তোর ঘ্রাণ পাই

তোর ঘ্রাণ পাই——–মাঠে এলে রোজ
তুই এসেছিলি——–আমি তারই খোঁজ
পেয়ে এসে দেখি——কেউ আর নেই
তবু জানি ঠিক——–চলে যাবো যেই
তুই আবারো———-ফিরে আসবি
অস্থির আমি———-দেখে হাসবি
আমি দেখবোনা——-তুই আড়ালে
মুচকি হাসিস ——–হাত বাড়ালে
ধূপছায়া মেঘ———-জল দেয় ঢেলে
অঞ্জলি ভরে———-“এই বোকা ছেলে,
কার খোঁজে তুই——-এমনি আসিস
এই খোলা মাঠে?”—–এই বলে শিষ
দিতে দিতে চলে —–যায় উত্তরে
ধূপছায়া মেঘ———-পাহাড়ের ঘরে!

ভেবে সত্যি———–আমি নির্বাক
কার খোঁজে আসি?—-যাক চলে যাক।
ওই পাষাণীকে——–খুঁজবো না আর
প্রেম নেই বুকে——–মন নেই যার!

এতটুকু ভেবে———আমি থামতেই
কাঁচভাঙ্গা সুরে——–হেসে উঠে সেই
কত চিরচেনা———তবু চেনা নয়
ঘ্রাণময় স্মৃতি———-চির বিষ্ময়!

তারপর এসে———পথ আগলে
দাঁড়ায় বালিকা——-আমি রাগলে
মান ভাঙানোর——–কত চেষ্টা!
হেসে উঠে দেখে——সারা দেশটা।
কী করে তখনো——-আমি চুপ থাকি
তাই ইশারাতে——–কাছে তারে ডাকি।

১,৩১২ বার দেখা হয়েছে

১৮ টি মন্তব্য : “তোর ঘ্রাণ পাই”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)
    পেয়ে এসে দেখি——কেউ আর নেই
    তবু জানি ঠিক——–চলে যাবো যেই
    তুই আবারো———-ফিরে আসবি
    অস্থির আমি———-দেখে হাসবি

    দারুন , দারুন।।
    শাহরিয়ার, তুমি হইলা সেই যারে গিয়া বলে মাল :hatsoff: :hatsoff:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)
    তারপর এসে———পথ আগলে
    দাঁড়ায় বালিকা——-আমি রাগলে
    মান ভাঙানোর——–কত চেষ্টা!
    হেসে উঠে দেখে——সারা দেশটা।
    কী করে তখনো——-আমি চুপ থাকি
    তাই ইশারাতে——–কাছে তারে ডাকি।

    অসাধারন ...... :boss: :boss: :boss:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।