অগ্নিদগ্ধ…!!!

লোকটার চাহনির মধ্যেই ভয়ানক কিছু ছিল। আমার দিকে তাকাতেই ঠাণ্ডা একটা শীতল স্রোত বয়ে গেল শরীরজুড়ে। ঢুলুঢুলু চোখ রক্তলাল হয়ে আছে…মুখে কালো কালো বসন্তের দাগগুলো কুৎসিত চেহারাটাকে আরো কুৎসিত করে তুলেছে…
ছোট্ট একটা ঘরের মধ্যে আছি আমরা দুই জন। পাশের ঘরে লোকজনের কথা-বার্তার শব্দ শোনা গেলেও খুব একটা ভরসা পেলাম না। এই লোকের হাত থেকে আমাকে কে বাঁচাবে???
পকেট থেকে দিয়াশলাই বের করতেই বুঝে গেলাম ওর অভিসন্ধি, ব্যাটা আমাকে পুড়িয়ে মারতে চায়…চিৎকার করে আর্তনাদ করতে চাইলাম, কিন্তু কোন শব্দ বের হল না…কিভাবে বের হবে-আমি তো কথাই বলতে পারি না…অনেক সময় নিয়ে কাঠি বের করে আগুন ধরাল সে…এই পর্যায়ে আমার জ্ঞান-বুদ্ধি লোপের উপক্রম হল…স্থান-কাল-পাত্র সব কিছু এলোমেলো হয়ে গেল…অপেক্ষা করতে থাকলাম কখন শুরু হবে যন্ত্রণা…

হঠাৎ করে শরীরে তীব্র ব্যাথা অনুভব করলাম…বুঝে গেলাম, আমার শেষের শুরু হয়ে গেছে…তীব্র কটু গন্ধে সারা ঘর ভরে গেল…আশা করতে থাকলাম গন্ধ পেয়ে কেউ এসে হয়ত আমাকে বাঁচাবে…কিন্তু কেউ এল না। লোকটা নির্মমভাবে আমাকে ধীরে ধীরে পোড়াতে থাকল…যন্ত্রণা সইতে না পেরে এক সময় নিজেই নিজের মৃত্যু কামনা করতে থাকলাম…কিন্তু অন্য সবকিছুর মতন মৃত্যুও যেন আমার সাথে পরিহাস করে এই যন্ত্রণাকে দীর্ঘায়িত করতে থাকল…

এমন সময়ে কোথা থেকে কে জানে দরজায় ছোট্ট একটি শিশুকে দেখতে পেলাম…প্রথমে আমার দিকে এবং পরে লোকটার দিকে তাকিয়ে তার চোখ বড় বড় হয়ে গেল…অতটুকু শরীরের সর্বস্ব শক্তি দিয়ে ‘মা’ বলে চিৎকার করে উঠল…এই পর্যায়ে লোকটি তড়িঘড়ি করে বারান্দায় নিয়ে গিয়ে আমাকে নিচে ফেলে দিল…

নিচে পড়ার আগে শুনতে পেলাম শিশুটির কথা, ‘মা, বাবা আবার সিগারেট খাচ্ছে…!!’

৩,৯১১ বার দেখা হয়েছে

৪৬ টি মন্তব্য : “অগ্নিদগ্ধ…!!!”

  1. রহমান (৯২-৯৮)
    পকেট থেকে দিয়াশলাই বের করতেই বুঝে গেলাম ওর অভিসন্ধি, ব্যাটা আমাকে পুড়িয়ে মারতে চায়…চিৎকার করে আর্তনাদ করতে চাইলাম, কিন্তু কোন শব্দ বের হল না…কিভাবে বের হবে-আমি তো কথাই বলতে পারি না…

    এই পর্যন্ত পইড়া ভাবছিলাম এইটা বুঝি "একটি বৃক্ষের আত্নকাহিনী" :-B । তুমি আবার বৃক্ষ খুব ভালবাস কিনা তাই 😀 😛 ।

    কিন্তু শেষ লাইনে গিয়া দেখি এইডা সিগারেট। আমি এত বোকা ক্যান :bash: :bash: :bash:

    জবাব দিন
  2. তাইফুর (৯২-৯৮)
    তীব্র কটু গন্ধে সারা ঘর ভরে গেল

    কটু গন্ধটা কিসের ?? ভুলে তোর মাথায় আগুন না দিয়া উলটা কইরা ধইরা পা.... আগুন দিছিল নাকি ??

    লেখাটা জম্পেশ হইছে। এখন থেকে আমি আরও বেশি কইরা সিগারেট খামু। তরে কষ্ট দিমু ... মু.হা.হা


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  3. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    :khekz: :khekz: :khekz:

    তুমি পুরা বস পাবলিক। লাষ্ট লাইন পড়ার আগ পর্যন্ত বুঝি নাই শেষটা এমন হবে। ভাবছিলাম সাইকো লিখছ একটা, রোমহর্ষক কোন ঘটনা।

    জুনা, ট্যাগে "খবর" দিছ ক্যান? কেসটা কি?


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।