পর্যায়-১০১

এষা,আমি কষ্টে আছি।লেবুর ঘ্রাণে বিষ মনে হয়,ফুলের গায়ে ছদ্মবেশে লাল পিঁপড়ে ঘুরে বেড়ায়।আমায় দেখে হঠাৎ এরা রক্তচক্ষু তেড়ে আসে।এখন আমার ত্রিনয়নই বেঁধে রাখা থান কাপড়ে।সারা আকাশ মাতাল হয়ে আমায় শোনায় অট্টহাসি।টিনে গড়া সৈনিকেরা আমায় কাটে লাখ টুকরায়।জোৎস্না রাতে বাঁশির সুরে আমার গায়ে বর্শা ফোটে।শেষ প্রহরে কুকুরগুলো আমায় দেখে হল্লা করে।আমার কাছে একমাত্র আপন নারী তুমিও এষা মৌন থাকো?কোন অভিমান তোমায় এমন নীরব রাখে?আমার এত দহন তোমায় পোড়ায় না আর?এষ,হঠাৎ চুপ কেন আজ?

এষা,আমি চুপ করে আজ কেবল বুকের লোম ছিঁড়েছি ভীষণ ক্ষোভে।সন্ধ্যাবেলায় ছুটে গেলাম খেলার মাঠে,সত্যি সত্যি ঝাপ দিয়েছি আগুন দেখে।লোকে আমায় বাহবা দিলো,কেউ বলেছে শক্ত ম্যাজিক।অথচ কেবল আমিই জানি এই রঙিনের ভেতরটা কী!সুখী লোকের মুখোশ পরা আমার আগুন কেউ বোঝে না,কেউ জানে না।কেউ দেখে না আমার ব্যথা।গভীর রাতে তাই তো আমার ঘুম ভেঙে যায় স্বপ্ন দেখে।তৃষ্ণা জাগে,বিন্দু বিন্দু ঘাম জমে যায় আমার বুকে।একলা আমি বসে থাকি মেঝের উপর।তোমার কথা খুব মনে হয়,খুব মনে হয়!

৫৩৩ বার দেখা হয়েছে

১০ টি মন্তব্য : “পর্যায়-১০১”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।