কথোপকথন

-ফ্রি তে নাকি কিছুই পাওয়া যায় না।মূল্য দিতে হয়।এইজন্যই বোধহয় তোমার আমার মাঝে অতটা …ইউ নো ..’ম্যাটেরিয়াল ‘ নাই! তোমাকে পেতে আমার ওয়েট করা ছাড়া আরতো কিছুই করতে হয় নি!
-কে বলছে? তোমার সবসময় ফোনে কথাবলা বন্ধুদের কেউ? ….অফকোর্স উইদাউট মিনিং এনি ডিজরেস্পেক্ট টু দেম!তোমার বন্ধুদেরতো আবার সমালোচনা করা নিষেধ! দেবতাকূল!
-হুম! তুমি কি আমাকে খোঁচা দিলা? ইন অ্যান “অ্যাটেম্পট টু টীজ ” কাইন্ড অফ ওয়ে?
-বেশি ব্যথা পাইছ?
-খুব! একটু মরফিন দাও।নিদেনপক্ষে প্যারাসিটামল সাপোজিটরি!
-তুমি জিতছ যাও!
-ইয়াহ, আই নো! আই অলওয়েজ ডু!
-পার্ট!!!! বাপ্পুস!
-খালি তোমারাই পার্ট নিবা?
-কিছু বলবা? অনেক্ষণ ধরে দেখছি তাকায়ে আছ। মারা টারা যাচ্ছ নাকি শীঘ্রই?!!
-চাও?
-চাইলেই কি সব হয়? গেলে তো আর একা যাবা না!
আমি এত তাড়াতাড়ি যাচ্ছি না।আর কটা দিন দেখি!
-এইবার কিন্তু তুমিই জিতছ। ভাইসব! একটি বিশেষ ঘোষণা …….
-ওহ কাম অন।….সিরিয়াসলি, কি বলবা বলনা। নির্ভয়ে বল।
-আমি খেয়াল করে দেখলাম, শুধুমাত্র তোমার দিকে তাকাতেই আমি সাহস পাই।অন্য কারো দিকে ইভেন তাকাতেও ভয় লাগে! মনে হয় তাকালে যদি ব্যথা পায়!!! …..অফকোর্স মেয়েদের কথাই বলছি!
-আহারে! আফসুস! খুব ইচ্ছে করে না?
-ওহ প্লিজ! ডোন্ট পুল মাই লেগ! আই অ্যাম ট্রাইং টু হ্যাভ আ সিরিয়াস কনভার্সেশন হিয়ার। … প্লিজ! খুব মজা লাগতেছে না?
-আচ্ছা যাও! আর ফাজলামো করব না! আই অ্যাম অল ইয়ার্স!
-প্লিইইইইজ!এরকম গালে হাত দিয়ে ড্যাবড্যাব করে তাকায়ে থাকলে কিছু বলা যায়? তার উপরে এইজাতীয় কথাবার্তা!
-হিহিহিহ! বললে বল,না বললে মুড়ি খাও!
-তোমার দিকে কোন হেজিটেশন ছাড়া, নির্ভয়ে তাকাতে পারি কারন তোমার মুখে আমি অপুর্ণতা খুঁজে পাই, তোমার দিকে তাকালে মনে হয় এই মুখ আর কিছু পারুক বা না পারুক মনের সুখে ভুল করে যেতে পারবে! একমাত্র এই ভুল করে যেতে পারার ক্ষমতাই তোমাকে দেবী এবং পুতুলদের থেকে আলাদা করেছে!!! তোমার এই অপুর্ণতাই তোমাকে মানবী করেছে! আর আমিতো একজন মানবীকেই ভালবাসতে চেয়েছি! দুজনে মিলে পুর্ণ হতে চেয়েছি!
-হাউ টাচিং! আই অ্যাম ট্রুলি ফ্ল্যাটার্ড! চোখে পানি এসে যাচ্ছে! টিস্যু দাও….না ওয়েট! টিস্যুতে হবে না,একটা বালতি নিয়ে আসো!
-সত্যি? উপহাস? এই প্রতিদান?
-সিগারেট খাবা তো? এত ঢং করে বলার কি আছে? যাও খেয়ে আস।
-তোমার কি ধারনা আমি শুধু সিগারেট খাওয়ার পারমিশনের জন্যই বানায়ে বানায়ে কথা বলে তোমাকে খুশি করার চেষ্টা করি?
-তাহলে এতক্ষণ যা বললে তা বানায়ে বানায়ে? খুশি করার জন্য?
-এইদিন দিন না আরো দিন আছে!
-সুযোগ পেলে কে ছাড়ে বল?
-না! সিগারেট ও খাব না,বানায়েও বলি নাই!
-আহা! সব ছেলেরা যদি এমন করে ভাবত!!!!
-আহারে! আফসুস! খুব ইচ্ছে করে না?সবাইকে তো একবারে পাবা না!আপাতত আমাকে দিয়ে কাজ চালায়ে নাও!!!!
-যাও ফাজিল!!!!
-কেমন লাগে?
-খারাপ লাগে!
-আর বলব না। মাফ করে দাও!
(চলমান গুরুগম্ভীর পরিবেশ একটু হালকা করার চেষ্টা 🙂 । )

৯০৯ বার দেখা হয়েছে

৬ টি মন্তব্য : “কথোপকথন”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।