সোমবার সন্ধ্যা আর আমার নিজস্ব ভাবনা

১৪-১৫ মাস ধরে ব্লগের সঙ্গে আমার পরিচয়। সম্ভবত গত জুনে সিসিবিতে যোগ দিয়েছিলাম। কিন্তু গত দুই-তিন মাসে এমন ঘণিষ্টতা যে একদিন সিসিবিতে না ঢুকে থাকতে পারি না। একরকম অ্যাডিক্ট যাকে বলে (শওকত মাসুমকেও এই গল্প বলেই ভুলিয়েছি)। আজকাল তো প্রায় প্রতিদিনই মন্তব্যও করি। বাকি দুটো ব্লগে চোখ বুলালেও এখন সহজে লগইন করি না।

অসাধারণ সব ছেলেপিলেরা এখানে। নাম ধরে ধরে বলতে পারি এদের লেখা, মন্তব্য আর ছেলেমানুষির একরকম ভক্ত হয়ে গেছি আমি। টিটো, আন্দালিব, তুহিন (নিকটা উচ্চারণ করলাম না), মুহাম্মদ, জিহাদ, জুনায়েদ, মাসরুফ, কামরুল, শার্লী, রকিব, ফৌজিয়ান (ফাঁকিবাজ- লিখে না), রায়হান, সাব্বির, রেজওয়ান, সায়েদ, তাইফুর, তানভীর, আহসান, হাসনাইন, তারেক (এখানে নূরুল হাসান), রবিন, মরতুজা, তৌফিক, ফয়েজ, রহমান, সিরাজ, মাহমুদুল (ব্লগ মডুর লাল চোখ সবসময় যার দিকে)- জটিল সব লিখা, মন্তব্য, ছবির মন্ত্রমুগ্ধ পাঠক আর দর্শক হয়ে আছি। জানি অনেকের নাম বাদ পরে গেছে। সাইফ, শফি, আদনান, মান্না, ইশতিয়াক, মাহবুব নিজগুণে মাফ করে দিও। তোমাদের লেখার চেয়ে সামনাসামনি দেখাটা আরো জটিল হয়েছে।

এইসব ক্যাডেট ব্লগারদের দেখা, তাদের সঙ্গে আড্ডার আমন্ত্রণ উপেক্ষা করা কঠিন ছিল। কয়েকদিন আগে কামরুল ক্যাডেট কলেজ ক্লাবে এরকম একটা আড্ডা দেয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। আমি সম্মতি দিয়েছিলাম। আমি আজ বলতে পারি আমি ভুল সিদ্ধান্ত নিইনি। যদিও সময় বেশি ছিল না হাতে, অফিস থেকে বারবার ফোনও আসছিল। দারুণ সময় কেটেছে আমার সোমবার সন্ধ্যাটা।

কয়েকদিন আগে ক্যাডেট কলেজ ক্লাবের সর্বশেষ ডিরেক্টরিটা হাতে এসেছে। সেটা উল্টেপাল্টে দেখছিলাম। ক্যাডেটরা বড় ব্যবসায়ী হচ্ছে, বড় সেনা কর্মকর্তা হচ্ছে, বড় চিকিৎসক, প্রকৌশলী, ব্যাংকার, সরকারি কর্মকর্তা, করপোরেট দুনিয়ার বড় কর্তা হচ্ছে। খারাপই লাগছিল। কবি-সাহিত্যিক-লেখক নেই (কিছু হয়তো আছে), চলচ্চিত্রকার, বিজ্ঞানী, দার্শনিক, সংগীত শিল্পী, পেইন্টার, অভিনেতা আছে কি? আমি বলি না ব্যবসায়ী-সেনা কর্মকর্তা-চিকিৎসক-প্রকৌশলী-ব্যাংকার-করপোরেট কর্তা ছাড়া সমাজ চলবে। তাদের লাগবে। আজকাল মেধাবীরা সব এসব পেশায় যাচ্ছে, যাবে, দরকারও আছে। কিন্তু সমাজে তো আরো নানা পেশা আছে। ক্যাডেটরা সেসব পেশায় যাবে না? জাফর ইকবাল-আনিসুল হক, জয়নুল-কিবরিয়া, সাদি-বন্যা-আনুশেহরাও তো সমাজের নেতা। ক্যাডেটরা নেতা হয়, মন্ত্রী হয়, সেনাপতি-সচিব-বহুজাতিকের সিইও হয়; দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলন, মানবাধিকার-পরিবেশ রক্ষা, যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে লড়াই, সামাজিক আন্দোলনের নেতা হয়না, খ্যাতিমান গায়ক-শিল্পী হতে চায় না!

আমি স্বপ্ন দেখি ক্যাডেট কলেজগুলো থেকে নিশ্চয়ই একদিন নেতা আসবে, কথায় বড় না হয়ে সে মানুষ বড় হবে।

৭,১৬৪ বার দেখা হয়েছে

৮৯ টি মন্তব্য : “সোমবার সন্ধ্যা আর আমার নিজস্ব ভাবনা”

  1. সাব্বির (৯৫-০১)

    ভাইয়া খুবই ইম্প্রেসিভ লেখা।
    আমরাও অপেক্ষা করছি সেই দিনটির জন্য।

    ক্যাডেট কলেজগুলো থেকে নিশ্চয়ই একদিন নেতা আসবে, কথায় বড় না হয়ে সে মানুষ বড় হবে।
    জবাব দিন
  2. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)
    আমি স্বপ্ন দেখি ক্যাডেট কলেজগুলো থেকে নিশ্চয়ই একদিন নেতা আসবে, কথায় বড় না হয়ে সে মানুষ বড় হবে।

    অবশ্যই ভাইয়া...

    আড্ডায় আসার জন্য অনেক ধন্যবাদ। সময়টা আসলেই দারুন কেটেছে।

    জবাব দিন
  3. টিটো, আন্দালিব, তুহিন (নিকটা উচ্চারণ করলাম না), মুহাম্মদ, জিহাদ, জুনায়েদ, মাসরুফ, কামরুল, শার্লী, রকিব, ফৌজিয়ান (ফাঁকিবাজ- লিখে না), রায়হান, সাব্বির, রেজওয়ান, সায়েদ, তাইফুর, তানভীর, আহসান, হাসনাইন, তারেক (এখানে নূরুল হাসান), রবিন, মরতুজা, তৌফিক, ফয়েজ, রহমান, সিরাজ, মাহমুদুল (ব্লগ মডুর লাল চোখ সবসময় যার দিকে)- জটিল সব লিখা, মন্তব্য, ছবির মন্ত্রমুগ্ধ পাঠক আর দর্শক হয়ে আছি।

    আরে খাইছে লাবলু ভাই আমার নাম বলছে দেখি। যাই সবাইরে ডাইকা নিয়া আইসা দেখাই। 😀 😀 :tuski: :tuski:

    জবাব দিন
  4. মুহাম্মদ (৯৯-০৫)

    এখন বোধহয় আমরা আসলেই বাস্তবমুখী স্বপ্ন দেখতে পারি। ইদানিং অনেক গুণীজনদের ক্যাডেট পরিচয় পাচ্ছি। একসময় জাতির মস্তিষ্ক তথা বুদ্ধিজীবী মহলেও ক্যাডেটরা বিশেষ অবদান রাখতে পারবে। সেদিনের প্রত্যাশায় আছি।

    লাবলু ভাই, আরশাদ মোমেন ভাইয়ের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। আপনার কথা বলে ব্লগের পথটাও উনাকে দেখিয়ে দেব ভাবছি।

    জবাব দিন
  5. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    আড্ডায় আসার জন্য অনেক ধন্যবাদ লাবলু ভাই

    সমাজে তো আরো নানা পেশা আছে। ক্যাডেটরা সেসব পেশায় যাবে না? জাফর ইকবাল-আনিসুল হক, জয়নুল-কিবরিয়া, সাদি-বন্যা-আনুশেহরাও তো সমাজের নেতা। ক্যাডেটরা নেতা হয়, মন্ত্রী হয়, সেনাপতি-সচিব-বহুজাতিকের সিইও হয়; দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলন, মানবাধিকার-পরিবেশ রক্ষা, যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে লড়াই, সামাজিক আন্দোলনের নেতা হয়না, খ্যাতিমান গায়ক-শিল্পী হতে চায় না!

    আমি স্বপ্ন দেখি ক্যাডেট কলেজগুলো থেকে নিশ্চয়ই একদিন নেতা আসবে, কথায় বড় না হয়ে সে মানুষ বড় হবে।

    সময়টা যেমন সুন্দর কেটেছে ঠিক তেমনি আমি নিশ্চিত আমরা অনেকেই এই স্বপ্নটা দেখার পথে আরো একটু জোর পেয়েছি আপনাদের মতো যোগ্য সিনিয়র ভাইদের অভিজ্ঞতা এবং অনুপ্রেরণায়।

    সকল ক্যাডেটকে :salute: :salute:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  6. রকিব (০১-০৭)

    আমারে কেমনে ভুলে গেলেন 😕 :(( , ব্লগ না লিখলেও আমি ত নিয়মিত কমেন্টাই...
    আইচ্ছা খাড়ান, সাহিত্যিক হইয়া দেখাইতেছি যাতে নেক্সট পোষ্টে আমারে না ভুইলা যান B-)


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  7. এখানে আমার নিজের একটা কথা আছে।
    ক্যাডেটরা জাতির মস্তিষ্ক তথা বুদ্ধিজীবী মহলে অবশ্যই একদিন নিজেদের নাম আলোকিত করবে তা নিয়ে আমার কোন সন্দেহ নেই। এই মুহুর্তে কম বলে তা নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত হবার কিছু নেই।

    আমাদের ক্যাডেট কলেজ শিক্ষাব্যবস্থা মাত্র ক'দিন আগে পঞ্চাশ বছরে পা দিলো। অর্থাৎ অন্যান্য সনাতন শিক্ষাব্যবস্থার তুলনায় আমরা বেশ নতুন এবং এই অল্প সময়ে আমদের মধ্যে থেকে একেবারে কম গুনীজন বের হননি। জাতিকে নিজের চিন্তা ও কাজ দিয়ে সম্বৃদ্ব করে যাবেন, শিল্প-সাহিত্যে, এগিয়ে দিয়ে যাবেন এমন ক্যাডেটও আমাদের মধ্যে থেকে আসবে বলে আমার বিশ্বাস আছে।

    আমাদের মধ্যে এখনই যদি আতিয়ার রহমানের মতো অর্থিনীতিবিদ থাকে, শাহাদুজ্জামানের মতো কথা সাহিত্যিক থাকে, সানাউল্লাহ লাবলু, শওকত মাসুম, মোস্তফা মামুনের'র মতো সাংবাদিক থাকে, শাকুর মজিদের মতো নাট্য নির্মাতা থাকে, তৌকির আহমেদের মতো অভিনেতা থাকে, এনামুল করিম নির্ঝরের মতো চলচ্চিত্র নির্মাতা থাকে , ফয়সাল সিদ্দীকী বগি (রেনেসা) আর রাশেদ তপু'র (যাত্রী) মতো গায়ক থাকে তাহলে ভবিষ্যতে এমন আরো অনেকেই আসবেন যারা নানা ক্ষেত্রে এদেরকেও ছাড়িয়ে যাবেন।

    তখন আমরা গর্ব করে বলবো দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলন, মানবাধিকার-পরিবেশ রক্ষা, যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে লড়াই, সামাজিক আন্দোলনের নেতা, খ্যাতিমান গায়ক-শিল্পী কোন ক্ষেত্রেই ক্যাডেটরা পিছিয়ে নেই।

    সেই দিনের প্রত্যাশায় রইলাম আমিও। 😀

    লাবলু ভাইকে আবারো ধন্যবাদ সেদিন আডদায় আসার জন্য আর এই চমৎকার লেখাটির জন্য। :boss:

    জবাব দিন
    • সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)
      আমাদের মধ্যে এখনই যদি আতিয়ার রহমানের মতো অর্থিনীতিবিদ থাকে, শাহাদুজ্জামানের মতো কথা সাহিত্যিক থাকে, সানাউল্লাহ লাবলু, শওকত মাসুম, মোস্তফা মামুনের’র মতো সাংবাদিক থাকে, শাকুর মজিদের মতো নাট্য নির্মাতা থাকে, তৌকির আহমেদের মতো অভিনেতা থাকে, এনামুল করিম নির্ঝরের মতো চলচ্চিত্র নির্মাতা থাকে , ফয়সাল সিদ্দীকী বগি (রেনেসা) আর রাশেদ তপু’র (যাত্রী) মতো গায়ক থাকে তাহলে ভবিষ্যতে এমন আরো অনেকেই আসবেন যারা নানা ক্ষেত্রে এদেরকেও ছাড়িয়ে যাবেন।

      কামরুল,
      শাকুর মজিদের পাশে তোমার নামটাও দেখার অপেক্ষায় থাকলাম...


      "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
      আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

      জবাব দিন
        • সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

          কামরুল, সাকেব, ফয়েজ : ধন্যবাদ তোমাদের। আমি জানি সেই একদিন অবশ্যই আসবে।

          আমি অবশ্য বাঁশ ঝাড়ের একটা বাঁশের কথা বলছি না। আজকাল ছেলেপিলেরা ঝুঁকি নিতে চায় না। আমরা বাবা-মারাও সেটা উৎসাহিত করি না। ছেলে বড় হবে, মানুষ হবে- বলতে বোঝায় ছেলে অনেক টাকা কামাবে। লাইন ধরে ছেলেপিলেরা এমবিএ পড়ে। আরো ৫০টা বিশ্ববিদ্যালয় বানিয়ে এমবিএ কোর্স চালু করলেও শিক্ষার্থীর অভাব এদেশে হবে না! এখনকার অধিকাংশ ছেলেমেয়ে বই পড়ে না, পত্রিকা পড়ে না। আমি জানিনা বেশি নেতিবাচক হয়ে পরেছি কিনা। তোমরা সত্যটা বলতে পারবে।


          "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

          জবাব দিন
          • ফয়েজ (৮৭-৯৩)

            বস এক্কেরে হক কথা কইছেন। গত দুই বচ্ছর ধইরা চিটাগাং এ কই এমবিএ করলে ভাল হইব খুজতাছি। কিন্তু একটাও পড়ার মত বই পড়ি নাই। সেলিনা কইছে না "আমরা সমস্যা নই, কিন্তু আমরা সমধানের অংশও নই"

            আল্লায় ফিরিস্তা পাঠাইব সব কিছু ঠিক করনের লাইগ্যা এই আশায় বইসা বইসা ট্যাকার গন্ধ নিতেছি।


            পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

            জবাব দিন
          • লাবলু ভাইয়ের কথাটা সত্যি।
            এই এমবিএ ক্রেজ অবশ্য শুধু ক্যাডেটদের মধ্যে না, আমাদের জেনারেশনের সব ছেলেমেয়েদের মধ্যেই। তাদেরওবা দোষ দেই কিভাবে? আজকাল যে কোন কোম্পানি এমনকি কেরানীর পদে নিয়োগের জন্যও বিবিএ-এমবিএ চেয়ে বসে। আমরা পোলাপান কি করুম!! কোন রকম ইউনিভার্সিটিতে আসা যাওয়া করে আর মোটা অঙ্কের সেমিস্টার ফি দিয়ে একটা এমবিএ যদি আপনি করতে পারেন তবেই এই বাজারে টিকে থাকার সম্ভাবনা আছে, নইলে কেউ পুছবেও না।

            এই স্রোতের বাইরে গিয়ে একেবারে নিজের মতো করে চলার, নিজের মতো বাঁচার জন্য তাই এখন অনেক সাহসের দরকার। আশার কথা সে রকম সাহসীদের সঙ্খ্যা একটু একটু করে বাড়ছে। হয়তো আরো সময় লাগবে, কিন্তু একদিন তারাই এদেশের নেতৃত্ব দিবে।

            জবাব দিন
  8. কামরুল ভাই, আপনার সাথে একটু যোগ করি-
    ক্যাডেট কলেজ শিক্ষাব্যবস্থা মাত্র ক’দিন আগে পঞ্চাশ বছরে পা দিলেও এইচ এস সি'র পর এক ঝাঁক (৫০০+) ক্যাডেটের 'মেইন্সট্রিম' এ আসা শুরু হয়েছে আশির দশকের মাঝামাঝি...অর্থাৎ বড় সংখ্যার ক্যাডেট জেনারেশন যেটি প্রথম ছিল...তাদের বয়স কিন্তু টেনেটুনে চল্লিশ বা তার একটু বেশি...
    সুতরাং আমার মনে হয় দেশের প্রতি ক্যাডেটদের সেই রকম অবদান 'বলার মতন' বা 'চোখে পড়ার' পর্যায়ে যেতে আরও বছর ১০/১৫ অপেক্ষা করতে হবে...

    অফ টপিকঃ সানাউল্লাহ ভাই, আপনারা যারা আমাদের চেয়ে একটু বেশি সিনিয়র- তারা সিসিবির জন্য এবং আমাদের জন্য কত বড় ইন্সপিরেশন...তা বলে বোঝানো সম্ভব নয়...শুধু ব্লগিং এর কথাই যদি বলি- আমাদের মতন শিক্ষানবীশ ব্লগারদের জন্য আপনাদের ছোট্ট একটা কমেন্ট বা শুধুই একটা ইমো অথবা 'অন লাইনে আছেন'- এই স্ট্যাটাস্টাই...সামনে এগিয়ে যাবার প্রেরণা...
    এই রকম 'বড় ভাই' দের সংখ্যা যখন অনেক হবে তখন 'ছোট ভাই'রা কি আর 'কিছু' না করে থাকতে পারবে...!!!

    জবাব দিন
  9. রহমান (৯২-৯৮)
    সানাউল্লাহ ভাই, আপনারা যারা আমাদের চেয়ে একটু বেশি সিনিয়র- তারা সিসিবির জন্য এবং আমাদের জন্য কত বড় ইন্সপাইরেশন… তা বলে বোঝানো সম্ভব নয়…। শুধু ব্লগিং এর কথাই যদি বলি- আমাদের মতন শিক্ষানবীশ ব্লগারদের জন্য আপনাদের ছোট্ট একটা কমেন্ট বা শুধুই একটা ইমো অথবা ‘অন লাইনে আছেন’- এই স্ট্যাটাস টাই …সামনে এগিয়ে যাবার জন্য বিশাল প্রেরণা…। এই রকম ‘বড় ভাই’ দের সংখ্যা যখন অনেক হবে তখন ‘ছোট ভাই’রা কি আর ‘কিছু’ না করে থাকতে পারবে…!!!

    প্রচন্ডভাবে একমত পোষন করছি :thumbup: :thumbup: :thumbup:

    জবাব দিন
  10. সাইফ (৯৪-০০)

    লাবলু ভাই,
    প্রথমেই ধন্যবাদ আড্ডায় আসার জন্য,আর আজকের এই অতি চমৎকার আশাবাদি আর অনুপ্রেরণামুলক এই ব্লগটি লেখার জন্য।

    ভাইয়া,
    আমিওকিন্তু ব্লগে অনেকগুলি লেখা দিছি, কমেন্টও দিতাম নিয়মিত। ছুটিতে থাকর কারণে আগের মত ব্লগে আসতে পারছি না, আর তাছাড়া মাসরুফ এর মত just friends যারা আছে তাদের দিক্টাও ত একটু দেখতে হয়,সময় দিতে হয়, হা হা হা....।।।.।।...।।...
    লাবলু ভাই এর আগমন শুভেচ্ছা স্বাগতম. :salute:

    জবাব দিন
  11. রকিব (০১-০৭)

    ফয়সাল সিদ্দীকী বগি (রেনেসা) আর রাশেদ তপু’র (যাত্রী) পর আমরা হয়তো আরো একজন এক্স ক্যাডেটকে পেতে যাচ্ছি, ঝকক এর (২০০০-২০০৬) কলেজ সাংস্কৃতিক অধিনায়ক ছিলেন মিফতাহ ভাই। সম্প্রতি ফুয়াদ এর একটি অ্যালবামে উনাকে ফিচার করেছে ফুয়াদ। গানের লিংকটা নিচে দিচ্ছি এখানে


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  12. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)
    কবি-সাহিত্যিক-লেখক নেই (কিছু হয়তো আছে), চলচ্চিত্রকার, বিজ্ঞানী, দার্শনিক, সংগীত শিল্পী, পেইন্টার, অভিনেতা আছে কি?

    আচ্ছা এই সেক্টরগুলোতে যেসব এক্সক্যাডেট সুনামের সাথে কাজ করেছেন বা করছেন, বিখ্যাত হয়েছেন তাদের একটা তালিকা কি আমরা এখানে করতে পারি?
    তাহলে আমরা অনেকেই হয়তো উনাদের সাথে নতুন করে পরিচিত হতে পারবো।


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  13. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)
    আমি স্বপ্ন দেখি ক্যাডেট কলেজগুলো থেকে নিশ্চয়ই একদিন নেতা আসবে, কথায় বড় না হয়ে সে মানুষ বড় হবে।

    :salute: :salute: :salute:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  14. টিটো রহমান (৯৪-০০)

    ক্যাডেটদের সবচেয়ে বড় সুবিধা হর এরা গড়পরতা ভাল মানুষ হয়। তাই বখে যাওয়ার চান্স কম।
    আটর্ কালচার করতে গিয়ে আশপাশের অনেক মানুষকেই নষ্ট হতে দেখেছি তো তাই বললাম। তাই এসব লাইনেও ক্রমে তারা মূল ধারায় চলে আসবে


    আপনারে আমি খুঁজিয়া বেড়াই

    জবাব দিন
  15. আহ্সান (৮৮-৯৪)
    সানাউল্লাহ ভাই, আপনারা যারা আমাদের চেয়ে একটু বেশি সিনিয়র- তারা সিসিবির জন্য এবং আমাদের জন্য কত বড় ইন্সপিরেশন…তা বলে বোঝানো সম্ভব নয়…শুধু ব্লগিং এর কথাই যদি বলি- আমাদের মতন শিক্ষানবীশ ব্লগারদের জন্য আপনাদের ছোট্ট একটা কমেন্ট বা শুধুই একটা ইমো অথবা ‘অন লাইনে আছেন’- এই স্ট্যাটাস্টাই…সামনে এগিয়ে যাবার প্রেরণা…
    এই রকম ‘বড় ভাই’ দের সংখ্যা যখন অনেক হবে তখন ‘ছোট ভাই’রা কি আর ‘কিছু’ না করে থাকতে পারবে…!!!
    আড্ডায় আপনার ছবি দেখে যেটা মনে হয়েছিল তা হলো সিসিবি’র জন্য একটা নিরেট নির্ভরতা, মাথার উপর মেলে ধরা বিশাল ব্যাপ্তির একটা ছাতা।

    প্রচন্ডভাবে সহমত...

    ক্যাডেটরা নেতা হয়, মন্ত্রী হয়, সেনাপতি-সচিব-বহুজাতিকের সিইও হয়; দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলন, মানবাধিকার-পরিবেশ রক্ষা, যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে লড়াই, সামাজিক আন্দোলনের নেতা হয়না, খ্যাতিমান গায়ক-শিল্পী হতে চায় না!

    ছোটবেলায় স্বপ্ন দেখতাম, গানই হবে আমার জীবনের সবকিছু। বড় হয়ে শিল্পী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করবো...। কিন্তু কি করে যেন কি হয়ে গেল...। বাস্তবতার কষাঘাতে কোথায় যেন এসে পড়েছি...। আজো সেই স্বপ্নটি দেখতে ভালো লাগে...। হয়তো অসংলগ্ন কোন স্বপ্ন... কিন্তু তবুওতো নিজের জীবন থেকে নেয়া অতি প্রিয় একটা স্বপ্ন...

    লাবলু ভাই,
    পরিবর্তনের জোয়ার এসেছে। ইনশাল্লাহ আপনাদের দেখানো পথে ছোট ভাইরা এগিয়ে যাবে... পূরণ হবে আমাদের স্বপ্ন...

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।