মোবাইল বিড়ম্বনা- আমার কাহিনী…!!

[সায়েদ ভাইএর মোবাইল ফোন নিয়ে পোস্টটা পড়ে আমার নিজের মোবাইল বিড়ম্বনার কথা মনে পড়ে গেল…সবার সাথে শেয়ার করার লোভ ছাড়তে পারলাম না…]

মোবাইল ফোনের বিড়ম্বনার সাথে আমরা কমবেশি সবাই পরিচিত। সপ্তাহে দু’এক দিন ‘সরি রঙ নম্বর’ কিংবা ‘আপনি ভুল নম্বরে ডায়াল করেছেন’…এসব কথা বলতে হয় না-এমন লোক এখন খুব কমই আছে…কলরেট কমে যাওয়ার কারনে মানুষ এখন আর আগের মতন সাবধানী নেই, তাছাড়া কিছু দোকানদার আছে তারা নাকি ইচ্ছা করেই ভুল নম্বরে ডায়াল করে দিয়ে কাস্টমারের কাছ থেকে টাকা আদায় করে…কারন যাই হোক, এটা যে অনেক বিরক্তিকর তাতে কোন সন্দেহ নেই…

আমার কাহিনী অনেকটা এমনই, তবে সবার থেকে একটু আলাদা…আমাকে এক লোক গত দুই/আড়াই বছর ধরে নিয়মিত ভুল করে কল করে আসছে…একই ভুল যারা বারবার করে তাদেরকে নাকি বোকা বলা হয়, কিন্তু এই ‘বারবার’ ঠিক কত বার??? ৩০/৪০ বারের চেয়েও বেশি??? সেক্ষেত্রে তাকে কি বলা যাবে????

ঘটনার সূত্রপাত হয়েছিল কোন এক সুন্দর বিকেলে!!! লোকটি আমাকে ফোন করে বলল যে সে সিলেট থেকে ট্রাকে করে পাথর নিয়ে রওনা দিয়েছে- আমি যেন টেনশন না করি!!! আমি আবার কেউ ভুল করে করলে কখনোই তার সাথে খারাপ ব্যবহার করি না…আমি সুন্দর করে তাকে জানালাম যে সে ভুল নম্বরে ডায়াল করেছে- নম্বরটা সঠিক জেনে নিয়ে যেন আবার করে…সেই শুরু, এরপর কত শীত-গ্রীষ্ম গেল…দেশে-বিদেশে কত পরিবর্তন হল…আমার নিজেরই কত কিছু বদলে গেল…শুধু বদলায় না আমার কাছে করা ঐ লোকের রঙ নম্বরের কলগুলো…কখনো সিলেট
থেকে, কখনো চট্টগ্রাম থেকে, কখনো কুমিল্লা থেকে…পাথর আনার তার কোন শেষ নেই। প্রথম কয়েকবারের পর আমার জবাব হয় তখনকার মানসিক অবস্থার উপর…মন ভাল থাকলে সুন্দর করে বলি- ‘রঙ নম্বর’, তা না হলে দেই ঝাড়ি!!! আর যখন মজা করার মুডে থাকি, তখন কথা-বার্তা চালিয়ে যাই…অনেক নির্দেশনাও দিই…!!!

কয়েকমাস আগে আমাকে ফোন করে লোকটা জানাল যে সে ঢাকা পোঁছে গেছে…কিন্তু সমস্যা হচ্ছে-রাত হয়ে যাবার কারনে ম্যানেজার নাকি ট্রাক নিয়ে গোডাউনের মধ্যে ঢুকতে দিচ্ছে না…আমি বললাম, ‘ কি! এত বড় সাহস ওর!!! ওকে গিয়ে বল আমি বলেছি ট্রাক নিয়ে যেতে বলেছি…এরপরেও না মানলে আমাকে আবার ফোন করবে, ওর চাকরি আমি…’ বলাবাহুল্য, আমার কাছে ঐ দিন আর কোন ফোন আসে নি!!!

এরপরের ঘটনাটা যেটা ঘটেছে কিছুদিন আগে…ঘুমিয়ে আছি, এমন সময় ফোন…
-‘ভাই, পাথর নিয়ে তো চলে আসছি…!’
ঘড়িতে দেখলাম তখন সাড়ে পাঁচ! মেজাজটা এমন গরম হয়ে গেল…দিলাম ঝাড়ি,
– ‘কয়টা বাজে খেয়াল আছে তোমার?? আসতে এত দেরী হল কেন???’
– ‘ভাই, পথে আমাদের খুব ক্ষুধা লাগছিল…তাই থেমে একটু খাওয়া-দাওয়া করেছিলাম…’
এই না শুনে আমার রাগ পড়ে গেল, মন নরম করে নরম ঝাড়ি দিলাম,
– এ রকম করে চললে কি হবে??? দিলা তো আমার ঘুমটা নষ্ট করে…
কাচুমাচু হয়ে সে জানাল,
– আর হবে না ভাই, তা পাথর কোথায় রাখব?? সায়েদাবাদ, নাকি ফকিরারপুল???
আমি একটু চিন্তা করে জানালাম,
– উম্‌, এক কাজ কর ফকিরারপুলই যাও…!!!

মাঝে মাঝে মনে হয় সব কিছু বাদ দিয়ে পাথরের ব্যবসা শুরু করব কিনা…প্রথম থেকে ট্রাক ভর্তি পাথর অন্য কোথাও খালাস করিয়ে নিয়ে তা দিয়ে যদি ব্যবসা করতাম- তাহলে এতদিনে নির্ঘাৎ কোটিপতি হয়ে যেতাম…দেখি, আর কয়েকটা বছর… তারপরও যদি এই রঙ নম্বর যদি আমার পিছু না ছাড়ে তাহলে তাই করব…কোটিপতি হবার এই সুযোগ কাজে না লাগানোর মতন বোকামি বেশিদিন করা ঠিক হবে না…!

৫,১৯৯ বার দেখা হয়েছে

৭২ টি মন্তব্য : “মোবাইল বিড়ম্বনা- আমার কাহিনী…!!”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    হাহাহাহা, মজা লাগছেরে জুনা 😀
    তুই যেহেতু সরকারি হয়ে যাবি তাই নেক্সট টাইম পাথর আইলে ডাইরেক্ট পান্থপথে পাঠায়া দিস 😉 পাথরের লগে ট্রাকটাও উপড়ি :grr:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    =)) =)) =))
    মজা পাইলাম 😀 😀 😀


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  3. টিটো রহমান (৯৪-০০)

    :khekz: :khekz: :khekz:
    একবার সুন্দরবন পাঠাইয়া দাও।গাটের পয়সা খরচ হইলেই বোধ আইব...

    অফটপিক: অখন বুঝছি...বিসিএস এ সিরিয়াস না হওয়ার কারণ। তুমি মিয়া পাথর ব্যবসায়ী আগে কইবা না


    আপনারে আমি খুঁজিয়া বেড়াই

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।