বেতন বাড়ানোর সহজ উপায়!!

আপনি কি একজন চাকুরীজীবি? চাকুরীর সামান্য বেতন দিয়ে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন?? জীবনের ছোট-খাটো সাধ-আহ্লাদ পূরণ করতে না পেরে সেই চিরন্তণ ‘অনেকের চেয়ে তো ভাল আছি’ টাইপ মধ্যবিত্ত স্বান্তনামূলক প্রবোধ দিয়ে নিজেকে সামাল দেবার ব্যর্থ চেষ্টা করে যাচ্ছেন??

প্রশ্নগুলোর উত্তর যদি হ্যাঁ হয়, তাহলে আপনার জন্যই এই ব্লগটি লেখা হয়েছে। এই ব্লগটি পড়লে আপনি জানতে পারবেন কিভাবে বর্তমান বেতনকে বহুগুণে (কমপক্ষে ৮৩%!!) বৃদ্ধি করা যায়।

কোন কারন ছাড়াই আলোচনাটি একটি চিরন্তণ বানী দিয়ে শুরু করি। প্রখ্যাত চিকিৎসাবিদ উইলিয়াম কোয়াক (Quack ;;; ) বলেছেন, ‘দুই ধরণের মানুষ সমাজের জন্য খুবই বিপজ্জনক-যাদের পেট খালি অর্থাৎ ক্ষুধার্ত এবং যাদের মাথা খালি অর্থাৎ নির্বোধ।’ কোয়াক সাহেবের দূর্ভাগ্য বা সৌভাগ্য যে তিনি বাংলাদেশের রাজনীতিবিদদের সাথে পরিচিত নন, তাহলে তিনি এমন কিছু মানুষের দেখা পেতেন-যাদের পেট ও মাথা দুটোই খালি!!

এবার মূল আলোচনা শুরু করা যাক।
বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ অধিবেশনের সুনাম (!) আজকের নয়, বহু পুরনো ঘটনা। তবে, গত ৩ মার্চ যেন সব কিছু ছাড়িয়ে এটি একটি নতুন উচ্চতায় পৌঁছায়। যারা এখনো বিস্তারিত জানেন না, তারা ৪ মার্চ সমকালের এই রিপোর্টটি পড়তে পারেন।

সেইদিনের ঘটনার সুফল আমরা দেখতে পেলাম আজকের সংসদীয় কমিটির সিদ্ধান্তের মাধ্যমে। আজ প্রথম আলোর এই খবরটি দেখুন।

যারা এখনো বেতন বাড়ানোর সহজ উপায়টি বুঝতে পারেন নি, বা বুঝেও না বোঝার ভান করছেন তাদের জন্য সংক্ষেপে বলি-

১। আপনার চাকুরী জীবন মোটামুটি কয়েক বছর হবার জন্য অপেক্ষা করুন। কেননা একেবারে নভিস হলে আপনার ক্ষেত্রে হিতে বিপরীত হতে পারে।
২। আপনি এখন মোটামুটি সিনিয়র অর্থাৎ কিছু মানুষের আশা-আকাংক্ষা, চাওয়া-পাওয়া, সংসার-জীবন আপনার কাজ-কর্ম বা সিদ্ধান্তের উপর নির্ভরশীল।
৩। প্রথমেই আপনার উপর নির্ভরশীল মানুষদের কথা বেমালুম ভুলে যান, এবং শুধুই নিজের স্বার্থ সিদ্ধির জন্য মনোযোগ দিন।
৪। কর্মক্ষেত্রে কয়েকজন মিলে গ্রুপ তৈরি করে ফেলুন। দেখবেন অতি স্বত্বর আপনাদের দেখাদেখি আরো কিছু গ্রুপ তৈরি হয়ে যাবে।
৫। এবার গ্রুপে গ্রুপে গ্যাঞ্জাম শুরু করুন। গালাগালি, মারামারি যে যাতে পারদর্শী প্রতিভা দেখান। মনে রাখবেন আপনার প্রতিষ্ঠানের যত বড় ক্ষতিই হোক না কেন ভুলেও কোন প্রকার গঠনমূলক কাজ করবেন না। আপনার কাজ করাকে লোকে দুর্বলতা ভাবতে পারে!!

ইতিহাস সাক্ষী, আপনার বেতন বেড়ে যাবে। যদি বেতন না বাড়ে তাহলে বুঝবেন আপনার কোথাও কোন ভুল হয়েছে, সেক্ষেত্রে ৪ নং ধাপ থেকে আবার শুরু করুন।
_____________________________________________
সরকারের এই বেতন বাড়ানো নিয়ে যারা মাতামাতি করছেন, তাদেরকে জানাই আপনারা ভুল করছেন। আপনারা হয়ত জানেন না, আমাদের বেশিরভাগ রাজনীতিবিদের পেশা রাজনীতি। অর্থাৎ এই রাজনীতি করেই তাদের দু’বেলা অন্য যোগাতে হয়। ছেলেমেয়েদের ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে ভর্তি করাতে হয়। উচ্চ শিক্ষার জন্য তাদেরকে বিদেশে পাঠানোর যে খরচ, কিংবা ধরুন বিভিন্ন উৎসব উপলক্ষে পরিবারের শপিং করতে দেশের বাইরে যাওয়া- এসবই করতে হয় রাজনীতি করে। এই গরীব রাজনীতিবিদরা এতই গরীব যে, তাদের যে চার-পাঁচজন ড্রাইভার, দুই-তিন জন দারোয়ান, আট-নয় জন কাজের লোক, একাধিক ফ্লাট/এপার্টমেন্ট কিংবা শত শত বিঘা জমি দেখাশোনা করার যেসব কেয়ারটেকার আছে…তারাও খুব গরীব!!!

এবার বলুন, আপনার মূল্যবান ভোটাধিকার প্রয়োগের মাধ্যমে যাদেরকে প্রতিনিধি করে সংসদে পাঠাচ্ছেন-তাদের পেট খালি থাকুক, এটা কি আপনি চান???
নিশচয়ই না।

তবে একটা জিনিস ভেবে আমি খুব চিন্তিত। সরকার এদের পেট না হয় ভরানোর ব্যবস্থা করল, কিন্তু এদের মাথা ভরাবে কি দিয়ে????

এর উত্তরের জন্য ভবিষ্যতের পানে চেয়ে থাকা ছাড়া, আর কোন উপায় দেখছি না।

৩৩ টি মন্তব্য : “বেতন বাড়ানোর সহজ উপায়!!”

  1. আন্দালিব (৯৬-০২)

    এদের পেট ভরানো সম্ভবটা কারণ সাধারণ জনগণের মতোন এদের পরিপাক নালী এতো প্যাঁচালো না। যা ইনপুট হয়, সরাসরি সেটা আউটপুটে চলে যায়। মাঝে কোন সিস্টেম লসও নাই। তাই যা খাওয়াবেন, সেটা হারিয়ে যায় আর তারা সবসময়েই ক্ষুধার্ত থাকে! অনেকটা তলাবিহীন ঝুড়ির মতো অবস্থা!

    বেতন বাড়ানোর উপায় খুঁজতে পোস্টে ঢুকলাম। দেখি আপনি এমন পথ বলেছেন, তাতে পেট মাথা দুই খালি হয়ে যাবে! 😕

    জবাব দিন
  2. রাজীউর রহমান (১৯৯৯ - ২০০৫)

    দেশের রাজনীতিবিদ বলে কথা।

    উনারা খুবই আদর্শবান, প্রচন্ড সৎ, কঠোর পরিশ্রমী, জনগনের কথা ভেবে উনারা দিনরাত গুজার করেন, টেনশনে টেনশনে উনারা অপুষ্টির শিকার, উনারা অত্যন্ত কার্যকর সংসদ প্রতিষ্ঠা করেছেন, উনারা কষ্মিনকালেও দুর্ণীতি, স্বজনপ্রীতি করেন নি; টেন্ডারবাজি, কমিশন খাওয়া তো দুরের কথা।

    উনাদের বেশিরভাগের পেশাই শুধু রাজনীতি। সাবই গরিবী হালে বসবাস করেন । বলেন এত পরিশ্রম করে কি অল্প বেতনে চলে ?

    বেতন-ভাতা বাড়ানোর এই প্রস্তাব আমি শতভাগ সমর্থন করছি। দেশের মানুষের উপার্জন বাড়লো কিনা সেটা কোন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় না। উনারা দেশের মাথা, সম্মানিত মানুষ, রইস আদমি। উনাদের উপযুক্ত সম্মানী দিতে যদি বেতন আরো বৃদ্ধি করতে হয়, তাতেও আমার পূর্ণ সমর্থন থাকবে।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।