অন্ধকারে বসে

জানো এষা আজ
আমার এখানে বড় বেশী অন্ধকার
আদিম কিছু মানুষ বুকে জিঘাংসা নিয়ে
রক্তচক্ষ বেড়ায় ঘুরে হিংস্রমতন!

জানো এষা এই
আমরা যেন ফিরে যেতেছি আদিম যুগের ষাট প্রহরায়
কেন যেন এই পিছে ফিরে চলা অন্ধ আমরা
চক্রমশ চলেছি অতীতের কোন বরফের দেশে!

জানো এষা জানো
আমাওরা সকলে আবার যেন ফিরে পেতেছি দীর্ঘপশম
মুখের দু’পাশে শ্বাপদের মতো শ্বদন্তটা তীক্ষ্ণ হতেছে
তীক্ষ্ণ হতেছে-চাঁদের মতন ঝলসানো সাদা!

জানো এষা আর
আমার ভেতর যে মানুষ ছিল মানবিক মন
তাকে কারা যেন পাঁজর ভেঙে,দু’উরু ভেঙে
ঝুলিয়ে দিয়েছে ফাঁসির সাথে সভ্যতা হতে!

জানো এষা তাই
প্রতিরাতে পাই নষ্ট পশুর পঁচা দুর্ঘ্রাণ
জানালার ধারে আকাশ বিদারী ক্রুদ্ধ চিৎকার
চারদিক থেকে মৃত আমাকে ছিঁড়ে নিতে চায়!

৫৬১ বার দেখা হয়েছে

৫ টি মন্তব্য : “অন্ধকারে বসে”

  1. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    কবিতা পড়ি সময় নিয়ে তাই সাথে সাথে পড়া হয় না।
    পরে পড়ব সব কবিতা একসাথে। তোমাকে ঠেলা দিয়ে গেলাম। নিয়মিত লেখ। কবিতাতে রেসপন্স একটু কম তাই বলে থেমে যেও না।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।