দশটা কুখ্যাত কলেজের দশটা বছর পার করে দেয়া…

আজকে যদিও বুধবার, তাও আমরা সেজেগুজে কালচারাল ফাংশন দেখতে আর স্পেশাল ডিনার খাইতে গেলাম।

তার আগে সন্ধ্যা বেলায় হলো মুড়ি পার্টি, সেই আগের মত দুই হাত ভরে মুড়ি নিয়ে এসে
উপরটা চেটে দেয়া, যেন আর কেউ না নিতে পারে…এবার অবশ্য আমি ভালু মেয়ে
ছিলাম, নিজেই দুহাত ভরা মুড়ি নিয়ে নিয়ে এসে সবাইকে দিয়েছি…ভুটি, মনে আছে, তুই কেমন খাইষ্টা ছিলি? চেটে দিলেও তুই নিয়ে খেয়ে ফেলতি? উরে বাপরে, তুই তো আবার ভুটি ডাকলে তেড়ে মারতে আসিস এখন…ক্যান, আমি বুঝি ঝ্যাং ডাকলে খেপি?

সন্ধ্যায় ফাংশন ছিল, নোমান এসে সবাইরে কলেজ সাবধান করাল, তারপর কালচারাল প্রিফেক্ট বিষ্টি অনুষ্ঠানের রেসপন্সিবিলিটি ম্যাক্স কে হ্যান্ডোভার করল…আমরা সব কলেজগুলা দৌড়াদৌড়ি করে স্টেজে উঠে গেলাম, সবাই মিলে কোরাস গাইতে চাইছিলাম, ক্যাডেট কলেজগুলার জাতীয় সঙ্গীত, আমরা করবো জয়, (ইন দ্য ইয়ার অফ নাইন্টিন থার্টি নাইন থেকে প্রতিটা ব্যাচই ট্যালেন্ট শোতে যেই গান কোরাস গায়)…সবাই মনে হয় খুব দরদ দিয়ে গাওয়ার চেষ্টা করতেছিল বিধায় কারও গানই শুনা যায় নাই।

এরপর স্টেজে কয়েকজন এসে গিটার হাতে খাণিক্ষণ খুব চিল্লাপাল্লা করল, তারপর কয়েকজন এসে মাইক নিয়ে ঘ্যানঘ্যান করল (আশরাফ, পরোটা ভাজো এখনো?, রায়হান, এমন ভুয়া জোক করলিরে ব্যাটা? ), এরপর একটা স্লাইড শো দেখানো হইল, দুঃখের বিষয় আমি এইটা মিস করছি, সবাই বলসে ফাটাফাটি হইছে নাকি, বিশেষ করে এক্সকারশনে এমজিসিসির বাসের সামনে কয়েজন বয়েজ ক্যাডেটের ছবি (ওদের বাস ছিল না, তাই আমাদের কাছে লিফট চাচ্ছিল B-) )

এরপর কেক জবাই করা হল, তারপর অনেক্ষণ নিচে দাঁড়ায়ে গল্প…এরপর ডিনারের বেল পড়ল…ডাইনিং হল…ভৌতিক স্বরে বিইইইইসমিল্লাহ, নাবিল মনে আছে, সিতারা ম্যডাম আর আমার ট্যাটু? বয়েজ, তোমরা বিসমিল্লাহ বলোনি কেন?? মেনু সেই ফুলাও, খাবাব, মুরগ…সাথে অবশ্য ভেজিটেবল ছিল, আর স্পেশাল হলুদ রঙের মাউন্টেন ডিউ। তাবা, তোরে যে আমি আমার মুরগীটা দিয়ে দিলাম, একটা কাবাব তো দিতে পারতিরে বেটি…কিংবা এক চুমুক ডিউ… চারটা টেবিলের মাঝে একটা টেবিল পুরাই এমজিসিসি, ২৭ জন!!! এমজিসিসি পাথড়ায় লিখতে পারতাম, লিখলাম না, যাহ…৯৯ ব্যাচ পাথড়ায় (কপিরাইটঃ জুনা ভাই)

রাতে ফেরার সময় সবার সময় দেখা হচ্ছিল, কলি, কৃষ্ণচূড়া ফুটে গেল নাকি রে? বাঁধন, এত ক্রএ ডাকলাম, আসলা না ক্যান? খুব ইচ্ছা ছিল তুমি নেকাব পড়ে কেমনে খাও এটা দেখার :grr: একদম শেষে দেখা হলো তুহিনদের সাথে… তুহিন, হাত কি খুব বেশি চুলকায়?? O:-)

আমি খুবই তুচ্ছ মানুষ, গর্ব করার মত কিছু করিনি সারা জীবনে… খুব সাধারণ ভাবে, খুব সাধারণ একটা জীবনে আমার বসবাস। কেবল একটা ব্যাপার চলে আসলেই আমার চোখ জ্বলজ্বল করে ওঠে, আমার কলেজ জীবন…জানি গর্ব করা ভাল নয়…এই একটা জিনিস নিয়ে একটু গর্ব করলে কি আল্লাহ পাক বেশি রাগ করবে? মনে হয় না…

৪,৫৩১ বার দেখা হয়েছে

৬৭ টি মন্তব্য : “দশটা কুখ্যাত কলেজের দশটা বছর পার করে দেয়া…”

  1. মুহাম্মদ (৯৯-০৫)

    আল্টিমেটলি কলেজ জীবনই রক করে.. 😛
    আজকের সবকিছু আসলেই সেইরকম হইছে। এত জন আসবে ভাবতেই পারি নাই। আমাদের কলেজের ২৩ জন। ফার্স্ট হৈতে পারলাম না।
    ঝামেলার মধ্যে যেটা হৈছে তা হল, আমার কান এখনও ব্যথা করতেছে।

    জবাব দিন
  2. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    ঝ্যাঙ্গু ঝঠিল লিখছিস। বাধনটা ব্লগে এতো চিক্কুর পারে, আর আজকে ডাকলাম কিন্তু আসলো না। 😛

    আজকের আয়োজনটা সত্যি ফাটাফাটি ছিল। সত্যি সত্যি ...

    জবাব দিন
  3. খুব সাধারণ একটা জীবনে আমার বসবাস। কেবল একটা ব্যাপার চলে আসলেই আমার চোখ জ্বলজ্বল করে ওঠে, আমার কলেজ জীবন…

    দোস্ত,
    এই কথাটা আমার একদম মনের কথা...
    আমি আজো খুব বেশি সাধারণ। তাই কোথাও মিশ খাইতে পারিনা 🙁

    জবাব দিন
  4. তানভীর (৯৪-০০)

    আরে! সামিয়া দেখি লিখছে!! 😛 😛
    ইস্‌! কি মজাটাই না করলা!! আমরা এরকম মজা করতে পারলাম না! 🙁
    বন্ধুত্বের এক দশকের শুভেচ্ছা। 🙂
    লেখালেখি আবার চালু করে দাও, তোমার লেখা আমরা মিস্‌ করি।

    জবাব দিন
  5. সেই রকম একটা গেট টুগেদার হইল,

    যাওয়ার পর পরই সবাইকে দেখে বুকে জড়িয়ে ধরা,
    টিশার্ট নিতে গিয়ে কলেজে পুলওভার নিতে যাবার মত কাড়াকাড়ি,
    চানাচুর মুড়ি পার্টি,
    মুড়ি ছিটিয়ে গোসল করানো,
    অডিটরিয়ামে সীট নিয়া কাড়াকাড়ি,
    ফাটা দেওয়া,
    এক তালি,
    আমরা করবো জয়/আমরা সবাই রাজা (গান গাইতে আমিও উঠছিলাম, কিন্তু চিল্লাচিল্লিতে কোন গান সেইটা আমিও বুঝি নাই 🙁 )
    স্মৃতি চারণ
    গান
    ফ্লপ
    প্যারোডি
    কেক কাটা,
    আবার গান
    বুয়েট ক্যাফেতে আবারো ডাইনিং হলের মত চিল্লাচিল্লি ও টেবিল চাপড়ানো
    কলেজের স্পেশাল ডিনার (কাবাব, পোলাও, চিকেন, ইংলিশ ডিনারের ভেজিটেবল, মাউন্টেন ডিউ, চকলেট কেক, সালাদ, পিয়াজ, মরিচ... বইলা শ্যাষ করা যাবে না)
    বেনসন
    আবার গোল হইয়া বইসা চিল্লাচিল্লি..
    ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া
    এক হোন্ডাওয়ালার (ওই পুলা নাকি ক্যাডেট !!!) পাট মারা
    ছবি তোলাতো পুরাটা টাইম ই চলছে...

    জবাব দিন
  6. নাজমুল (০২-০৮)

    খুব সাধারণ একটা জীবনে আমার বসবাস। কেবল একটা ব্যাপার চলে আসলেই আমার চোখ জ্বলজ্বল করে ওঠে, আমার কলেজ জীবন…
    🙁 🙁
    লেখাটা খুব ভালো লাগলো আপু আর লাষ্ট এর লাইন গুলা সেরকম :boss:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।