সিসিবির সামার পিকনিক

সিসিবির পিকনিক হওয়ার কথা ছিল অনেক অনেক দিন আগে। গতবছর একটা তারিখ ঠিক করেও শেষ মুহূর্তে বাতিল করতে হয়েছিল। এবছরও শীতে আমার ছেলের পরীক্ষা থাকায় করা যায়নি। তারপর আমার যুক্তরাষ্ট্র সফরের কারণেও পিছিয়েছে। আমাকে বাদ দিয়ে পিকনিকটা হয়ে গেলে কোনো সমস্যা ছিল না। কিন্তু কেন যেন এবারের পিকনিকের জায়গাটা ঠিক হয়েছিল পল্লবী-২ এ। আর তাতেই বারবার বিপত্তি! এবার আর কোনো বাধা মানতে রাজি ছিল না অনেকে। অবশেষে সেই পিকনিক হলো এবার চড়া গ্রীষ্মে!!

কিন্তু পিকনিক নিয়ে লেখা আমার কর্ম না। ওটা এরই মধ্যে জুনিয়র রাব্বী করে ফেলেছে। আর কেউ লিখতে চাইলে বাধা নেই। আমি শুধু রাকেশ আর রিবিনের কথা স্মরণ করে এবার ছবিব্লগ দিলাম। মন্তব্যে কেউ মজা করতে আর অভিজ্ঞতা জানাতে চাইলে কেউ আটকাবে না!

বিকেল থেকে আড্ডা চলছিল চারতলায় জিহাদ-জামানদের ঘরে। সন্ধ্যার পর সেই আড্ডাটা উঠে এলো ছাদে

আড্ডার রকমফের

জিহান: আর কোনো বাচ্চা না থাকায় বেচারা কষ্টে ছিল

প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী চলে এলো আনারস আর.......

......তরমুজ দিয়ে শুরু হলো খাবার পর্ব

ডাব কাটা নিয়ে যুদ্ধ চলছে! দলে 'ভাড়া করে' আনা হলো সৃজনশীল টিটোকে

এরপর ডাবের পানি পান। ডাবের শাসও (বিচি) খেয়েছে একজন, কিন্তু ছবিটা তোলা যায়নি

আনিসা আড্ডায় থাকলেও জুনিয়র রাব্বী কাছে ওটা মনে হচ্ছিল প্রেপ টাইম! তাই হাসিমুখে ঘুমিয়ে নিচ্ছিল

ক্লান্ত স্যাম ঘাম মুচ্ছিল..... ওকে আগে পরে বারবার অনেক ছবিতে আর মুহূর্তে দেখা যাবে!

এবং ফয়েজ আর তার মিস্টি মেয়ে জিহান। শেষ পর্যন্ত শারমিনকে আনেনি। বলেছে ওর বৌ নাকি আমাকে ছাড়া বাকিদের ভয় পায়!!

উদয় এবং ওর বন্ধুরা আমাদের কিছু শোনালো... গান হয়েছিল কিনা কে জানে!! তবে এই প্রথম আমার ছেলে আমার সামনে মিউজিক করলো

বেশ সিরিয়াস দর্শক-শ্রোতার একাংশ

দর্শক-শ্রোতার আরেকাংশ

পথে পথে যুদ্ধ করে শেষ পর্যন্ত 'পায়ে হেটে' মিফতাহ এসে পৌঁছুলো

এবার মিফতার পালা

খোলা ছাদ বাতি নেভানো। চিরাচরিত ভঙ্গীতে গাইলো

রাত হয়ে এসেছে বেশ, অনেকেই বিদায় নিয়েছে

পাপারাজ্জি শাওন আমার খাওয়ার ছবি তুলে আবার ফেসবুকে লটকে দিয়েছে। ইডি জমা আছে ওর জন্য!!

পিকনিক আর জিটুজি যাই বলি না কেন, কেক তো লাগবেই

ডিনার রেডি: যথারীতি স্যামও রেডি। সবাইকে খাওয়াতে হবে না......

বিদায়ের আগে শেষ ছবি: বলো চিইইইইজজজজজ

পিকনিকে আমরা মিস করেছি অনেককে। জিহাদ অসুস্থ হয়ে চলে গেছে টাঙ্গাইলে মায়ের কাছে। নিজেদের বিয়ের খবর নাই, কামরুল, রুম্মানরা গেছে চট্টগ্রামে বন্ধু হাসনাতের বিয়েতে! আলিমুজ্জামান ভাই বলেছিলেন চেষ্টা করবেন আসতে। পরে ফোনে দুঃখ জানালেন। জিতু আমাদের মারজু আম্মুটাকে নিয়ে আসার কথা ছিল। আসেনি। আসেনি আলসে তানভীর। কাইয়ুম ‘ভাই’ আজকাল যা দেখাচ্ছে না! যেন কাজকাম দুনিয়ায় আর কেউ করে না। মান্না বলেছিল ০৮ তারিখ হলে থাকতে পারবে! ফোন করে জানলাম, ও কুড়িগ্রামে। সামীউর হোদলটা কথা দিয়েও আসেনি। সরিও বলেনি। আহসান আর ওর বউকে মিস করেছি। আসেনি ব্যারিস্টার শার্লী। হয়তো পয়সাওয়ালা কোনো ক্লায়েন্ট ছিল চেম্বারে! বউ-বাচ্চা নিয়ে আসার কথা ছিল রুম্মানের (৯৩-৯৯)। আসেনি!! একই আচরণ করেছে কামরুল হাসান, বউকে লুকিয়ে রাখতেই হয়তো আসেনি! মিস করেছি আকাশ-রিমি, রেজওয়ানকে। ঢাকায় থাকলে নিশ্চিত আসতো ওরা। তাইফুর বাড়ির কাছে থাকলেও আসতো কিনা সন্দেহ। আর এখন তো অনেক দূরেই।

সাইফ ভাই, আজিজ ভাই, রাজীব, আমিন, রাব্বী, মইন ও দিহান, মইনুল, সিসিবি অ্যাডজুটেন্ট ইউসুফ, তৌফিক, মহিউদ্দিন, চাওয়ালা রকিব, কামরুলতপু, মেহেদি, তারেক, কিবরিয়া, সাব্বির, ফরিদ, ইসলাম, হামীম, দিবস, শরিফ, মুস্তাকিম, সিরাজ, রহমান, শোয়েব, শান্তা, সেলিনা, রাশেদ, মুহিব, মোসাদ্দেক, মুহাম্মদ, জুলহাস, এহসান, ফাহিম, কুচ্ছিত হাঁসের ছানা, নাজমুল আরো অনেক অনেককে মিস করেছি।

১১ ঘণ্টার দূরত্ব কাটিয়ে নূপুর ফোনে যোগ দিয়েছে আমাদের সঙ্গে। ধন্যবাদ তোমাকে। রমিতও ফোন করে দুঃখ জানিয়েছে।

সবাইকে ধন্যবাদ আবারো। দেখা হবে আগামী কোনো জিটুজি বা পিকনিকে। ততক্ষণ পর্যন্ত শুভব্লগিং। জয় হোক সিসিবির।

৫৮ টি মন্তব্য : “সিসিবির সামার পিকনিক”

  1. আশিক (২০০৭-২০১১)

    সালাম সালাআআআআম
    হাজার সালাম...।।
    সানাউল্লাহ ভাআআআআইর স্মরণে...।
    পিকনিকের মাঝেএএএএ ,
    ছবিতোলার কথা যিনি ,
    রেএএএখেএ ছিলেন তার মনে ।
    মিন্দ করলেন নাকি স্যার ।।
    ওকিয়ে :frontroll: :frontroll:
    আরও দেব স্যার ??? ::salute:: ;)) ;)) :salute: :salute:

    জবাব দিন
  2. আজিজুল (১৯৭২-১৯৭৮)

    লাভলু,
    যাবার ইচ্ছে যে করেনি একেবারে তা নয়।কিন্তু আবার ভাবলাম, থাক! বুড়ো মানুষদের উপস্থিতিতে তরুণরা আবার অস্বস্থিতে পরবে। "কাবাব মে হাড্ডি "!
    এসব ভেবে আর যাওয়াই হলোনা!

    সুন্দর উদ্দৌগ গ্রহনের জন্যে ধন্যবাদ। ভবিষ্যতে আসবো ইনশাল্লাহ। -আজিজ।


    Smile n live, help let others do!

    জবাব দিন
  3. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    ঠিক খাবার সময়ে সামিয়ার নাম্বারে ফোন করে পিকনিকে যোগদান করলাম।ফলাহার না খেতে পেলেও পিকনিকের আমেজটা পুরোপুরি পাচ্ছিলাম। আমার ইচ্ছা ছিলো সবার সাথে এক রাউন্ড কথা বলা, অফিস আওয়ার বলে পারিনি।সানাভাইয়ের সাথে প্রথমবার কথা বলার সময় মনে হচ্ছিলো উনার কণ্ঠস্বরটা কতদিনের চেনা।সামিয়া আর আবীরের সংগে আগের জিটুজিতেও কথা হয়েছিলো।

    আশা করি পরের বার স্কাইপ-এ দেখা করতে পারবো।আর কোন না কোন পিকনিকে হই হই করে হাজির হয়ে যাবার স্বপ্ন তো রইলোই।মিফতার গান ইউটিউবে শুনেছি।লাইভ পারফর্মেন্সটা মিস করলাম।মিস করলাম উদয়ের মিউজিকও।এবারের পিকনিকের একটা ভিডিও ব্লগ পেলে সবকিছুর একটি ফ্লেভার পাওয়া যেতো।

    জবাব দিন
  4. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    সানাউল্লাহ ভাই সালাম।
    আমার নাম উল্লেখ করায় মনে হইলো আমিও যেনো পিকনিকে ছিলাম।
    আরো পিকনিক হোক; তিন মাস অন্তর অন্তর।
    কিনবা প্রতি ঋতুতে একটা করে; ষড়ঋতু বাঁচুক সিসিবি র পিকনিকে।


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  5. সাব্বির (৯৫-০১)

    হ্যাটস অফ টু লাভলু ভাই।
    যুগ যুগ বেঁচে থাকেন, সিসিবি এবং ক্যাডেট পরিবার কে নিয়ে।
    কোন একদিন ঠিকই হাজির হয়ে যাবো।
    মিস্ শব্দ টা শুনতে আর ভাল লাগে না :bash:
    অ ট নাম উল্লেখ করে আবেগে ইমোশনাল কইরা দিলেন।

    জবাব দিন
  6. শ্রদ্ধেয় লাভলু ভাই এন্ড সামিয়া, দূঃখিত। আসার ইচ্ছা রেখেও আসতে পারি নাই। কোন অজুহাত নয়, সত্যিই একটা কাজে আটকে গিয়েছিলাম। বস্‌ ছুটি দিয়েও পুনরায় ছুটি বাতিল করে দিল। আমার বাংলাদেশ ব্যাংকের পরীক্ষাটাও মিস্‌ হল।

    ধন্যবাদ লাভলু ভাই, ছবি যদিও আফসোস বাড়িয়ে দিল, ছবিগুলো দেখে অনেক ভালো লাগল। মিফতার নাম শুনেছি কিন্তু তার গান এখনো শোনা হয়নি। কেউ ইউটিউব লিঙ্ক শেয়ার করলে খুশি হব।

    জবাব দিন
  7. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    বৈদেশ থাকার কারনে এইবারও "মিস" করলাম :(( :((
    নাম উল্লেখপূর্বক আরো মিসাইলাম ~x( ~x( ~x(


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  8. রাব্বী আহমেদ (২০০৫-২০১১)

    🙂 🙂 🙂


    নিচের ঠোঁট কামড়ে ধরে কাঁদতে নেই
    খুব সহযে বিশ্বাসে বুক বাঁধছ কেন, বাঁধতে নেই
    বুকের কিছু গভীর কান্না চোখের মাঝে আনতে নেই
    কিছু অতীত স্মৃতির কথা জানার চেষ্টা বৃথাই, জানতে নেই...

    জবাব দিন
  9. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    বুঝলাম না, যারা পিকনিকে যোগ দিল তারা কেন মজার অভিজ্ঞতাগুলো সবার সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিচ্ছে না! 😉

    যেমন: বিচি খাওয়া........ =)) =)) =))


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  10. সামীউর (৯৭-০৩)

    লাবলু ভাই, স্যরি বলতে কামরুল ভাইকে ফোন করে শুনি উনি চট্টগ্রামের ট্রেনে, বন্ধুর বিয়ে খেতে যাচ্ছেন! আপনি কেমনে ছুটি দিলেন উনারে? এরপর জিহাদকে ফোন দিয়ে শুনি সে বাড়িতে! আসলে লাবলু ভাই, ইউরো শুরুর দিন। আর আমার অফিসটা যে খোদা-হাফেয ঢাকায়, সেখান থেকে আসলে নিজের ইচ্ছায় কোথাও যাওয়া যায় না, কারণ সন্ধার পর কোথাও কেউ নেই (বাহন)! তাই ইচ্ছা থাকলেও উপায় ছিল না। পরের যে কোন পিকনিকে কাফফারা হিসেবে কেক নিয়া আসব।

    জবাব দিন
  11. শরিফ (০৩-০৯)
    সাইফ ভাই, আজিজ ভাই, রাজীব, আমিন, রাব্বী, মইন ও দিহান, মইনুল, সিসিবি অ্যাডজুটেন্ট ইউসুফ, তৌফিক, মহিউদ্দিন, চাওয়ালা রকিব, কামরুলতপু, মেহেদি, তারেক, কিবরিয়া, সাব্বির, ফরিদ, ইসলাম, হামীম, দিবস, শরিফ, মুস্তাকিম, সিরাজ, রহমান, শোয়েব, শান্তা, সেলিনা, রাশেদ, মুহিব, মোসাদ্দেক, মুহাম্মদ, জুলহাস, এহসান, ফাহিম, কুচ্ছিত হাঁসের ছানা, নাজমুল আরো অনেক অনেককে মিস করেছি।

    উপরে আমার নামটা দেখে মন ভরে গেলো । আমিও সবাইকে অনেক মিস করলাম । আমাকে কেউ ঢাকায় চাকরি দিয়েন ভাই ও বোনেরা । আমি এখন রুয়েটে ৩য় বর্ষে । ঢাকায় না থাকলে বিশাল মিস :((

    জবাব দিন
  12. ড. রমিত আজাদ (৮২-৮৮)

    পিকনিকে যোগ দেয়ার প্রচন্ড ইচছা থাকা সত্বেও, পারিবারিক কাজের ঝামেলায় যোগ দিতে পারলাম না। অবশেষে টেলিফোন করে দুধের স্বাদ ঘোলে মিটাতে হলো। সামিয়া আর লাবলু ভাইয়ের সাথে টেলিফোনে কথা হলো। খুব ভালো লেগেছে উনাদের সাথে কথা বলে। নেক্সট টাইম যোগ দেয়ার আশা রাখি। পিকনিক বছরে দুবার করা যায়না?
    সুন্দরবনে পিকনিক হলে কোমর বেধে রাজী। বাঘের ভয় পাইনা। ঐ যে মির্জাপুরের ক্যাডেট জুলফিকার ভাইয়ের গান আছে না, "আমি বাঘ শীকার যাইমু, বন্দুক লইয়া রেডী হইলাম আমি আর মামু,.....।"

    জবাব দিন
  13. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    এবার যারা আসল না তাদের সবচেয়ে বড় মিস আইটেম আশিক। পোলাডা এত আজাইরা কথা কইতে পারে...এত্ত আজাইরা কথা কইতে পারে...কি আর কমু...এক ফলের বিচি নিয়েই তো...

    অন্য বড় মিস করল মিফতাহ্‌'র গান। ওর গান কলেজে থাকতেও শুনেছি। কিন্তু ছাদের উপর খোলা আকাশের নিচে ভরাট গলায় গান...অপূর্ব!

    ভাল কথা, ফয়েজ ভাই এবার দুর্দান্ত এক স্ট্রাটেজি নিয়েছিলেন-সবাই পঁচায় বলে আসলেন ঢাল হিসেবে সুইট জিহানকে নিয়ে। কিন্তু আমরাও কম যাই নি, ঠিকই... 😛

    যারা আসলেন না, তারা ভাল থাকবেন।


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  14. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    নাহ, পিকনিক পরবর্তী সিসিবির হাওয়া দেখে বোঝাই যাচ্ছে এবারের পিকনিক তেমন জমে নাই, সাহসের অভাবে ফ্লপ বললাম না, কেউ একজন সাহস দিলেই বলে ফেলবো :grr:

    আসল কথা হলো পিকনিক ভয়ঙ্করভাবে মিস করছি, কপাল এমনি ঐ দিন দেশের সাথে সকল প্রকার যোগাযোগ থেকেও বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছিলাম। পোস্টের জন্য ধন্যবাদ সানা ভাই, জুনিয়র পোলাপাইন সব ডজার হয়ে গেছে, আপনার কল্যানেই ব্লগে পিকনিকের কিছু স্বাদ পাইলাম, আর আমাদের নাম দেখে পুরা আবেগে ইমোশনাল হয়ে গেলাম (বউ আমার থেকে বেশি ইমো খাইছে 😛 )

    সুন্দরবন সফরে এখনি নাম লেখলাম। তবে এই সফরের তারিখ যদি আগামী অক্টোবর আর না হলে ফেব্রুয়ারীর পরে ঠিক না করা হয় তাইলে খবর আছে।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  15. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    বিরাট দৌঁড় ছিলো তার উপর হইলো এইসব আয়োজন দেইখা হিংসা কইরাই কোন মন্তব্য লিখি নাই। পরের সিসিবি গেট টুগেদারে থাকবৈ । আগেই উপস্থিতি জানান দিয়া গেলাম।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।