পাঙ্কচোয়াল!

[বড় ভাই-রা, প্লিজ অন্যভাবে নিয়েন না… জাস্ট স্মৃতিচারণ, মনে কোন বিতৃষ্ণা নাই O:-) ]

আগে একটু হিন্টস দিয়া লইঃ

আমরা তখন নতুন নতুন ক্লাস টেনে উঠসি। আমাদের গ্রান্ডপা’দের (অল্টারনেট সিনিয়র) জেপি-শিপ দেওয়া হইসে প্রথম প্রথম। আমরা মোটামুটি হ্যাপি কারণ যিনি প্রথম জেপি হইসেন (নাম কইলাম না) তারে আমাদের খুব ভাল লাগত, বেশি ঘাটাইত না জুনিয়র নিয়া। ভাবলাম, যাক – এবার একটু শান্তিতে থাকা যাবে। কারণ বিগত বছরগুলাতে দেখসি জেপি’রা সবচেয়ে টেরর টাইপ হয়। তো উনার জেপিশিপের ব্যাপারে আমরা একটু নিশ্চিন্ত ফিল করতে লাগলাম যে এ যাত্রা বেঁচে যাব।

কিন্তু কপাল খারাপ। উনিই যখন হাউজ প্রিফেক্ট হয়ে আসলেন তখন এমন টেরর হইলেন যে উনার জ্বালায় আমরা খায়বার হাউজের ক্লাস টেন অতিষ্ঠ। হুদা কামে বদার করানোয় উনার ওস্তাদি উনি অল টাইম দেখাইতেন; রগরা খায়া ঘাম-কাদা-ময়লা লাইগা জামাকাপড়ের সেইরাম দশা হইত। প্রতিদিন ওয়াশিং ব্রাশ দিয়া ঘ্যাচ ঘ্যাচ করে ঘষাঘষির ঝামেলা আর সময়ে-অসময়ে গোসল করার ঝাক্কিতে যাওয়া লাগতো। ঐসব করতে গিয়া সব জায়গায় লেট; আর লেট মানে আরেক রাউন্ড, এবার অন্য প্রিফেক্ট-এর কাছে। মানে… এক্কেরে ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা আমাদের! ~x(

হাউজ প্রিফেক্ট ভাই-এর সবচেয়ে ভয়ানক পানিশমেন্ট ছিল আফটার লাঞ্চ রেস্ট টাইমে এসে খুতবা দেওয়া। ঐ টাইমে মানুষ একটু ঘুমাইতে চায়। আমরা চিন্তা করতাম আর অবাক হইতাম, এই লোকের কি ক্লান্তি বলে কিছুই নাই?? কে একজন কি করসে, আর হইসে… পুরা ক্লাসরে ফলিন দেওয়ায় শুরু হইত উনার খুতবা। আর ফলিনগুলার সব ছিল ইনডোর; হয় ডর্ম, নাইলে উনার রুমের সামনে, নাইলে কমনরুম, নাইলে টি.টি. রুম … কি যে বিরক্তিকর ছিল! আর এ কারণে যে ভাইটা আমাদের কত আজাইরা অভিশাপ খাইসে সেটা আর না বলি।

যাই হোক হিন্ট তো বিরাট হয়া গেল, এইবার আসল ঘটনাতে আসিঃ

একদিন এরকম শুনলাম যে, আফটার লাঞ্চ ডর্ম ওয়ানে ফলিন দিছেন উনি। আমরা তো তার এহেন দৈনন্দিন আচরনে ব্যাপক ক্ষেইপা আছি। কেম্নে উনার কাছ থেকে এই বেলা নিস্তার পাওয়া যায় সেইটাই ভাবতে লাগলাম আমরা সবাই। আমাদের মধ্যে থেকে কে জানি (পোংটা গ্রুপের কেউ একটা হবে) হঠাৎ বুদ্ধি দিল – ঘড়িতে এলার্ম দিয়া রাখতে হবে। যেই ভাবা সেই কাজ। আমরা সবাই ডর্মের ১০টা প্লেসে ঘড়ি সেট করলাম এলার্ম সহকারে; পাশের রুমে যে চার জন ছিলাম তারাও নিজ নিজ এলার্ম ঘড়ি নিয়া আইসা সেট করলাম।

প্রিফেক্ট ভাই যথা সময়ে হাজির হলেন। আমরা সবাই লুকডাউন হয়া দাড়ায় আছি। কি ইস্যুতে মিট দিসিলেন আমার মনে নাই। তবে এসে বেশ ঝাড়ি শুরু করলেন। তারপর সেই খুতবা-ও তো মার্কামারা… একটা কথা ঘুরায় ঘুরায় এতবার বলেন যে কি আর বলব! বিরক্তির একেবারে লাস্ট মাথা। আমরা জাস্ট ধৈর্য ধইরা ওয়েইট করতেসি। এমন সময় ডর্ম লিডারের প্লেস থেকে শুরু হলঃ “টু টু টু টুট… … টু টু টু টুট” — উনি বললেনঃ “যাও বন্ধ করে আস”। একজন সেটা বন্ধ করতে যাইতে না যাইতে আরেকটা আরম্ভ হইল! এরকম করে পুরা ১৪টা ঘড়ি নির্দিষ্ট গ্যাপে গ্যাপে টু টু করল বিভিন্ন র‌্যান্ডম প্লেসে, ওগুলি বন্ধ করা নিয়াও আমরা ডাউট দেওয়া শুরু করলাম “ভাই বন্ধ হয়না, সুইচ নষ্ট হয়ে গেসে, ঘড়ি খুঁজে পাচ্ছিনা” ইত্যাদি। আর এইসব হাঙ্গামায় উনার খুতবার ‘রিদ্‌ম’ গেল কাইটা। আর উনার কেটে যাওয়া রিদ্‌মের সাথে তাল মিলায় আমাদেরও কাটা কাটা মিচকা হাসির আওয়াজ শোনা যেতে লাগল ;)) !!

উনি বুইঝা ফালাইলেন (ভাই ব্যাপক ট্যালেন্ট আছিলেন)… বললেনঃ “এটা তোমরা প্লান করে করসো, না?”… তারপর কিছুক্ষণ চুপ থাকলেন। উনার মুখের এক্সপ্রেশনে সাধারণত মুড ভাল না খারাপ তেমন কিছু বোঝা যেত না, কিন্তু ঐদিন বেশ বোঝা গেল আর কি! x-( “ওকে গো গেট নাইস বাথ এভরি ওয়ান!” সবাইকে ঐ অবস্থায় ভিজে আসতে পাঠায় দিলেন।

এরপরের ঘটনা আশা করি সবাই বুঝতে পারছেন – আমাদের আর ঐদিন আফটারনুন প্রেপের জন্য এলার্ম দিয়ে ওঠা লাগেনি, এমনিতেই পুরা রেস্ট টাইম জাগনা ছিলাম, রাস্তার উপ্রে তাতানো রোদে শুয়ে এবং গড়িয়ে!! :frontroll:

৮৭৯ বার দেখা হয়েছে

১২ টি মন্তব্য : “পাঙ্কচোয়াল!”

  1. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)

    :khekz: :khekz: :khekz: :khekz:
    "খুতবা" ভয়ঙ্কর পানিশমেন্ট। বিএমএ'তে বেলা আড়াইটার সময় লাঞ্চের আগে এক স্টাফ আমাদের সাবধান করিয়ে টানা খুতবা দিতেন। কোন ঘাম ঝরানো পাঙ্গা নাই, দৌড়ঝাঁপ নাই খালি বকবক। এর ভয়েই আমরা আলিফ থাকতাম 😀 😛 ।


    Life is Mad.

    জবাব দিন
  2. দারুণ দারুণ দারুণ। পুরা ঝাক্কাস। আমাদের এক ভাইয়া ছিলেন, উনি কখনো পানিশমেন্ট দিতেন না, শুধু প্রত্যেকটা আফটার (লাঞ্চ, গেমস, ডিনার, পিটি, থার্ড প্রেপ) গেমস ড্রেসে দেখা করতে বলে বলতেন, এখন না, দশ মিনিট পরে আস। ব্যস, ইনফিনিটি লুপ। উনিও আবার আমাদের অলটারনেট সিনিয়র।

    অফটপিক: আদনান ভাই, শেভ করেন নাই ভাল কথা, মাগার সেই ছবি আবার লাগায়া রাখছেন ডিসপ্লেতে? এডু আসার আগেই শেভ কইরা ফালান। (কানে কানে) কাহিনী কি মামু?

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।