আমার ছোট্ট ভাইটি

সতর্কতা: ইহা একটি ব্যাপক তথ্যসহ মাল্টিমিডিয়া পোষ্ট।এটি পড়তে হলে আপনার চাই ধের্য্য,ধৈর্য্য এবং হ্যা অবশ্যই ধৈর্য্য….

ফাহিম।আমার ছোটভাই।তবে শুধু এটুকু বললে কিছুই বলা হবেনা।আসল কথাটা হল ও আমার জীবন।মানুষের জীবনে এমন কিছু থাকেনা যে,যা থাকলে মনে হয় আর কিছু চাইবার নেই,ও আমার কাছে ঠিক সেরকম।

ওর পুরো নাম ফাহিম ইমতিয়াজ।ডাকনাম প্রান্ত।কিন্তু এই নামগুলা শুধু কেউ জিজ্ঞেস করলে বলার জন্য,এমনিতে বাসার সবার কাছে তার আলাদা আলাদা নাম,সবার ছোট হলে যা হয় আরকি!বড়াপু ডাকে ইমতু,মেঝাপু ইমতি,আমি চিমতি..এমনকি কাজের মেয়েটাও আলাদা নাম করে নিয়েছে…ফাইম!! 😡

ছোট থেকেই ও আমাদের সব ভাইবোন থেকে আলাদা।আমরা বাকি ভাইবোনদের সবাই ব-ল-দ ভদ্র টাইপের।কিন্তু ও একদম ছোটকাল থেকেই অসম্ভব বুদ্ধিমান আর কৌশলী।আর প্রতিনিয়তই সে তার এই গুনের প্রমান দিয়ে চলছে।কি স্কুলে,কি এলাকায়..সবখানেই সবাইকে ক্রমাগত কথা দিয়ে মুগ্ধ করে রাখে ও।আর তার সামনে বেফাস কিছু বললে তো কথাই নেই..ডাইরেক্ট বোল্ড করে দিবে।

তখন আমাদের বাসা রং করাচ্ছে,অফহোয়াইট।তো,একদিন এলাকার এক লোক বাসার দিকে তাকিয়ে ফাহিমকে রাগানোর জন্য বললেন,
কিরে ফাহিম,তোদের বাসার রংটাতো সুন্দর হয় নাই।
হয় নাই?
না,কেমন বিশ্রী লাগতেসে,তুই নিজেই দেখ।
কই,আমার কাছে তো খুব সুন্দর লাগতেসে।
হ্যা,তোদের বাসা তুই তো বলবিই।আসলে খুব পচা হইসে।
এইবার ফাহিম কিছুক্ষন দম নিল।তারপর একটানা ঝাড়ি,
শুনেন এইটা আমাদের বাসা,আমাদের ইচ্ছামত রং করসি,তাতে আপনার কি,হ্যাঁ?আপনার বাসা যখন রং করবেন তখন আপনার ইচ্ছামত করবেন,বুঝছেন?সবচে ভাল হয়,আপনার গায়ের মত কাল রং করলে,বাসাটাও সুন্দর লাগবে,আপনাকেও মানাবে!!
লোকটা হতভম্ব!!

কোরবানীর ইদ।ফাহিম সালামী তুলতেসে।আমার সামনে বড়াপু তাকে ১০০ টাকা দিলেন।ফাহিম চাদাবাজের মত এসে আমার কাছে সালামী চাইল,গলার সুরে সুস্পষ্ট আদেশ..
বড়ভাইয়া,তোমার পালা
যা ভাগ,আমি সালামী দেইনা—আমি বলি।
তক্ষুনি শুরু হল চিৎকার,পিচ্চি চাদাবাজদের শেষ অস্ত্র।শেষমেষ আম্মা এসে বললেন, দে না..তুই বড় ভাই না!
বিরক্ত মুখে ১০ টাকা ধরাই দিলাম।তারপর এমনি বলালাম,বল তো কে বেশি দিসে?আমি না বড়াপু??
কেন?তুমি!
আমি মানে!!তুই কি অংকও ভুলে গেসিস নাকি??
না মানে,যদি তোমারটা কম বলি,তুমি যদি আবার নিয়ে যাও। :-B

সবচে ভাল লাগে তার সিচুয়েশন ম্যানেজ ক্ষমতা।গত অলিম্পিকের ঘটনা।আমি আর্জেন্টিনার সাপোর্টার..আর ও ব্রাজিল..দুইজনের মধ্যে তুমুল কথা-কাটাকাটি।
তো.আর্জেন্টিনা গোল্ড জেতার পর আমি একদিন বাসায় গেলাম
বড়ভাইয়া খেলা দেখছ?
হ্যা।
বলা শেষ না হতেই ও বলল,আমি কিন্তু আর্জেন্টিনা ছিলাম।
হ্যা,তা তো জানিই..আমি হাসলাম
তোমার ব্রাজিল তো হারসে।
হুম..বলে আমি আবার হাসি।
আমার এক বন্ধু আছে,ব্রাজিল করে..কি বিশ্রী!!না?
হ্যা.
আমার কাছে পাত্তা না পেয়ে এবার সে সুর পালটায়।অনুনয় করে বলে,
এই বড়ভাইয়া,বিশ্বাস কর,আমি সত্যি মনে মনে আর্জেন্টিনা ছিলাম।
আমি অবিশ্বাস করি কি করে!!কোন উপায় আছে!!

সে আবার গানের খুব সমঝদার,বলাবাহুল্য হালের কোন গানই তার হাত থেকে নিস্তার পায়না।ফাহিমের প্রিয় শিল্পী হল মিলা আর ক্লোজআপ ওয়ানের লিমন।কোন গান একবার শুনলেই হল…গোদের উপর বিষফোড়ার মত বাসার পাশে এক বাসায় আবার সারাদিন গান বাজায়।একদিন দেখি ও গাচ্ছে..
সাপুরাম বাবুড়ে,
কোথা যাস বাপ্পুরে!!
আরেকদিন বারান্দায়,ফাহিম খেলছে আর উদাত্ত কন্ঠে তার গানের চর্চা করছে,”দুর্গমগিরি কান্তার মরু”(টিভিতে ক্লোজআপ ওয়ান দেখে শেখা)।বাধ্য হয়ে আমাকে হস্তক্ষেপ করার জন্য আসতে হল।কিন্তু বেচারার চেষ্টা দেখে মায়াই লাগল,কিছু বল্লাম না।তা থেকেই উৎসাহী হয়েই কিনা সে ভলিউম আরেক ডিগ্রী বাড়িয়ে দিল।একটু পরে বল্ল,
এ রে বড়ভাইয়া.
কি?
আমার গলাটা তো ভালই,নাকি বলস?
হু,ভালই..আমি বলি
খালি সুরটা একটু নাই,না?
আমাকে এইটা স্বীকার করতেই হল।

আরেকদিন আমরা ভাই বোনরা সবাই আর আম্মা মিলে গল্প করছিলাম।বিষয়বস্তু হল রবীন্দ্রনাথ এর বই যোগাযোগ।তুমুল তর্ক হচ্ছে,আম্মা ভার্সেস আমরা সবাই।আমি একটু অন্যমনস্ক ছিলাম বলে মাঝখানে খেয়াল করিনি,হঠাৎ দেথি আমার ফাহিম আমার গলা চেপে ধরসে আর খাটি নোয়াখাইল্যা ভাষায় প্রশ্ন করতেসে..
“ক, যোগাযোগ এর ভিত্তে কার দোষ?”
কার দোষ মানে??
কিচ্ছু জানিনা,তোরে কইতে অইব কার দোষ?
আমি যাকে বলে পুরা টাব্বুস!
বল্লাম,আছে কে কে তুই জানিস?
একটু ভাবল।
তারপর আড্ডা থেকে সারাংশ মনে করেই বোধহয় আবার গলা চেপে ধরে তার জিজ্ঞাসা..
“ক, হোলার দোষ না মাইয়ার দোষ!!!

সবচে মজা লাগে যখন ও ধরা খায়।একদিন আমি ওকে বাজানোর জন্য ওকে বললাম,
কিরে,আজকে স্কুলে মার খাইতে কেমন লাগল?
বলতে না বলতেই ওর চোখ দেখি সরু হয়ে গেল।কিছুক্ষন আমার দিকে তাকিয়ে বলে,
তুমি আমার স্কুলে গেস কখন?
হ্যা,হ্যা আমি সব দেখসি।বড়স্যার নিজে আম্মাকে ফোন করে আমাকে যেতে বলসেন।
তাহলে আম্মা আমাকে কিছু বলল না যে?
আম্মা তো এখন আর মুখে কিছু বলবে না,এখন খালি তার হাত চলবে।
ইসস,ওর তখনকার চেহারাটা যদি তুলে রাখতে পারতাম। :khekz:

ও এত দুষ্টু যে পড়ালেখায় কেমন হবে তা নিয়ে আমাদের সবারই সন্দেহ ছিল।কিন্তু আমাদের বরাবরের মতই ভুল প্রমান করে তার পড়াশোনাতেও মাথা খুব ভাল।আর মুখস্তও করতে পারে দারুন।ক্লাসে এখন পর্যন্ত ফার্ষ্ট-সেকেন্ডই হচ্ছে,কিন্তু ওই যে–একদম পড়ালেখা করতে বসেনা।আর এই বয়সেই সে তার পাক্কা ক্যারিয়ার প্ল্যান করে নিয়েছে এইভাবে,প্রথমে কিছুদিন চাকরি করবে,একপর একটা গাড়ী কিনবে,তারপর চাকরী ছেড়ে পাইলট হবে,কিছুদিন পাইলটগিরি করার পর ও টিভিতে ক্রিকেট খেলবে আর সবশেষে কিছুদিন আইসক্রীম বিক্রি করবে!!

যাক,অনেক গুনগান করে ফেল্লাম,নিজের ভাই বলেই মনে হয়।তবে ও যে একদিন অনেক বড় কিছু হবে এ ব্যাপারে আমি একদম নিশ্চিত।সে যেন সত্যিকারের একজন মানুষ হয়ে উঠতে পারে,দেশের জন্য কিছু করতে পারে এজন্যই আমার সব প্রার্থনা।
ও মাই গড!আমি দেখি ইমোশনাল হয়ে যাচ্ছি!!থাক আজকে বাদ দেই..ভাইয়া..তুই সব সময় খুব সুখে থাক,জগতের নোংরা কোন কিছু যেন তোকে কখনো স্পর্শ না করে।

এইবার ছবির পালা : 😀
ডিজে ফাহিম

গুটু গুট মুটু মুটু

ইয়ো ফাহিম

জলদিইইইই... চল

শয়তানীর পিলান

পড়ালেখা করেই খেতে হবে,এই সত্য জানার পর বিরক্ত ও হতাশ ফাহিম

সালাম নিচ্ছে কি দিচ্ছে বুঝা যাচ্ছে না

বড়াপু ও ফাহিম

ফাহিম ও তার বাইক!!

হাটি হাটি পা পা,যেথায় খুশি সেখানে যা...

৭,২২৭ বার দেখা হয়েছে

৭১ টি মন্তব্য : “আমার ছোট্ট ভাইটি”

  1. ফুয়াদ জটিল লাগল তোর ভাইয়ের কাহিনি :thumbup:
    তোর দিন শেষ 😛 এইবার তোর ভাইয়ের দিন :grr: যেমনে লোকজনকে বোল্ড করতাছে তোর আর দেরি নাইরে :grr:
    পরীক্ষা বাদ দিয়া ব্লগে কি করস 😮

    জবাব দিন
  2. জিহাদ (৯৯-০৫)

    তুই আর তোর ভাই -

    দোয়া করি তোরা দুইজনেই অনেক অনেক বড় হ B-)

    অফটপিক: পরীক্ষার আগে খালি লেখার জন্য হাত নিশপিশ করে। তোরও যদি ঐরকম অবস্থা হয় তাইলে তো আমাদের জন্য ভালৈ 😀


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  3. রেজওয়ান (৯৯-০৫)

    ভাইরে ভাই......আজকাল্কার পোলাপাইন গুলা যে কি হইতেসে...... 😕 😕
    আমার ছুড ভাই কিলাশ ৭ এ পড়ে......
    আর এখনি সে প্রেম কইরে আকাশে বাতাসে উরতাসে... :no: :no: :no:
    দুনিয়া যে কই যাইতেসে... :bash: :bash: :bash:

    জবাব দিন
  4. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    বন্য,
    সিসিবির ইতিহাস জাতীয় লেখাগুলায় তোমার নাম অনেক পড়সি...
    অনেকদিন পরে আসলা নাকি?

    ফাহিমের ঘটনাগুলা শুইনা ব্যিপক মিজা পিলাম... :khekz:
    বিশেষ কইরা ক্যারিয়ার প্ল্যানটা শুইনা হাসতে হাসতে মিরা গেসি...

    পিচ্চিরে আদর দিও...


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  5. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)
    শুনেন এইটা আমাদের বাসা,আমাদের ইচ্ছামত রং করসি,তাতে আপনার কি,হ্যাঁ?আপনার বাসা যখন রং করবেন তখন আপনার ইচ্ছামত করবেন,বুঝছেন?সবচে ভাল হয়,আপনার গায়ের মত কাল রং করলে,বাসাটাও সুন্দর লাগবে,আপনাকেও মানাবে!!

    আজকালকার পুলাপাইন! নিজের বাপেরেই ছাড়ে না, আর এইডা তো প্রতিবেশী।
    তোমার ভাইয়ের জন্য অনেক আদর।


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  6. বন্য (৯৯-০৫)

    লাবলু ভাই!!!অনেক অনেক ধন্যবাদ...

    স্বপ্ন হল সত্যি ইটের পর ইট...

    কপিরাইট:পপিচুস 😀

    নিজের বাপেরেই ছাড়ে না

    :khekz: :khekz: :khekz:
    আমি কেন আজকালকার পোলাপাইন হইলাম না.. :((

    জবাব দিন
  7. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    চরম চরম 😀
    পিচ্চিটার জন্য অনেক অনেক আদর। ক্যাডেট কবে হইতাছে এইটাতো কইলিনারে ফরেস্টি :grr: :grr:

    প্রথমে কিছুদিন চাকরি করবে,একপর একটা গাড়ী কিনবে,তারপর চাকরী ছেড়ে পাইলট হবে,কিছুদিন পাইলটগিরি করার পর ও টিভিতে ক্রিকেট খেলবে আর সবশেষে কিছুদিন আইসক্রীম বিক্রি করবে!!

    :khekz: :khekz: :khekz: :goragori: ক্যারিয়ার পিলানিং দিইখা পিরাই মিরা গিলামরে :thumbup: :thumbup:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  8. তাইফুর (৯২-৯৮)

    আমার যে ক্যান 'ক্যাডেট বড় ভাই' নাই ... :((
    বণ্য ... বিয়াপওক মজা পাইলাম।

    প্রথমে কিছুদিন চাকরি করবে,একপর একটা গাড়ী কিনবে,তারপর চাকরী ছেড়ে পাইলট হবে,কিছুদিন পাইলটগিরি করার পর ও টিভিতে ক্রিকেট খেলবে আর সবশেষে কিছুদিন আইসক্রীম বিক্রি করবে!!

    ফাহিম তো দেখি ক্যারিয়ার প্ল্যান্টা চ্রম করছে। বিশেষতঃ টিভিতে ক্রিকেট খেলা ... আপাতত ওরে চক্লেট খাওয়াই দিস। দেশে আইসা পয়সা দিয়া দিমুনে।


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  9. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)

    আমার বাসায় এইরকম একটা আছে।
    আমার বোনের ছেলে।
    এখানে বসে বাসার সবার জন্য যতটা না মিস তার চাইতে অনেক বেশি মিস করি ঐ ভাইগ্নাটারে 🙁 🙁 🙁 🙁 ।

    ফাহিম অনেক বড় হোক :hatsoff: ।


    Life is Mad.

    জবাব দিন
  10. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)
    তুই সব সময় খুব সুখে থাক,জগতের নোংরা কোন কিছু যেন তোকে কখনো স্পর্শ না করে।

    বন্য বাসায় যাওয়া বাদ দিবি নাকি??? 😛

    তোর ভাইএর জন্য রইল অনেক অনেক আদর আর শুভকামনা...


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  11. তানভীর (৯৪-০০)

    ফুয়াদ, তোমার ভাইয়ের ঘটনা পড়ে বেশ মজা পেলাম। দারুণ চটপটে মনে হচ্ছে। 🙂

    দোয়া করি, ফাহিম অনেক বড় হবে এবং একজন ভালো মানুষ হবে।

    ওর ক্যারিয়ার প্ল্যানটা একদম সিরাম। :thumbup: :thumbup:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।