যারের শবে বরাতে বিশাল মোনাজাত দেওয়ার অভ্যাস ছিল। এরকম এক শবে বরাতের রাতে মোনাজাতের প্রায় এক ঘন্টা অতিবাহিত হবার পর আমাদের নামাজী ইংরেজি শিক্ষক পেছন থেকে দাঁড়িয়ে,
“আর সহ্য হচ্ছেনা”

১,০০৯ বার দেখা হয়েছে

১৬ টি মন্তব্য : “রগরগে মার্চ”

  1. জটিলস!
    আমাদের কলেজে একবার শেখ মুজিবের জন্যে দোয়া পড়তে গিয়া এক স্যার মুনাজাতে বলে- শেখ মুজিবুর রহমানুর রাহীম...। টানা চার/পাঁচবার বইলা পড়ে থামছে!

    জবাব দিন
  2. তৌহিদ (৯৫-০১)

    আমাদের কলেজের এক স্তাফ ড্রিল এ ঘন সারিতে দাড়াতে বলার পর তা ঠিক না হওয়ায় ( তখনো যথেস্থ ফাকা থাকায়)
    "ঘনই এত ফাক, ফাক না জানি কত ফাক"

    অনেক কস্টে আমরা হাসি থামাই এবং এই ডায়লগ যথারিতি আমাদের বহুল প্রচলিত ডায়লগ হয়ে দারায় ।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।