শুরু হল পথ চলা…যাত্রা শুভ হোক…

সমগ্র জাতিকে শোকে স্তব্ধ করে দেয়া হৃদয়বিদারক এক ন্যাক্কারজনক অধ্যায়ের মাধ্যমে সিসিবির সাথে আমার পরিচিতি…আমি ফেব্রুয়ারী’০৯ এর ‘পিলখানা গণহত্যা’র কথা বলছি।স্বাধীনতার ৩৮ বসন্ত পর বাংলার মাটিতে পাক হানাদারদের বর্বরোচিত’৭১ এর গণহত্যার পুনঃরাবৃত্তির কথাকে স্মরণ করে সিসিবিতে আমার ইনিংসের গোড়াপত্তন করছি…

পিলখানা হত্যাযজ্ঞের ১ম দিনের ঘটনা।অন্যান্য দিনের চাইতে একটু ব্যতিক্রম ছিল সেদিনের সকালটা।এস আর এস জি(আইভরিকোষ্টে জাতিসঙ্ঘ মিশনের বেসামরিক প্রশাসনের সর্বোচ্চ কর্মকর্তা)এর ক্যাম্প পরিদর্শন উপলক্ষ্যে কন্টিনজেন্ট কমান্ডার এবং সেক্টর ওয়েষ্ট কমান্ডার আমাদের ক্যাম্পে অবস্থান করছিলেন।এদিন সকালের পরিদর্শনের সকল প্রকার সমন্বয় সাধন করেই ২৪ ফেব্রুয়ারী রাতে ঘুমাতে গিয়েছিলাম।কিন্তু সকাল হল কিছুটা অস্বাভাবিকভাবেই।চারিদিকে কেমন যেন একটা স্তব্দতা…সহকর্মীদেরকে দেখলাম বিমর্ষ …তাদের কাছেই শুনলাম বিডিআর বিদ্রোহের কথা… লোমহর্ষক এই ঘটনা শুনে আঁতকে উঠলাম।এক সহকর্মীকে দেখলাম ইন্টারনেটে সর্বশেষ খবর নেওয়ার চেষ্টা করছেন…রুমে ফিরে গেলাম।অনলাইনে ঢাকায় কর্মরত কোন সহকর্মীকে আশা করছিলাম…পেলাম না।পেলাম বন্ধু আদনানকে(ঝকক-৩৪,সিসিবির একজন নিয়মিত লেখক)।ওর কাছ থেকেই জানতে পারলাম পিলখানা ট্রাজেডির অনেক পর্ব।সেদিন ও ই আমাকে প্রথম বলেছিল ‘সিসিবি’র কথা…”ওখানে চোখ রাখ…আপডেট জানতে পারবি,সংবাদপত্রে বস্তুনিষ্ট খবর পাবিনা…”।ওর অনুপ্রেরণাতেই সিসিবিতে আমার সদস্য হওয়া…আজ সিসিবি’র একজন গর্বিত সদস্য হিসেবে আমার লেখালেখির সূত্রপাত…”বন্ধু আদনান,তোকে অশেষ ধন্যবাদ সিসিবি’র সাথে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্য”।

একটা মর্মস্পর্শী ঘটনার যোগসূত্র ধরে সিসিবিতে আমার হাতেখড়ি।পরবর্তীতে এর বিভিন্ন বিভাগে এক্স-ক্যাডেটদের লেখা পড়ে এবং সহকর্মী মেহেদি স্যারের(হাসান ভাই,ঝকক-৩৩) অনুপ্রেরণায় আজ আমি সিসিবি’র একজন অন্ধভক্ত হয়ে পড়েছি..ক্যাডেট কলেজের সেই সোনালী দিনগুলির কথা মনে করে দিয়ে সিসিবি আমাকে করেছে স্মৃতিকাতর।আজ তাই নিজেকে এই গর্বিত পরিমন্ডলের সদস্য হিসেবে সৌভাগ্যবান মনে করছি…

যে সূত্র ধরে এই আমার পথ চলার সূচনা কৃতজ্ঞচিত্তে সেখানে ফিরে যাই…পিলখানায় বিডিআর সদরের হত্যাযজ্ঞে শহীদ মেধাবী ও চৌকষ সহকর্মীদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি…কামনা করছি শোক-সন্তপ্ত পরিবারের জন্য সমবেদনা আর সহযোগিতা ।জানি,আমাদের হৃদয়ের ক্ষত আর জাতির ভাগ্যন্নোয়নে তাদের শুন্যস্থান আর কখনো পূরণ হওয়ার নয়.. তাদের স্মৃতিকে বুকে লালন করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।আশা করি সিসিবি ও ক্যাডেট কলেজসমূহের ‘এক ও অভিন্ন সত্ত্বা’ হিসেবে তার দৃপ্ত পদচারণা অব্যাহত রাখবে…অদূর ভবিষ্যতে আরও অনেক এক্স -ক্যাডেটের অংশগ্রহণে মুখরিত হবে সিসিবি‘র আঙ্গিনা…এই প্রতাশ্যায় আমার প্রথম লেখার ইতি টানছি…

১,৩৮৫ বার দেখা হয়েছে

২২ টি মন্তব্য : “শুরু হল পথ চলা…যাত্রা শুভ হোক…”

  1. মেহেদী হাসান (১৯৯৬-২০০২)
    সহকর্মী মেহেদি স্যারের(হাসান ভাই,ঝকক-৩৩) অনুপ্রেরণায় আজ আমি সিসিবি’র একজন অন্ধভক্ত হয়ে পড়েছি..

    কি দরকার ছিল এগুলো লেখার। যাও তোমার একদিনের পেট্রোল থেকে অব্যাহতি দেওয়া হল। 😀 😀

    (অঃ টঃ আমি তেল দেওয়া একদম পছন্দ করি না।)

    জবাব দিন
  2. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    :frontroll: এখনো শুরু করো নাই!! উপরে দেখলাম কে জানি শিখাইয়াও দিছে। নাহ, জুনিয়রগুলারে এখন থাইক্কা দৌঁড়ের উপর রাখতে হইবো!!

    অ্যাডজুটেন্ট গেল কৈ? ইউসুফ তুমি যদি না দেখ.......................


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।