জিতুপির জিটুজিঃ মালসিংহীয় পোস্ট(আপডেটেড)

১) এত্ত বড় একটা জিটুজি হইলো আর এখনো কুনো পোস্ট নাই-এর একটাই কারণঃ খাইতে খাইতে এত ক্লান্ত হয়া গেছে যে সব্বাই টানা ঘুম দিতেছে।বেচারা মাস্ফ্যুর ঘাড়ে বরাবরের মত সিসিবির ইঞ্জিন চালু রাখার দায়িত্ব বর্তায়,এইবারো যে তার ব্যত্যয় হবে তার কুনো কারণ নাই ~x(

২) সিসিবির জন্মলগ্ন থেইকা যতগুলা জিটুজি হইছে তার মধ্যে খানাপিনার দিক দিয়া এইটা সবচেয়ে আগায়ে আছে- আপনাদের রেসিডেন্ট ফুড এক্সপার্ট মাস্ফ্যু এইটা বুকে হাত দিয়া বলতে পারে।পোড়া খাসির মাংসের কাচ্চি বিরিয়ানি উইথ ই-ইয়া বিশাল আলুর টুকরা, এ্যারাবিয়ান স্টাইল ম্যারিনেটেড চিকেন, কর্নেল বজলুর রহমানের রেসিপিতে তৈরি তাজিকিস্তানি ভেজিটেবল উইথ ম্যায়োনেস, ফ্রেশ সালাদ, ডেজার্ট হিসেবে শাহী টুকরা, স্পেশাল অরেঞ্জ জ্যাম এ্যান্ড ব্যানানা কাস্টার্ড…আহা,কতদিন এত্ত ভালো খাবার খাইনাই… 😀

৩) জিতুপ্পির বাসার ছবি অনেক সুন্দর,কিন্তু যাঁরা গতকালকে গেছিলেন তারা সবাই জানেন যে সত্যিকারের বাসাটা ছবির চাইতে আর দশগুণ বেশি সুন্দর।ছাদের উপরে বাগান তো আছেই-এমনকি কলাগাছ পর্যন্ত বিদ্যমান! জেসিসির ক্যাডেট হিসেবে এইরূপ মনোরম পরিবেশ আমার অ-নে-ক ভালো লাগছে।আমি আর আন্দাদা জুনাদাকে বড়ই মিস্কর্ছি… 🙁

৪) ইমরান ভাই(৯৩-৯৯) আসার সাথে সাথে রায়হান ডাক দিলো-আরে জোকার ভাই কেমন আছেন??ইমরান ভাই তেড়ে আসতে নিছিলেন, বইনের(সামিয়াপ্পুর) দোহাই দিয়ে অনেক কষ্টে উনাকে থামানো হইছিলো।চলে যাওয়ার সময় জিতুপ্পিকে তুই-তোকারি করছিলেন দেখে আমি জিজ্ঞাসা করলাম,আপনারা কি একই ব্যাচের?? পাশে শওকত ভাই(৭৯-৮৫) আমাদের যাবতীয় কনফিউশন কাটাইতে জোরেশরে ঘোষণা করলেনঃ “ওরা এক ব্যাচের হইলেও এক কলেজের না কিন্তু!” 😮

৫) এই পরথম কুনো জিটুজিতে আপনেদের মাস্ফ্যু তার :just: 😡 সহ আসছিলো। জিতুপির পিচ্চিটা আমাকে দেইখা ভয় পায়-এই কারণে সে আমাকে রূম থেকে তাড়ায়ে দিছে 🙁 জিতুপ্পির বাসা দেখে সে এতই খুশি যে খুব শিগগিরি এইটার উপরে ও যেই পত্রিকায় কাজ করে ওইখানে একটা ফিচার আসিতেছে…

৬) জুম্মার নামাজের সময় ফোন সাইলেন্ট কইরা রাখছিলাম,পরে আর সেইটা ঠিক করতে ভুইলা গেছি।কমান্ডো আহসান ভাই এই কারণে “ব্যাটা ফাজিল, ঠোলা হইয়াই ফোন ধরা ছাইরা দিছোস” বইলা আমাকে ব্যাপক ঝাড়ির উপরে রাখছে সারাক্ষণ :(( পরে নিজেই ক্যাপ্টেন মিশকাত আপুর কাছে ঝাড়ি খেয়ে আমাকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন। স্পেশাল ওয়ারফেয়ার উইং এর সিনিয়র মেজর কমান্ডো আহসানকে জনৈক ক্যাপ্টেনের কাছে ঝাড়ি খেতে দেখে আমি বিমলানন্দ পেয়েছি।ঝাড়ির একটা কারণ ছিলো,এআইউবি তে এমবিএ করার সময় আহসান ভাই নাকি ওইখানের সুন্দরী মেয়েদের কিঞ্চিৎ প্রশংসা করছেন।আর যায় কই,আপুও সঙ্গে সঙ্গে ভর্তি হয়েছেন এবং বর্তনামে যাবতীয় এসাইনমেন্ট আহসান ভাইকে দিয়ে করাচ্ছেন।উল্লেক্ষ্য, মিশকাত আপু আমাদের সিসিবির গণআ্ন্দোলনের সফলতার প্রতীক-তাঁর মাধ্যমেই বছরখানেক আগে সামরিক জান্তা মেজর আহসান সিসিবির প্রবল গণআন্দোলনের মুখে ব্যাচেলর ক্লাবের প্রেসিডেন্ট পদ থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন 😛

৭) বাদশা থুক্কু সাব্বির ভাই(৯৫-০১) জিটুজি চলাকালেই আমাকে এসএমএস দিয়ে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।তিনি যা বলেছেন সেটি হচ্ছেঃ “কি,খুব মজা?রিইউনিয়ন,জিটুজি সব মিস করতেছি।মনটা খারাপ হইয়া গেলো।জিতু আপুকে আমার সালাম দিস,আর বলিস আমার দাওয়াত পাওনা রইলো।সিসিবির সবাইকে আমার শুভেচ্ছা দিস-ইতি তোদের বাদশা ভাই 😀

৮) আর ডজন ডজন কাহিনী বাদ পড়ে গেলো…ছবিসহ সবাই সবার আপডেট দিন শিগগির!!

৯) বিশ্বাস করুন আর না-ই করুন, আমাদের সাথে উগান্ডান আর্মি থেকে জনৈক অফিসার জিটুপ্পির বাসায় এসেছিলো।বেসিক কমান্ডো কোর্স ঠিক আগের দিন শেষ করা আমাদের রেজু পাগলা(৯৯-০৫) জিটুপ্পির বাসায় এলে ওকে যখন “হি ইজ এ্যান অফিসার ফ্রম উগান্ডান আর্মি” বলে পরিচয় করিয়ে দেয়া হল, তখন ওর গায়ের ঘোরতর কৃষ্ণবর্ণ দেখে শুধুমাত্র আন্দালিব ভাই-ই তীব্র দ্বিমত করলেন।তবে তাঁর দ্বিমত ছিলো নিম্নরূপঃ

তোদের উগান্ডা নিয়ে কোন আইডিয়াই নাই,ওদের গায়ের রঙ অনেক ফর্সা।এই ব্যাটা আমি শিউর সুদানিজ/ক্যামেরুন আর্মির 😀

১০) কোন এক অজ্ঞাত কারণে ইমরান ভাই ছবি তুলতে না চাওয়ায় এ্যাডজুটেন্ট মেজর আহসান স্যার তাঁকে বললেন- ছবি তুলবানা মানে??যাও তোমাকে আমার বউয়ের পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তুলার অনুমতি দিলাম।ইমরান ভাইয়ের সপ্রতিভ উত্তর- আহসান ভাই,তার মানে এই না যে ভাবী আপনেকে আইউবির এমবিএ ব্যাচের সুন্দর সুন্দর মেয়েদের সাথে ছবি তুলার অনুমতি দিবেন।

আচ্ছা,এমবিএ করার সময় সুন্দর সুন্দর মেয়েদের দিকে নজর দেয়াটা কি সংক্রামক রোগ? যতদূর জানা যায় এই রোগে ইতোপূর্বে আরেকজন আক্রান্ত হয়েছিলেন যাঁর নাম ফ দিয়ে এবং তিনি এই পোস্টে কমেন্টও করেছেন ;;;

এইবার কয়েকটা ছবিঃ

ব্লগ প্রিন্সিপাল,ব্লগ এ্যাডজুটেন্ট,শওকত ভাই,ইমরান ভাই,মিশকাত ভাবী...আর সর্ব্বামে জিতুপ্পি আর মারজুকাহ

মাইক্রোসফট মরতুজা ভাই,মাল্কোবি, রেজা ভাই...

মরতুজা ভাইয়ের ডানপাশে আর আন্দা ভাইয়ের একজন পরে এই সুদানীজ ক্যাডেটকে কেউ চিনতে পারছেন?

খানাপিনার ছবি দেখলে আপনাদের মন খ্রাপ হবে তাই আপাততঃ এই কয়টাই… 😀

৩,৭৬৯ বার দেখা হয়েছে

৪৩ টি মন্তব্য : “জিতুপির জিটুজিঃ মালসিংহীয় পোস্ট(আপডেটেড)”

  1. সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)

    নুপুদ্দা কিন্তু অনেক বার ফোন করছিলেন, কিন্তু প্লেটে খাবার রিফিল করতে করতে :gulli: দাদার ফোন্টা আর ধরা হয় নাই 🙁
    পরে অবশ্য ম্যাশরা চলে যাবার পর নুপুদ্দার সাথে বাকিদের কথা হয়েছিল।


    You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

    জবাব দিন
  2. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)

    মাস্ফু ঠুলা
    ভয়ংকর পুলা
    কাল :just: পচাইল
    আজ পুরাই ডুবাইল
    ব্লগেও এইটা লিখে দিলি :bash:
    নিজের কপালেই যে শনি ডেকে আনলি :duel: :gulli2:
    হতেই হবে এবার হুশিয়ার
    আমার কবল থেকে রক্ষা নাই আর :chup: :gulti:

    জবাব দিন
  3. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    মাস্ফ্যুরে কইছিলাম খোমাখাতায় ওর নাম্বারটা আমারে পাঠাইতে। ব্যাটা :just: ফ্রেন্ড নিয়ে জিটুজিতে যাইতে এতো ফুর্তিতে ছিলো তাই আমারে নাম্বার পাঠায় নাই। এই জন্য জিটুজিতে ভার্চুয়ালি থাকতে পারলাম না।
    ছবি সহ আপডেটের অপেক্ষায় রইলাম।

    জবাব দিন
  4. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)
    আমি ভূঈ পাঈছি…আবুল্লাভাইয়াজকাল্কবিহৈয়াগেছেঙ্খালিকোবতেলিখতাছেন

    আর কই কবিতা লিখলাম।আর এইটা কবিতা বললে মাল্কবিরা মাইন্ড খাইব।এইটা ত নিপাট একটা ঝারি।পোলাপাইন বিয়াদ্দপ।ঝারিকেও কোবতে মনে করে। :bash: ~x(

    জবাব দিন
  5. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)
    সালাম “কবিরাজ” আব্দুল্লাহ ভাই

    এক্টারে ঝারতে গিয়া আরেক্টার কোপানলে পড়লাম দেখি।
    স্রষ্টাভৃত্য, জুকার ভাই,কবিরাজ :(( :((
    এক্টার পর এক্টা পালক যোগ হচ্ছে আমার মুকুটে :pira: :goragori:
    কি করব বুঝতে পাচ্ছিনা x-(

    জবাব দিন
  6. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    পুরা পোস্টে মালসিংহের অনেক প্রশংসা করছো দেখলাম, তা এই লুক্টা ক্যাডায়? 🙂

    এইরকম লিজেন্ডরে দেখলে জীবন্টা স্বার্থক হইতো। :grr:


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  7. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    মালসিংহীয় পোস্ট বাহূল্য দোষে দুষ্ট হয়েছে... :thumbdown:
    ৮ টি পয়েন্ট দিয়ে নয়টি পোস্ট হতে পারত...(৬ নম্বরটি দুই কিস্তিতে... :-B )


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  8. তানজিনা মেহেদী অমী (অতিথি)
    জিতুপ্পির বাসার ছবি অনেক সুন্দর,কিন্তু যাঁরা গতকালকে গেছিলেন তারা সবাই জানেন যে সত্যিকারের বাসাটা ছবির চাইতে আর দশগুণ বেশি সুন্দর।ছাদের উপরে বাগান তো আছেই-এমনকি কলাগাছ পর্যন্ত বিদ্যমান! জেসিসির ক্যাডেট হিসেবে এইরূপ মনোরম পরিবেশ আমার অ-নে-ক ভালো লাগছে।আমি আর আন্দাদা জুনাদাকে বড়ই মিস্কর্ছি… 🙁

    ব্যাটা ঠোলা, তুই আমারে সপরিবারে মিস্করিস্নাই দেইখ্যাই আমি কাল তোরে :duel:

    জবাব দিন
  9. আহমেদ

    মনটা খারাপ হইয়া গেলো। মজার টাইমটা মিস্‌ করলাম। অনেক অনেক ভালা ভালা খানাদানাও মিস্‌ করলাম। তারচেয়ে দুঃখজনক হইলো, দুপুরে ব্যস্ত থাকুম বিধায় জিটুজির দিন সকালেই জিতুপির বাসায় হাজিরা দিতে গেছিলাম। মনে ক্ষীণ আশা ছিলো, কিছু খানাদানা যদি আগেই রেডী হইয়া যায়, তাইলে চাইখা দেখতে পারুম। আশা হইলো সত্যি, মজার খানা পাওয়া গেল। কিন্তু বিধিই বাম... জনৈক ফাজিল খাওয়ার আগেই প্লেটটা ফালায় ভাংছে ~x(

    জবাব দিন
  10. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    প্রথমেই এই পোস্টকে মালসিংহীয় পোস্ট দাবী করে মালসিংহীয় পোস্ট এর মানহানী করায় মাস্ফ্যুর ব্যান চাই। আর যা বুঝলাম জিটুজি মোটেই ভাল হয় নাই, পোস্ট আর কমেন্টের সংখ্যাই তা প্রমান করে :-B

    অনটপিকঃ এই জিটুজি (+খাওয়া দাওয়া) মিস করার শোক এখনো কাটায়া উঠতে পারি নাই 🙁


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।