বিক্ষিপ্ত ভাবনা – ২

০. আজ হয়তো হাসপাতালে আমার শেষ রাত। গত সাতদিন ধরে ৪ নম্বর রুমের বিছানাটার সাথে আমার যে বোঝাপড়ার সম্পর্ক তৈরী হয়েছে সে সম্পর্কে আজ মনে হয় ফাঁটল ধরলো। আজ বিছানায় শুয়ে বা গড়াগড়ি করে মোটেও শান্তি পাচ্ছি না। এই অতি কৃত্রিম বিলাসী জড় বস্তুটি বোধ করি বুঝতে পেরেছে যে কাল থেকে তাকে অত্যাচার করার আর কেউ থাকছে না। মাত্র সাতদিন হাসপাতালে থেকেই আমার যে অবস্থা হয়েছে, আমি তো রীতিমত চিন্তায় পড়ে গেছি তাদের কথা ভেবে যারা দিনের পর দিন হাসপাতালে কাটাচ্ছে। আল্লাহর কাছে সবার সুস্থ্যতা কামনা করছি।

১. হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলাম মহামান্য এনোফিলিস জাতীয় স্ত্রী মশার কাছে ধরাশায়ী হয়ে। ডাক্তার প্রথমে ভেবেছিল ভাইরাল ফিবার, কিন্তু ৫ দিন পরেও যখন জ্বর কমে না তখন টেষ্টে ধরা পড়লো ম্যালেরিয়া। সাথে সাথে ভর্তি হয়ে গেলাম আর শুরু হল ভয়ঙ্কর জেসোকুইনের ডোজ। এটা যে কেমন ভয়ঙ্কর হতে পারে সেটা বোঝার আগেই মনে পড়ে গেল সৈয়দ মুজতবা আলীর কথা, “ম্যালেরিয়া সারাবে কুইনাইন, কিন্তু কুইনাইন সারাবে কে?” যাই হোক, যতটা কঠিন ভেবেছিলাম ঠিক ততোটা কঠিন হয়নি। প্রথম ২-৩ দিন একটা ঘোরের মধ্যে কাটলেও শেষের কয়েকটা দিন বেশ ভালই কেটেছে। টিভি রুমে বসে টিভি দেখা, বিছানায় শুয়ে থাকা, লনের মধ্যে পায়চারী করা, মাঝে মাঝে সিসিবি পড়া আর খাওয়ার সময় হাসপাতালের বিরক্তিকর খাবারগুলোর চৌদ্দগুষ্ঠী উদ্ধার করতে করতে খাওয়া, এই হল আমার সারাদিনের কাজ। কতদিন পর এমন শান্তিতে দিন কাটালাম সেটা হিসাব করে বের করা যাবে না। কাজের মধ্যে সবচেয়ে বড় কাজ আমি যেটা করেছি সেটা হচ্ছে ভারত-শ্রীলঙ্কার প্রথম টেষ্টের পুরাটায় বসে বসে দেখেছি, প্রিমিয়ার লীগের কয়েকটা খেলাও দেখলাম, সাউথ আফ্রিকা-ইংল্যান্ডের টি২০ সিরিজ আর ২য় ওয়ানডেটাও দেখলাম। টি২০ ম্যাচ দুটো দেখে যতটা না মজা পেয়েছি ঠিক ততটায় বিরক্ত হয়েছি ওয়ানডে ম্যাচটা দেখে।

২. কাজের ব্যস্ততার কারনে আসলে অনেকদিন টিভি দেখা হয়না। অনেকদিন পর এবার টিভি দেখার সুযোগ পেয়ে বেশ ভালই লাগছিল। বাংলাদেশের চ্যানেলগুলোতে নতুন নতুন বেশ ভাল এ্যাড এসেছে। একটা এ্যাডে দেখলাম একটা ছেলে গাছ হওয়ার চেষ্টা করছে, দেখে ভালই লাগলো …… দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তবে খারাপ লাগার বিষয়ও আছে। আমাদের দেশের নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ডক্টর ইউনুসকে যখন বিজ্ঞাপনের মডেল হিসাবে একটি কোম্পানির গুনগান করতে দেখি তখন কষ্টই লাগে। আমি মনে করি তার মত আর্থনীতিবিদ যা বলবে সেটা হবে আমাদের জন্য অনেকটা চিরন্তনীর মত, ভবিষ্যতে আমাদের কোন রচনা অথবা লেখায় আমরা উদ্ধৃতি দিব যে নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ডক্টর ইউনুস বলেছেন, “… …”। সেই অর্থনীতিবিদের উক্তি যদি ঠুনকো টাকার বিনিময়ে একটা কোম্পানির কাছে বিক্রি হয়ে যায় তবে তা আমাদের জাতীর জন্য অবশ্যই লজ্জ্বাজনক।

৩. ম্যালেরিয়া চলে গেলেও যাওয়ার আগে আমাকে চরমভাবে দুর্বল বানিয়ে গেছে। বেশিক্ষন ল্যাপটপের সামনে বসে থাকলেই মাথা ঝিমঝিম করে। আর লিখতে ইচ্ছা করছে না। কাল হাসপাতাল থেকে ইনশাল্লাহ ছাড়া পাচ্ছি। ঈদের ছুটিতে বাড়িতে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। সবাই দোয়া করেন যেন সময়মত বাড়ি যেতে পারি। আর হ্যাঁ, চাকুরীর অত্যাবশ্যকীয় কারনে সিসিবির জন্মদিনের গেটটুগেদারে মনে হয় যোগ দিতে পারবো না-ক্ষমা প্রার্থী।

১,৯৪৯ বার দেখা হয়েছে

৩০ টি মন্তব্য : “বিক্ষিপ্ত ভাবনা – ২”

  1. তৌফিক (৯৬-০২)
    আর হ্যাঁ, চাকুরীর অত্যাবশ্যকীয় কারনে সিসিবির জন্মদিনের গেটটুগেদারে মনে হয় যোগ দিতে পারবো না-ক্ষমা প্রার্থী।

    ক্ষমা করা যায় এক শর্তে, চান্দাটা পাঠায়ে দিস। আমি তোর হয়ে খেয়ে নেবে নো। 😉

    জবাব দিন
  2. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)
    অর্থনীতিবিদের উক্তি যদি ঠুনকো টাকার বিনিময়ে একটা কোম্পানির কাছে বিক্রি হয়ে যায়...

    অর্থনীতি পইড়া এমন যদি না করে...কেম্নে কি?? 😀


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  3. দিহান আহসান

    আগাম ঈদ মোবারক 🙂
    দোয়া করি সময়মত বাড়ি যাতে যেতে পারো,
    ভালো থেকো। 🙂

    আর হ্যা, মন খারাপ করোনা ভাইয়া। সিসিবি'র গেট টুগেদারে আমিও আসতে পারছিনা,
    ইনশাল্লাহ পরের বার। 🙂

    জবাব দিন
  4. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    তাড়াতাড়ি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠে আপনজনদের সাথে আনন্দময় ঈদ কাটুক, এই কামনা করি। আমাদের অনেকের কপালেতো সেটিই জুটছেনা 🙁

    আর সিসিবি গেট টুগেদারে আসতে পারছিসনা একদিক দিয়ে ভালোই হলো, কারণ, এবার আইন পাশ হলো, ৯২ এর পরের ব্যাচগুলোর সবাই পালাক্রমে লঙ্গাপ হয়ে থাকবে পুরো টাইম :grr: :grr:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  5. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    শক্তি তো গ্রামীনের অঙ্গ-প্রতিস্টান, ডানোন এবং গ্রামীন মিলে করেছে, যতটুকু মনে পড়ে।

    তাই এই এড করতে প্রফেসর ইউনূস টাকা নেননি এটা আন্দাজ করি। 🙂


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।