অচিনপুর (ছড়া ভার্সন)

সুমন ভাইয়ের অচিনপুর পোস্টটা দেখে কলেজে লেখা একটা কবিতা (কোবতে বলা better) মনে পরে গেল। হঠাৎ খায়েশ হইসে একটা পোস্ট দেই, :shy: কিন্তু বহু দিন ধরে লিখি না, লেখাও তাই অভিমান করে আমাকে ছেড়ে ভাগসে। তাই কলেজে লেখা ওই কোবতেটাই দিলাম। এটা সেই আমলে লেখা, যখন ওয়াল ম্যাগাজিনের জন্য তাড়া খেতে খেতে কাগজ কলম নিয়ে সবাই কবি হয়ে যেত। আগে একটা ব্লগে দিয়েছিলাম, সেই ব্লগ আর নাই, তাই পাবলিশেও ঝামেলা নাই। সাইজটা একটু বড়, সেইজন্য আমি আন্তরিক ভাবে দুঃখিত :shy: ।

যাবি সেথা তুই?
আমার সাথে, পরীর দেশেতে?
যেথায় সোনালী রোদগুলো সব
গন্ধে মাতায়, মেঘ আসে যায়-
সুখের বেশে।
সেথায় পাতার ঝিলমিল ডাকে
কোন অজানায়, পরীর ডানায়-
চলে যাব আমি
তোকে ছেড়ে দূরে, অচিনপুরে।

যাবে, ঝরে যাবে সবুজ পাতারা,
পথের দুধারে পড়ে রবে তারা,
সেই পাতা, সেই পাতার সবুজ
আমাকে হারাবে কোন অজানায়;
যেখানে ফুলের গন্ধে আকুল
রিনিঝিনি বাজে বিষ্টির সুর
সে হাওয়ায় ভেসে
চলে যাব আমি
তোকে ছেড়ে দূরে, অচিনপুরে।

জোনাকীপোকারা বরণডালায়
সাজাবে তাদের যত আছে ফুল
যত আছে সুখ যত আছে দুখ
যত আছে ভালবাসা-
সেই ভালবাসা ফিকে হয়ে আসে,
ফুলের গন্ধ ম্লান হয়ে ভাসে,
যত সুন্দর ভরে যায় ত্রাসে,
তুইহীন সব মিথ্যে।
যাব কোথা আমি? অচিনপুরে?
সেতো বাঁধা কোন করুণ সুরে
যাবে সেথা যদি কে যায় যাক না
তোকে ছেড়ে যাক সুখের পাখিরা,
আমি রব হেথা তোরই পাশে পাশে
রাঙ্গাব হৃদয় তোরই সে আকাশে
তোকে ছেড়ে দূরে?
অচিনপুরে?
তুইহীন সে তো মিথ্যে।

২,২৫৯ বার দেখা হয়েছে

৩১ টি মন্তব্য : “অচিনপুর (ছড়া ভার্সন)”

  1. তৌহিদ (৯৫-০১)

    লেখাটা পরে কলেজের বাংলা পরিক্ষার কথা মনে পরে গেল " আলোচ্য লাইনটি বাংলা সাহিত্যের বিশিষ্ট কবি বেগম সামিয়া.........এখানে কবি অত্তন্ত সুন্দর ভাবে আমাদের ফুল , জোনাকি , লতাপাতা এবং পরিরা কিভাবে মিলে মিশে অচিনপুর নামক দেশে খেলাধুলা করেন ..." 😀 😀 😀 :))
    নোটঃ আমি কোবতে ঠিক বুঝিনা , তয় লেখাটা নিস্চই ভালো হইছে , একেবারে পেপসি ( yeh dil mange more )

    জবাব দিন
  2. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    এত সুন্দর একটা কবিতা,
    তার উপর কবিতার মধ্যে সবুজ পাতা, ফুল...এই সব শব্দ আছে... 😀
    জেসিসি'র একজন হয়ে আমি এই কবিতার কোন ব্যবচ্ছেদ করতে পারব না... ;;)


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  3. শার্লী (১৯৯৯-২০০৫)

    এই কবিতার পোস্ট মর্টেম রিপোর্ট করে পাওয়া গিয়েছে যে ইহা একটি অত্যধিক উচু মর্গের কবিতা যার অর্থোন্মচন করা আর শব্দ প্রয়োগ করে নিশ্বব্দের ব্যাখ্যা দেয়া সমান কথা। তাই ভাষার অপ্রয়োজনীয় প্রয়োগ না করে আমি কবিতাটা আরো কয়েকবার পড়ে শুধু এর রসাস্বাদন করতে চাই। :boss: :-B

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।