বিদেশফেরৎ একজন অশিক্ষিত…

নিজেকে হারাতে কেমন লাগে মানুষের? তাও বারবার সে যদি ভুলে যায় আসলে সে কি ছিল, কিংবা সে কি চেয়েছিল যখন সে ছোট্ট রাজকন্যা ছিল, তার ছোট্ট বাসাটাই তার রাজত্ব ছিল। তারপর একদিন এক রাজপুত্তুর এসে নিয়ে যাওয়ার মতন করে গোটা জগৎটা তাকে হুড়ুম করে নিয়ে গেল তার রাজত্বের বাইরে…সে দেখলো ছোট্ট মুখ হাঁ করে, কি আজব, কত নতুন নতুন সমস্যা, কত নতুন নতুন তার সমাধান, রাজকন্যে হন্যে হয় না, মজা পায়। মানুষ দেখে, মানুষে দেখে, মানুষ দেখে। তার রাজত্বে ছিল সব সুখী সুখী মানুষ…কিন্তু তার রাজত্ব তো আসলে কিছু নয়, চারপাশের মানুষেরা দেখা যায় অনেক অনেক দুঃখী। এক বুড়ো কবি বলে গেছেন,

সবার দুঃখ দূর না হলে পরে
আনন্দ তার আপনারি ভার বইবে কেমন করে?

রাজকন্যে ভাবে আর হাসে, হাসে আর ভাবে। ভাবতে ভাবতে তার সুতোর বল গড়িয়ে যায়, আর রাজকন্যে যায় পথ ভুলে। তারপর ঘুমাতে ঘুমাতে ঘুমাতে ঘুমাতে একসময় সুতোর বল নিজেই এসে হাজির, রাগারাগি করে সে রাজকন্যেকে দেয় এক ধাক্কা। রাজকন্যে হন্তদন্ত হয়ে উঠে আবার চলা শুরু করে।

এই পথ চলতে গিয়ে কতবার যে সে দুষ্ট জাদূর বুড়ির মন্ত্রে ঘুমিয়ে পড়লো, তার ইয়ত্তা নেই। ঘুম থেকে উঠেই সে খানিক্ষণ সুতোর বলের বকাবকি হজম ক্রএ, তারপর আবার পথ চলে।

……………………………………………………………………………………………………………………………………

খিলগাঁতে ছিলাম একটা কাজে, হঠাৎ রায়হানের আর্ত কন্ঠের ফোন, রাব্বী ভাই আসছে। আমি খুশি হবো নাকি অবাক হবো না বুঝতে পেরে জিজ্ঞাস করলাম ‘কেমনে?’। সে বললো, আমিও ঠিক জানিনা, উনিই ফোন দিছে, দিয়ে আমাকে কি কি সব উলটা পালটা বলতেছে…

এইবার ওর আর্ত কন্ঠের কারণ বুঝলাম, লাভবী ভাই বেচারার মাথা জ্যাম করে দিসে। আমি কোন কথা না বলে খিলগাও থেকে দৌড়াতে দৌড়াতে কার্জন হলে চলে আসলাম। পথে অনেক কিছু কলপনা করতে করতে আস্তেসিলাম, লাভবী ভাই দেখতে কেমন হবে, উনার মত মানুষের সাথে আমি কি কথা বলবো…উনি যেই জ্ঞানী মানুষ, আমার সারাজীবনের সখ উনার মত হবো…হাবিজাবি, এসে দেখি চুলের সমান চিকন জিহাদের সাথে পেটমোটা এক হাস্যজ্জ্বল মানুষ ঘুরে বেড়াচ্ছে। রাব্বী ভাইয়ের ব্লগ পড়ে পড়ে আমার ধারণা ছিল উনি মানুষটা মাঝারী সাইজের ছিমছাম স্বাস্থ্যের চুলগুলা আর্মি অফিসারের মত ছাঁটা একটা মানুষ, যার চোখে চশমা নাই। কিন্তু জিহাদের পাশের মানুষটা বড় সাইজের, কবি কবি চেহারা বড় চুলওয়ালা, যার চোখে আবার চশমা। আমাকে মেনেই নিতে হলো এটা রাব্বী ভাই।

তখনকার দেখা খুব বেশি না, দশ পনের মিনিট। কিন্তু রাব্বী ভাইয়ের সম্বন্ধে আমার ধারণ ভেঙ্গে চুরে চুরমার হয়ে গেল। আমার ধারণা ছিল উনার সামনে আমি বেশি কথা বলতে পারবো না, উনি জ্ঞানী জ্ঞানী কথা বলবে আর আমি মুখ কাচুমাচু করে ওগুলা বুঝার চেষ্টা করব। কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে আমি পকপক করলাম সবচেয়ে বেশি।

এর পরে সরমা হাউস…একটা জমজমাট আড্ডা হলো, রাব্বী ভাইয়ের কাছ থেকে শোনা হলো অনেক অনেক কাহিনী। এই যেমন, আচ্ছা থাক, উনিই বলুক :D. তারচেয়ে বরং আমি কয়েকটা ছবি দেই।

সব্বাই গল্প করতেসে, আন্দা ভাইয়ের পোজ দিতেই হবে…


জুনা ভাই ইন একশন


সুন্দরী পরাক্রমী জুনা ভাই


সুন্দরী পরাক্রমী ২


মনোযোগী শ্রোতা


সরমা হাউজে বিশাল খাওয়াদাওয়ার পর

রাব্বী ভাইয়ের নাম শুনে মাছির মত আমরা সকলে ভিড় করসিলাম…বিশিষ্ট রিপোর্টার যাঁকে বাত্তি দিয়ে খুজেও পাওয়া যায়না তিনি শুদ্ধা চলে আসলেন, এমনকি বিশিষ্ট অমাবস্যার চাঁদ ব্যাচেলর রাশুও…অলওয়েজ গুড পারফর্মার আন্দা ভাই তো আছেই, তাছাড়াও আমরা বাচ্চালোগ :D. বিশাল খাওয়াদাওয়া হয়েছিল কিন্তু সত্যি। 😀 😀

এরপর রাব্বী ভাইয়া হুট করেই যে চলে যাবে এইটা তো আমি বুঝিনাই। যাওয়ার আগের দিন ফোন্দিলেন, অনেক অনেকক্ষণ কথা বললেন, নিজের বিষয় তো বটেই, আমার বিষয় সুদ্ধা নিয়ে অনেক জ্ঞানী জ্ঞানী কথা বললেন, এবং প্রচন্ড প্যাশন নিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করলেন আমি যা ভাবি তা আসলে ঠিক না, উনি মোটেও জ্ঞানী না। আমি মাথা নেড়ে উনার সাথে সম্মতি প্রকাশ করলাম, এবং মনে মনে চিন্তা করলাম, ইয়াল্লাহ, আমাকে রাব্বী ভাইয়ের মত অশিক্ষিত করে দাও।

২,৪১৬ বার দেখা হয়েছে

৩৭ টি মন্তব্য : “বিদেশফেরৎ একজন অশিক্ষিত…”

  1. রকিব (০১-০৭)

    এইসব আজাইরা ছবি টবি দিয়া এইসব পোষ্টের মানে কী!!! এমনে আড্ডাবাজি কইরা আপনেরা আর দেশটারে আগাইতে দিলেন না x-( x-( :((

    আমি কইলাম আবার এই অশিক্ষিত লুকটার শিষ্য; খারাপ কিছু কইলে বিচার দিমু।

    অফটপিকঃ এই লুকটারে যাওয়া এবং আসা দুই দিনই আমি বিয়াফক পেইন দিছি। 🙁


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  2. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    মুষ্টিমেয় কিছু সুবিধাভোগী মানুষের গোপন আড্ডা ও খানাপিনার আয়োজন এবং তার সচিত্র প্রচারনার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিতদের গাত্রদাহ সৃষ্টি করার এই অপচেষ্টাকে কইষা মাইনাস x-(


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  3. রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

    এইরকম আড্ডাবাজি করতে আর সরমা হাউজের চারপাশ থেকে মেয়োনেজ গড়ায়ে পড়া বিফ সরমা খাইতে মঞ্চায় 😛 কতদিন খাই না 🙁 :((


    আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
    ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
    ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
    সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
    ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
    আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

    জবাব দিন
  4. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    ইস রাব্বীভাইয়ের সাথে আড্ডা দেয়া হইলো না।
    কিন্তু পোস্টের টাইম জুন কেন\?? কেম্নে কি?? ~x( ~x(

    ইয়াল্লাহ, আমাকে রাব্বী ভাইয়ের মত অশিক্ষিত করে দাও।

    সবার মত আমিও দুআ করে গেলাম।

    জবাব দিন
  5. নাজমুল (০২-০৮)

    মুষ্টিমেয় কিছু সুবিধাভোগী মানুষের গোপন আড্ডা ও খানাপিনার আয়োজন এবং তার সচিত্র প্রচারনার মাধ্যমে সুবিধাবঞ্চিতদের গাত্রদাহ সৃষ্টি করার এই অপচেষ্টাকে কইষা মাইনাস x-(

    জবাব দিন
  6. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    এই লেখাটা পড়তে পড়তে আমি আর আমার ছোট ভাই ভাবতেছিলাম সবাই এত মজায় আছে আমাদের মজা নাই কেন।
    খুবই সুন্দর একটা লেখা। গেট টুগেদার আড্ডাবাজির কথাটাই কি সুন্দর করে লেখলা। তোমরা যে কেন এত কম কম লেখ।

    জবাব দিন
  7. তাইফুর (৯২-৯৮)

    যিনি জানেন ... তিনিই তো জানোয়ার ...

    জানোয়ারটা ক্লাস্মেট কাউরে ফোন দিলেও দিতে পারত ...


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  8. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    এইরকম নাদুস-নুদুস মিস্টিমতো ছেলেটাকে তুমি জানোয়ার বলতে পারলা কালাকুর্তা?

    সবগুলা পরের দিন আইসিডিডিআরবিতে রিপোর্ট করছিলো বইল্যা খবর পাইছি........ :grr: :grr: :grr:


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।