সিনেমাঅলা বন্ধুর জন্মদিনে….

কথাগুলো পুরনো। অনুভূতিটাও।
বন্ধু পুরনো হলে তাকে নিয়ে কথা আর অনুভূতি নতুন হয় কী করে!
টিটোর জন্মদিনে কিছু লিখতে গিয়ে তাই ঘুরে ফিরে পুরনো কথাগুলোই মনে পড়ছে।

ঠিক কবে কোথায় প্রথম দেখা হয়েছিলো সেটা আজ আর মনে নেই। হয়তো কোচিং পালিয়ে সিগারেটের ধোয়া তোলা ফার্মগেটের চায়ের দোকানে অথবা বিকেলে সংসদ ভবনের জম্পেশ আড্ডায়। তবে এ কথা ঠিক মনে আছে তখন টিটো বাংলা-ফাইভ টানতো, আমিও।

তারপর বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে ঘনিষ্টতা। ক্লাস ফাঁকি দিয়ে ক্যাম্পাসের এখানে সেখানে ঘুরে বেড়ানো একটা দল থাকে। টিটো সেই দলের, আমিও।

রোমান হলিডে, বাইসাইকেল থিফ দেখে মুগ্ধ কিছু তরুন ভাবে একদিন তারাও এইদেশে এমন সিনেমা বানাবে। টিটো সেই দলের, আমিও।

কার্জন হল আর টিএসসি’র আড্ডায় সিগারেটের পর সিগারেট পোড়ে, মামার দোকানে বাকির খাতা আরো বড় হয় তারপরও কিছু ছেলে নিশ্চিন্তে দেশ উদ্ধার করে। টিটো সেই ছেলেদের দলে ছিলো, আমিও।

পার্থক্য শুধু একটাই, টিটোর আশেপাশে সব সময় গুচ্ছগুচ্ছ বালিকা থাকতো, আর আমি অনাথের মতো ঘুরে বেড়াতাম।

বেশ ভালোভাবেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের সাথে জড়িয়ে ছিলো টিটো। লিটল ম্যাগ, ফিল্ম সোসাইটি, প্রপদ সবকিছুতে। আহসান , টিটো আর তারেক এই তিনজন তখন ফিল্ম সোসাইটির প্রাণ । মাঝে মাঝে ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল হয়, অন্ধকার অডিটোরিয়ামে টর্চ হাতে তারেক, টিটোরা টিকেট চেক করে, গেট থেকে সুন্দরী বালিকাদের হাতে ধরে এনে সিটে বসায়। তারপর দিনশেষে হিসেব করে কে ক’জনের হাত ধরতে পারলো। ওদের গল্প শুনে ইর্ষা হয়। শেষপর্যন্ত ফিল্ম সোসাইটির সভাপতিও হয়েছে টিটো। ওর সম্পাদনায় ফিল্ম সোসাইটি’র ছোট কাগজের অনেকগুলি সংখ্যা বেরিয়েছে। পড়ে মুগ্ধ হয়েছি প্রতিবার। সিনেমার প্রতি ওর ভালোবাসা, সিনেমা নিয়ে ওর ভাবনা মুগ্ধ হবার মতোই।

আবার এই টিটোকে দেখেছি মিছিলের সামনের সারিতে। সামসুন্নাহার হলের ছাত্রীদের উপর পুলিশী নির্যাতনের প্রতিবাদের উত্তাল হলো পুরো ক্যাম্পাস। আন্দোলন দমাতে না পেরে হল গুলি বন্ধ করে দেয়া হলো। ক্যাম্পাস মিছিলে মিছিলে সয়লাব। সেই মিছিলে টিটো, শরীরে পুলিশের লাঠির আঘাত কিন্তু গলায় জোর প্রতিবাদ। আহা কি দিন ছিলো !

বন্ধু-বান্ধবদের লেখা নিয়ে আমি বরাবরই একটু বেশি উচ্ছাসিত। কিন্তু টিটো’র লেখা নিয়ে আমার উচ্ছাস একটুও বাড়াবাড়ি নয়। কী দারুন কল্পনা শক্তি থাকলে মাত্র দু’দিনে ‘বউ কথা কউ’র মতো একটা গল্প লেখা যায় সেটা সিসিবির পাঠকরাও নিশ্চয়ই এতোদিনে আঁচ করতে পেরেছেন। এখনো মনে আছে, কার্জন হল থেকে তারেকের সম্পাদনায় বের হওয়া ‘যুযুধান’ নামে একটা ছোট কাগজে গল্পটা প্রথমবার ছাপা হয়েছিলো। তারেক পড়তে দিলো। প্রথমবার পড়ে অনেকক্ষণ থ মেরে বসে ছিলাম। এমন একটা গল্প লেখা শুধু টিটোর পক্ষেই সম্ভব।

শুভ জন্মদিন দোস্ত।
অনেক অনেক শুভকামনা।
বড় হয়ে আমি, তুই আর তারকাভস্কি মিলে তিন প্রহরের বিল দেখতে যাবো।

৬,৩৯৭ বার দেখা হয়েছে

৭৪ টি মন্তব্য : “সিনেমাঅলা বন্ধুর জন্মদিনে….”

  1. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    প্রথমেই বাংলা ফাইভ ধরছে, বেকুব, বিড়ি ধরতে পারোছ নাই

    হ্যাপী বাড্ডে, ছবি বানাইলে আমারে প্রিমিয়ার না কি কয় ওই শোর তিনখান টিকিট দিস,


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  2. তাইফুর (৯২-৯৮)

    টিটো'রে হেপী বাড্ডে জানানোর আগে কামরুল'কে অভিনন্দন জানায়া লই।
    লেখাটা অসাধারণ হইছে।
    জন্মদিন রিলেটেড বেস্ট পোস্ট এওয়ার্ড ...

    (টিটো রে বাড্ডে হেপী জানামু না ... ম্যালা রিজন ... কুন্ডা থুইয়া কুন্ডা কমু)


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  3. রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

    টিটো সাহেব,
    হেপি বাড্ডে । মনে আছে ক্লাস সেভেনের কথা ?
    কলেজ প্রিফেক্ট এহসান ভাই লাঞ্চ/ডিনারের পর ক্যাডেটদের যে অর্ডারই শোনাক, আমার পাশে বসা পোলাডা আমারে জিগাবোই- "ভাইয়া,কি বললো?"
    "আরে,এই পোলাডা কি ইংলিশ বুঝেই না ?"- নিজে নিজে গজ গজ করতাম ।
    হেই পোলা আইজকা তারকাভস্কির লগে তিন প্রহরের বিল দেখতে যাইবো রে.........
    আবারো হেপি বড্ডে । ভাল থাকিস,অনেক ভাল...............


    আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
    ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
    ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
    সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
    ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
    আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

    জবাব দিন
  4. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    টিটো ভাই এবং করবী ভাবী(কামরুল ভাই,এইবার বানান ঠিক লিখছি 😀 ) অসম্ভব সুইট একটা কাপল।টিটো ভাই কোন গল্প লেখা প্রতিযোগিতার জন্য একবার উনার লেখা প্রিন্ট করতে নীলক্ষেত গেছিলেন-আমিও উনার সাথে ছিলাম।উনার "বউ কথা কও" গল্পটার এককপি প্রিন্ট আমার হাতে ছিলো।বাকি গল্পগুলা প্রিন্ট হওয়ার সময় ওই কপিটা পাশে দা৬ড়ায় থাকা চার-পাঁচজন লোককে দিছিলাম পড়তে।পড়া শেষ কইরা একজনের দেখি চোখ কপালে,আমারে কয়ঃ"এই গল্প আপনের ভাই লিখছে???!!!!"

    বিশাল ভাব লইয়া কইছিলাম-জ্বি ভাই।

    ওই গল্প প্রতিযোগিতার পরে কি হইছিলো জানিনা,সম্ভবত দেরি হয়া গেছিলো জমা দিতে বা এইরকম কিছু।তবে টিটো ভাই যখন খুব নামকরা পুরষ্কার টুরষ্কার পাইবেন লেখালেখির জন্য তখন আমি ডাবল ভাব নিয়া এই গল্প সবাইরে কমু।

    শুভ জন্মদিন টিটো ভাই!!!!

    জবাব দিন
  5. জিহাদ (৯৯-০৫)

    এই মহাশয় নাটক বানায়
    হয় সেটা খুব হিটও
    সঙ্গে লিখে গল্প, ছড়াও
    খুব খাসা আর নীটও

    cool ললনার হাতটা ধরে
    দেয় দেখিয়ে সীটও
    ম্যারিড; তবু অনেক নারী
    তার তরে হয় ফিটও

    বুঝতে হবে, ভাইখানা কার
    এমন গুণান্বিত
    আমারও ভাই, তোমারও ভাই
    সবারই ভাই টিটো! 😀


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  6. রবিন (৯৪-০০/ককক)

    দোস্ত, হ্যাপি বাড্ডে।
    তোর নাটক টার প্রিমিয়ার এর টিকেট দিস। তারপর একসাথে তিন প্রহরের বিল........
    কামস, বহুদিন পর কঠিন লিখসোস। এইটা লেখা নিশ্চয় পেপারে দেস নাই আগের কয়েকটা লেখার মতো :grr:

    জবাব দিন
  7. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    শুভ জন্মদিন টিটো ভাই

    এটা আমার সিসিবিতে পড়া অন্যতম সেরা জন্মদিনের পোস্ট, :hatsoff:


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  8. রকিব (০১-০৭)

    শুভ জন্মদিন ভাইয়া।
    শতেক বাইচ্চা কাইচ্চা আর সিনেমার জনক হোন ভাইয়া।
    অফটপিকঃ তিন প্রহরের বিলে আসলে পাশের সাড়ে তিন প্রহরের চায়ের দোকানটায় আইসেন। ঐখানে নতুন বিজনেস খুলছি। :shy:


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  9. সাব্বির (৯৫-০১)

    ৯৮ এ কলেজে থাকতে হাউস নাটকে আমি আর টিটো ভাই অভিনয় করেছিলাম। আমার পার্ট টা মনে নাই, কিন্তু টিটো ভাই এর ক্যারেক্টারের নাম ছিল "টিকটিকি"। ১২ বছর আগের কথা,মনে হচ্ছে সেদিনের ঘটনা।
    টিটো ভাইএর সাথে স্মৃতি বলা শুরু করলে বড় ৪/৫ টা পোষ্ট হইয়া যাবে। তাই আর ওদিকে গেলাম না 😀
    হেপী বাড্ডে টিটো ভাই।
    আপ্নি যখন অস্কার পাইবেন তখন সবাইরে কইয়া বেরামু 'এই মানুষ টার সাথে আমি একই মঞ্চে কাজ করছি :)) :)) '

    জবাব দিন
  10. আশহাব (২০০২-০৮)
    পার্থক্য শুধু একটাই, টিটোর আশেপাশে সব সময় গুচ্ছগুচ্ছ বালিকা থাকতো, আর আমি অনাথের মতো ঘুরে বেড়াতাম

    🙁 🙁 হ ভাই, ঠিক কইসেন, টিটো ভাই আসলেই জিনিষ :grr: 😉

    জবাব দিন
  11. তারেক (৯৪ - ০০)

    টিটো,
    শুভ জন্মদিন দোস্ত।

    (কাম্রুল, লিখতে বসছস টিটোরে নিয়া, মাঝখান দিয়া আমার চরিত্রে কালিমা লেপনের চেষ্টা! x-( )
    তবে লেখাটা মারাত্মক হইছে।


    www.tareqnurulhasan.com
    www.boidweep.com

    জবাব দিন
  12. সাইফ (৯৪-০০)

    টিটোকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা।আর কাম্রুল বলেই সম্ভব এইরকম অকৃত্রিম ভালোবাসায় ভরা পোস্ট লেখা কোন বন্ধুকে নিয়ে।সিনেমাওয়ালা কাম্রুল এবং টিটো তোদের দুইজনের স্বপ্ন পুরা হউক এই কামনা করি সর্বক্ষন। :boss: :boss:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।