আজকে রেজাল্ট ছিলো

আজকে এস.এস.সির রেজাল্ট দিয়েছে। প্রতিবছর এইদিনটাতে আমি অতি উদ্বিগ্ন মুখ নিয়ে টিভির সামনে বসে থাকি, বেশির ভাগ সময়ই আমার আত্মীয় স্বজন কেউ থাকে না পরীক্ষার্থীর মাঝে, থাকে এমজিসিসির কয়েকজন বাচ্চা পুলাপাইন।
এবার এমজিসিসির সবাই জিপিএ ফাইভ, সব্বাই।
চোখে পানি চলে আসলো। একদম ঝরঝর করে পানি চলে আসলো।
টিভিতে দেখা গেলো কয়েকটা মেয়ে ইয়েল দিচ্ছে, চেনা মুখ পেলাম না কোন, কি আশ্চর্য! বেশি দিন তো হয়নি কলেজ ছেড়ে আসছি!
শুধু এমজিসিসি না, কুমিল্লা আর মির্জাপুরেরও সম্ভবত সবাই এ প্লাস। আরও কোন কোন কলেজে জানি সবাই এ প্লাস, আমি ঠিক জানিনা।
জিপিএ ফাইভের যৌক্তিকতা, কিংবা পড়াশোনার সিস্টেম-সব কিছু সম্বন্ধে তর্ক ছাপিয়ে আমার এখন আনন্দ হচ্ছে।
অনেক আনন্দ হচ্ছে, অনেক অনেক অনেক।

২,৮০৯ বার দেখা হয়েছে

৩৯ টি মন্তব্য : “আজকে রেজাল্ট ছিলো”

  1. নওরীন (৯৪-০০)

    কলেজের খবরটা তোমার কাছ থেকেই পেলাম। যদিও আমি এই জিপিএ ৫, এ প্লাস...এসবের কোনো অর্থই বুঝিনা। আমার কাযিনদের মধ্যে কেও এস,এস,সি বা এইচ,এস,সি বয়সি নাই। সবাই অনেক বড়। নয়ত অনেক পিচ্চি। আর এই সিস্টেম টা শুরু হইছে ামি বাইরে আসার পর।
    তাই বুঝিইনা।কেউ যদি এই মূর্খ রে ইট্টু বুঝায় দিতো। কৃতজ্ঞ থাকতাম!

    জবাব দিন
  2. আমার এসএসসি ছিল ১৯৭৮ আর এইচএসসি ১৯৮০ তে। তেব এখনো পাবলিক পরীক্ষার রেজাল্ট হলে প্রথমে ফৌজদারহাট,পরে অন্য সিসির রেজাল্ট আগে দেখি। ভালো হলে বুক ফুলিয়ে অন্যদের বলি, খারাপ হলে চেপে যাই।

    জবাব দিন
  3. samia???....obostha ki tor ??? chinte parsis ???? It's Asif(MCC)....khobor ki tor ?? khub dekhi blogging kortesis .... SCAFE er kotha mone ase ??? hehehehe.....Koththin obostha chilo tore nia amar !!! valo thakis...ami regular ashi na ei site e...(though it's creators are ma own classmates)...time pai na...baal er job kori to..bujhis e to....take care dost

    জবাব দিন
  4. সামিয়া (৯৯-০৫)

    কেমন আছিস রে দোস্ত? স্ক্যাফের কথা ভুলবো কেমনে দোস্ত, কি বললি এইটা। কয়েকদিন আগে স্যাররে ফোন দিসিলাম, খুব করে বললেন বাসায় যেতে। টাইম পাইলে যাস স্যারকে দেখতে, স্যারের কথা শুনছিস নিশ্চুই। আমরা গেলে খুব খুশি হন।
    তুই কোথায় আছিস এখন?
    take care.

    জবাব দিন
  5. আশিক (১৯৯৬-২০০২)

    আজকাল সবখান থেকে এত বেশি এ+ পায় যে ক্যাডেটদের কে আলাদা করে চেনা যায়না অতটা।

    আগে স্ট্যান্ডের যুগে ক্যাডেট কলেজ গুলি থেকে এভারেজে ১০ থেকে ২০ জন স্ট্যান্ড করতো...খবরের কাগজ খুল্লেই মন ভালো হয়ে যেত... 😀

    আমাদের আগের ব্যাচ মির্জাপুরের ৩৩তম দের সময় ঢাকাবোর্ডে এসএসসিতে সায়েন্স থেকে ফার্স্ট+সেকেন্ড,আর্টস থেকে ফার্স্ট হলো... 😮 গর্বে আমাদের পা মাটিতে পরা বন্ধ হয়ে গেলো!! :))

    বরিশাল...রাজশাহী ওরা রেগুলার এরকম রেজাল্টই করতো কিন্তু ঢাকাবোর্ডে থাকায় আমরা আর গার্লসরা পারতাম না অত আমাদের সময়... 😛

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।