কই যে যাই

হুমমম, আমার পুর্ববর্তী স্পীকার মশাই দেশকে একটা বিরাট লজ্জার মধ্যে ফেলে গিয়েছিলেন। যা জাতির জন্য তো বটেই, পরবর্তী প্রজন্মের জন্যও গ্লানিকর ছিল। বিদেশে দেশের ভাবমুর্তি বিরাটভাবে ক্ষুন হয়েছে। তাই দেশ এবং জাতি জন্য আমাকে এই কষ্টটুকু করতে হয়েছে। এতে বিদেশে দেশের ভামমুর্তি পুনরুদ্ধার করা ছাড়াও দেশ এক ভয়ানক লজ্জার হাত থেকে বেচে গেছে।——– প্রধান স্পীকার।

দেশের সামনে এখন অনেক চ্যালেঞ্জ। মুল্যস্ফীতি ছাড়াও সারা বিশ্বে মন্দা আমাদের রেমিট্যান্সে বিরাট প্রভাব ফেলতে পারে। এর সুদুর প্রসারী প্রভাব হিসেবে আমাদের রিজার্ভে টান পড়তে পারে যা আমদনীতে প্রভাব ফেলতে পারে। খাদ্যশস্যর দাম বেড়ে যেতে পারে। এছাড়া স্থানে স্থানে সন্ত্রাসীরা মাথাচারা দিয়ে উঠেছে। এসব সমস্যার সমাধানের জন্য আমাদের সংসদের সামনের সিটে বসা দরকার। তা না হলে দেশ বিরাট হুমকি এবং ক্ষতির সামনে পড়বে—— সরকারী দল।

সরকারী দল ভারতের তাবেদারী শুরু করেছে। বাকশালীয় ব্যবস্থায় চলে যাচ্ছে দেশ। ট্রানজিট দেয়া তো দেশ বিক্রি করে দেয়া। আমাদের নেত্রীর জীবন এখন হুমকির সম্মুখীন। তেলের ইজারা নিয়ে তুঘলকি কান্ড হচ্ছে। আর এই সব নীলনকশা প্রতিরোধের জন্য আমাদের সংসদের সামনের সিটে বসা দরকার। তা না হলে দেশ বিরাট হুমকি এবং ক্ষতির সামনে পড়বে……… বিরোধী দল।

শালার পাবলিক আমি, কই যে যাই। 😕

১,৮৫৩ বার দেখা হয়েছে

২৫ টি মন্তব্য : “কই যে যাই”

  1. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    আসলেই এদের কান্ড-কারখানা দেখলে হাসিও আসেনা, কান্নাও পায়না-শুধু বালখিল্যের জন্য মায়া লাগে...

    নিজের জন্য, এবং দিনবদলের স্বপ্ন দেখা আরো সব আহাম্মক জনগণের জন্যও মায়া লাগে...


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  2. এরা সব সামনের সিটে বসতে চায় কেন? এদের কাছে কি ক্লাসের সময়ে পড়ার মত কোন মাসুদ রানা বা সেবা রোমান্টিক নাই?

    পিছনের সিটে বসার মঝাটা দেশ ও ঝাতির ঝনঘন বুজল না।

    জবাব দিন
  3. রহমান (৯২-৯৮)
    শালার পাবলিক আমি, কই যে যাই।

    বস্‌, ধরেন বড় দুই পার্টি হইল মুখোমুখি দুই টেনিস খেলোয়াড় আর পাবলিক হইল বল। সুতরাং আর যাইবেন কই? ওই কোর্ট থাইক্যা এই কোর্টে, আবার এই কোর্ট থাইক্যা ওই কোর্টে... :grr: :grr:

    সিরিয়াস বিষয় নিয়া ফান করার জন্য সরি 🙁 , এইটা হইল "কষ্টের হাসি" টাইপ "অভিমানের ফান"

    জবাব দিন
  4. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    নানা জটিলতায় নিজের পোষ্টের খবর নিজেই রাখতে পারি নাই। এইজন্য করজোরে ক্ষমা চাই। মনে হয় পিছনের বেঞ্চে বইয়া ঘুমাই গেছিলাম। ঘুম থেকে উঠে দেখি মেঘে মেঘে অনেক বেলা হই গেছে গা।

    যারা কষ্ট করে এই পোষ্ট পড়েছেন এবং মন্তব্য করেছেন তাদের সবাইকে আমার বিপ্লবী সালাম। আমার একটি প্রস্তাব আছে। যেহেতু চেয়ার টেবিল নিয়ে এত প্রবলেম, সংসদ থেকে চেয়ার টেবিল উঠিয়ে দেয়া হোক। সমান মেঝেতে মাদুর বিছিয়ে বসুক সবাই।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  5. ওবায়দুল্লাহ (১৯৮৮-১৯৯৪)

    জনগণ কোথাও যাবে না বস -
    তেনারাই জনগণের জন্য যা করার করবেন।

    সুলভ মূল্যে প্রাপ্য এই হুজুগে শ্রেণীর আজীবন ভূক্তভোগী জনগণকে পাওয়া যাবে -
    আবেগময় বক্তৃতার স্ক্রীপ্টে
    দূর্বার জ্বালাময়ী ভাষণে
    ভোগ দখলের অবিচ্ছেদ্য চক্রে
    মাঠকর্মীর চায়ের কাপে
    সংবাদের শিরোনামে
    কাগজের প্রথম পাতায়
    অগণিত দীর্ঘশ্বাস আর হাহাকারে...


    সৈয়দ সাফী

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।