শীত

    রেনেসাঁ পর্ব

(জীবনানন্দ দাশ স্মরণে)

বিম্বিসার নগরে উঠেছে ঘোলাটে ময়লা চাঁদ
অরূপাক্ষ নদীতে পড়ে বালুচর। প্রিয়তমার মিথ্যা শরীরে
ডোবে কুহক-পুরুষ, প্রেমিক হতে পারে সে যদিও,
চুপ!- দেখো কুৎসিত কালো জলে ভাসে প্রণয়ের লাশ।

যাবতীয় ব্যর্থতাবাদী-বিধাতা-পূজারী সকল
ঘেটেঘেটে কাদাপাঁক রণে ভঙ্গ দেয় সেই রাতে
বিক্ষোভ মিছিল চলে অবিরাম গতিতে
দেবতাবিহীন রাজার স্বৈরাচারী সাম্রাজ্যে।

***

    জন্মশোক পর্ব

অরূপাক্ষ ছেড়ে শহরকামী আমি
বহুদিন;
হলুদ ধূলোর মতো কুয়াশা আমার জন্যে
অনেকটা পথ পদছাপ খুঁজে এসেছিলো,
জড়ানো বিষাদ ফেলে।

ফর্সা আলো ছিঁড়ে এসে আমি
মিহি আঁধার খুঁজে পেতে থাকি।

নিচে কালো-পাথর রাজপথ রেখে
চতুর্ধা চিহ্নশাখায় অকস্মাৎ
গাড়িহীন নৈঃশব্দ্যে
বিপন্ন ঝুলন্ত লাল ট্র্যাফিক সিগন্যালে
পুরোনো ধূলো-কুয়াশা কিছু-
দেখতে পাই।

বিভ্রম ভেবে মুখ ফেরালেই
কাঁধের ওপরে এক বাক্স সূর্য
হেসে দেয়।

***

[আমার সব লেখালেখি নিয়ে একটা সাধারন অভিযোগ যে আমি খুব সরলভাবে লিখি না। সরল লেখার সক্ষমতা খুব বড়ো লেখকদের থাকে। আমার সেটা নাই। যা হোক, এই দু’টা কবিতাই শীত নিয়ে। দু’টার মাঝে বয়সের পার্থক্য একবছর, তবে সুরগতভাবে তারা কাছাকাছি। প্রথমটা আমার লেখালেখি পুনরায় শুরুর সময় লেখা। দ্বিতীয়টা মাঝের একটা ‘খরা’ কাটিয়ে এসেছিল। কোন এক অদ্ভুত কারণে এই শুষ্ক ঋতুতে আমার লেখাগুলো অন্যরকম হয়ে ওঠে! বছরশেষে তাই সেই ঋতু-প্রণতি…]

২,২২৪ বার দেখা হয়েছে

৩৩ টি মন্তব্য : “শীত”

  1. শার্লী (১৯৯৯-২০০৫)
    বিপন্ন ঝুলন্ত লাল ট্র্যাফিক সিগন্যালে
    পুরোনো ধূলো-কুয়াশা কিছু-
    দেখতে পাই।

    বিভ্রম ভেবে মুখ ফেরালেই
    কাঁধের ওপরে এক বাক্স সূর্য
    হেসে দেয়।

    এই কয়টা পঙ্কতি অসাধারন। :boss: :boss:

    জবাব দিন
  2. রেজওয়ান (৯৯-০৫)
    বিম্বিসার নগরে উঠেছে ঘোলাটে ময়লা চাঁদ
    অরূপাক্ষ নদীতে পড়ে বালুচর। প্রিয়তমার মিথ্যা শরীরে
    ডোবে কুহক-পুরুষ, প্রেমিক হতে পারে সে যদিও,
    চুপ!- দেখো কুৎসিত কালো জলে ভাসে প্রণয়ের লাশ।

    আমি কিছুই কইত্তাম না, আমার মুখে ভাষা আসে না... :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: :hatsoff: :salute: :salute: :salute: :salute: :salute: :salute:

    জবাব দিন
  3. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    প্রথমটা মনে হয় আগেও পড়ছিলাম,দিছিলি কোথাও?
    কবিতার মাঝে জীবনানন্দের ন্যায় নাগরিক সভ্যতা বিমুখী সুর, কিংবা
    বিমানবিকীকরণের বিরুদ্ধতা ,আর ধুলোয় ধূসরিত ধরণীর মাঝে কোন ও নিঃস্তরঙ্গ জীবনের সন্ধান।
    আর বেশি কমু না।তাইলে আমার ক্লাশ চিচিং ফাক হয়ে যাবে।
    কেমন আছিস দোস্ত?

    জবাব দিন
    • আন্দালিব (৯৬-০২)

      হ্যাঁ, দুটাই সামহোয়ারে দিয়েছিলাম আগে। লেখাগুলোর বয়সও হয়ে গেল প্রায় বছরখানেক (আমার লেখালেখি একবছরের মত, এটা ভাবলেই কেমন অন্যরকম অনুভূতি হচ্ছে!!)

      প্রথমটার ব্যাপারে যা বললি, আমার চিন্তাগুলোও তার কাছাকাছিই। চিচিং ফাক হয় নাই। এখানে সবাই-ই চল্লিশ চোর! 😉

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।