সাম্প্রতিক, নদীপ্লট এবং তত্ত্বসুন্দর

সাম্প্রতিক

আমি বৈপরীত্য বুঝি, যেভাবে আমাদের আচরণে এই বোধ পালিত হয়।
অসহ্য রোদ ত্বকভেদ করলে আমার কেবলই মনে পড়ে বিগত শীত, ঊলভেজা স্মৃতি এবং ডিসেম্বরের বিকেল। তিন মাসব্যাপী ক্রমশ নিদ্রাহরণ, যুদ্ধযাপন শেষ হয়, চল্লিশ বছরের পুরনো অভ্যাস, এপ্রিল এলেই ভালো থাকি!
আমাদের নিয়ত যুদ্ধসমূহ নথিভুক্ত হয় না।
—–

নদীপ্লট

খুব ভোরেই শহরপত্তনঃ কতিপয় বর্গাকার প্লট
ঘেসোজমিতে বাউণ্ডুলে শিশুগাছ
সিমেন্টের বানানো-
ডি-মার্‌-কে-শন্‌।
আমাদের শহরে রাত হয় না।
ব্লুপ্রিন্টে ভুল নেই বলে
জমি খুঁজে পাওয়া গেছে
আমি খেয়ো-ইঁটপথ ঘুরে ঘুরে নদীর কিনারে এসে
বুঝে নেই ৬০০বাই ৪০০, মন খুঁতখুঁত করে।
এখানে বুঝি দরিদ্র সন্ধ্যা একবার নেমেছিল শত বছর আগে!
নগরে রাত হয় না আমাদের,
আদিগন্ত পৃথিবীতে সবাই নাগরিক স্বপ্ন বেচে খাই।
—–

তত্ত্বসুন্দর

“প্রোফাউন্ড বিউটি বলে কিছু নাই”–
একথা বলে সিরাজুল সাহেব ঈষৎ মাথা ঝাঁকান।
আমার হাতে স্ফটিকের গ্লাস আরেকটু শীতল হয়
ঘনোচুমুকে ছলকে তরলতত্ত্ব আমার মুখে,
গলায়, অন্ত্রে চলাচল সহজেই করছে।
আমি পাশে শায়িত সুন্দরীর লেজ-নাড়া দেখি
মুক্তা-দাঁতে ঝিলমিল বিপনন- আহা বিষণ্ণ প্রোডাক্ট,
কনজ্যুমার বেসিসে তার শরীর আদল বদলায়
এটাও এক গবেষণার বিষয় হতে পারে বই কি?
সুন্দরীর গম-আঙুলে তাবৎ তত্ত্বের মূল রোপন করা, তাই সেই স্মিত হাসি বড়ো মনোহর লাগে!
সিরাজুল সাহেবের জুড়ি মেলা ভার।
—–

***
৬.৪.৯

১,১৯৫ বার দেখা হয়েছে

১৮ টি মন্তব্য : “সাম্প্রতিক, নদীপ্লট এবং তত্ত্বসুন্দর”

  1. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    1st :)) :)) :)) :)) :)) :)) :)) :)) :)) :)) :)) :grr: :grr: :grr: :grr: :grr:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  2. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    1st :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  3. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    ১ম :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr: :grr:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  4. এখানে বুঝি দরিদ্র সন্ধ্যা একবার নেমেছিল শত বছর আগে!
    নগরে রাত হয় না আমাদের,
    আদিগন্ত পৃথিবীতে সবাই নাগরিক স্বপ্ন বেচে খাই।

    ইচ্ছে করে যাই চলে যাই অনেকদূর
    যেখানে দুঃখ নেই, কষ্ট নেই,
    ঝলমল করে আলো.. রোদ্দূর

    জবাব দিন
  5. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    সহজ এবং সুন্দর।
    তবে আন্দালিব, বলবার এই স্টাইল,
    বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গে খুব কমন হয়ে পড়েছে।
    নিভৃতচারী কবির দিনলিপি হিসেবে অসাধারণ হয়েছে তোমার লেখা।
    কিন্তু আমি চাইবো, একজন ভক্ত পাঠক হিসেবে, তুমি একটি
    সম্পূর্ণ নতুন কাব্যভাষায় কথা কয়ে উঠবে।
    আশা করি, আমার মন্তব্যে আহত হবেনা।
    ঢাকায় এলে অনেক তরলতত্ত্ব নিয়ে আলোচনা করতে চাই
    তোমার সংগে (দ্ব্যর্থতাবোধ সহ)...... 😉

    জবাব দিন
    • আন্দালিব (৯৬-০২)

      নূপুর ভাই, আমার পরার হিসেবটা নিয়ে এখন রীতিমত লজ্জায় পড়তে হচ্ছে। আমি আসলেই অনেক কম পড়েছি, অন্যান্য লেখকদের কবিতা। বিশেষ করে ওপারের কবিতা আমার একেবারে হাতেগোণা পাঠ! একারণেই হয়তো অজ্ঞতাবশত সেরকম একটা টোন চলে এসেছে, আপনি যেটা মার্ক করে দিয়ে আমার উপকার করলেন। এক, যে আমাকে আরো অন্যান্য লেখা পড়তে হবে। আর দুই, আমি যে ক্রমাগত চেষ্টা করে যাচ্ছি, যেভাবে বুঝে উঠতে চাচ্ছি যে আমার ভাষা কোনটা, আমি কী ভাষায় লিখবো, সেই চেষ্টার একটা স্বভাবও আপনি বাতলে দিলেন।

      আহত হই না আমি একেবারেই, আমার শরীর বেশ শক্ত পোক্ত! 🙂
      ঢাকায় আসেন, আড্ডা হবে তুমুল!

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।