##সে##লা##ই##

এখন চোখের ওপরে খড় দিয়ে তৈরি সুতো আর শাবল দিয়ে তৈরি সুঁই দিয়ে কেউ একজন আমার চোখ সেলাই করে দিচ্ছে। চোখের দু’পাতারা চিরে গিয়েছিলো জন্ম-মুহূর্তে। তারপরে চেরাফুটোয় গলগলিয়ে রঙ ঢুকেছে, আলো বাতাস পিতা মাতা সহোদরা ঢুকে গেছে এবং মেডুলায় তাদের কাদালেপা ঠাণ্ডাঘর বানিয়েছে। সে চোখচেরা গুহামুখেই প্রবল প্রতাপী তরুণীর শাদা শাদা স্তন আর যোনি ঢুকে গেছে সাথে করে কুষ্ঠভিখারিনীর গলিত হাত আর নখ, জটামাখা চুল।
সে চোখচেরাকে আজ শাবলসুঁইয়ে কেউ কড়কড় করে সেলাই করে দিচ্ছে, কোনার এক টুকরো ফাঁক এখনও বাকি। সে উপবৃত্তাকার ফাঁক দিয়ে সূর্যগ্রহণের আলো প্রবেশ করে- শেষ আলো। তারপরে শেষ একপোচে সাঁ করে আলো বন্ধের কান্নার তীক্ষ্ণ চিৎকার ভেসে আসে। আমি থরথরানো দু’হাত তুলে সেলাইকর্তার লোমশ ধাতব হাত চেপে ধরিঃ ওরে মাগো! এবারে ক্ষান্ত দে! আমার দু’চোখ বুজে গেছে চিরতরে! আমি আর কোন রঙ-রূপ-রস-গন্ধ-শোভা দেখবো না!

২,৪৬০ বার দেখা হয়েছে

২৫ টি মন্তব্য : “##সে##লা##ই##”

    • আন্দালিব (৯৬-০২)

      হুম, আমিও এখানে দেবার আগে ভাবছিলাম এটা কোনও ইস্যু হবে কী না। আমি মূলত মনে করি ভাষআর ব্যাপারে শালীন শব্দগুলো (যেগুলো কোনও গালি নয়) ব্যবহার করার ক্ষেত্রে রাখঢাক করলে আসলেই কোন লাভ হয় না। মানুষের চিন্তার ক্ষেত্রটা খুবই বিচিত্র। সেখানে মনে হয় তাকে স্বাধীনতা দেয়া যেতেই পারে। 🙂
      আমি অবশ্য জানি না, এখানে শব্দব্যবহারে কোনও নিষেধাজ্ঞা আছে কী না! থাকলেও কিছু করার নাই- এর থেকে সঠিক কোন শব্দ পাচ্ছি না!:(

      জবাব দিন
  1. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    অসাধারন, অসাধারন। আমি তোমার মত লিখতে চাই, :boss: :boss:

    আন্দালিব, তুমি কি ছন্নছাড়াকে চিন? আর বিভাগ কবিতা দিছ কেন, একটু বুঝাই বল।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
    • আন্দালিব (৯৬-০২)

      ফয়েজ ভাই, আমিই ছন্নছাড়ার পেন্সিল! ওখানে সব লেখাতে এখন আসল নাম দিচ্ছি: অনীক আন্দালিব। 😀

      কবিতা বলার কারণ এটা কবিতা, গদ্য নয়। আসলে এটা একটা পরীক্ষামূলক লেখা। মানে গদ্যের আদলে কবিতা লেখা: গদ্যকবিতা।

      যেমন ধরুন, এখন চোখের ওপরে খড় দিয়ে তৈরি সুতো আর শাবল দিয়ে তৈরি সুঁই দিয়ে কেউ একজন আমার চোখ সেলাই করে দিচ্ছে। এটাকে এভাবে পড়া যায়,
      এখন চোখের ওপরে/ খড় দিয়ে তৈরি সুতো/ আর শাবল দিয়ে তৈরি সুঁই দিয়ে/ কেউ একজন আমার চোখ /সেলাই করে দিচ্ছে।/... এরকম করে পড়লে দেখবেন একটা ছন্দ পাবেন। এটা আসলে পড়ার ঢঙের ওপর নির্ভর করে। আমি অতটা পারি না লিখতে এভাবে। তবে চেষ্টা করছি ফরম্যাটটা রপ্ত করতে। আপনারা স্নেহসুলভ প্রিয়তায় টেনে নিবেন বলে সাহস করছি!

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।