তুমি রোজ বিকেলে আমার বাগানে

১। মাইয়ার নাম মম। বাবার নাম প্রিন্সিপাল স্যার। দেখতে ক্যামন ছিল মনে নাই। অবশ্য ওই সময় মন অতো সুন্দরীও খুজতো না …… ‘অতেই চলবে’ টাইপ ছিলাম। আমাদের গেমস শেষ হবার পর টারজান স্যুইং এর রোপের নীচের মোটা গিট্টুটার উপর বইসা মম দোলা দোলা খেলতো। গিট্টুটার উপর ক্যামনে যে বসতো, আহারে। কত পোলাপাইনরে দেখছি ক্যান্টিনে যাওয়ার পথে অথবা ছুটির দিনে ওই গিট্টু নিয়া তফসরা (গবেষণা) করতেছে। নজরুল হাউজের নীচতলার ডানকোনার রুমটার জানালার পাশেই পেয়ারা বাগান। মম আসতো পেয়ারা কুড়াইতে। আমরা তাড়াতাড়ি গোছল শেষ করে জানালার পাশে এ্যাম্বুশ পাইতা বইসা থাকতাম। মাইয়া আসলে গান ধরতাম, ‘তুমি রোজ বিকেলে আমার বাগানে’, বাগানও আমার না, বাগানে ফুলও নাই আছে পেয়ারা, তবু গাইতাম। ভাল লাগতো।

২। শামীম সিদ্দিক ভাইয়ের কোন অপরাধ ছিল না। প্রিন্সিপাল অফিসে ঢুকে নিজের সপ্নটাই শুধু প্রকাশ করেছিলেন তিনি । ‘আমি যুগে যুগে কবি নজরুল হয়ে ফিরে আসবো’ বলার পর তিনি ঢাকা সিএমএইচ-এর সাইকিক ওয়ার্ড হয়ে বাড়ী চলে যান। গল্প সেইটা না, গল্প হইল, প্রিন্সিপাল প্যারেডের দিন সকাল, প্যারেডের আর ১৫ মিনিট আছে। সবাই দুইদিন ধরে ওয়াটার পালিশ করা বুট, চকচকে মেটাল আর ধোপদুরস্ত ইউনিফর্ম পরে যখন জুতা পালিশ বাচানোর জন্য হিলের উপর ক্লাউন টাইপ হাটছি, সেই সময় শামীম সিদ্দিক ভাইয়ের আগমন। সাদা হতে হতে প্রায় পিটি স্যু হয়ে যাওয়া তার বুট জোড়া দিয়ে আমার ক্লাসমেট কে উদ্দেশ্য করে বললেন, ‘ওই সারো্যার, যাও তো আমার বুট জোড়া ইট্টু মুজা পালিশ কইরা নিয়া আস’।

৩। কথায় কথায় বলস্ বলাটা ওমর বলস্ ভাইয়ের সভাব ছিল। তবে তার নামকরনের আর একটি ঘটনা জনশ্রুতিতে ছিল। নজরুল হাউজের মটো ছিল ‘চীর উন্নত মম শির, ইংলিশে ‘এভার ইরেক্ট ইজ মাই হেড’ …… তো ‘ইরেক্ট’ যদি ‘উন্নত’ হয় …… ওমর বলস্ ভাই নাকি নারী প্রসাধনী, নারীর দৈনন্দিন ব্যবহার্য্য যে কোন কিছু, চুলের কাটা, নারকেল তেলের ডিব্বা, এক কথায়ে নারীর সংগে সম্পর্ক যুক্ত যে কোন কিছু দেখে ‘উন্নত’ করতে পারতেন ……

২,১০০ বার দেখা হয়েছে

৩৪ টি মন্তব্য : “তুমি রোজ বিকেলে আমার বাগানে”

  1. জিহাদ (৯৯-০৫)

    ফজলুল হক হাউসের দোতলার বাথরুমের জানলা থেকে টারজান সুইং এর জায়গাটা খুব সোন্দর দেখা যাইতো। আমাদের টাইমে শুধু মম না, মম রা আসতো 😀


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  2. অবশ্য ওই সময় মন অতো সুন্দরীও খুজতো না …… ‘অতেই চলবে’ টাইপ ছিলাম।

    আমাদের কলেজেও সেইম কেস ছিলো বস। এক স্যারের কইন্যা ছিলো এমন আউলা ঝাউলা কুচকানো চুল, আমরা তারে ডাকতাম "ভালদেরামা" (কলম্বিয়া'র মিডফিল্ডার কার্লোস ভালদেরামা)।

    লেখা পুরা গুল্লি :khekz: :gulti: :khekz: :gulti:

    জবাব দিন
  3. সাইফ (৯৪-০০)

    তাইফ বস,আপ্নি যে কইলেন মম পেয়ারা বাগানে আস ত।কিন্তু ফুল ছিল না ,পেয়ারা আছে।তয়,পেয়ারার ভাগ পাইছিলেন নাকি?পেয়ারা কি কাজি পেয়ারা ছিল নাকি দেশি লাল পেয়ারা?দেশি লালা হইলে ভাল আর কাজি হইলে টেস্ট না থাক্লেও দেখে মন ভরে যাওয়ার কথা একটু বেইদেশি বিদেশি লাগে এই আর কি :party:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।