ফুটবল গোলাকার

আমাদের পাড়ায় এক সিনিয়র ভাই আছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন, ভাল ফুটবল খেলেন। নামিদামি কোন ক্লাবে খেলেন না কিন্তু ফুটবল প্রেমী বলা যায়। বছরের সব সময় উনাকে পাড়ার মাঠে পাওয়া যাবে। ফুটবল খেলা ছাড়াও আরেকটি স্বভাব আছে সুযোগ পেলে আমাদের লেক্‌চার দেওয়া, দু একটা বই ও হয়তো পড়েন। আমাকে তিনি বেশ কয়েকবার মাঠে নিয়ে গিয়ে ছিলেন, কিন্তু দু-এক জনকে ল্যাং মারা ছাড়া তেমন কিছু করতে পারিনি।

একদিন বর্ষার কোন এক বিকেলে, আমাদের পাড়ার মাঠটা সাগর এ রুপ নিল। অগ্যতা মাঠের পাশে আমরা সবাই মিলে গল্প করছিলাম। আমি এক পর্যায়ে জিজ্ঞেস করলাম- ‘বস্‌ আপনি ক্যামনে এতো ভাল খেলেন’। উনি একটু লজ্জাই পেলেন- ‘ধুর বেটা, কি আর ভাল খেলি’।

আমিও নাছোর বান্দা, বল্‌লাম- ‘ম্যারাডোনা না হতে পারেন, পাড়ার মাঝে তো সেরা’। এবার উনার লেকচারের ঝুরি খুলে গেল। ‘শোন’, তিনি শুরু করলেন- ‘কিভাবে খেলি তা আমি আসলেই জানি না। আমার কাছে মনে হয়, আমি দেখি ভাল। ধর্‌, আমার কাছে বলটা এল আর দেখলাম বিপক্ষ দলের কেউ আমার দিকে আসছে, তখন পাশে যে আছে তাকে বলটা দিয়ে দিই। আবার আমি দেখলাম আমাদের কেউ ওদের সীমানায় ঢুকছে, আমি বলটা ওকে পাস্‌ দিয়ে দিই। এই তো ফুটবল খেলা।’

আমি বল্‌লাম- ‘এত সহজ হলে তো সবাই পারতো, তাই না?’ উনি মানলেন-‘তোর কথাও ঠিক, আবার আমারটাও। এই যেমন তুই টেন্ডুলকার কে জিজ্ঞেস কর- ভাই আপনি ক্যামনে খেলেন, আমাগো এ্যাশ্‌ তো পারে না- কি বলবে জানিস, বলবে- আমি তো জানি না। আমি তো শুধু দেখি বলটা পিচ্‌ করে আমার দিকে আসলো, আর ওই দিকে কোন ফিল্ডার নেই, ব্যাস্‌ পাঠিয়ে দিই।’

‘তারপর কোন ভাল আভিনেতা কে জিজ্ঞেস কর, বলবে- আমি যখন চরিত্রটি পড়ি মনে হয় আমি তাকে দেখতে পারছি, তারপর আমি যা দেখেছি তাই করি। কোন কবি কে অথবা এক জন লেখক কে জিজ্ঞেস কর, বলবে- আমি আমার চারপাশে যা দেখি তাইতো আমি লিখি, নুতণ কিছু তো বলি না’।

‘আসলে কি জানিস, এই দেখাটাই সব’।

কি যে বুঝলাম আর কি যে বুঝলাম না, সেটাই বুঝলাম না। শুধু বুঝলাম ফুটবলটা গোলাকার, আমার মাথাটাও গোলাকার।

১,৮৭৮ বার দেখা হয়েছে

২৬ টি মন্তব্য : “ফুটবল গোলাকার”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।