অন্বেষণঃএকটি সামুদ্রিক কবিতা

কতদিন ধরে কাঠের জাহাজে ভেসে ভেসে
চলেছি লোনা সাগরের অফুরান নীল জল ঘেঁষে
দু’পাশে দু’হাত ছড়িয়ে,হাওয়ায় রেখে বুক-
পেয়েছি অবিরল সুখ,
চারিদিকে তরলের ভীড়ে শাদা ফেনার মতন,
উচ্ছ্বাসে উথলে উঠেছে মন!
দূরে দিগন্তে সবুজ তীর দেখে,
চমকে উঠেছি কখনো গাংচিলের ডাকে-
সহসা ঘোর কেটে;অলক্ষে রেখে চোখ
খুঁজেছি পরিচিত মুখ,
চেনা অবয়ব,পরিচিত দেশ,শাদা তীর রোদ্দুর
বালু ভরা বহুদূর!

কিংবা কখনও নিদ্রিত রাতে
পাটাতনে মাস্তুলের পাশে দাঁড়িয়ে দেখেছি সাথে
রঙ নেই,ঘ্রাণ নেই,প্রাণ নেই কোনো-কেবল
আধাঁরের সাথে মিশে থাকা কালো জল,
মনে হয় এইভাবে যদি কেটে যায় চিরকাল,নির্ঘুম
নিকষ আকাশের সব নক্ষত্রদের চিনে
মগ্ন তাদের নিয়ে
নিশ্চুপঃকেবলই জল কেটে ছুটে চলা শব্দ শুনে
ভেবেছি থামবার কথা,দাড়িয়েছি উঠে
আবার চলেছি ছুটে
সাগরের টানে অবিরোধে;সারাক্ষণ
আমার নাবিক মন
হতে চায় স্থির
অচেনা বন্দরের পাশে,কোলাহলের পাশে ধীর
যেতে যেতে ভেবেছি স্থলের কোন নারীর
কথা,কোনদিনই যার সাথে মেশে নাই এ হৃদয়,
এই জীবনে চেনা হয় নাই যারে,
সাগরের বুকে,আকাশের নিচে কেবলই ভাবছি তারে!
painting20ships20at20sea20art201936

১,০৪২ বার দেখা হয়েছে

১০ টি মন্তব্য : “অন্বেষণঃএকটি সামুদ্রিক কবিতা”

  1. সাব্বির (৯৮-০৪)

    তোমার কবিতা পড়ে ধারনা করেছিলাম তুমি আরো সিনিওর ব্যাচ।
    বেশ ভালো লিখেছো। চালিয়ে যাও।

    একটা ব্যাপার হয়তো না বললেও চলে তারপরও বলি কারন উচ্চাশা থাকতে দোষ কী?
    সময় আমাদেরকে পুরনো লোকজনের চেয়ে এম্নিতেই এগিয়ে রাখে। তাই আমার মনে হয় তুমি তোমার স্বকীয়তার দিকে আরেকটু লক্ষ্য রাখলে আরো ভালো করবে।

    অফটপিকঃ তোমার বয়সে আমরা কয়জন কবিতা পড়েছি সে বিষয়ে আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে(আমি পড়িনি 🙁 )। পড়া ছেড়ো না।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।