পান্থশালার সেই মেয়েটি (একটি ট্র্যাজেডি কবিতা)

রাতটা ছিলো ভীষণ রকম শীতের
পান্থশালায় কেউ ছিলো না আর
টিমটিমে এক বাল্ব ছিলো ওই কোণে
সে আলোতেও বাড়ছে অন্ধকার!

হাতে আমার একটা মদের গ্লাস
চারটে বোতল-সবগুলোই খালি
শেষ ফোঁটাটাও চেটেপুটে খেয়ে
আমি তখন বেহুশ হয়ে ঘুমে!

ঠিক তখনই সে মেয়েটি এলো
বাইরে তখন কুঁয়াশায় ভেজা চাঁদ,
আমায় ডেকে তুললো সে ঘুম থেকে
মাতাল আমিও অবাক তাকে দেখে!

পরের ভোরে ঘুমটা যখন ভাঙলো
আমি তখন নরম বিছানায়,
আশেপাশে কেউ ছিলো না আর,
সবকিছু ঠিক চলছে আগের মতোই!

সেই থেকে রোজ ভীষণ পাগল হয়ে
শহর থেকে শহর ঘুরে বেড়াই,
যদি আমি হঠাৎ দেখা পাই
পান্থশালার সেই মেয়েটিকে!

১,৩৯১ বার দেখা হয়েছে

১৬ টি মন্তব্য : “পান্থশালার সেই মেয়েটি (একটি ট্র্যাজেডি কবিতা)”

  1. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    পোলাপাইন অল্প বয়সে পাইক্কা গেছে। :grr:

    শাহরিয়ার

    আমি তখন বেহুশ হয়ে ঘুমে!
    আমায় দেকে তুললো সে ঘুম থেকে
    আমি তখন নরোম বিছানায়

    বানান গুলি ঠিক করে দাও। কবিদের বানান ভুল করা ঠিক না। 😀


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  2. কামরুলতপু (৯৬-০২)
    সেই থেকে রোজ ভীষণ পাগল হয়ে
    শহর থেকে শহর ঘুরে বেড়াই,
    যদি আমি হঠাৎ দেখা পাই
    পান্থশালার সেই মেয়েটিকে!

    পাইবা না পাইবা না যে হারায় তারে খুঁইজা লাভ নাই। নতুন কাউরে খুঁজো।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।