এডু বৃত্তান্ত

কলেজে এডজুটেন্ট স্যারের ভাবসাব দেখে মনে হইত আর যাই হোক জীবনে আর্মিতে গেলে অবশ্যই এডু হইয়ে ক্যাডেট কলেজে আসব-কি তাঁর শান শওকত(নো অফেন্স টু আমাদের এইখানের শওকত হোসেন মাসুম ভাই),কি তাঁর গেটাপ সেটাপ-পুরাই ঝিকিঝিকি পমপম মার্কা অবস্থা।ক্যাডেট লাইফে আমি মোট চারজন এ্যাডজুটেন্ট স্যার পেয়েছি-পিসিসির মেজর আজাদ স্যার(১), আরসিসির মেজর সাঈদ স্যার(২),পিসিসির মেজর ইউসুফ স্যার এবং সবশেষে সিসিআরের মেজর নবী স্যার।এঁদের মধ্যে মেজর ইউসুফ স্যার ছিলেন সবচেয়ে বেশি সময় ধরে-প্রায় চার বছর।উনার কিম্ভুতকিমাকার কর্মকান্ড প্রায়শঃই ক্যাডেটদের নানান আনন্দের খোরাক যোগাত। আজকে ভাবছি সেইগুলো নিয়েই হালকার উপর ঝাপসা কিছু লিখবো।

আমাদের কলেজে নতুন একজন শিক্ষক প্রথম দিন জয়েন করে দেখেন যে গেমস টাইমে হাঁটুর অনেক উপরে আন্ডারওয়্যার সাইজের হাফপ্যান্ট পড়া এক লোক সারা মাঠ চক্কর দিচ্ছে।উনি আমাদের ইমিডিয়েট সিনিয়র সিনা ভাইকে জিজ্ঞাসা করলেন-এই লোকটা কে?সিনা ভাইয়ের উত্তর-স্যার, ইনি পিসিসির,ইনি আমাদের এডজুটেন্ট।ঐ স্যার হা করে তাকায় থেকে জিজ্ঞাসা করলেন-পিসিসির তো কি হয়েছে?এইবার সিনা ভাই কিছুটা বেকায়দায় পড়লেন,পিসিসি কি কারণে স্পেশাল সেটা তো আর স্যারকে বলা যায়না-তাই কাভারেজ দিতে পিসিসির থেকে হেমায়েতপুরের স্বল্প দূরত্বের রেফারেন্স টেনে পার পেলেন সেই যাত্রা।

ইউসুফ স্যার লোকটা খারাপ ছিলেন না কিন্তু অনেক অদ্ভুত অদ্ভুত কর্মকান্ড করতেন যা অনেক সময় খুব খারাপ লাগত।এর মধ্যে একটা ছিল উনার সিনিয়রিটি জুনিয়রিটি সম্পর্কে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করা।কোন ক্যাডেট জুনিয়র ক্যাডেটকে পানিশমেন্ট দিলে তিনি গণ-আদালত স্টাইলে বাস্কেটবল গ্রাউন্ডে ক্যাডেটদের জড়ো করে সেখানে সেই ক্যাডেটকে পিটাতেন।আমাদের মেহরাজকে একবার বলেছিলেন-“পুট সাম মাড ইন ইয়োর মাউথ” এবং মাটি খেতে বাধ্য করেছিলেন।ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজে সিনিয়ররা নানা রকম সুবিধা লাভ করত যেগুলো তিনি এসে সিনিয়রের বদলে জুনিয়রদের দেবার চেষ্টায় নিজেকে নিবেদিত করেছিলেন।

অদ্ভুত অদ্ভুত অনেক কর্মকাণ্ড করলেও ইউসুফ স্যারের কিছু বিষয় ছিল যা এখনো মনে পড়ে।আমাদের ৩০ তম ব্যাচের অনেকে স্ট্যান্ড করায় তিনি সেই খুশিতে সেদিন গেমস ছুটি দিয়ে দিয়েছিলেন।”আমার বড় ভাই কলেজের টিচার,উনাকে আমি বলেছি যে আমিও একটা কলেজের শিক্ষক যেখান থেকে এইচ এস সিতে ১৪ জন স্ট্যান্ড করেছে”-ক্যাডেটদের সামনে উনার এই গর্বিত উচ্চারণ যখনই মনে পরে এই লোকটার উপর সব রাগ কেন জানি উধাও হয়ে যায়।আন্তঃ ক্যাডেট কলেজ লিটারেচার মীটে যাবার সময় উনি নিজ থেকে আমাকে ডেকে শিখিয়েছিলেন যে স্পীচ ডেলিভারি দেবার ঠিক আগে বুক ভরে নিঃশ্বাস নিলে লাংসে অক্সিজেনের উপস্থিতির ফলে বুকের ধুকপুকানি অনেক কমে যায়।উনার এই শিক্ষা আমি এর পরে যতগুলো স্পীচ দিয়েছি সেখানে ব্যবহার করেছি এবং ফল পেয়েছি-আগ্রহী পাঠক চেষ্টা করে দেখতে পারেন। এই মানুষটা সব সময় চাইতেন কিভাবে তাঁর ক্যাডেটকে আরেকটু স্মার্ট করে তোলা যায়-ক্যাডেট যাতে লজ্জা না পায় সেজন্যে তিনি নিজের উদাহরণ দিয়ে বলতেন-“দ্যাখো, আমার বাবা মা এগুলো আমাকে শেখান নি, তাঁরা নিজেরাও জানতেন না এই ম্যানারস এন্ড এটিকেটস।আমি নিজেও তোমাদের মত এভাবে আমার এ্যাডজুটেন্ট এবং সিনিয়রদের কাছ থেকেই শিখেছি।”

ভাল-মন্দ মিলিয়েই মানুষ-তাই অনেক তিক্ত অভিজ্ঞতা সত্ত্বেও ইউসুফ স্যারকে তাঁর প্রাপ্য সম্মান দিতে আমি কখনো দ্বিধা করবনা।

এবার আসি আরেক ইউসুফ স্যারের কথায়।এই স্যারকে আমরা সবাই চিনি, আমাদের ব্লগের দুর্দান্ত প্রতাপ এডু তিনি।একজন টেকি এডু আছেন যিনি ব্লগের টেকনিকাল সাইড দেখাশুনা করেন কিন্তু আমাদের ইউসুফ এডু স্যার টেকনিকালিটির ধার ধারেন না-বদ টাইপ ক্যাডেট দেখলে সঙ্গে সঙ্গে ফ্রন্ট্রোল শুরু করিয়ে দেন।১৯৯৯ সালের রিইউনিয়নে আমি যখন ক্লাশ নাইনের ছাত্র তখন আমাদের ডর্মে এসে তিনি ব্যাপক ভাব নিয়ে বলেছিলেন-“তোমাদের দেখলেই খালি বিশ্বাস হতে চায় যে আমরা এত সময় পার করে ফেলেছি”।আমাদের আদনানের আপন মামা হওয়ায় ইনি ছিলেন(এবং এখনো আছেন) আমাদের ব্যাচের গণ মামা। এইতো সেদিন সানা ভাইয়ের স্টুডিয়োতে তিনি আমাদের সামনে আরেক দফা ভাব নিতে নিতে বলছিলেন-তোরা আমার কাছ থেকে সিগারেট চাস, জানিস তোদের আদনানকে ওর জন্মের পর আমি আমার হাতের তেলোয় দেখেছি?আমি যখন কলেজের ক্লাশ এইটের ছাত্র তখন তোদের আদনানের জন্ম আর সেই তোরা কিনা আমার সাথে পার্ট নিস?আশ্চর্যের বিষয়, এই কথা বলে তিনি আমার দিকে সিগারেটের প্যাকেটটা বাড়িয়ে দিয়েছিলেন এবং আমি নন-স্মোকার শুনে এমন ভাবে তাকিয়েছিলেন যেন আমি মঙ্গল গ্রহ থেকে এসেছি!সানা ভাই যেমন আমাদের মাথার উপর ছায়া হয়ে রয়েছেন ঠিক একই ভাবে এই লোকটাও শুধু আদনানের নয় আমাদের এই পুরো সিসিবিরই “মামা” তথা “এডু” হয়ে আমাদেরকে দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন।

ইউসুফ ভাই/স্যার/মামা আরো অন্তত ৫০ বচ্ছর এভাবে আমাদের মাথার উপর থাকুন এবং দোর্দণ্ড প্রতাপে নিজের এডুগিরি চালিয়ে যান আজ এই কামনাই করছি।

ও হ্যাঁ, বলতে ভুলে গিয়েছিলাম-আজ উনার জন্মদিন।হ্যাপি বার্থডে,এডু স্যার!!!!! :party: :party: :party:

৮,৫৬৩ বার দেখা হয়েছে

১০৪ টি মন্তব্য : “এডু বৃত্তান্ত”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    এডু স্যারের জন্মদিন নাকি আজকে :awesome: :awesome:
    :salute: এন্ড হ্যাপি বার্থডে টু এডু স্যার :guitar:
    বস্ সবাইতো আর যশোর আসতে পারবেনা, তাই আপনেই যদি কষ্ট করে এসে যদি ;)) ;)) না মানে লাবলু ভাইকে কেক খাওয়াতে আসতেন, তাহলে আমরা সেই সুযোগে 😀


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
    • ইউসুফ (১৯৮৩-৮৯)

      ইয়ে মানে, কেক তো রেডি ছিল, কিন্তু ফেরিঘাট এ ৪ ঘন্টা অপেক্ষা করার সময় নষ্ট হয়ে গেছে। ফিরে আসলাম। তাই আমার হয়ে তুমি যদি একটা দশ পাউন্ডের কেক সানা ভাইয়ের ওখানে পৌঁছে দাও, পরে আমার কাছে বিলটা পাঠিয়ে দিলে আর কি। পেমেন্ট গ্যারান্টিড।

      এণ্ড থ্যাংকস ফর দ্য উইশেস।

      জবাব দিন
  2. ইউসুফ মামা, শুভ জন্মদিন। (আইজকা আপনি আমাদের শুধুই মামা)
    দোয়া করি আরো বড় হন। :frontroll: :frontroll: :frontroll:
    (আগেই শুরু করে দিছি)

    এডু স্যার, কেকটা কি আমি দোকান থেকে নিয়ে আসব আপনার নাম বলে?

    জবাব দিন
  3. ইউসুফ ভাই/স্যার/মামা আরো অন্তত ৫০ বচ্ছর এভাবে আমাদের মাথার উপর থাকুন এবং দোর্দণ্ড প্রতাপে নিজের এডুগিরি চালিয়ে যান আজ এই কামনাই করছি।

    :thumbup: :thumbup:
    সহমত

    জবাব দিন
  4. মাস্ফ্যূ ভাই

    দারুণ ব্যাপার...
    কি চমকৃত করে দিলেন এই পোস্ট দিয়ে... টেরই পাই নাই যে আসলে কি পড়তে যাচ্ছি...

    আর এডু স্যারকে অবশ্যই আমার অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে শুভেচ্ছা।
    শুভ জন্মদিন

    জবাব দিন
  5. নাজমুল (০২-০৮)

    শুভ জন্মদিন এডু স্যার/ইউসুফ ভাই । কেক খাপো (থ্যাংক্স মাস্ফু ভাই) 😀

    আর আনন্দের কথা হলো আজকে ইউসুফ ভাই এর ও যেমন জন্মদিন আস্কে শাহরুখ খানের ও জন্মদিন 😀
    :party: :party:

    জবাব দিন
  6. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    শুভ জন্মদিন ইউসুফ স্যার/ভাই/ মামা... :party: :party:

    বস্ সবাইতো আর যশোর আসতে পারবেনা, তাই আপনেই যদি কষ্ট করে এসে যদি ;)) ;)) না মানে লাবলু ভাইকে কেক খাওয়াতে আসতেন, তাহলে আমরা সেই সুযোগে 😀


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
    • ইউসুফ (১৯৮৩-৮৯)

      শুভেচ্ছার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

      ইয়ে মানে, কেক তো রেডি ছিল, কিন্তু ফেরিঘাট এ ৪ ঘন্টা অপেক্ষা করার সময় নষ্ট হয়ে গেছে। ফিরে আসলাম। তাই আমার হয়ে তুমি যদি একটা দশ পাউন্ডের কেক সানা ভাইয়ের ওখানে পৌঁছে দাও, পরে আমার কাছে বিলটা পাঠিয়ে দিলে আর কি। পেমেন্ট গ্যারান্টিড।
      জবাব দিন
  7. তৌফিক (৯৬-০২)

    মাসরুফ + আদনান, ইউসুফ ভাইকে আমি ভাই বলে ডাকি। তাই আমারে এখন থেকে মামা বলে ডাকার আদেশ প্রদান করতেছি। B-) আদনান অবশ্য চাচা বলেও ডাকতে পারে। ক্যাডেট কলেজ ফ্যাটার্নিটি সূত্রে আমরা সবাই তার চাচাই হই। :grr:

    ইউসুফ ভাই, শুভ জন্মদিন। ভালো থাকবেন। 🙂

    জবাব দিন
  8. জিহাদ (৯৯-০৫)

    ওপস্। দেরি করে ফেলসি। ভুল হয়া গেসে এডু স্যার :frontroll: :frontroll: :frontroll:

    শুভ জন্মদিন। আরো অন্তত একশো বছর যেন সবাইরে ফ্রন্টরোল লাগাইতে পারেন এই শুভকামনা রইলো।

    শুভ জন্মদিন!


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  9. রকিব (০১-০৭)

    যতই দিন যাচ্ছে, ইউসুফ স্যারের (মামা কইতে চাইছিলাম, কিন্তু সাহস বেচারা সুবিধা করে উঠতে পারেনি) বয়স দেখি ততই কমতেছে, ফেসবুকে উনার চিরতরুণ ফটুক দেখে বড় বিগলিত আমি। শুভ জন্মদিন মামা। :awesome: :party: :party:

    অফটপিক: আমার কেক আপনি রেখে দিবেন বলছেন, তাই আর নতুন করে চাইলাম না। 😀


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  10. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    শুভ জন্মদিন!
    আমি আরেকটু বড় হইয়া নেই, আপনেরে নিয়া তিন প্রহরের বিল দেখতে যামু 😉


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  11. সামিয়া (৯৯-০৫)

    শুভ জন্মদিন ভাইয়া।
    সিসিবি মিটে পৌছাতে না পৌছাতেই দেখি একটা মানুষকে ঘিরে অন্য সবাই দাঁড়ায়ে আছে, গলা বাড়ায় দেখি একজন তরুণ তরুণ বড় মানুষকে দেখা যাচ্ছে, খুচাখুচি করে জানা গেল ইনিই আমাদের ইউসুফ ভাই, বাকি সময়টা সবাইকে ধমকায় ধামকায় পার করে দিলেন।
    শুভ জন্মদিন ভাইয়া। 🙂
    আমরা খাবো না? অন্তত আইসক্রীম? 🙁

    জবাব দিন
  12. শাওন (৯৫-০১)

    এডু মামা (থুঃক্কু) কে জন্মদিনের সবুজ (থুক্কু) শুভেচ্ছা......... :))

    আগেই এত্তোবার ভুল করা ও থুক্কু বলার জন্য :frontroll: :frontroll: দেয়া শুরু করলাম 😀


    ধন্যবাদান্তে,
    মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান শাওন
    প্রাক্তন ক্যাডেট , সিলেট ক্যাডেট কলেজ, ১৯৯৫-২০০১

    ["যে আমারে দেখিবারে পায় অসীম ক্ষমায় ভালো মন্দ মিলায়ে সকলি"]

    জবাব দিন
  13. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    যে কজন না থাকলে এইটা ক্যাডেট কলেজ ব্লগের সব আমেজ থেকে বঞ্চিত হত তাদের মধ্যে এডু স্যার একজন।
    জন্মদিনের অনেক অনেক শুভেচ্ছা স্যার। আপনার সম্মানে আজকে সবাই :frontroll: :frontroll:

    জবাব দিন
  14. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    হ্যাপী বাড্ডে স্যার, দেরী করে ফেললাম, ব্যাপার না। ক্রস পইড়াও কত লেট করছি কলেজে 😀

    যাউজ্ঞা, আপনাকে অন-প্যারেড কম কম দেখা যায়, প্যারেডে এডু না থাকলে সবডি ফাকি মারতে চায়, তাই ভাবতাছি সানা ভাইরে ভজায় ভুজায় এডু পোষ্টটা দখল করুম নাই ;))


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।