ঈদ গিফট

সকালে ফোনের শব্দে ঘুম ভাঙ্গলো । মনে পড়লো এক ফ্রেন্ডরে বলছিলাম সকালে উঠতে পারলে যাতে ডাইকা দেয়…বন্ধু কথা রাখছে । এই কথা মনে হইতেই সকালটা হটাত খুব ভালমনে হইতে লাগলো । পরে যথারীতি ছোট ভাইডারে ঘুম থেইকা ডাইকা উঠাইয়া রেডি হইতে লাগলাম । নামাজ পড়লাম নতুন এক ভেন্যুতে । একেবারে জাস্ট টাইমে নামাজ শুরু হইল । ক্যান্টনমেন্টের বাইরে এইরকম অভিজ্ঞতাও এই প্রথম । সকালের হালকা রোদে নামাজ……ছোটভাই, বাবা আর প্রতিবেশীর সাথে এই নামাজ পর্বটাও যেন হয়ে উঠল ভাল লাগার আর এক প্রতিশব্দ । বাসায় ফিরে কুরবানীর পালা। আমাদের ছোট গরুটাতো সহজেই কাইত । কিন্তু বাধ সাধলো আর এক প্রতিবেশীর ১ লাখ ২০ হাজার টাকা দামী বিশাল সাইজের সবল গরুটা । একবার ছুটে গিয়ে পুরো পাড়ার বুড়া ,পিচ্চিগুলারে একখান দাবড়ানি দেওয়ার পর প্রায় আধ ঘন্টার প্রচেষ্টার পর তাকে আল্লাহর রাস্তায় কোরবানী করা গেলো । তবে এই আধ ঘন্টার অভিজ্ঞতা সত্যিই মনে রাখার মত ।
ছোট ভাইডারে কইলাম সালাম কর সালামী দিমু……কিন্তু পোলাপাইন ইদানিং এতো বজ্জাত হইতেছে যে বড়দের আদেশ মানা ত দূরের কথা প্রপোজালও মানে না ।
গরু কাইটা বাসায় আইসা যথারীতি টিভি নিয়া বসলাম । বিকালের খবর শুরু হইলো । কোরবানীর চামড়ার ব্যাবসায় অলরেডী একজন ডেড । তারপর ওই গতবাঁধা খবর………সরকারপ্রধানদের শুভেচ্ছা,ফাঁক ঢাকা, বাচ্চাদের শিশুপার্ক ভ্রমণ ইত্যাদি ইত্যাদি । তবে সবচেয়ে মজা পাইলাম বাংলাদেশের মানুষের জন্য হকি টীমের ঈদ উপহার দেইখা। ভারতের প্লেয়ারদের কাছ থেকে তারা মোট ৯ গোল আদায় করে নিছে । কি মজা না !! দেশবাসীর জন্য ৯ গোল । ১১ টা হইলে আমরা যদি বলি ওদের প্রত্যেকের জন্য ১ টা হয়তো এই জন্য ২ টা কম । তাও ভাল ১১ থেকে ১ টা বেশি খায় নাই । তাইলে তো আবার বলতাম ১ ডজন !!!! সেই লজ্জাতে তো আর পরতে হয় নাই । থ্যাঙ্কস আমাদের হকি টীমকে…এতো সুন্দর ঈদ গিফট দেওয়ার জন্য । আপনারা কি বলেন ?????

৫৭৫ বার দেখা হয়েছে

৭ টি মন্তব্য : “ঈদ গিফট”

  1. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    আমি তো ভাবলাম বন্ধুর কথা রাখাটাই তোমার ঈদ গিফট।
    ইন্ডিয়া তো কয়দিন আগে অস্ট্রেলিয়ার কাছে বিরাট ধরা খেলো কমনওয়েলথ গেমসে, সেই টীমের কাছে আমরা ধরা খেলাম। আমরা কোথায়????????????

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।