অনেকদিন কিছু লিখি না…

বিগত কয়েক মাস (মাস ছয়েকের বেশী হবে মনে হয়) ধরেই ক্যাডেট কলেজ ব্লগের সাথে দেখা সাক্ষাত প্রায় নাই বললেই চলে। সাক্ষাত না হবার অন্যতম কারন নিজের জীবনযাত্রায় ব্যাপক আকারের পরিবর্তন। ছয় মাস আগেও বলতে পারতাম, নামঃ মোকাব্বির সরকার, বেকার। কিন্তু গত ছয় মাস আগে বেকারত্ব আমাকে কাঁচকলা দেখিয়ে পালিয়ে গেল। সেই সাথে পালিয়ে গেল দৈনন্দিন জীবন ধারনের জন্য বরাদ্দ ২৪টি ঘন্টা থেকে ৮/৯টি মূল্যবান অলস ঘন্টা। সকাল দশটায় যন্ত্রের মত যন্ত্রচালিত যানে করে অফিসে এসে বসি আবার সন্ধ্যা ৬টা ক্ষেত্রবিশেষে ৮টায় আবার একই ভাবে ফিরে যাই। মাঝের সময়টুকু বেশীরভাগ সময় স্মৃতি-বিস্মৃতির অন্তরালে হারিয়ে যায়। প্রায়শই মনে থাকে না সকালে কি করেছিলাম বা কে মুঠোফোনে আমাকে খুঁজেছিল কারন দিনের শেষে নিজেকে বড় অকেজো আর হতাশ মনে হয়। আর এর মাঝেই হারিয়ে গেল আমার দৈনন্দিন জীবনের সখগুলো। এদের মাঝেই অন্যতম ক্যাডেট কলেজ ব্লগে নিয়মিত লিখার একটা স্বপ্ন হঠাত ফিকে হয়ে গেছে। হয়ত আগামী কয়েক মাসেও আসা হত না। আসতে বাধ্য হলাম এক বড়ভাই এর আদেশ/অনুরোধ রক্ষা করতে। গতকাল হঠাত দেখলাম ফেসবুকে ৩৫তম ব্যাচের সিনিয়র শামিম ভাই মেসেজ পাঠিয়েছেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত এবং বর্তমানে বাংলাদেশের বাহিরে শান্তিরক্ষা মিশনে আছেন। কোন একটি কারনে উনার ক্যাডেট কলেজ ব্লগে রেজিস্টার করতে সমস্যা হচ্ছিল সেখান থেকে। তাই আমাকে বললেন করে দিতে। প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নিয়ে হোম পেজে একবার চোখ বুলিয়ে আবার হাতের আঙ্গুলগুলো নিশপিশ করতে লাগল। অনেক কাজের চাপ কিন্তু কিছু একটা লিখতে আমাকে হবেই আজকে। আপাদত মাথায় বস্তুনিষ্ঠ বা রম্য জাতীয় কিছু নাই তারপরেও হাবিজাবি কিছু একটা লিখে পাতা ভরাট করে অন্তত মনের শান্তিটুকু পাওয়ার একটি প্রচেষ্টা।

সকাল থেকে একটু একটু করে লিখে এনে এখানে পৌঁছেছি। কাজে ডুব দেবার আগে শেষ করে দেই। তবে এর মাঝে ছোট একটি খবর। গত শুক্রবার আইনজীবি সনদ প্রদানের মৌখিক পরীক্ষার জন্য হাজির হয়েছিলাম বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ভবনে। পরীক্ষা নিতান্তই ভালো হয়েছে কারন আইন বিষয়ক প্রশ্ন ছিলনা বলতে গেলে। আশা রাখি আগামি সপ্তাহেই নিজের নামের শুরুতে বা শেষে একটি শব্দ যোগ করতে পারব যেটাকে অনেকি ভয় পান, এড়িয়ে চলেন, মাঝে মধ্যে অকথ্য ভাষায় অভিশাপও দিয়ে থাকেন……শব্দটি হল এডভোকেট…!

১,৩৬৭ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “অনেকদিন কিছু লিখি না…”

  1. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    সাবাস , নিজেগো মইধ্যে এডভোকেট আরেকটা বাড়লো। সিসিবির আরেক উকিল শার্লীকে দেখি না অনেক দিন। অবরে সবরে এডভোকেটগো লগে যোগাযোগ রাখারে ভালু পাই।

    জবাব দিন
  2. সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)

    পোলাপাইনগুলা দেখতে দেখতে চোউক্ষের সামনে দিয়া বড় হইয়া যাইতাসে (নিজেরে বুড়ি ভাবতে কষ্ট লাগে :(( )।
    আমার একটা মামলা দিতে মঞ্চায়!


    You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

    জবাব দিন
  3. মোকাব্বির (৯৮-০৪)

    সবাই দেখি অভিনন্দন জানায়াই একটা কইরা কেইস করতে চায়!!! খুব খারাপ নমুনা...!! যদিও আমি কিন্তু বিল ইনভয়েস পাঠায়া দিব সময় মত...বেশী চাব না...নতুন তো... 😛 :dreamy:


    \\\তুমি আসবে বলে, হে স্বাধীনতা
    অবুঝ শিশু হামাগুড়ি দিল পিতামাতার লাশের ওপর।\\\

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।