মাস্ফ্যুবাবুর প্রত্যাবর্তন

১) ফেসবুকে আমার ইনবক্সে রকিব্বার মেসেজ দেখে ভাবলাম বাহ! ছেলেটা আমাকে আলাদা করে লেখা দিতে বলেছে! কিন্তু ফয়েজ ভাইয়ের স্ট্যাটাসের পরিপ্রেক্ষিতে[উনার স্ট্যাটাস পড়ে ভেবেছিলাম সিসিবিতে আগুন লেগেছে বা এই টাইপ কিছু] এসে বুঝলাম যে বদটা সবাইকে হুবহু একই মেসেজ পাঠিয়েছে!ঠিক করেছি বেটা এবার দেশে আসার সাথে সাথে ওকে এয়ারপোর্ট থেকেই লাল দালানে চালান করে দিবো!

২) “প্রথম রাত-সারদাতে” নামে এক বছরেরও বেশি সময় আগে সিসিবিতে শেষ ব্লগ লিখেছিলাম।এরপর কেটে গেছে অনেক সময়,বেসিক ট্রেনিং শেষ করে আমি এখন চুয়াডাঙ্গায় বাস্তব প্রশিক্ষণে নিয়োজিত।আর অল্প কিছুদিনের মধ্যেই ক্রাইম ফাইটিং এর ভয়ঙ্কর জগতে সরাসরি প্রবেশ করতে যাচ্ছি।এই সময়ে পরিবর্তিত হয়েছে অনেক কিছুই,যাদের থাকার কথা ছিলো তারা অনেকেই চলে গিয়েছে-আবার অভূতপূর্বভাবে নতুন মানুষের আগমন ঘটেছে।কিন্তু কমেনি সিসিবির প্রতি ভালোবাসা,তাই পুরোন দিনের সব্বাইকে একসাথে দেখে আর দেরি না করে চলে এলাম[জুনাদার ভাষায় আমার দুই ফোঁটা যোগ করতে]।

৩) পুলিশের চাকুরির ভালো-খারাপ নানান দিক আছে,কিন্তু আমি ব্যক্তিগতভাবে যে জিনিসটি খুব পছন্দ করি সেটি হচ্ছে এর বিচিত্রতা।এখানে দুটি দিন কখনোই এক নয়-প্রথম দুমাস থানায় অবস্থান করে একেক দিন একেক বিচিত্র অভিজ্ঞতার সম্মুক্ষীণ হতে হচ্ছে।সমাজের একেবারেই অবহেলিত,দরিদ্র অংশের সুখ দুঃখের সঙ্গী হতে পারছি-এটাও আমার কাছে অনেক বড় একটি প্রাপ্তি বলে মনে হয়।আমি যখন দেড়শ টাকা দিয়ে নর্থ সাউথ বনানী ক্যাম্পাসের বুমার্সে সেট মেনু লাঞ্চ করেছি-তখন কি ভাবতে পেরেছিলাম যে মাত্র একশ টাকার জন্যে আত্মহত্যা করা একুশ বছরের তরুনীর মৃতদেহের রিপোর্ট আমাকে তৈরি করতে হবে!

৪) বর্তমানে আমি অবস্থান করছি দামুড়হুদা মডেল পুলিশ স্টেশনে।নাম যতই বিদঘুটে হোক,ইউএনডিপির অর্থায়নে করা এই থানাটি সুযোগ সুবিধার দিক দিয়ে আমেরিকান পুলিশ স্টেশনগুলোর চাইতে কোন অংশে কম নয়।চাকুরি জীবনের শুরুতেই এরকম একটি জায়গায় কাজ করতে পারাটা আমার জন্যে খুব সৌভাগ্যের বলেই আমি মনে করি।সবার কাছে বিনীত অনুরোধ করছি-আমি যেন আপনাদের করের অর্থে যে সুযোগ সুবিধাগুলো পাচ্ছি তার যোগ্য হতে পারি-আমার জন্যে এই প্রার্থনা করবেন।

৫)সবশেষে দামুডহুদা থানার এবং সেখানে আমার একটা “ভাব সহকারে তোলা”-এই দুটি ছবি দিয়ে শেষ করছি, ধৃষ্টতা নিজ গুনে মাপ করে দেবেন!

আপনাদের মাস্ফ্যু!

সিসিবিকে বহুদিন এরকম জমে উঠতে দেখিনি।সবাইকে শুভেচ্ছা!

৪,২২১ বার দেখা হয়েছে

৮৯ টি মন্তব্য : “মাস্ফ্যুবাবুর প্রত্যাবর্তন”

  1. রেজওয়ান (৯৯-০৫)

    মিনিমাম ২৫ বার রিলোড মাইরা ...জিপি'র নেট এর গুষ্টি উদ্ধার কইরা....দাঁত এ দাঁত চিপ্পা....কমেন্ট লেইখা কপিপেষ্ট কইরা.....মাউসের বাটন টিপতে টিপতে ভাঙ্গার দশা কইরা.....১২ জন অনলাইলার কে পিছনে ফেলে......অবশেষে পাইলাম ইহাকে পাইলাম.......ইটা ইটা ইটা 😀 :brick:

    জবাব দিন
  2. রাব্বী (৯২-৯৮)

    দামুড়হুদার কপস দেখি ব্যাপক ইয়ো!

    যে যাই বলুক, আসল কথা হলো:

    আমি যখন দেড়শ টাকা দিয়ে নর্থ সাউথ বনানী ক্যাম্পাসের বুমার্সে সেট মেনু লাঞ্চ করেছি-তখন কি ভাবতে পেরেছিলাম যে মাত্র একশ টাকার জন্যে আত্মহত্যা করা একুশ বছরের তরুনীর মৃতদেহের রিপোর্ট আমাকে তৈরি করতে হবে!

    ভাল থাকিস।


    আমার বন্ধুয়া বিহনে

    জবাব দিন
  3. জিহাদ (৯৯-০৫)

    মাস্ফূদা, আপনি আপনার পুলিশ জীবনের অভিজ্ঞতা নিয়ে রেগুলার একটা দিনলিপি সিরিজ শুরু করেন। দারুণ হবে। আর চুয়াডাঙা যাইতে মঞ্চায়


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  4. গুলশান (১৯৯৯-২০০৫)

    আশা করব, লেখনীতে এমন মানুষদের কথা তুলে আনবেন, যাদের সাথে, যাদের পৃথিবীর সাথে, যাদের দিনরাত্রির সাথে, যাদের চাওয়া-পাওয়ার সাথে আমরা একেবারেই অপরিচিত। দোয়া করি, মানুষের জন্য বন্ধু আর অপরাধীর জন্য ত্রাস হয়ে থাকতে পারেন। বৃক্ষ মাত্রই মানুষের বন্ধু। হয়ত গাছকে মানুষ কষ্ট দেয়। কিন্তু বৃক্ষ তো বৃক্ষই।

    d==(^..^)

    জবাব দিন
  5. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    ওয়ে ওয়ে মাস্ফ্যুদা ইজ ব্যাক 😀 😀 😀
    এখন বাকী আছে তাইফুর মামা, সায়েদ ভাই আর রহমান ভাই 🙁
    এরা আসলেই ষোলকলা পূর্ণ :tuski: :tuski: :tuski:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  6. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    দুই দিন আগে স্বপ্নে দেখি তোর নাম প্রথম আলোর হেড লাইনে আইছে...ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রী স্মাগলিং করে এমন এক বিরাট গ্যাং রে তুই আটকাইছস... :dreamy:

    ভাল থাকিস।


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  7. আজীজ হাসান মুন্না (৯১-৯৭)

    মাশফু,
    খুব ভাল লাগল তোমাকে দেখে।
    আমার মত নীরব পাঠককূল - তোমার লেখা যে কি পরিমান মিস করি!
    আমাদের নিজেদের কেউ একজন দেশ প্রেমিক পুলিশ অফিসার ভাবতেই খুব ভাল লাগে।
    তবে একটা কথা আবেগের অতিশয্যে এমন কিছু শেয়ার করনা যাতে তোমার চাকুরী জীবনে কোন ক্ষতি হয় - হাজার হলেও তুমি এখন আর আগের সেই মুক্ত বিহঙ্গ লাভার বয় মাশফু নও - তুমি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তাও বটে!
    বৃক্ষীয় শুভ কামনা রইল অনেক 🙂

    জবাব দিন
  8. রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

    ইউ এন ডি পি'র থানা (থুক্কু থানা তো বাংলাদেশ পুলিশের) দেইখা একবার যাইতে মঞ্চায় । 😛 আছস কেমন ?


    আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
    ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
    ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
    সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
    ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
    আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

    জবাব দিন
  9. তানভীর (৯৪-০০)

    কিরে মাস্ফ্যু, এত কথা বললি, কিন্তু তোর ওখানে যাওয়ার দাওয়াত তো দিলি না সিসিবিবাসীকে?? আবার বলিস না যে আপনাদের তো দাওয়াত লাগে না, যে কোন সময় আসতে পারেন! 😛

    এখানে প্রতিদিন/ প্রতি সপ্তাহে একটা করে লেখা না হলেও মাসে অন্তত একটা করে লেখা দিস তোর নতুন জীবনের কাহিনী নিয়ে। ফেইসবুকে তোর লেখাগুলো খুব আগ্রহ নিয়ে পড়েছি এবং ভালো লেগেছে। :thumbup:

    জবাব দিন
  10. সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)
    আমি যখন দেড়শ টাকা দিয়ে নর্থ সাউথ বনানী ক্যাম্পাসের বুমার্সে সেট মেনু লাঞ্চ করেছি-তখন কি ভাবতে পেরেছিলাম যে মাত্র একশ টাকার জন্যে আত্মহত্যা করা একুশ বছরের তরুনীর মৃতদেহের রিপোর্ট আমাকে তৈরি করতে হবে

    ছুয়ে গেল...


    You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

    জবাব দিন
  11. সামিয়া (৯৯-০৫)

    জমার জন্য রুটিন উল্টায় পালটায় গেছে, কখন ঘুমাই কখন জাগি ঠিক নাই। সেদিন আপনি ফোন দিলেন, আমি ভাবসি স্বপ্ন দেখসি। খুব খুশি খুশি মন নিয়ে ঘুম থেকে উঠে আপনাকে ফোন দিতে যাবো, দেখি আসলেই আপনি ফোন দিসিলেন।

    আমার যে সেইদিন কি ভাল্লাগসিলো...

    আপনার লেখার ১০০ টাকার জন্য আত্মহত্যা অংশটা পড়ে ধাক্কা খেলাম। এই ঘটনাগুলো নিয়ে কষ্ট করে হলেও একটা সিরিজ করেন, আমরা যারা মানুষের কাছে থাকিনা, কিন্তু মানুষ নিয়ে বড় বড় কথা বলতে আগ্রহী, তারা ধাক্কা খাবো।

    জবাব দিন
  12. সামি হক (৯০-৯৬)

    মাসরুফ তোমার ছবি সেরকম হইসে, পুরাই 'Search the খোঁজ - '২ এর নায়কের মতো লাগছে।

    তোমার যে চোখে যে স্বপ্নটা আছে তা সব সময়ে রংগীন থাকুক। কখনো তা জানি না ভাঙ্গে।

    জবাব দিন
  13. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    আমি যখন দেড়শ টাকা দিয়ে নর্থ সাউথ বনানী ক্যাম্পাসের বুমার্সে সেট মেনু লাঞ্চ করেছি-তখন কি ভাবতে পেরেছিলাম যে মাত্র একশ টাকার জন্যে আত্মহত্যা করা একুশ বছরের তরুনীর মৃতদেহের রিপোর্ট আমাকে তৈরি করতে হবে

    একশ টাকা তো অনেক। ১০ টাকায় সন্তান বিক্রি করে দেয়। নারে কঠিন চাকরী, কঠিন সময়।

    সবার কাছে বিনীত অনুরোধ করছি-আমি যেন আপনাদের করের অর্থে যে সুযোগ সুবিধাগুলো পাচ্ছি তার যোগ্য হতে পারি-আমার জন্যে এই প্রার্থনা করবেন

    অবশ্যই (সম্পাদিত)


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  14. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    তুই নিজেরে বাবু দাবি করে কী বুঝাইতে চাচ্ছিস?

    তোর নতুন লেখার জন্য অপেক্ষায় থাকলাম


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।