কমান্ডো-কথন

মানব চরিত্র অসংখ্য বৈপরীত্যের সমন্বয়,একে বোঝা আসলেই অনেকটা অসম্ভবের পর্যায়ে পড়ে।আমার এই সাড়ে পঁচিশ বছর বয়েসের ক্ষুদ্র মানব জীবনে অনেক রকমের মানুষের মুখোমুখি হয়েছি।এঁদের কেউ কেউ এমন দাগ কেটেছেন যে কোনভাবেই ভোলা সম্ভব নয়।

২১ ডিসেম্বর, ২০০৮ সাল-আমার ২৩ তম জন্মদিন। নর্থ সাউথের বান্ধবী শাপলাকে নিয়ে বুমার্সে মধ্যাহ্নভোজ করছি।হঠাৎ অদ্ভুত একটা এসএমএস এল-“পাগলা, শুভ জন্মদিন-আমি এখন আকাশে ঝুলছি- আর আকাশ থেকেই তোকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।”

একটু অবাক হলাম! আকাশ থেকে শুভেচ্ছা মানে??!!! অনেক চিন্তা করে বের করলাম, যে মানুষটি আমাকে শুভেচ্ছা জানালেন তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দুর্ধর্ষতম কমান্ডো ইউনিটের একজন প্রশিক্ষক।শিক্ষানবিস কমান্ডোদের প্যারা জাম্পিং শেখানোর সময় তাঁর নিজেকেও প্যারাসুটে করে জাম্প করতে হচ্ছে-আর সেই অবস্থাতেই আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তিনি।

প্যারাজাম্পিং সম্পর্কে নূন্যতম জ্ঞান আছে এমন ব্যক্তি মাত্রই জানেন কতটা বিপজ্জনক এই কাজটি।মাসুদ রানা পড়ার সুবাদে আমিও জানি-যত হাজারটা প্যারাজাম্পের অভিজ্ঞতাই থাকুক না কেন-এভরি জাম্প ইজ আ ভার্জিন জাম্প,প্রত্যেকটা জাম্পেই শতভাগ জীবনের ঝুঁকি রয়েই যায়।

আমি জানি আমার এই ভাইটি মাল্টি-মিলিওনিয়ার নন, ছোট ভাইয়ের জন্মদিনে সর্বশেষ মডেলের বিএমডাব্লু কিনে দেবার ক্ষমতা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অসম্ভব সৎ আর চৌকষ এই অফিসারটি রাখেন না।কিন্তু তিনি আমাকে যা দিয়েছেন সেটা দেবার ক্ষমতা বিল গেটসেরও নেই- এ আমি বাজি ধরে বলতে পারি।প্রতিটি প্যারাজাম্পের সময় মানুষ জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকে– এরকম সময়ে আমার এই ভাই আমার মত তুচ্ছাতিতুচ্ছ একজনের জন্মদিনের কথা মনে রেখেছেন,পকেট থেকে মোবাইল ফোন বের করে আকাশে ঝুলন্ত অবস্থাতেই শুভেচ্ছাবানী পাঠিয়েছেন।

আমার জীবনে পাওয়া সর্বশ্রেষ্ঠ জন্মদিনের উপহারগুলোর একটি হিসেবে আমি এই এসএমএসটিকে রাখি।কতটা স্নেহ বুকে ধরলে প্যারাজাম্পরত অবস্থাতেও একজন মানুষ আমাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে পারে এটা কল্পনা করার ক্ষমতাও বোধহয় আমার নেই।

চারিত্রিক বৈপরীত্যের কথা বলছিলাম যে কারণে সে কথায় ফিরে আসি।স্বীকার করতে কিছুটা বিব্রত হচ্ছি,আমি মানুষটা একটু আবেগ-প্রবণ।কারনে অকারনে প্রায়শঃই আমার মন আর্দ্র হয়ে ওঠে,কখনও কখনও সেই আর্দ্রতা মনের গণ্ডি ছাড়িয়ে চোখের পানিতেও প্রকাশ পায়।আমি একজন অতি সাধারণ মানুষ,আমার আবেগ থাকা না থাকায় যদিও জগতের কিছু যায় আসে না,তার পরেও নিজের এই আবেগ নিয়ে শঙ্কিত থাকতাম।কারণ আর কিছুই না,গুরুজনেরা প্রায়ই বলে থাকেন এই নিষ্ঠুর পৃথিবীতে আবেগের কোন স্থান নেই।

আমার এই ভাইয়ের সাথে পরিচয় হবার পরে অবশ্য আমি ওই গুরুজনদের কথায় আর ভয় পাইনা।যাঁর কথা বলছি তিনি আমার দেখা সবচেয়ে ইমোশনাল মানুষ,আমার আবেগের পরিমাণ তাঁর আবেগের তুলনায় সমুদ্রের কাছে ডোবার মতই।কিন্তু আবেগের এই সাগর নিয়েও এই লোকটি হতে পেরেছেন সেনাবাহিনীর দুর্ধর্ষ কমান্ডো ইউনিটের প্রশিক্ষক,জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছেন আফ্রিকার গহীন জঙ্গলে,মুখোমুখি হয়েছেন সেখানকার ভয়ংকর গেরিলা রেইডের।সীমাহীন আবেগ এঁর সাফল্যের পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি একরত্তিও।উনাকে দেখেই শিখেছি,আবেগ থাকা মানেই পরাজিত কাপুরুষ হতে হবে এটা ভুল কথা।

প্রিয় পাঠক,আপনারা অনেকেই জেনে গিয়েছেন কার কথা বলছি।

হ্যাঁ, যাঁর কথা বলছি তিনি আমাদের সিসিবির সিও মেজর আহসান ভাই।আর আজ তাঁর জন্মদিন।

বীর পাঠক/পাঠিকাবৃন্দ, শত্রুর রক্তে রাঙ্গানো কমান্ডো নাইফটা কমব্যাট ইউনিফর্মের হাতায় মুছে চলুন চিৎকার করে বলিঃ শুভ জন্মদিন আহসান ভাই!!!!!!

পুনশ্চঃ আহসান ভাইয়া আর মিশকাত ভাবীর কমব্যাট পরা অবস্থায় ৭০০০ ফুট উপরে হেলিকপ্টারের ভেতরে তোলা একটা দুর্দান্ত ছবি গতকাল অনেক চেষ্টা করেও আপলোড করতে পারিনি।দুজনই ইউনিফর্ম পরা অবস্থায় এই কমান্ডো দম্পতিকে মনে হচ্ছিল পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর আর প্রাণোচ্ছল দম্পতি।এই ছবি মিস করা মানে বিরাট লস-কাজেই আপনারা ভাইয়ার ফেসবুক প্রোফাইলে গিয়ে অবশ্যই ছবিটি দেখে নেবেন :shy:

আপডেটঃ একটা ছবি নীচে দিয়ে দিচ্ছিঃ

৮,৪৩৩ বার দেখা হয়েছে

১০২ টি মন্তব্য : “কমান্ডো-কথন”

  1. রকিব (০১-০৭)

    শুভ জন্মদিন আহসান ভাই। কেক্কুক খাওয়ান।
    আর ফয়েজ ভাইয়ের ইস্পিসাল দোয়া নিয়া আপনার সেই পুরানা প্রোফাইল পিক্সচার এর মতো শ'খানেক ভাতিজা ভাতিজি উপহার দেন। 😀


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  2. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    শুভ জন্মদিন আহসান ভাই!

    বড় হইলে আপনাকে নিয়ে তিন প্রহরের বিল.........


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  3. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)
    গুরুজনেরা প্রায়ই বলে থাকেন এই নিষ্ঠুর পৃথিবীতে আবেগের কোন স্থান নেই

    আমিও তোমার গুরুজন হিসেবে বলছি,আসলেই এই নিষ্ঠুর পৃথিবীতে আবেগের কোন স্থান নেই।আমি নিজেও খুব আবেগী আর এটিকেই আমার নেগেটিভ পয়েন্ট মনে করি।

    উনাকে দেখেই শিখেছি,আবেগ থাকা মানেই পরাজিত কাপুরুষ হতে হবে এটা ভুল কথা।

    এই ধরনের ধারনা থেকেই আমি আমার আবেগ ঝেরে ফেলতে চাইনা।থাকুক না একটা নেগেটিভ পয়েন্ট।আবেগ ভালবাসা আছে বলেই ত আমরা একে অপরের সাথে আছি।
    লাবলু ভাইয়ের বাসায় গেট টুগেদারে আমি আর মাসরুফ 'আন্ডার কমান্ড অফ কমান্ডো ভাই' ঠোলা আর ফৌজি বিষয়ক অনেক জ্ঞানগর্ভ প্যাচাল পারলাম।কমান্ডো ভাই শুধু আজ না বরাবরই রক্করেন,প্যারাতে ঝুলতে ঝুলতে জীবন প্যারাময় হোক এই কামনা।

    জবাব দিন
  4. হ্যাপী বার্থডে আহসান ভাইয়া :party: :party: , ৭ তলা বিল্ডিং থেকে নিচে তাকাতেই যেখানে এত ভয় পাই,সেখানে প্যারাজাম্পিং এর মত দুঃসাহসিক পজিশন এর কথা চিন্তা করার সাহস আমার নেই, তাই আপনার জন্য শুধুই :salute: :salute:

    মাস্ফ্যু ভাই,দারুণ পোস্ট :thumbup:

    জবাব দিন
  5. রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

    হেপি বাড্ডে আহসান ভাই ( আমার ফটোকপি ; ধুরো,কি যে কই,আমি ওনার ফটোকপি)


    আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
    ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
    ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
    সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
    ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
    আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

    জবাব দিন
      • রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

        বিষয় ঃ ফটোকপি

        কলেজ যে একই এইটা তো সবাই ই জানে । মাগার হাউস ও ছিলো এক-শেরেবাংলা । একই রকম শুকনা শাকনা । চাহারায় ১টা অদ্ভুত মিল । তখন বস চশমা পড়তো আর আমি তো চশমাটা এখন ও ছাড়তে পারলাম না । শেরেবাংলা হাউসের হাউস কালচারাল প্রিফেক্ট হিসাবে ক্যাডেট জীবনের ইতি টেনেছেন আহসান ভাই । সৌভাগ্যক্রমে আমিও............
        কিছুদিন আগে কলেগের ১টা প্রোগ্রামে ১ সিনিয়র আমারে আর আমার বড় ভাইরে দাঁড়ায়ে থাকতে দেখে বলছে,"আহসান,তোমার ছোট ভাই আছে,তা আবার আর্মি তে সেটা তো জানতাম না ।"
        ---- এইবার কিলিয়ার ?


        আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
        ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
        ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
        সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
        ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
        আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

        জবাব দিন
      • রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

        আহারে............
        নীচের রিপ্লাই উপরে চইলা গেছে । একটু কষ্ট করে পড়ে নিসরে ভাই আমার


        আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
        ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
        ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
        সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
        ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
        আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

        জবাব দিন
  6. টিটো রহমান (৯৪-০০)

    জন্মদিনের অনেক অনেক শুভেচ্ছা আহসান ভাই। জন্মদিনে নিজেকে কেমন অভিমানী দার্শনিকের মতো লাগে। যাউজ্ঞা, এমন ফিলজফি ঝেড়ে ফেলে আপনে আর আপনার রুমমেট অনেক অনেক মাস্তি করেন। ভাবীকে সালাম।

    মাস্ফু, দারুণ আবেগ....পুরো লেখা জুড়ে


    আপনারে আমি খুঁজিয়া বেড়াই

    জবাব দিন
  7. আহসান sir কে আমার কমান্ডো training এর সময় প্রশিক্ষক হিসাবে পেয়েছিলাম . কমান্ডো দের স্বভাবসুলভ কঠোরতা আর বিরল মানবীয় গুনের এক অসাধারণ মিশেল ঘটেছে তার ভেতর এ. অনুসরণ করার মতন একজন মানুষ. জন্মদিনে অনেক :salute:

    জবাব দিন
  8. মাহমুদ (৯৫-০১)

    শুভ জম্নদিন আহসান ভাই।
    শাফির মত আমিও কিন্তু লেট না।
    এই শুভেচ্ছাটা আগামী বছরের জন্য রইল।

    ভাবীকে সালাম।

    (আহসান ভাই, বাই দ্যা বাই আমাকে কি চিনতে পেরেছেন কী?)

    খুব তাড়াতাড়ি ঢাকায় আসতেছি। দাওয়াতের অপেক্ষায় রইলাম...

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।